শিবালয় প্রাণিসম্পদ দপ্তরের ৭০ সেট পিপিই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হস্তান্তর

0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করতে যাচ্ছে। বর্তমানে চিকিৎসকদের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন সবাই। পার্সোনাল প্রোটেকশন ইকুইপমেন্ট (পিপিই) না থাকায় অনেকটা ঝুঁকি নিয়েই সেবা দিয়ে যাচ্ছেন তারা। এরই মধ্যে শিবালয় উপজেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তর থাকা ৭০ সেট পিপিই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হস্তান্তর করা হয়েছে। এর ফলে অনেকটাই স্বস্তি ফিরেছে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত চিকিৎসক ও নার্সদের মাঝে।  

শিবালয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ এফ এম ফিরোজ মাহমুদ তার ফেসবুকে লিখেছেন, আজ শিবালয় উপজেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তর হতে প্রদত্ত মোট ৭০ সেট পিপিই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হস্তান্তর করা হয়। আসুন আমরা সকলে সম্মিলিত প্রচেষ্টায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ করি।

সোমবার (২৩ মার্চ) মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এমপি’র তাৎক্ষণিক নির্দেশে মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের ৮টি বিভাগীয় দপ্তরের আওতায় জেলা ও উপজেলা দপ্তরসমূহ দেশব্যাপী এই পিপিই বিতরণ কাজ শুরু করে।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশে বার্ড ফ্লু ছড়িয়ে পড়লে প্রাণিসম্পদ কার্যালয়ে ইউএসএইড থেকে পিপিই দেওয়া হয়েছিল। সেগুলোই এখন ব্যবহার করা সম্ভব। দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় প্রাণিসম্পদ দপ্তরসমূহে পূর্বে মজুদকৃত ও অব্যবহৃত পিপিই দেশের সংকটকালীন করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে চিকিৎসা কাজে বিতরণ করা হয়েছে।

0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

Comments

comments