আজঃ মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

নেদারল্যান্ডসে দেড় হাজারের বেশি জলবায়ু কর্মী আটক

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ মে ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করায় নেদারল্যান্ডসে দেড় হাজারেরও বেশি জলবায়ু কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। এক্সটিঙ্কশন রেবেলিওন আয়োজিত এই বিক্ষোভে জলবায়ু কর্মীরা জীবাশ্ম জ্বালানিতে ভর্তুকি বন্ধের দাবি জানান। তারা হেগের মহাসড়কে এই বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করছিলেন।

ভিড় বাড়তে থাকলে পুলিশ বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করার জন্য জলকামান ব্যবহার করে। যদিও অনেকে রেইনকোট এবং সাঁতারের পোশাক পরে আগে প্রস্তুত ছিলেন।

আরও পড়ুন: সৌদি পৌঁছেছেন ২৪ হাজার হজযাত্রী

এদিকে পুলিশ জানিয়েছে, আটক বিক্ষোভকারীদের বেশিরভাগকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। কমপক্ষে ৪০ জনকে বিচারের আওতায় আনা হবে।

শনিবারের ওই বিক্ষোভে বেশ কয়েকজন ডাচ তারকা ছিলেন। এতে অংশ নিয়েছিলেন অভিনেত্রী ক্যারিস ভ্যান হাউটেনও, যিনি কি না টিভি সিরিজ গেম অব থ্রোনসে মেলিসান্দ্রে চরিত্রের জন্য পরিচিত।

আরও পড়ুন: স্বর্ণপাম জিতলেন ফ্রান্সের নির্মাতা জাস্টিন ত্রিয়েত

ডাচ সংবাদ সংস্থা এএনপি জানিয়েছে, ঘটনাস্থল থেকে তাকে আটক করা হলেও পরে ছেড়ে দেওয়া হয়। এদিকে এক্সটিঙ্কশন রেবেলিওন অভিযোগ তুলেছে, পুলিশ এক হাজার ৫৭৯ কর্মীকে আটক করেছে।

ডাচ প্রসিকিউশন সার্ভিস বলেছে, আটকদের বেশিরভাগের নামে মামলা হবে না। কারণ এটি একটি ছোট অপরাধ। তাদের আটকের মূল উদ্দেশ্য ছিল বিক্ষোভ শেষ করা।


আরও খবর
আজ নেলসন ম্যান্ডেলার জন্মদিন!

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




টস জিতে ব্যাটিংয়ে ভারত

প্রকাশিত:শনিবার ২৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৯ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

বার্বাডোসের কেনসিংটন ওভালের আজকের পিচটি বেশ শুষ্ক। বিশেষজ্ঞরাও বলছেন, পিচ বেশ ব্যাটিং উপযোগী। তাছাড়া এবারের টুর্নামেন্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজে আগে ব্যাটিং করে জয়ের হারই বেশি। তাই টসে জিতে সিদ্ধান্ত নিতে কোনো দ্বিধায় না পড়েই ব্যাটিং বেছে নিলেন রোহিত শর্মা। ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালের এই ম্যাচটি শুরু বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে আটটায়।

ক্রিকেটে এতদিন চোকার্স তকমা জুটেছে দক্ষিণ আফ্রিকার কপালে। দ্বিপক্ষীয় সিরিজে ভালো করলেও আইসিসি টুর্নামেন্টে দলটি সাফল্যের জন্য হাপিত্যেশ করে। ওয়ানডে ক্রিকেটে অনেকবার সেমিফাইনাল খেললেও একটিকেও ফাইনাল পর্যন্ত নিতে পারেনি তারা। এতদিন টি-টোয়েন্টিতেও একই অবস্থা ছিল দলটির। তবে এবার এইডেন মার্করামের নেতৃত্বে ঘুরে দাঁড়িয়েছে দলটি। প্রথমবারের মতো আইসিসিরি কোনো টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠেছে তারা।

