নিবন্ধন : ডিএ নং- ৬৩২৯ || বুধবার , ২০শে মার্চ, ২০১৯ ইং , ৬ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ , ১২ই রজব, ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম

এশিয়ান প্যাসিফিক ইউয়ুথ এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রাম

বাংলাদেশের আদিবাসীদের প্রতিনিধিত্ব করবেন পাহাড়ের মেয়ে উসাই ম্যা

বাংলাদেশের আদিবাসীদের প্রতিনিধিত্ব করবেন পাহাড়ের মেয়ে উসাই ম্যা

বাটিং মারমা, বান্দরবান প্রতিনিধি: এশিয়ান প্যাসিফিক ইউয়ুথ এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রামের আমন্ত্রণে সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট গোল(এসডিজি)এর উপর দক্ষতা অর্জনের লক্ষে থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককে যাচ্ছেন বান্দরবানের রোয়াংছড়ির কৃতি সন্তান উসাই ম্যা । ১৪ দিন ব্যাপী ঐ কর্মশালায় বাংলাদেশের আদিবাসী জনগোষ্ঠীর পক্ষে প্রতিনিধিত্ব করবেন তিনি ।

২১ টি দেশের (আমেরিকা, বাংলাদেশ, কম্বোডিয়া, ব্রাজিল, চীন, হংকং, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, কোরিয়া, মঙ্গোলিয়া, মায়ানমার, নেপাল, পাপুয়া নিউ গিনি, পেরু, রুমানিয়া, সিঙ্গাপুর, তাইওয়ান, তাঞ্জানিয়া, থাইল্যান্ড, ফিলিপাইন,ভিয়েতনাম) ২৫০ জন প্রতিনিধি যোগ দিবেন এই কর্মশালায়।

উসাই ম্যা জানান, একজন আদিবাসী হয়ে আদিবাসী জনগোষ্ঠীর প্রতিনিধিত্ব করতে পেরে আমি খুব গর্ববোধ করি। এটি আমার জীবনে একটি বিরাত অর্জন। এটি আমার পরিশ্রমের ফল আমার গুরুদের আশীর্বাদ।

পারিবারিক সূত্রে জানা যাই, উসাই ম্যা ৯ই জানুয়ারি ব্যাংককের উদ্দেশ্য বাংলাদেশ ত্যাগ করবেন । ১০ থেকে ২১ই জানুয়ারি পর্যন্ত তিনি এসডিজি অর্জনের ১৭ টি টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যর মধ্যে এডুকেশন কোয়ালিটির উপর দক্ষতা অর্জন করবেন ব্যাংককের কর্মশালায় । এছাড়াও তিনি ২২ জানুয়ারি বাংলাদেশে ফিরবেন বলে জানানা তার স্বজনরা ।

উসাই ম্যা বান্দরবান রোয়াংছড়ি উপজেলার নতুন পাড়া এলাকার কৃতীছাত্রীও বর্তমানে চট্টগ্রাম এশিয়া ইউনিভার্সিটি ফর উমেন বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতির শেষ বর্ষের ছাত্রী ।এক ভাই এক বোনের মধ্যে বড় সন্তান তিনি । তারা পিতা রোয়াংছড়ি কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষন কর্মকর্তা অংসা জাই (আচিং)ও মাতা মা ম্যা ম্যা চিং রোয়াংছড়ি পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের স্বাস্থ্য সহকারী হিসেবে কর্মরত আছেন ।

উসাই ম্যার বাবা অংসা জাই(আচিং) জানান, আমার মেয়ের জন্য আমি গর্বিত । ওই কর্মশালায় পার্বত্য এলাকার আদিবাসীদের প্রতিনিধিত্ব করবেন আমার মেয়ে। আমি আমার মেয়ের জন্য সকলের কাছে দোয়া প্রর্থী।

Comments

comments

এমন আরো খবর:

Send this to a friend