আজঃ শনিবার ১৩ এপ্রিল ২০২৪
শিরোনাম

১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে বন্ধ থাকবে পোস্তাগোলা ব্রিজ

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

সংস্কার কাজের জন্য পোস্তগোলা ব্রিজে যান চলাচল আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি-২৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ভেঙে ভেঙে ৫ দিন বন্ধ থাকবে। আজ রোববার সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী আজকের পত্রিকাকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী বলেন, ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে ২৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ব্রিজের সংস্কার কাজ চলবে। এর মধ্যে ৫ দিন বন্ধ রাখা হবে। তবে এটি টানা বন্ধ নয়। যেদিন কাজ হবে সেদিন।

তিনি বলেন, ব্রিজের নিচে পিলারে লঞ্চের ধাক্কায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়। সেটিই ঠিক করা হচ্ছে। বন্ধ রাখা হবে কারণ কাজের সময় যানবাহন চলাচল করলে নিচে রেট্রোফিটিং করতে সমস্যা হবে। আমরা বিষয়টি বিজ্ঞপ্তি আকারে জানিয়ে দেব।

ডিএমপি জানিয়েছে, ব্রিজ বন্ধ থাকার সময় সব যানবাহনকে ডাইভারশন করা হবে।

ডিএমপি থেকে বলা হয়, একই দিকে গেন্ডারিয়া রেলস্টেশন সংলগ্ন জুরাইন ক্রসিং গেটে পদ্মা সেতুর রেলের কাজ চলমান (গেট: ই/৬) রয়েছে।

ডিএমপির পক্ষ থেকে পদ্মা সেতুর রেল সংযোগ প্রকল্পের পরিচালককে কাজ দ্রুত সম্পাদন অথবা শুরুর ব্যাপারে পুনঃ বিবেচনার জন্য চিঠি দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ২৯ জুন বুড়িগঙ্গা নদীর সদরঘাট এলাকায় ময়ূর-২ লঞ্চের ধাক্কায় ডুবে যাওয়া লঞ্চ মর্নিং বার্ডকে উদ্ধার করতে আসে উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয়। কিন্তু জাহাজটি পোস্তগোলা সেতু পার হওয়ার সময় সেতুতে ধাক্কা দেয় ও আটকে যায়। উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয়ের ধাক্কায় পোস্তগোলা ব্রিজের নিচের পাটাতন বিম ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এরপর থেকে কয়েক দফা সংস্কার করে সেতুতে যানবাহন চলাচল করতে দেওয়া হচ্ছে।


আরও খবর



চার বছরে মাধ্যমিকে শিক্ষার্থী কমেছে ১০ লাখ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৮ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ মার্চ ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

গত চার বছরে মাধ্যমিক স্তরে ১০ লাখের বেশি শিক্ষার্থী কমেছে। করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরুর আগের বছর ২০১৯ সালে দেশে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে মোট শিক্ষার্থী ছিল ৯২ লাখ ৩ হাজার ৪২৭ জন। ২০২৩ সালে সংখ্যাটা দাঁড়িয়েছে ৮১ লাখ ৬৬ হাজার ১৮৮ জনে। অর্থাৎ এই চার বছরে শিক্ষার্থীর সংখ্যা কমেছে ১০ লাখের বেশি। শিক্ষার্থী কমার এই সংখ্যা আশঙ্কাজনক বলে দাবি করছেন সংশ্লিষ্টরা।

বৃহস্পতিবার (২৮ মার্চ) এ তথ্য প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ শিক্ষা তথ্য ও পরিসংখ্যান ব্যুরো (ব্যানবেইস)। সংস্থাটি শিক্ষার্থী কমার সুনির্দিষ্ট কোনো কারণ উল্লেখ করেনি।

ব্যানবেইস বলছে, সারা দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে তথ্য সংগ্রহ করে তা উপস্থাপন করা হয়েছে। এখানে ব্যানবেইসের নিজস্ব কোনো পর্যালোচনা নেই। এই তথ্য নিয়ে সরকারের নীতি নির্ধারক ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও দপ্তর কাজ করতে পারে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব সোলেমান খান বলেন, মাধ্যমিকে শিক্ষার্থী কমে যাওয়ার কারণ সবাই জানে। করোনা প্রতিঘাতের কারণে অনেক প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যায়। এ কারণে শিক্ষার্থীদের অনেকে কর্মজীবনে প্রবেশ করে। তাদের ক্লাস রুমে ফিরিয়ে আনার জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয় কাজ করছে।

ব্যানবেইসের তথ্য বলছে, মাধ্যমিকে কমে যাওয়া শিক্ষার্থীর মধ্যে ৫৫ শতাংশই ছাত্রী। এই শিক্ষার্থীরা দেশের ১৮ হাজার ৯৬৮টি বিদ্যালয়ে পড়ত।