অন্যদিকে, দীর্ঘদিন আইসিসির কোনো ট্রফি জিততে পারছে না ভারত। বিশ্বকাপ হলে যোগ হবে আরও ২ বছর। সবশেষ ২০১১ সালে ওয়ানডে বিশ্বকাপ জিতেছিল দলটি। এরপর ২০১৩ সালে জিতেছে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি। এরপর ১১ বছরে তিনটি ফাইনাল খেললেও আর শিরোপার মুখ দেখা হয়নি। তাই শিরোপা জিততে মরিয়া ২০০৭ সালের উদ্বোধনী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ীরাও।

টি-টোয়েন্টিতে এর আগে ২৬ ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকা। এর মধ্যে জয়ের দিক দিয়ে কিছুটা এগিয়ে ভারত। মেন ইন ব্লুদের ১৪ জয়ের বিপরীতে প্রোটিয়ারা জয় পেয়েছে ১১ ম্যাচে। একটি ম্যাচে কোনো ফল আসেনি।


আরও খবর



অ্যালকোহল পানে প্রতিবছর প্রাণ হারান ২৬ লাখ মানুষ: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

প্রকাশিত:বুধবার ২৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৬ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
স্বাস্থ্য ডেস্ক

Image

বিশ্বে অ্যালকোহল পানের কারণে প্রতিবছর ২৬ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়। যদিও গত কয়েক বছরে মৃত্যুর হার কিছুটা কমেছে। তবে এখনো এটি অগ্রহণযোগ্য রকম বেশি। মঙ্গলবার (২৫ জুন) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

অ্যালকোহল ও স্বাস্থ্য বিষয়ে ডব্লিউএইচওর সর্বশেষ এ প্রতিবেদন অনুযায়ী, বিশ্বে প্রতিবছর প্রতি ২০টি মৃত্যুর ঘটনার প্রায় একটির জন্য দায়ী অ্যালকোহল। এসব মৃত্যুর ঘটনার পেছনে মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালানো, অ্যালকোহলসংশ্লিষ্ট নৃশংসতা, নির্যাতন, নানা রোগ ও অসুস্থতার মতো বিষয় রয়েছে।

ডব্লিউএইচওর তথ্য অনুযায়ী, ২০১৯ সালে অ্যালকোহল পানের কারণে ২৬ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এই সংখ্যা বিশ্বে ওই বছর মোট মৃত্যুর ঘটনার প্রায় ৪ দশমিক ৭ শতাংশ। আর মারা যাওয়া এসব ব্যক্তিদের মধ্যে প্রায় তিনচতুর্থাংশই ছিলেন পুরুষ।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক তেদরোস আধানোম গেব্রেয়াসুস বলেন, অতিরিক্ত অ্যালকোহল পান মানুষের স্বাস্থ্যের মারাত্মক ক্ষতি করে। দীর্ঘস্থায়ী রোগের ঝুঁকি বাড়ায়, মানসিক স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটায়। এর ফলে দুঃখজনকভাবে প্রতিবছর লাখ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়। অথচ এসব মৃত্যু প্রতিরোধযোগ্য।

এদিকে ২০১০ সালের পর থেকে বিশ্বে অ্যালকোহল পান ও অ্যালকোহল পানজনিত ক্ষতি কিছুটা হ্রাস পেয়েছে। তবে অ্যালকোহল পানের কারণে স্বাস্থ্য ও সমাজের যে ক্ষতি হচ্ছে, তা এখনো অগ্রহণযোগ্য রকম বেশি বলে মনে করেন ডব্লিউএইচও প্রধান। তিনি বলেন, বিশেষ করে তরুণেরা বেশি ক্ষতির শিকার হচ্ছেন।

২০১৯ সালে অ্যালকোহল পান মৃত্যুর পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, সবচেয়ে বেশি (১৩ শতাংশ) মারা গেছেন ২০ থেকে ৩৯ বছর বয়সী মানুষ। অ্যালকোহল পানের কারণে লিভার সিরোসিস ও ক্যানসারের মতো গুরুতর অসুস্থতা দেখা দিতে পারে। ২০১৯ সালে অ্যালকোহল পানে প্রাণ হারানো মানুষের মধ্যে প্রায় ১৬ লাখের মৃত্যুর কারণ অসংক্রামক ব্যাধি। তাদের মধ্যে চার লাখ ৭৪ হাজার জন হৃদ্‌রোগ, চার লাখ ১০ হাজার ক্যানসার এবং ৭ লাখ ২৪ হাজার জন আঘাতের কারণে মারা গেছেন। এছাড়া অ্যালকোহলের যথেচ্ছ ব্যবহারে মানুষের যক্ষ্মা, এইচআইভি ও নিউমোনিয়ার মতো সংক্রামক রোগে আক্রান্ত  হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যায় বলেও প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

