আজঃ শনিবার ১৩ এপ্রিল ২০২৪
শিরোনাম

পিরোজপুর জেলা আইনজীবী সমিতির তলবি সভায় হামলা : আহত চার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
মশিউর রহমান রাহাত, পিরোজপুর

Image

পিরোজপুর জেলা আইনজীবী সমিতির তলবি সভা এবং এডহক কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে বহিরাগতদের হামলায় ৪জন আইনজীবী গুরুতর আহত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সভা চলাকালীন বহিরাগত সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে অ্যাডভোকেট তরুণ ভট্টাচার্য ও আহাসানুল কবির হিমুকে আহত করে। আহত তরুণ ভট্টাচার্য ও আহাসানুল কবিরকে জেলা হাসপাতালে চিকিৎসা দিতে নেয়া হয়। এরপরই তলবি সভা পন্ড হয়ে যায়। পরবর্তীতের আহতদের দেখতে যাওয়ার পথে আরও দুই আইনজীবী রাজ্জাক খান বাদশা ও সাইদুর রহমান টিটুকে আহত করে পালিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা।

আইনজীবীরা জানান, আমাদের কার্যকরি কমিটির মেয়াদ শেষ হওয়ায় আমারা জেলা আইজীবী সমিতিতে সাধারণ আইনজীবী সদস্যদের নিয়ে এক তলবি সভা এবং এডহক কমিটি গঠনের জন্য এ সভা আয়োজন করা হয়। সেই সভা চলকালীন সময়ে কতিপয় আইনজীবীর অসলগ্ন ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণে বহিরাগতরা সভা স্থলে প্রবেশ করে। তারা অনুপ্রবেশ করে তারা অ্যাডভোটেক তরুণ ভট্টাচার্য ও আহাসানুল কবির হিমু মারধোর করে। এরপরই তলবি সভা স্থগিত করে আহতদের হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

তারা আরও জানায়, তলবি সভা স্থগিত হলে আহত তরুণ ভট্টাচার্য ও আহাসানুল কবিরকে দেখতে জেলা হাসপাতালের দিকে রিক্সায় করে রওয়ানা হয় অ্যাডভোকেট রাজ্জাক খান বাদশা ও সাইদুর রহমান টিটু। তারা ফায়ার সার্ভিসের সামনে পৌছালে ৮/১০ জনের সন্ত্রাসী দল লোহার রড, জিআই পাইপ, ধারালো দাও নিয়ে তাদের উপর আক্রমণ করে। এসময় তাদের শরীরের বিভিন্ন স্থানে এলোপাতাড়ি মারতে থাকে। এসময় অ্যাডভোকেট সাইদুর রহমান টিটুর দুই পা রড ও জিআই পাইপ দিয়ে থেতলে দেয় সন্ত্রাসীরা।

এসময় জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি অনিরুজ্জামান অনিক ওই পথ দিয়ে কয়েকজনকে নিয়ে যাওয়ার সময় তাদেরকে মারতে দেখে মটরসাইকেল থেকে নেমে সন্ত্রাসীদের ধাওয়া করলে তারা পালিয়ে যায়। পরে ফায়ার সার্ভিস আহত দুইজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

গুরুতর আহত সাইদুর রহমান টিটু বলেন, আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট আলাউদ্দিন খান ও অ্যাডভোকেট শহিদুল হক খান পান্নার নির্দেশে শংকর পাশা ইউনিয়নের আলাউদ্দিন হাওলাদার ও আইনজীবী সহকারি হুমায়ূন কবিরসহ ৮/১০ জন তাদের উপর হামলা করে। 

জেলা হাসপাতালের দায়িত্বরত চিকিৎসক ডাক্তার আসিফ আহমেদ বলেন, আহত সাইদুর রহমান টিটুর দুই পা গুরুতর জখম আছে। শরীরেও কিছু আঘাতের চিহ্ন আছে। অবস্থা খারপের দিকে যেতে পারে। অবস্থা খারাপ হলে আমরা উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল অথবা খুলনায় স্থানন্তর করে দেবো। রোগী যতক্ষণ আমাদের এখানে আছে আমাদের সাধ্যমত চিকিৎসা দিবো।   

এ বিষয়ে আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুল আউয়াল বলেন, বহিরাগতদের দ্বারা আইনজীবীদের আহতের ঘটনায় আমরা মামলা করার প্রস্তুতি নিয়েছি। অচিরেই বিচারের দ্বারস্থ হবো। যাতে করে বহিরাগতরা আমাদের আইজীবী সদস্যদের ওপর নগ্ন হস্তক্ষেপ না করতে পারে। এ জন্য আমরা বিচার বিভাগের হস্তক্ষেপ কামনা করি। 

পিরোজপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আসিকুজ্জামান বলেন এ ঘটনায় আমার এখনও কোন অভিযোগ পাই নাই। অভিযোগ পেলে মামলা গ্রহণ করবো।


আরও খবর



ঘূর্ণিঝড়ে আলফাডাঙ্গার ২২ গ্রাম লণ্ডভণ্ড

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৮ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ মার্চ ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
মামুনুর রশীদ, ফরিদপুর

Image

ঘূর্ণিঝড়ে আলফাডাঙ্গার দুইটি ইউনিয়নের কমপক্ষে ২০-২২টি গ্রাম বিধ্বস্ত হয়েছে। বুধবার (২৭ মার্চ) দিবাগত রাত দুইটার দিকে উপজেলার পাচুড়িয়া ও বানা ইউনিয়নে ঘূর্ণিঝড়ের সঙ্গে শিলাবৃষ্টি হয়। এতে অসংখ্য গাছপালা ভেঙে পড়ে। অনেক জায়গায় সড়কের ওপরে গাছ পড়ে যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন ঘটেছে। সেই সঙ্গে বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙে তার ছিঁড়ে অন্ধকারে ঢেকে যায় ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রাম।

বানা ইউনিয়নের শিরগ্রামের বাসিন্দা ইউপি সদস্য খোকন শেখ বলেন, বানা ইউনিয়নের শিরগ্রাম, গড়ানিয়া, পাকুড়িয়া, টাবনী, টোনাপাড়া, শিয়ালদি চরপাড়া, জয়দেবপুর, আউশির হাট, কঠুরাকান্দি, মাজপাড়া, আড়পাড়াসহ কমপক্ষে ১৪টি গ্রামে ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানে।

ঝড় ও শিলা বৃষ্টিতে কাঁচা-আধাপাকা ঘরবাড়ি, গাছপালা, পেঁয়াজ, রসুন, মসুরি, ধনিয়া, ধান, গমসহ কৃষি ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

পাচুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের ১ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য (মেম্বার) মো. আমিনুর রহমান বলেন, ঝড়ে আমার ঘরবাড়ি, ফসলি ক্ষেতের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এ ছাড়া যুগীবরাট, ভাটপাড়া, চাদড়া, পাচুড়িয়া, দেউলি, চরনারানদিয়া, ধুলজুড়ি, চরভাটপাড়াসহ ১০ গ্রামে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

পাচুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মিজানুর রহমান বলেন, আমার পাচুড়িয়া ইউনিয়ন ও পাশের বানা ইউনিয়নে ঝড়ে বেশ কয়েকটি গ্রামে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। খোঁজখবর নিয়ে পরবর্তী সময়ে বিস্তারিত তথ্য জানানো যাবে।

পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির আলফাডাঙ্গা সাব-জোনাল অফিসের এজিএম ফাহিম হাসান বলেন, ঘূর্ণিঝড়ের ফলে কয়েকটি গ্রামে বিদ্যুৎ বন্ধ রয়েছে। বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে গেছে, কয়েকটি খুঁটি ভেঙে আঁকাবাঁকা হয়ে পড়েছে। বিদ্যুৎসংযোগ চালু করতে কাজ চলমান রয়েছে।

আলফাডাঙ্গা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ কে এম জাহিদুল হাসান জাহিদ বলেন, বুধবার রাত ১টার পর ঘূর্ণিঝড়ে দুই ইউনিয়নের কমপক্ষে ২২টি গ্রামের শতাধিক কাঁচাপাকা বাড়িঘর ও কয়েকশ গাছপালা উপড়ে পড়ে। বিস্তীর্ণ জমির ফসল বিনষ্ট হয়েছে। অনেকেই ঘরবাড়ি হারিয়ে খোলা আকাশের নিচে অবস্থান নেন। ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিতে কাজ শুরু করা হয়েছে।

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. কামরুল আহসান তালুকদার বলেন, স্থানীয় উপজেলা প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিসহ সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে ঘটনাস্থলে পৌঁছে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা করতে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্তদের সর্বাত্মক সাহায্য-সহযোগিতা করা হবে।


আরও খবর



প্রথমবারের মতো কুমিরের পিঠে বসানো হলো স্যাটেলাইট ট্রান্সমিটার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৪ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৪ মার্চ ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বাগেরহাট প্রতিনিধি

