নিবন্ধন : ডিএ নং- ৬৩২৯ || সোমবার , ২৪শে জুন, ২০১৯ ইং , ১০ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ২০শে শাওয়াল, ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম

দর্শকের অভাবে বন্ধ চিতলমারীর বুলবুল সিনেমা হল

দর্শকের অভাবে বন্ধ চিতলমারীর বুলবুল সিনেমা হল

দর্শকের অভাবে বন্ধ হয়ে গিয়েছে চিতলমারীর এক সময়ের প্রধান বিনোদন কেন্দ্র বুলবুল সিনেমা হল। চলচ্চিত্রে রুচিশীল কাহিনী আর সিনেমা হলের কাঙ্খিত পরিবেশের অভাবেই দর্শক প্রিয়তা হারিয়েছে এমনই ধারণা সাধারণ মানুষের। এক সময় পরিবারের লোকজন সবাই মিলে বুলবুল সিনেমা (সাবেক মা-মনি) হলে সিনেমা দেখতে যেতো। কিন্তু এখন আর তা হয়না। এক সময় হলে ছিল দর্শকের উপচে পড়া ভিড়। কিন্তু বর্তমানে যে ছবিগুলো তৈরি করা হচ্ছে তার অধিকাংশগুলোতে একই অভিনেতা আর দূর্বল কাহিনী। এরফলে দর্শক হারিয়েছে নম্বই দশকে প্রতিষ্ঠিত চিতলমারীর বিনোদন প্রতিষ্ঠান ঐতিহ্যবাহী বুলবুল সিনেমা হল।

এক সময় বুলবুল সিনেমা হলটি ছিল খুবই জমজমাট। নতুন ছবি মুক্তি পেলেই হলের কাউন্টারে হুলস্থূল পড়ে যেতো। তখন সব বয়সী মানুষের আগ্রহ ছিল সিনেমার প্রতি। কিন্তু ধীরে ধীরে সে দৃশ্যগুলো হারিয়ে যাচ্ছিল। দর্শকের অভাবে এবং লোকসানে পড়ে মালিক ইঞ্জি: রফিকুল ইসলাম তাপস হলটি বন্ধ করে দিতে বাধ্য হন।

বুলবুল সিনেমা হলের ম্যানেজার মোঃ জামাল হোসেন বলেন, দীর্ঘদিন ১৮ বছর ধরে আমি এখানে ম্যানেজার হিসেবে আছি। বর্তমানে হলটি বন্ধ হওয়ায় পরিবার পরিজন নিয়ে খুবই কষ্টের ভিতর দিয়ে জীবন যাপন করছি। অন্য কোন কাজের অভিজ্ঞতা না থাকায় ভালো কোন কাজ পাচ্ছি না। ছেলে মেয়েদের লেখা পড়া খরচ জোগানে ভীষণ অসুবিধায় রয়েছি।

এক সময়ের সিনেমা পাগল এবং বর্তমান মেম্বার পরিমল হীরা জানান, সময় পেলেই পালিয়ে গিয়ে সিনেমা দেখতাম। এখন আমার বাসায় টিভি-ডিসের ব্যবস্থা রয়েছে। আমার হাতে রয়েছে দামী মোবাইল। তাতে ইচ্ছামত সিনেমাসহ নানা দেশি বিদেশি অনুষ্ঠান নিমেষেই দেখতে পারি। তাই সিনেমা হলে যেতে হয় না।

হলের বর্তমান মালিক ইঞ্জি: রফিকুল ইসলাম তাপস বলেন, এক সময় মধ্যবিত্ত শ্রেণির দর্শকের কলরবে মেতে থাকতো সিনেমা হলটি। এখন আর সেদিন নেই। মুক্ত আকাশ-সংস্কৃতির এ যুগে ঘরে বসে দেখা যায় নানা ধরনের ছবি। সিনেমা হলে এমন এক সময় ছিল টিকেট দেওয়া যেত না। একটি ছবি এক মাসও চালানো হত। মানুষের হাতে হাতে এখন এনড্রয়েড ফোন ও ইউটিউবের মাধ্যমে সব ছবি দেখা সম্ভব। তাই দর্শন আর হলে সিনেমা দেখতে আসে না।

Comments

comments

এমন আরো খবর:

Web developed by: AsadZone.Com
x

Send this to a friend