মাথাপিছু অ্যালকোহল পানের পরিমাণ সবচেয়ে বেশি ইউরোপের দেশগুলোতে; যা গড়ে ৯ দশমিক ২ লিটার। এরপরই রয়েছে আমেরিকার দেশগুলো। সেখানে মাথাপিছু অ্যালকোহল পানের গড়ে ৭ দশমিক ৫ লিটার। সবচেয়ে কম অ্যালকোহল পান করা হয় মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ উত্তর আফ্রিকা, মধ্যপ্রাচ্য ও এশিয়ার দেশগুলোতে।


আরও খবর
বাড়ছে ডেঙ্গু, শতাধিক নতুন রোগী শনাক্ত

বৃহস্পতিবার ১১ জুলাই ২০২৪




বেরোবিতে নিহত আবু সাঈদের নামে গেট-চত্বর

প্রকাশিত:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

Image

কোটা সংস্কার আন্দোলনে গুলিতে নিহত রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) ছাত্র আবু সাঈদের নামে গেট ও চত্বরের নামকরণ করা হয়েছে।

বুধবার (১৭ জুলাই) দুপুর আড়াইটায় ক্যাম্পাসে তার গায়েবানা জানাজার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ১ নম্বর গেটের নাম পরিবর্তন করে রাখেন শহীদ আবু সাঈদ গেট এবং বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন পার্কের মোড়ের নাম রাখেন শহীদ আবু সাঈদ চত্বর

এ বিষয়ে আবু তালেব নামে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী বলেন, আমাদের সহপাঠীকে আমরা হারিয়েছি। তাকে আর ফিরে পাবো না। কিন্তু তার নামে গেটের নাম রাখছি। যতদিন বিশ্ববিদ্যালয় থাকবে ততদিন আবু সাঈদ গেট নামে চিনবে সবাই।

সোহরাব হোসেন নামে আরেক শিক্ষার্থী বলেন, যেই গেটের সামনে আমাদের ভাই রক্ত দিয়েছে, সেই গেটকে স্মরণীয় রাখতে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি তার নামে রাখবো।

নিহত আবু সাঈদ বোরোবির ইংরেজি বিভাগের ১২তম ব্যাচের শিক্ষার্থী। তিনি কোটাবিরোধী আন্দোলনে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যতম সমন্বয়ক ছিলেন।


আরও খবর



ফ্রান্সের নির্বাচনে বামপন্থিদের জয়, হচ্ছে ঝুলন্ত পার্লামেন্ট

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০৮ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ফ্রান্সের পার্লামেন্ট নির্বাচনে দ্বিতীয় দফার ভোটে কোনো দল নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি। তবে আনুষ্ঠানিক ফলাফলে দেখা গেছে বামপন্থি জোট নিউ ফ্রন্ট পপুলার (এনএফপি) সবচেয়ে বেশি আসনে জয় পেয়েছে।

সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, ফ্রান্সের পার্লামেন্ট নির্বাচনের প্রথম ধাপের ভোটে উগ্র ডানপন্থিরা এগিয়ে থাকলেও দ্বিতীয় দফায় তারা তা ধরে রাখতে পারেনি। এককভাবে সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পেলেও বামপন্থি এনএফপি এগিয়ে রয়েছে।

ফ্রান্সের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাতে প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশটির ৫৭৭ আসনের পার্লামেন্টে বামপন্থি এনএফপি জোট ১৮২ আসন পেয়েছে। প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর মধ্যপন্থি জোট এনসেম্বল পেয়েছে ১৬৮টি। আর উগ্র ডানপন্থি দল ন্যাশনাল র‌্যালির (আরএন) পেয়েছে ১৪৩টি আসন। এছাড়া কনজারভেটিভ রিপাবলিক পেয়েছে ৬০টি আসন।

