নিবন্ধন : ডিএ নং- ৬৩২৯ || সোমবার , ১৯শে আগস্ট, ২০১৯ ইং , ৪ঠা ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৭ই জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম

ধর্ষণ ও এসিড হামলা মামলার আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

ধর্ষণ ও এসিড হামলা মামলার আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

মেহেরপুরের গাংনীতে ইয়াকুব আলী কাজল (২৩) নামে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ ও গৃহবধূকে এসিড নিক্ষেপ মামলার এক আসামি পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়েছে। শুক্রবার (১০ মে) দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার গাড়াডোব গ্রামের একটি বাঁশবাগানে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত কাজল গাড়াডোব গ্রামের জালাল উদ্দীন হাবুর ছেলে।

গাংনী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাজেদুল ইসলাম জানান, কাজলের নেতৃত্বে গাড়াডোব গ্রামের বেশ কয়েকজন যুবক বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত। তাদের কাছে রয়েছে বেশ কয়েকটি অস্ত্রও। শুক্রবার (১০ মে) কাজলকে গ্রেফতারের পর, তার স্বীকারোক্তি মোতাবেক অস্ত্র উদ্ধারে গাড়াডোব গ্রামে যায় পুলিশের একটি দল। এ সময় কাজলের দলের লোকজন পুলিশের ওপর গুলিবর্ষণ করে। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। গোলাগুলির সময় পুলিশের চার সদস্য আহত হন। ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ কাজলকে উদ্ধার করে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

গত বছরের ২০ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় গাড়াডোব গ্রামের এক স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করা হয়। ওই ঘটনায় কাজলসহ কয়েকজনের নাম উল্লেখ করে গাংনী থানায় মামলা করে ওই ছাত্রীর মা। মামলার প্রধান আসামি করা হয় ইয়াকুব হোসেন কাজলকে। ঘটনার পর থেকে আত্মগোপন করে ধলা গ্রামে এক আত্মীয়ের বাড়িতে থাকতে লাগে কাজল। সেখানে এক গৃবধূর দিকে কু-নজর পড়ে কাজলের। সে প্রেমের প্রস্তাব দিলে ওই গৃহবধূ তা প্রত্যখ্যান করেন। এর জেরে বৃহস্পতিবার (৯ মে) গৃহবধূর শরীরে এসিড নিক্ষেপ করে কাজল। ওই গৃহবধূ গাংনী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ওই ঘটনায় শুক্রবার (১০ মে) পুলিশ কাজলকে গ্রেফতার করলে, সে ধর্ষণ ও এসিড নিক্ষেপের কথা স্বীকার করে। পরে তাকে নিয়ে বাকি আসামিদের ধরতে অভিযানে গেলে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে।

Comments

comments

এমন আরো খবর:

Web developed by: AsadZone.Com

Send this to a friend