মাধ্যমিক স্কুলে শিক্ষার্থী কমলেও কলেজ পর্যায়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১ লাখ ৮০ হাজারের মতো বেড়েছে। একই সময়ে মাদ্রাসায় প্রায় ৫০ হাজার শিক্ষার্থী বেড়েছে। একইভাবে কারিগরি ও ইংরেজি মাধ্যমেও শিক্ষার্থী বেড়েছে।

ব্যানবেইসের প্রতিবেদনে বলা হয়, চার বছরের ব্যবধানে সরকারের অধীনে থাকা মাদ্রাসাগুলোতে (দাখিল ও আলিম ধারার মাদ্রাসা) আড়াই লাখের বেশি শিক্ষার্থী বেড়েছে। বর্তমানে মাদ্রাসাগুলোতে শিক্ষার্থী ২৭ লাখ ৫৮ হাজারের বেশি। এর মধ্যে ছাত্রী প্রায় ৫৪ শতাংশ।

সরকার কারিগরি শিক্ষায় গুরুত্ব দিচ্ছে। এর ফলে কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সংখ্যা দিনে দিনে বাড়ছে। বর্তমানে ৫ হাজার ৩৯৫টি (এর মধ্যে ৫৮৮টি সরকারি) কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মোট শিক্ষার্থী প্রায় সাড়ে ৭ লাখ। চার বছর আগে যা ছিল ৭ লাখের মতো। ওই সময় কারিগরি প্রতিষ্ঠান ছিল ২ হাজার ৩০৯টি। প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিকে ছাত্রছাত্রীর সংখ্যায় সমতা এলেও কারিগরিতে ছাত্রীদের হার এখনো অনেক কম। কারিগরিতে যত শিক্ষার্থী পড়ে, তার মধ্যে ২৯ শতাংশের মতো ছাত্রী।

ব্যানবেইসের খসড়া প্রতিবেদন অনুযায়ী, বর্তমানে ১২৩টি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে পড়াশোনা করছে ২৮ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী; যা চার বছর আগে ছিল ২৬ হাজারের বেশি।


আরও খবর
১১ মের মধ্যেই এসএসসির ফল প্রকাশ

শুক্রবার ০৫ এপ্রিল ২০২৪




জুনের মধ্যে ১০ হাজার প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ হবে: প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৯ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৯ মার্চ ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
রবিউল বাশার খান, কুমিল্লা

Image

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী রুমানা আলী বলেছেন, আগামী জুন মাসের মধ্যে ১০ হাজার প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ সম্পন্ন হবে। পর্যায়ক্রমে স্বচ্ছ প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে উত্তীর্ণরা শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ পাবেন।

আজ শুক্রবার সকালে তৃতীয় ধাপে ঢাকা ও চট্টগ্রাম বিভাগের প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ কেন্দ্র পরিদর্শনে এসে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, কোনো আবেদনকারী যেন প্রতারণার শিকার না হয় সেজন্য মন্ত্রণালয় সর্বোচ্চ সতর্ক আছে। পরীক্ষার্থীরা সবাই সুশৃঙ্খল পরিবেশেই পরীক্ষা দিচ্ছেন।

এসময় প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে কুমিল্লা জেলা প্রশাসক খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমান ও পুলিশ সুপার আব্দুল মান্নানসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার তৃতীয় ধাপে কুমিল্লা জেলায় ৩২ হাজার ১৯৯ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে। এর মধ্যে নারী ১৪ হাজার ৭৬৭ জন এবং পুরুষ ১৭ হাজার ৪৩২ জন।


আরও খবর
১১ মের মধ্যেই এসএসসির ফল প্রকাশ

শুক্রবার ০৫ এপ্রিল ২০২৪




হারের খুব কাছে থেকে দিন শেষ করল বাংলাদেশ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ এপ্রিল 2০২4 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০২ এপ্রিল 2০২4 | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

শ্রীলংকার বিপক্ষে দুই ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের চতুর্থ দিন শেষে হারের খুব কাছে থেকে মাঠ ছেড়েছে বাংলাদেশ। লংকানদের দেওয়া ৫১১ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৭ উইকেট হারিয়ে ২৬৮ রান করেছে স্বাগতিকরা। জিততে হলে বাংলাদেশের এখনও ২৪৩ রান করতে হবে। শ্রীলংকার চাই ৩ উইকেট।

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৫১ রানের মধ্যে দুই ওপেনারকে হারিয়েছে স্বাগতিকরা। দলীয় দশম ওভারে ২৪ রান করা মাহমুদুল হাসান জয় বোল্ড হন প্রবাথ জয়সুরিয়ার বলে। বিশ্ব ফার্নান্ডোর বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন জাকির হাসান (১৯)। এরপর লাহিরু কুমারা বলে বোল্ড হয়ে মাঠ ছাড়েন অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত (২০)।

