নিবন্ধন : ডিএ নং- ৬৩২৯ || বৃহস্পতিবার , ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৯শে মুহাররম, ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

বিল্ডিংয়ের পর এবার বিআরটিসি বাসে বাঁশ

বিল্ডিংয়ের পর এবার বিআরটিসি বাসে বাঁশ

রডের পরিবর্তে বাঁশ দিয়ে ভবন নির্মাণের ঘটনার পর এবার বরগুনা-খুলনা রুটে বিআরটিসি ডিপোর একটি বাসের সামনের অংশে কাচের পরিবর্তে বাঁশের বেড়া দেয়া হয়েছে। সামনে বাঁশের বেড়া নিয়ে এ রুট দিয়ে চলাচল করছে বিআরটিসির ওই বাস।

বিষয়টি নিয়ে যাত্রীদের মধ্যে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। কেউ কেউ এমন অবস্থার জন্য কর্তৃপক্ষের উদাসীনতাকে দায়ী করেছেন।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সোমবার খুলনা থেকে বিআরটিসি সার্ভিসের ওই বাসটি বরগুনায় আসার পথে সামনের গ্লাসটি ভেঙে পড়ে যায়। এ অবস্থায় বাসটি ঝুঁকি নিয়ে বরগুনায় চলে আসে। যাওয়ার পথে বাসের সামনের গ্লাসের জায়গায় বাঁশের ফালিতে পলিথিন দিয়ে বেড়ায় মুড়িয়ে বরগুনা থেকে খুলনার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। এ সময় যাত্রীদের অনেকে আপত্তি করলেও অগ্রাহ্য করে ওই অবস্থায় খুলনার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায় বাসটি।

বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে ওই বাসের যাত্রী সাগর কর্মকার বলেন, এদের কাছে মানুষের জীবনের কোনো মূল্য নেই। ঈদের মৌসুমে এমন একটি লক্কড়-ঝক্কড় বাস কীভাবে সড়কে চলাচল করতে পারে আমি বুঝি না। এজন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা দায়ী।

এ ব্যাপারে বরগুনা বিআরটিসি ডিপোর পরিচালক মো. নয়ন হোসেন বলেন, বাসটি সামনের গ্লাস ছাড়াই বরগুনা আসে। বরগুনায় গ্লাস লাগানোর কোনো ব্যবস্থা ছিল না। সে কারণে বিকল্প ব্যবস্থা হিসেবে এভাবে করেছি। এছাড়া অন্য কোনো উপায় ছিল না।

জানতে চাইলে সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ খুলনা অঞ্চলের কারিগরি ব্যবস্থাপক ওমর ফারুক মেহেদী বলেন, ওই বাসের ফিটনেস পরীক্ষা করেই সড়কে চলাচলের জন্য অনুমতি দেয়া হয়েছিল। কিন্তু হঠাৎ সামনের গ্লাসটি ভেঙে যাওয়ায় সমস্যার সৃষ্টি হয়। বাসটিতে নতুন গ্লাস লাগানো হয়েছে। এখন কোনো সমস্যা নেই।

প্রসঙ্গত, এর আগে সারাদেশে সরকারি ভবন তৈরিসহ বিভিন্ন ধরনের নির্মাণকাজে রডের পরিবর্তে বাঁশ ব্যবহারের ঘটনা একের পর এক ফাঁস হতে থাকায় পূর্তকাজের মান নিয়ে প্রশ্ন দেখা দেয়। ভবন ও স্থাপনাগুলোর স্থায়িত্ব নিয়ে তৈরি হয়েছে সংশয়। স্বয়ং রাষ্ট্রপতিও এ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে কটাক্ষমূলক মন্তব্য করেছেন।

Comments

comments

এমন আরো খবর:

Web developed by: AsadZone.Com

Send this to a friend