নিবন্ধন : ডিএ নং- ৬৩২৯ || শুক্রবার , ১৩ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৫ই রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

ঘরমুখো মানুষের যাত্রা এবার স্বস্তিদায়ক ছিল: সেতুমন্ত্রী

ঘরমুখো মানুষের যাত্রা এবার স্বস্তিদায়ক ছিল: সেতুমন্ত্রী

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘ঘরমুখো মানুষের যাত্রা এবার স্বস্তিদায়ক ছিল। তবে উত্তরবঙ্গের একটি সড়কে টাঙ্গাইল (এলেঙ্গা থেকে সিরাজগঞ্জ) রুটে জটিলতা তৈরি হয়েছিল। যে কারণে ওই অঞ্চলের মানুষ এবারের ঈদযাত্রায় দুর্ভোগে পড়েছিল। আমি এজন্য দুঃখ প্রকাশ করছি। ’

 

ঈদের ছুটি শেষে বুধবার (১৪ আগস্ট) প্রথম কর্মদিবসে সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।  এ সময় সড়ক-মহাসড়ক বিভাগের সচিব মো. নজরুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

 

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘ওই এলাকার (টাঙ্গাইল) মানুষের দুর্ভোগের কারণ, আট লেনে যাওয়া গাড়ি দুই লেনের ব্রিজ পার হতে গিয়ে জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে। আবার ফেরার পথে চার লেনের গাড়ি দুই লেনের ব্রিজে ওঠার কারণেও সমস্যার সৃষ্টি হয়। এই সমস্যা আমরা এড়াতে পারিনি। নলকাসহ মোট দুটি অপ্রশস্ত ব্রিজের কারণে এই সমস্যা হয়েছে। এই ব্রিজ দুটিকে প্রশস্ত করতে হবে। প্রকৌশলীরা কাজ করছেন। তবে ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-সিলেট ও ঢাকা-ময়মনসিংহ রোড স্বস্তিদায়ক ছিল। ’

 

ওবাদুল কাদের বলেন, ‘বিরূপ আবহাওয়ার কারণে এবার ফেরি চলাচল বিঘ্নিত হওয়ায় দক্ষিণাঞ্চলের কিছু যানবাহনও রাস্তায় আটকে ছিল। সেখানে দুর্ভোগ হয়েছে। দলের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে এই দায় এড়ানোর কোনও সুযোগ নেই। যে কারণে আমি সড়ক, নৌ ও রেলপথে দুর্ভোগ পোহানোর জন্য সবকিছুর দায় স্বীকার করলাম।’

 

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সড়ক পথে গত ৬ থেকে ১৩ আগস্ট পর্যন্ত দুর্ঘটনায় ৪৬টি প্রাণ ঝড়েছে। তবে এটি গতবারের চেয়ে কম। এই সময়ে প্রতিদিন যমুনা-বঙ্গবন্ধু সেতুতে ৩৬ হাজার যানবাহন পার হয়েছে। ঈদে আমরা এক হাজার ১৪৩টি বিআরটিসি বাস ছেড়েছি। মনিটরিং টিম ও ভিজিল্যান্স টিম তৎপর থাকায় অতিরিক্ত ভাড়াসহ সড়ক পথে নৈরাজ্য কম হয়েছে। বিভিন্ন অপরাধের সঙ্গে যুক্ত থাকায় ৩৭টি গাড়ির বিরুদ্ধে ৬৯টি মামলা হয়েছে। এ মামলা থেকে দুই লাখ ১৮ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।’

 

সবমিলিয়ে ঈদযাত্রা কেমন ছিল, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘মোটামুটি স্বস্তিদায়ক। তবে কিছু ভুল ছিল, সেই ভুল থেকে আমরা শিক্ষা নেবো। এলেঙ্গা থেকে রংপুর মহাসড়ক চার লেন না হওয়া পর্যন্ত এই দুর্ভোগ থাকবে। তবে ক্রমান্বয়ে এই দুর্ভোগ শেষ হবে। আমরা এর জন্য কাজ করছি। ’

Comments

comments

এমন আরো খবর:

Web developed by: AsadZone.Com

Send this to a friend