মুমিনুল হক হাফসেঞ্চুরি করে আর টিকতে পারেননি। ৫৬ বলে ৮টি চার ও একটি ছক্কায় দ্রুত ৫০ করে প্রবাথ জয়সুরিয়ার বলে মাঠ ছাড়েন তিনি। এরপর সাকিব আল হাসান ও লিটন দাস জুটি গড়ার চেষ্টা করেন। তারা পঞ্চম উইকেটে ৯৯ বলে ৬১ রান তোলেন।

তবে কামিন্দু মেন্ডিসের বলে ব্যক্তিগত ৩৬ রানে স্লিপে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন সাকিব। এরপর লিটনও বেশিক্ষণ ক্রিজে থাকতে পারেননি। কুমারার দ্বিতীয় শিকার হয়ে ৭২ বলে ৩৮ করে মাঠ ছাড়েন তিনি। তরুণ শাহাদাত হোসেন ১৫ রান করে কামিন্দুরি বলে আউট হন।

মেহেদী হাসান মিরাজ ৪৯ বলে ৭টি চারে ৪৪ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন। তাইজুল ইসলাম ১০ রানে অপরাজিত আছেন।

শ্রীলংকার বোলারদের মধ্যে দুটি করে উইকেট পেয়েছেন লাহিরু কুমারা, জয়সুরিয়া ও মেন্ডিস।

এর আগে শ্রীলংকা ৭ উইকেট হারিয়ে ১৫৭ রানে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে। তাতে জিততে হলে বাংলাদেশকে ৫১১ রান করতে হবে।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ফিফটি করা অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউসকে দিনের শুরুতে বোল্ড করেন সাকিব আল হাসান। ম্যাথিউস ৭৪ বলে ৫টি চারে ৫৬ রান করেছেন।

এর আগে প্রথম ইনিংসে ৩৫৩ রানে এগিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিং করতে নেমে ৬ উইকেট হারিয়ে ১০২ রান তুলে তৃতীয় দিন শেষ করেছিল শ্রীলংকা। তাতে গতকালই লংকানদের লিড দাঁড়িয়েছিল ৪৫৫ রান।

সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টেও ব্যাটিংয়ে নিজেদের হতশ্রী অবস্থা দেখিয়েছেন বাংলাদেশের ব্যাটাররা। প্রথম ইনিংসে শ্রীলংকার করা ৫৩১ রানের জবাবে মাত্র ১৭৮ রানে হয়েছে অলআউট।


আরও খবর



নকলা ইউএনও'র বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থার সুপারিশ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ এপ্রিল 2০২4 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০২ এপ্রিল 2০২4 | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

তথ্য অধিকার আইন ২০০৯ অনুযায়ী তথ্য সরবারাহের সহযোগিতা না করে তথ্য অধিকার আইনের প্রয়োগকে বাধাগ্রস্ত করায় শেরপুর জেলার নকলা উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) সাদিয়া উম্মুল বানিন-এর বিরুদ্ধে বিভাগীয় শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করেছে তথ্য কমিশন।

এই সিদ্ধান্ত তথ্য কমিশন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে সুপারিশ করা হয়। সুপারিশ বাস্তবায়নের দায়িত্ব জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের।

এর আগে, তথ্য চাইতে গিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতে কারাদণ্ড পাওয়া দেশ রূপান্তরের শেরপুরের নকলা উপজেলা সংবাদদাতা শফিউজ্জামান রানাকে অসহযোগিতার অভিযোগের বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে তথ্য কমিশনের তলবে আজ মঙ্গলবার সকালে হাজির হন নকলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাদিয়া উম্মুল বানিন।

আজ সকাল সোয়া ১০টায় তিনি তথ্য কমিশনের কার্যালয়ে হাজির হন। বেলা ১১টায় রাজধানীর আগারগাঁওয়ে তথ্য কমিশনের কার্যালয়ে ব্যাখ্যা দেন তিনি। ব্যাখ্যা দেওয়া শেষে বেলা পৌনে ১টার সময় বেরিয়ে আসেন তিনি। এ সময় সাংবাদিকরা তার সঙ্গে কথা বলতে চাইলে তিনি এড়িয়ে যান এবং তার হাতে থাকা ফাইল দিয়ে মুখ আড়াল করে দ্রুত হেঁটে বাইরে অপেক্ষারত সিএনজিতে গিয়ে ওঠেন।

সিএনজিতে উঠে ইউএনও বানিন সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, যা বলার আমি তথ্য কমিশনকে বলেছি। আমি কোনো ক্ষমতার অপব্যবহার করিনি। তিনি (রানা) অপরাধ করেছিলেন বলে তাকে শাস্তি দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও ফাইল ধরে টানাটানি ও একজন নারীকে উত্ত্যক্ত করেছিলেন তিনি।

