সিংগাইরে পাকা সড়কে খানাখন্দ, ভাঙা সেতুতে জনদুর্ভোগ

0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

দীর্ঘদিন মেরামত ও পুনঃনির্মাণের অভাবে সিংগাইর উপজেলার ধল্লা ইউনিয়নের ভূমদক্ষিণ থেকে খাসেরচর সড়কটি ভেঙ্গে যেমন খানাখন্দ হয়েছে তেমনি নয়াপাড়া সেতুটির রেলিং ও দুই পাশের পাটাতন ভেঙে হয়েছে সরু পথ। ফলে এই ব্যস্ততম সড়কে চলাচলে জনসাধারনকে পোহাতে হচ্ছে ব্যাপক জনদুর্ভোগ। এই খানাখন্দ ভরা সড়ক ও ভাঙ্গা সেতু নিয়ে বিপাকে পড়েছে এলাকাবাসী।

সরেজমিন দেখা যায়, ভূমদক্ষিণ বাজার জামে মসজিদ থেকে নয়াপাড়া মডেল একাডেমি পর্যন্ত সড়কের পিচ ঢালাই উঠে খানাখন্দ তৈরী হয়েছে অনেক আগেই। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা খোয়া-বালি দিয়ে মেরামতের চেষ্টা করলেও ভারী বৃষ্টি ও যানবাহন চলাচলে সড়কের বেশির ভাগেই তৈরী হয়েছে বড় বড় গর্ত। গর্ত হওয়ায় ও পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা না থাকায় প্রায় সময়ই পানি থাকে সড়কটিতে। সড়কটির এমত বেহালদশায় যেতে চায় না মানুষবাহী যানবাহনগুলো। ফলে জনগণের ভোগান্তিরসীমা থাকে না।

নয়াপাড়া-কামুড়া হয়ে খাসেরচর বাজার পর্যন্ত এই সড়কটির প্রায় সবখানে একই দশা। পিচ ঢালাই উঠে গিয়ে বেরিয়ে গেছে খোয়া। কোথাও কোথাও আবার মাটিও দেখা যায়। অপরদিকে সড়কের যেমন বেহালদশা তেমনি সেতুরও হয়েছে তাই। রেলিং ভেঙে গেছে, সেতুটির পূর্ব পাশের দুই সাইডের পাটাতন ভেঙে সরু হয়ে গেছে। বড় কোন যানবাহন যেতে পারে না। ঝুঁকি নিয়ে চলে ছোট যানবাহন। স্থানীয়রা জানান, পূর্বে সেতুটিতে অনেক দুর্ঘটনা ঘটেছে। অটোরিক্সা পরে আহত হয়েছে অনেকে।

নয়াপাড়া গ্রামের স্থানীয় বাসিন্দা মোঃ আতাল হক ও রিক্সা চালক আব্দুর রাজ্জাক বলেন, এ সড়কে খানাখন্দ অনেকদিনের, সময়মতো কাজ না হওয়ায় সড়কে গর্ত হয়ে গেছে। সড়কে পানি থাকলে বুঝা যায় না কোথায় গর্ত আর কোথায় সমান। অনেক সময় গাড়ি উল্টে দুর্ঘটনা ঘটে। সড়কটি ও সেতুটিতে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটার আগেই মেরামতের আবেদন জানান তারা।

এব্যাপারে স্থানীয় ইউপি সদস্য সাইফুর রহমান জানান, পাকা সড়কের কাজ এলজিআরডি। সড়কের দু পাশের বাড়িঘর রাস্তা থেকে উচু হওয়ায় পানি বের হতে পারেনা। তাই পানি জমে রাস্তা ভেঙে গেছে। আমরা বালু-খোয়া দিয়ে অস্থায়ী মেরামত করেছিলাম। যেটার বিল এখোনো পায়নি। তবে সড়কের এ বেহালদশা সম্পর্কে ইউপি চেয়ারম্যানকে জানিয়েছি।

উপজেলা প্রকৌশলী মুহাম্মদ রুবাইয়াত জামান বলেন, সড়কটি সংস্কারের স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। আর নয়াপাড়া সেতু আমি পরিদর্শন করেছি। সেতুটি পুনঃনির্মাণের জন্য জেলা উর্ধতন কর্মকর্তাদের অবহিত করা হয়েছে।

0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

Comments

comments