বিদ্যালয় মাঠে সড়ক শিক্ষার্থীদের দুর্ভোগ

0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

১৯৩৫ সালে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলার মোহাম্মদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপিত হয়। ২০১৯ সালে এই বিদ্যালয়ের মাঠ ভরাট করায় খুশি শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকরা। স্কুল আর এই মাঠে মাঝখানে এখন উপজেলার ৯ ও ১০ নং গর্ন্ধব্যপুর দুই ইউনিয়নের প্রধান সড়ক। আর এই সড়কের কারণে এখন খুশির চেয়ে ঝুঁকি বেশি শিক্ষার্থীদের।

 

মঙ্গলবার সরজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা নতুন মাঠে খেলাধুলা করছে। আবার কেউ ছুটাছুটি করছে। শিক্ষার্থীরা সড়ক পার হয়ে যাচ্ছে মাঠে। সড়কটিতে দৈনিক শতাধিক অটোচালিত সিএনজি, ট্রাক, মোটরসাইকেলসহ বিভিন্ন যানবাহন চলছে। বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা পাঁচ শতাধিক। শিক্ষক রয়েছেন ৮ জন। বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা জানান, আমরা নতুন মাঠ পেয়ে খুশি। সেখানে আমারা ক্রিকেট, ফুটবল, গোল্লাছুট খেলি। তবে সড়ক পার হয়ে মাঠে যেতে হয়। আমাদের সহপাঠীরা মাঝে মাঝে সিএনজির সঙ্গে ধাক্কা লেগে আহত হয়।

 

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু সাদেক ও সহকারী শিক্ষক কামাল হোসাইন বলেন, ৮৪ বছর পর মাঠ হয়েছে। মাঠ ভরাট হয়েছে এক মাস হল। এর মধ্যেই তিন শিক্ষার্থী সিএনজির সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে আহত হয়েছে। এখন মাঠের পশ্চিম পাশ দিয়ে সড়কটি নেয়া প্রয়োজন। তারপর বিদ্যালয়ের বাউন্ডারি দেয়াল হলে আমরা ঝুঁকি থেকে রক্ষা পাব।

 

বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি আবুল খায়ের মজুমদার বলেন, আমাদের শিক্ষার্থীদের জীবন এখন আরও হুমকির মুখে। মাঠের পশ্চিম পাশ দিয়ে সরকারি হালট রয়েছে। ওই পাশ দিয়ে সড়কটি পরিবর্তন করা দরকার। আমরা শিগগিরই সংশ্লিষ্টদের কাছে সড়কটি পরিবর্তন করতে আবেদন করব।

 

ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের বরাদ্দ দিয়ে মাঠ ভরাট করেছি। এখন সড়কটি পরিবর্তন করা দরকার। কিন্তু স্থানীয় কিছু সমস্যা দেখা দিয়েছে।

 

হাজীগঞ্জ উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা নাছরিন সুলতানা বলেন, বিদ্যালয়ে মাঠ হয়েছে। এখন একটি ভবনও প্রয়োজন। সড়কটি পরিবর্তন হলে নতুন ভবন করতে সুবিধা হবে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে বিষয়টি তুলে ধরে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

Comments

comments