এসময় সাংবাদিকরা প্রশ্ন করেন, সন্তান সাথে থাকা অবস্থায় অন্য কোনো নারীর সঙ্গে অসম্মানজনক আচরণ করা যায় কি-না। এমন প্রশ্নের উত্তরে চুপ হয়ে যান ইউএনও সাদিয়া উম্মুল বানিন।


আরও খবর



নোয়াখালীতে এমপি কিরনের বিরুদ্ধে মন্দির কমিটির মামলা

প্রকাশিত:বুধবার ২০ মার্চ ২০24 | হালনাগাদ:বুধবার ২০ মার্চ ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
নোয়াখালী প্রতিনিধি

Image

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী শ্রী শ্রী রাধা মাধব জিউর আখড়া (চৌমুহনী দেবালয়) পরিচালনা কমিটির অনুমোদন দেয়ায় নোয়াখালী-৩ (বেগমগঞ্জ) সংসদ সদস্য মামুনুর রশিদ কিরনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) বেগমগঞ্জ সিনিয়র জজ আদালতে মন্দিরের পক্ষে তপন চন্দ্র মজুমদার ও গণেশ চন্দ্র কুরী এ মামলা করেন। পরে মঙ্গলবার ও বুধবার দুই দফায় মামলার শুনানি শেষে আদালত আদেশের জন্য রেখেছেন বলে জানান বাদী পক্ষের আইনজীবী মজিবুল হায়দার চৌধুরী।

মামলার বাদী তপন চন্দ্র মজুমদার জানান, চৌমুহনী শ্রী শ্রী রাধা মাধব জিউর আখড়া তথা চৌমুহনী দেবালয় এর নিজস্ব গঠনতন্ত্র রয়েছে। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী যুগ যুগ ধরে মন্দির পরিচালায় কমিটি হয়েছে। হিন্দু কমিউনিটির লোকজন মূলত এ কমিটি নির্বাচন করেন। তারই ধারাবাহিকতায় মন্দির পরিচালনায় ২০২২ সালের ১৪ মে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট মন্দির পরিচালনা কমিটি গঠন করা হয়। ওই কমিটি ৪ বছর অর্থাৎ ২০২৬ সালের ১৪ মে পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করার কথা। সে অনুযায়ী প্রায় দুই বছরের কাছাকাছি মন্দির পরিচালনাও করে আসছে। কিন্তু হঠাৎ করে মন্দিরের গঠনতন্ত্র বহির্ভূতভাবে নোয়াখালী-৩ (বেগমগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য মামুনুর রশিদ কিরন নতুন করে কমিটি গঠনের জন্য ১৪ মার্চ স্বাক্ষরিত তার নিজস্ব প্যাডে ৫ জনের নাম উল্লেখ করে তাদেরকে দায়িত্ব দেয়। দায়িত্বপ্রাপ্ত ওই ৫জন মাত্র এক দিনের মাথায় ১৫ মার্চ একটি ৫১জন বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করে তা এমপি মামুনুর রশিদ কিরনের সামনে উপস্থাপন করলে তিনি ১৬ মার্চ নিজে স্বাক্ষর দিয়ে ওই কমিটির অনুমোদন দেন। যা মন্দিরের গঠনতন্ত্রের বহির্ভূত।

মামলার অপর বাদী গণেশ চন্দ্র কুরী বলেন, সংসদ সদস্য মন্দির কমিটি গঠন বা গঠনের লক্ষ্যে তার নিজ প্যাডে স্বাক্ষর দিয়ে কাউকে কোনো দায়িত্ব দিতে পারেন না। শতবর্ষী এ মন্দিরে এর আগে এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি। বর্তমানে যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে মন্দির কমিটি নিয়ে তা হিন্দু কমিউনিটির জন্য কোনোভাবেই মঙ্গলজনক নয়। এতে করে মারামারির অবস্থাও তৈরি হতে পারে। যার কারণে বাধ্য হয়ে তারা আদালতের দ্বারস্ত হয়েছেন।

হিন্দু ধর্মালম্বী একাধিক ব্যক্তি জানান, মন্দির পরিচালনা কমিটির কয়েকজন নেতা সদ্য শেষ হওয়া জাতীয় নির্বাচনে মামুনুর রশিদ কিরনের প্রতিপক্ষ ট্রাক প্রতীকের প্রার্থী মিনহাজ আহমেদ জাবেদের পক্ষে নির্বাচন করায় ক্ষোভ থেকে তিনি এমন ঘটনা ঘটিয়েছে, যা কোনোভাবেই কাম্য নয়।

এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে সংসদ সদস্য মামুনুর রশিদ কিরনের মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি তা রিসিভ করেননি।


আরও খবর