আজঃ শনিবার ১৫ জুন ২০২৪
শিরোনাম

১৩ হাজার ৮৭৬ কোটি টাকার জ্বালানি তেল কিনবে সরকার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

চলতি বছরের জুলাই থেকে ডিসেম্বর সময়ে ১৩ হাজার ৮৭৬ কোটি ৫৩ লাখ টাকার পরিশোধিত জ্বালানি তেল আমদানির পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। আন্তর্জাতিক কোটেশন প্রক্রিয়া অবলম্বন করে এই তেল আমদানি করতে অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

মঙ্গলবার (১১ জুন) সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সভাপতিত্বে সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ওই বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সমন্বয় ও সংস্কার সচিব মো. মাহমুদুল হোসাইন খান সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে ২০২৪ সালের জুলাই থেকে ডিসেম্বর সময়ে আন্তর্জাতিক কোটেশন প্রক্রিয়ায় পরিশোধিত জ্বালানি তেল আমদানির অনুমোন দিয়েছে মন্ত্রিসভা কমিটি। এটি বাস্তবায়ন করবে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসি)। এজন্য বিপিসির ১৩ হাজার ৮৭৬ কোটি ৫৩ লাখ টাকার বাজেট অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, ২০২৪ সালের জুলাই থেকে ডিসেম্বর সময়ের জন্য পরিশোধিত জ্বালানি তেল আমদানির লক্ষ্যে ৫টি প্যাকেজে বিভক্ত করে আন্তর্জাতিক কোটেশন আহ্বান করা হয়। সাতটি প্রতিষ্ঠান থেকে দরপ্রস্তাব জমা পড়ে। তারমধ্যে চারটি প্রতিষ্ঠানের প্রস্তাব কারিগরিভাবে রেসপনসিভ হয়।

প্রস্তাবের সব প্রক্রিয়া শেষে টিইসি কর্তৃক সুপারিশ করা রেসপনসিভ সর্বনিম্ন দরদাতা প্রতিষ্ঠান সিঙ্গাপুরের ইউনিপেক সিঙ্গাপুর প্রাইভেট লিমিটেড এবং ভিটল এশিয়া প্রাইভেট লিমিটেড থেকে ১৫ লাখ ৮০ হাজার মেট্রিক টন জ্বালানি তেল আমদানি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এতে ব্যয় হবে ১১৭ কোটি ৬৯ লাখ ৭৪ হাজার ৮০০ মার্কিন ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৩ হাজার ৮৭৬ কোটি ৫৩ লাখ টাকা।

প্রতি ব্যারেল জেটএ-১ এর দাম পড়বে ১০.৮৮ ডলার। এছাড়া প্রতি ব্যারেল গ্যাস অয়েল ৮.৮৩ মার্কিন ডলার, ফার্নেস অয়েল ৪৬.৭২ ডলার, মোগ্যাস ৯.৮৮ ডলার এবং মেরিন ফুয়েল ৭৬.৮৮ ডলার দিয়ে কেনা হবে। এই দামে গ্যাস অয়েল ১০ লাখ মেট্রিক টন, জেট-এ-১ ২ লাখ মেট্রিক টন, ফার্নেস অয়েল ২ লাখ ৫০ হাজার মেট্রিক টন, মোগ্যাস ১ লাখ মেট্রিক টন এবং মেরিন ফুয়েল ৩০ হাজার মেট্রিক টন আমদানি করা হবে।


আরও খবর



প্রধানমন্ত্রীর সঠিক পরিকল্পনায় ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলা সম্ভব হয়েছে: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৯ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
মামুন হোসাইন, চরফ্যাশন (ভোলা) প্রতিনিধি

Image

দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মো. মহিবুর রহমান এমপি বলেছেন, দূর্যোগ ব্যবস্থাপনায় গোটা পৃথিবীতে রোল মডেল হিসেবে বাংলাদেশের সুনাম রয়েছে। এই সুনামকে সমুন্নত রেখে আমরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ ভাবে সঠিক পরিকল্পনায় দক্ষতার সাথে সর্বনিন্ম কম ক্ষয়ক্ষতির মধ্যদিয়ে রেমাল মোকাবেলা করতে সক্ষম হয়েছি।

বুধবার (২৯ মে) দুপুরে ঘূর্ণিঝড় রেমালের আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত ভোলার উপকূলীয় এলাকা পরিদর্শন শেষে স্থানীয় টিবি স্কুল মাঠে চরফ্যাশন উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত ত্রাণ বিতরণ উপলক্ষ্যে আয়োজিত সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেছেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব এমপি।

