ভাঙা সেতু নিয়ে দুর্ভোগে ২৫ হাজার মানুষ

0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার সাথে ২২ গ্রামের যাতায়াতের উপায় একটি মাত্র সড়ক। সেই সড়কের একটি সেতু ৪ বছর আগে ভেঙে পড়ে। বিকল্প যাতায়াতের জন্য বাঁশের সাঁকো তৈরি করেছেন স্থানীয়রা। কিন্তু ২০ দিন আগে সেই সাঁকোও ভেঙে যাওয়ায় এখন ২৫ হাজার মানুষ পড়েছে চরম দুর্ভোগে।

উপজেলার বড়কান্দি ইউনিয়নের আলিবক্স মাদবরকান্দি গ্রামে যানবাহন চলাচলের সুবিধার্থে খালের ওপর একটি পাকা সেতু নির্মাণ করা হলেও বন্যার পানিতে তা ধসে যায়। পরে স্থানীয়রা একটি কাঠের সাঁকো নির্মাণ করেন, যেটি ২০১৬ সালে ভেঙে পড়ে। বাঁশ দিয়ে সংস্কার করে কোনমতে এতদিন চললেও, ২০ দিন আগে সেটিও ভেঙে যায়। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন ৩ ইউনিয়ন ও ২২ গ্রামের প্রায় ২৫ হাজার মানুষ।

পালেরচর, বড়কান্দি ও কুন্ডেরচর ইউনিয়নের একাংশ ও মুন্সীকান্দি, ফকিরকান্দিসহ ২২টি গ্রামের যাতায়াতের একমাত্র ব্রিজটি দ্রুত সময়ের মধ্যে পুন:নির্মাণের দাবি স্থানীয়দের।

এ অবস্থায় এলজিইডি প্রকৌশলী বিমলেন্দু সরকার বললেন, উপজেলা পরিষদের বার্ষিক উন্নয়ন তহবিল থেকে সাত লাখ টাকা ব্যয়ে কাঠের পোল নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে।

0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

Comments

comments