ফ্রান্সে সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজন হয় ২৮৯টি আসন। নির্বাচনের প্রাথমিক ফল অনুযায়ী তিন পক্ষের কেউই প্রয়োজনীয় সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি। সেক্ষেত্রে বাম জোটকে সরকার গঠন করতে হলে অন্যদের সমর্থন নিতে হবে। যদিও তিন পক্ষের একসঙ্গে কাজ করারও নজির নেই। এ অবস্থায় ফ্রান্সে এখন ঝুলন্ত পার্লামেন্ট গঠনের সম্ভাবনাই বেশি।

এদিকে রোববারের (৭ জুলাই) প্রাথমকি ফলাফল ঘোষণার পর দেশটির নিউ পপুলার ফ্রন্টের সমর্থকেরা রাজধানী প্যারিসসহ দেশটির বিভিন্ন শহরে আনন্দ উচ্ছ্বাস আর মিছিল করেছে।

নিউ পপুলার ফ্রন্টের নেতারা বলছেন, জনগণের কাছে দেয়া অঙ্গীকার তারা বাস্তবায়নের চেষ্টা করবেন। প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ দ্রুত বাম জোটকে সরকার গঠনের আহ্বান জানাবেন বলে আশাবাদী সমর্থকরা।

গত রোববার (৩০ জুন) ফ্রান্সে প্রথম ধাপের পার্লামেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে প্রায় ৩৪ শতাংশ ভোট পেয়ে জয় লাভ করে মেরিন লে পেনের কট্টর ডানপন্থি দল ন্যাশনাল র‍্যালি (আরএন)। অন্যদিকে প্রায় ২৯ শতাংশ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় স্থান পায় বামপন্থি দলগুলোর জোট নিউ পপুলার ফ্রন্ট। ম্যাক্রোঁর দল ২০.৭ শতাংশ ভোট পেয়ে তৃতীয় স্থানে নেমে যায়।


আরও খবর
আজ নেলসন ম্যান্ডেলার জন্মদিন!

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




শিক্ষার্থীদের আন্দোলন থামিয়ে অপেক্ষা করা উচিত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ময়মনসিংহ প্রতিনিধি

Image

কোটা সংস্কার আন্দোলনে থাকা শিক্ষার্থীদের আন্দোলন থামিয়ে অপেক্ষা করা উচিত বলে মন্তব্য করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

শনিবার (১৩ জুলাই) বিকেলে ময়মনসিংহ পুলিশ লাইন্সে আয়োজিত সুধী সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের দাবির প্রেক্ষিতে প্রধান বিচারপতি একটি স্পষ্ট নির্দেশনা দিয়েছেন, হাইকোর্টের রায় স্থগিত করেছেন। ছাত্রদের বলা হয়েছে- তারা যেন তাদের কথা উচ্চতর আদালতে বলে, তাহলে বিচারপতিদের বিচার করতে সুবিধা হবে। কাজেই আমি মনে করি তাদের অপেক্ষা করা উচিত। আন্দোলন থামানো উচিত।

পৃথিবীর সব জায়গাতেই কোটা রয়েছে উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যেমন আমাদের ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর জন‍্য কিছু কোটা রয়েছে এবং সংবিধানেও সেটি বলা আছে। এই নৃগোষ্ঠীদের কোটা যদি বন্ধ করে দেওয়া হয় তাহলে এরা কোনো দিন মূল স্রোতে একত্রিত হতে পারবে না।

তিনি আরও বলেন, রাস্তাঘাট বন্ধ না করে তারা কোর্টে এসে তাদের কথা বলুক। রাস্তাঘাট বন্ধ করলে লাভ কী হবে আমি জানি না। দুর্ভোগ বাড়বে জনগণের। আমি মনে করি, আপনারা প্রধান বিচারপতির পরামর্শ মতো আদালতে এসে আপনাদের কথা বলুন।


আরও খবর