0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

মাগুরার মহম্মদপুরে দিগন্ত জুড়ে সবুজের মাঝে হলুদ সরিষা ফুলের সমারোহ। মাঠে মাঠে সরিষা ফুলে ছেয়েগেছে কৃষকের স্বপ্ন। সরিষা চাষে সাফল্য পেতে চলেছে কৃষক। মৌ মাছির গুনগুন শব্দ চারিদিকে। সরিষা ফুলের মৌ-মৌ গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে আকাশে-বাতাসে। মৌমাছির গুনগুন শব্দ আর সরিষা ফুলের গন্ধে মাতোয়ারা উপজেলার  পরিবেশ। সরিষা ফুল থেকে মধু সংগ্রহে ব্যস্ত মৌমাছির দল। 

সরেজমিনে উপজেলার বাবুখালী, দীঘা, বিনোদপুর, নহাটা, রাজাপুর বালিদিয়া, পলাশবাড়িয়া ও সদর ইউনিয়ন সহ আটটি ইউনিয়নের মাঠ পুরিদর্শনে দেখা গেছে হলুদ ফুলে ফুলে ছেয়ে গেছে সরিষার গাছগুলো। মাঠ জুড়ে সরিষা ফুল। প্রতিটি মাঠেই সরিষা চাষ হয়েছে চোখে পড়ার মতো। এ বছর আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় সরিষার বাম্পার ফলন হবে বলে আশা করছেন স্থানীয় কৃষক ও উপজেলা কৃষি বিভাগ। আর অল্প কিছু দিনের মধ্যেই কৃষকের ঘরে উঠবে এ সরিষা।

উপজেলা কৃষি অফিস সুত্রে জানা যায়, অন্যান্য ফসলের চেয়ে সরিষা চাষে তুলনামূলক খরচ ও পরিশ্রমও কম হওয়ায় কৃষকেরা সরিষা চাষে আগ্রহী হয়ে পড়ছে। এবং তাদেরকে সার্বাক্ষিক সহযোগিতা ও পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। এ বছর সরিষা চাষের লক্ষমাত্রা ছিল ১১২০ হেক্টর জমিতে। কিন্তু চাষ হয়েছে ১১৩০ হেক্টর জমিতে। যা গতবারের থেকে বেশী। গত বছর সরিষা চাষ হয়েছিল ৬০০ হেক্টর জমিতে।

আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় এ বছর রবি শস্যের বাম্পার ফলন হবে বলে আশা করছেন কৃষি বিভাগ ও স্থানীয় কৃষকরা। তবে রবি শস্যের পরিবর্তে পিয়াজ ও বোরো ধানের আবাদ বৃদ্ধি পাচ্ছে। পিয়াজ ও বোরো ধান রোপনের কার্যক্রম এখনো চলমান রয়েছে।

উপজেলা সদর ধোয়াইল গ্রামের কৃষক জামাল হোসেন পান্নু সহ আরো কয়েকজন কৃষক জানান, সরিষা ও মশুর চাষে খরচ কম ও পরিশ্রমও কম হয়। তাই বেশী লাভবান হওয়ার আশায় আমরা সরিষা চাষ করছি। কৃষি অফিসার সহ মাঠ সুপারভাইজার নিয়মিত মাঠ পরিদর্শন করেন এবং আমাদের সু-পরামর্শ দেন। আগামীতে আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে সরিষা চাষে বেশী লাভবান হওয়ার আশা রয়েছে।

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মোঃ আব্দুস সোবাহান জানান, সরিষা চাষের জন্য উঠান বৈঠক ও উপজেলা পর্যায়ে প্রশিক্ষনের মাধ্যমে কৃষকদেরকে ব্যাপক সচেতন করা হয়েছে। বোরো ধান, পিয়াজ এবং সরিষা চাষের পদ্ধতি ও পোকার আক্রমনে করণীয় কি সে বিষয়ে অবহিত করা হয়েছে। তবে আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় এ বছর সরিষার বাম্পার ফলন হতে পারে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

Comments

comments