নিবন্ধন : ডিএ নং- ৬৩২৯ || বৃহস্পতিবার , ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৯শে মুহাররম, ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

বাংলাদেশের সামনে ৩১৫ রানের লক্ষ্য দিল ভারত

বাংলাদেশের সামনে ৩১৫ রানের লক্ষ্য দিল ভারত

রোহিত শর্মার রেকর্ড গড়া সেঞ্চুরি ও লোকেশ রাহুলের ৭৭ রানের ইনিংসে ভর করে ৩১৪ রানের সংগ্রহ পেয়েছে ভারত। তবে ভারতীয় ইনিংসের শুরুটা যেমন বিধ্বংসী হয়েছিল তাতে আরও বড় লক্ষ্যই হয়ত পেত বাংলাদেশ। কিন্তু বল হাতে দাপট দেখিয়ে কোহলিদের সেই লক্ষ্য দিতে দেননি মোস্তাফিজ-সাকিবরা। বিশ্বকাপে নিজের প্রথম ৫ উইকেট দখলের কীর্তি গড়েছেন ‘ফিজ’। আর তাতেই ভারতের শেষটা আশানুরূপ হয়নি।

মঙ্গলবার (২ জুলাই) এজবাস্টনে টসে জিতে ব্যাটিং বেছে নেন ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

ইনিংসের ৪.৪ ওভারে রোহিত শর্মাকে সাজঘরে ফেরানোর সুযোগ পেয়েছিলেন মোস্তাফিজুর রহমান। কিন্তু ক্যাচ ছেড়ে সেই সুযোগ নষ্ট করেন তামিম ইকবাল। সেই ভুলেরই মাশুল গুনতে হয়েছে বাংলাদেশকে। ব্যাট হাতে রীতিমত ঝড় তুলেছেন রোহিত। আরেক ওপেনার লোকেশ রাহুলও ফিফটি হাঁকিয়ে দারুণ সঙ্গ দিয়েছেন। দুজনের জুটিতে এসেছে ১৮০ রান।

সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে রোহিত নিজেকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন। এক বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ সেঞ্চুরির রেকর্ডে এখন তিনি যৌথভাবে শীর্ষে আছেন। ২০১৫ বিশ্বকাপে টানা ৪ সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে রেকর্ড গড়েছিলেন লঙ্কান কিংবদন্তি কুমার সাঙ্গাকারা। এছাড়া অস্ট্রেলিয়ার ডেভিড ওয়ার্নারকে (৫১৬) ছাড়িয়ে চলতি বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক এখন রোহিত (৫২১)।

দুর্দান্ত শুরুর পর পথ হারায় ভারত। শুরুটা করেছিলেন সৌম্য সরকার। সেঞ্চুরি হাঁকানো রোহিত শর্মাকে ফিরিয়ে দেন এই পার্ট-টাইম বোলার। এরপর ১৫ রান যোগ হতেই রুবেল হোসেনের বলে বিদায় নেন আরেক ভারতীয় ওপেনার লোকেশ রাহুল (৭৭)। মোস্তাফিজ জাদু তখনো বাকি।

‘কাটার মাস্টার’ মোস্তাফিজের ষষ্ঠ ওভারের দ্বিতীয় বলেই বিদায় নেন ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি। শর্ট বল পেয়েই হাঁকিয়ে বসেন কোহলি, কিন্তু বলটা ছিল কাটার। আর তাতেই মিড উইকেটে ক্যাচ তুলে দেন কোহলি (২৬)।

এক বল বিরতির পর মোস্তাফিজের গুড লেন্থের কাটারে পরাস্ত হন হার্দিক পান্ডিয়া। তার ব্যাটের কানায় লেগে বল স্লিপে থাকা সৌম্য সরকারের হাতে জমা হয়। ২৩৭ রানে চতুর্থ উইকেট হারায় ভারত।

২৩৭ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ফেলা ভারতকে বড় সংগ্রহের পথে নিয়ে যাচ্ছিলেন ভারতীয় মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান ঋষভ পান্ত। তবে তার ৪১ বলের ৪৮ রানের ঝড় থামিয়ে দিয়েছেন টাইগার অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। স্লগ সুইপ খেলতে চেয়েছিলেন পান্ত, কিন্তু স্কয়ারে থাকা মোসাদ্দেকের সহজ ক্যাচে পরিণত হন। পান্তের ইনিংসটি ৬ চার ও ১ ছক্কায় সাজানো।

চলতি বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো সুযোগ পাওয়া ভারতীয় ব্যাটসম্যান দীনেশ কার্তিক মাত্র ৮ রানেই মোস্তাফিজের তৃতীয় শিকারে পরিণত হন। তবে অপরা প্রান্তে ধোনি রানের চাকা সচল রাখেন। কিন্তু তাকে বড় শট খেলতে দেননি টাইগার বোলাররা। শেষে চাপে পড়েই ৩৩ বলে ৩৫ রানের মাঝারি এক ইনিংস খেলে তিনিও শিকার হন মোস্তাফিজের।

ধোনির বিদায়ের পর মোস্তাফিজের করা শেষ ওভারেই রান আউট হয়ে বিদায় নেন ভুবনেশ্বর কুমার। শেষ বলে মোহাম্মদ শামিকে বোল্ড করে বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো ৫ উইকেট নেওয়ার কীর্তি গড়েন মোস্তাফিজ। এর আগে আফগানদের বিপক্ষে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে এই কীর্তি গড়েছিলেন সাকিব।

Comments

comments

এমন আরো খবর:

Web developed by: AsadZone.Com

Send this to a friend