Image

এশিয়ায় এই প্রথম কুমিরের পিঠে স্যাটেলাইট ট্রান্সমিটার বসিয়ে সুন্দরবনের নদীতে অবমুক্ত করা হয়েছে। শ্রীলঙ্কার কুমির বিশেষজ্ঞ ডা. রু সোমবীরা এবং অষ্ট্রেলিয়ার কুমির বিশেষজ্ঞ ডা. পল বন বিভাগ ও আইইউসিএনের সহযোগিতায় এই কাজটি সম্পন্ন হয়।

বুধবার (১৩ মার্চ) বিকেলে তারা করমজলের কুমির জুলিয়েট ও যশোরের মাইকেল মধুসূদন দত্তের বাড়ির এলাকা থেকে উদ্ধারকৃত স্ত্রী কুমির মধুকে স্যাটেলাইট ট্রান্সমিটার ডিভাইস সেট করে সুন্দরবনের ভদ্রা নদীতে অবমুক্ত করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মুহাম্মদ নুরুল করিম, সুন্দরবন পশ্চিম বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা ড. আবু নাসের মহাসিন হোসেন, বন্য প্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা  নির্মল কুমার পাল, আইইউসিএনের কান্ট্রি ডিরেক্টর সরোয়ার আলম দীপু, মৎস্য বিশেষজ্ঞ মফিজুর রহমান, করমজল বন্য প্রাণী প্রজনন কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাওলাদার আজাদ কবীর।

করমজল বন্য প্রাণী কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাওলাদার আজাদ কবীর বলেন, এশিয়ায় এই প্রথম কুমিরের পিঠে স্যাটেলাইট ট্রান্সমিটার বসিয়ে সুন্দরবনের নদীতে অবমুক্ত করা হয়েছে। এর মাধ্যমে কুমিরের চলাচল ও যে সব কুমির নদীতে অবমুক্ত রয়েছে  তাদের সারভাইভাল রেট জানা যাবে।

নিউজ ট্যাগ: বাগেরহাট

আরও খবর



ঝড়ের আশঙ্কা, নদীবন্দরে সতর্ক সংকেত

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৯ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৯ মার্চ ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

দেশের পাঁচ অঞ্চলের ওপর দিয়ে দুপুরের মধ্যে সর্বোচ্চ ৬০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ের আশঙ্কা করছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। শুক্রবার (২৯ মার্চ) দুপুর ১টা পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরগুলোর জন্য দেওয়া এক পূর্বাভাসে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

এসময়, ঝড়ের সঙ্গে বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে বলেও আভাস দিয়েছে সংস্থাটি।

এ বিষয়ে আবহাওয়াবিদ মো. মনোয়ার হোসেন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বরিশাল, কুমিল্লা, নোয়াখালী, চট্টগ্রাম এবং সিলেট অঞ্চলের ওপর দিয়ে পশ্চিম অথবা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এ সময় বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। তাই এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এদিকে, আবহাওয়া অফিসের অপর এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, পশ্চিমা লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তার কাছাকাছি এলাকায় অবস্থান করছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে।

এ অবস্থায় সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ঢাকা, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের দুয়েক জায়গায় অস্থায়ী দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে।


আরও খবর



‘ডন থ্রি’তে কারিনার পরিবর্তে জাহ্নবী

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৫ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৫ মার্চ ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

বলিউডের জনপ্রিয় ফ্রাঞ্চাইজি ডন’। এবার আসছে এর তৃতীয় কিস্তি। ফারহান আখতারের পরিচালনায় ডন থ্রি’ সিনেমায় রণবীর সিংয়ের বিপরীতে রুমা ভাগাত চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যাবে অভিনেত্রী কিয়ারা আদভানিকে। এবার কারিনা কাপুরের কামিনী অরোরা চরিত্রে দেখা যাবে সময়ের আরেক জনপ্রিয় নায়িকা জাহ্নবী কাপুরকে। সম্প্রতি এমন খবর প্রকাশ করেছে ভারতীয় গণমাধ্যম কুইমুই।

গণমাধ্যমটির তথ্যমতে, সম্প্রতি নির্মাতা ফারহান আখতারের এক্সেল এন্টারটেইনমেন্টের অফিসে জাহ্নবী কাপুরকে উপস্থিত হতে দেখা গেছে। সেখানে অভিনেত্রীর সঙ্গে নির্মাতার অনেক সময় কথা হয়। যেহেতু কারিনার চরিত্রটি একটি গ্ল্যামার চরিত্র সে ক্ষেত্রে জাহ্নবীই ফারহানের প্রথম পছন্দ।

এদিকে ফারহানের ঘনিষ্ঠ সূত্র থেকে গণমাধ্যমটিতে আরও উল্লেখ করা হয়, ডন থ্রি’ সিনেমায় অভিনয়ের বিষয়ে এরই মধ্যে প্রাথমিক কথা সম্পন্ন করেছেন জাহ্নবী। ফারহান আখতারও তাকে ২০০৬ সালের ডন’ সিনেমায় কারিনার উপস্থিতি বুঝিয়ে দিয়েছেন। শুধু একটি গানেই দেখা যাবে তাকে। তাই কারিনার গ্ল্যামারের কথা চিন্তা করেই শ্রীদেবীকন্যাকে পছন্দ করেছেন ফারহান।

২০০৬ সালে মুক্তি পায় ডন’। এর পাঁচ বছর পর মুক্তি পায় ডন-টু’। দুটিতেই কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেন শাহরুখ খান। ২০২৫ সালে মুক্তি পাবে ডন-থ্রি।’ এবার ডন চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যাবে অভিনেতা রণবীর সিংকে।


আরও খবর
কলকাতায় ঈদে একমাত্র ‘মির্জা’

বৃহস্পতিবার ১১ এপ্রিল ২০২৪




এনেস্থেসিয়ার ওষুধ ব্যবহারে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নতুন নির্দেশনা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৮ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ মার্চ ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বিভিন্ন হাসপাতালে সম্প্রতি এনেস্থেসিয়াজনিত কারণে রোগীর মৃত্যু ও আকস্মিক জটিলতা নিরসনের জন্যে নতুন কিছু নির্দেশনা দিয়েছে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়। ভবিষ্যতে জটিলতা এড়াতে ও এনেস্থেসিয়ায় ব্যবহৃত ওষুধের গুণগত মান নিশ্চিত করতে নির্দেশনায় এনেস্থেসিয়ায় হ্যালোজেন ব্যবহার করতে বলা হয়েছে। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের যুগ্ম সচিব জসীম উদ্দীন হায়দার স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এই নির্দেশনাগুলো দেওয়া হয়েছে।

নির্দেশনাগুলোর মধ্যে রয়েছে-

সারা দেশের সব সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে অপারেশন থিয়েটারে ইনহেলেশনাল অ্যানেসথেটিক (নিশ্বাসের সঙ্গে যে চেতনানাশক নেওয়া হয়) হিসেবে হ্যালোথেনের (চেতনানাশক ওষুধ) পরিবর্তে আইসোফ্লুরেন/সেভোফ্লুরেন (চেতনানাশক ওষুধ) ব্যবহার করতে হবে।

সারা দেশের সব সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে মোট হ্যালোথেন/আইসোফ্লুরেন/সেভোফ্লুরেন ভেপোরাইজারের সংখ্যা এবং বিদ্যমান হ্যালোথেন ভেপোরাইজার পরিবর্তন করে আইসোফ্লুরেন/সেভোফ্লুরেন ভেপোরাইজার প্রতিস্থাপন করতে প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দের প্রাক্কলন করতে হবে।

ডিজিডি-এর অনুমোদন ছাড়া হ্যালোজেন ক্রয়, বিক্রয় ও ব্যবহার রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

সারা দেশের সব অ্যানেসথেসিওলজিস্টদের (সরকারি/বেসরকারি) নিয়ে হ্যালোথেনের পরিবর্তে আইসোফ্লুরেন ব্যবহারসংক্রান্ত নির্দেশনা প্রতিপালনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

সব সরকারি স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান থেকে বিদ্যমান হ্যালোথেন ভেপোরাইজারের পরিবর্তে আইসোফ্লুরেন ভেপোরাইজার প্রতিস্থাপনের জন্য চাহিদা মোতাবেক ব্যবস্থা নিতে হবে।

নতুন অ্যানেসথেসিয়ার মেশিন ক্রয়ের ক্ষেত্রে স্পেসিফিকেশন নির্ধারণে স্পষ্টভাবে আইসোফ্লুরেন/সেভোফ্লুরেন ভেপোরাইজারের অন্তর্ভুক্তি নিশ্চিত করতে হবে।

নিউজ ট্যাগ: এনেস্থেসিয়া

আরও খবর
বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস আজ

রবিবার ০৭ এপ্রিল ২০২৪