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আজ আমি সাতক্ষীরা থেকে বাগেরহাট, বাগেরহাট থেকে খুলনা, খুলনা থেকে বরগুনা, পটুয়াখালী হয়ে ভোলা জেলার সব ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলো দেখেছি। আমি দেখেছি, রেমালের আঘাতে আমাদের উপকূলের রেড়িবাধঁগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সাগর পাড়ের মানুষের হাজার হাজার কোটি টাকার সম্পদ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ঘর বাড়ি হারিয়ে হাজার হাজার মানুষ খোলা আকাশের নিচে খেয়ে না খেয়ে কষ্ট করছে। সর্বত্র বিশুদ্ধ পানির অভাব বিরাজ করছে। দূর্গত মানুষের বিরাজমান এসব সমস্যা সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী অবগত আছেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, ইতিমধ্যে রেমালের আঘাতে ক্ষয়ক্ষতির পরিমান নির্ধারণের জন্য সব মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। আগামী সপ্তাহে সকল মন্ত্রণালয় নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দূর্যোগ মন্ত্রণালয়ের সভা অনুষ্ঠিত হবে। এই সভার মধ্যদিয়ে সকল মন্ত্রণালয়কে সমন্বয় করে ঐক্যবদ্ধভাবে সমস্যা সমাধানে কাজ করা হবে।

ভোলা জেলা প্রশাসক আরিফুজ্জামানের সভাপতিত্বে ওই অনুষ্ঠানে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব কামরুল ইসলাম, দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মিজানুর রহমান, পুলিশ সুপার মাহিদুজ্জামান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নওরীন হক অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন।


আরও খবর



নিবন্ধিত সব সোনার দোকানে ইএফডি যন্ত্র বসাতে চিঠি

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বিক্রয়মূল্যের তারতম্য রোধে নিবন্ধিত সব সোনার দোকান বা জুয়েলারি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে দ্রুত ইলেকট্রনিক ফিসক্যাল ডিভাইস (ইএফডি) যন্ত্র বসাতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে (এনবিআর) চিঠি দিয়েছে ট্যারিফ কমিশন।

সম্প্রতি আসন্ন নতুন অর্থবছরের বাজেটে শুল্ক সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রস্তাব পর্যবেক্ষণ ও সুপারিশ সম্বলিত এ চিঠি এনবিআরকে দিয়েছে কমিশন। যেখানে বাংলাদেশ জুয়েলারি অ্যাসোসিয়েশনের (বাজুস) বিভিন্ন বাজেট প্রস্তাবনাও পর্যবেক্ষণ করা হয়েছে।

ইএফডি বিষয়ে কমিশনের পর্যবেক্ষণ হলো, অধিকাংশ জুয়েলারি প্রতিষ্ঠানে ইএফডি না থাকায় বিক্রয়মূল্যে তারতম্য দেখা দিচ্ছে। নিবন্ধনকৃত সব প্রতিষ্ঠানকে দ্রুত ইএফডি সরবরাহ করা হলে ভ্যাট আদায় বাড়বে।

নিজস্ব প্ল্যান্ট স্থাপনের মাধ্যমে স্বর্ণ পরিশোধন শুরুর আগে অপরিশোধিত স্বর্ণে আকরিক ও আমদানি শুল্ক যৌক্তিক করা এবং জুয়েলারি শিল্পে ব্যবহৃত মূলধনী যন্ত্রপাতিতে আমদানি শুল্ক কমানোর সুপারিশ করেছে কমিশন।

এর আগে প্রাক-বাজেট আলোচনায় এনবিআরকে একই প্রস্তাব দেয় বাজুস। তারা জানায়, নিজস্ব প্ল্যান্ট স্থাপন করে সোনা পরিশোধন করা হলে বাংলাদেশ শিল্পায়নের নতুন সেক্টরে প্রবেশ করবে।

বাজেটে বাজুস অপরিশোধিত স্বর্ণ আকরিক কাস্টমস ডিউটি ৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১ শতাংশ ও আংশিক পরিশোধিত স্বর্ণের কাস্টমস ডিউটি ১০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৫ শতাংশ করার প্রস্তাব দেয়।


আরও খবর



শঙ্কা উড়িয়ে ২ উইকেটের জয়ে বিশ্বকাপে শুভসূচনা বাংলাদেশের

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

শ্রীলঙ্কাকে অল্পতেই আটকে রেখে কাজটা আগেই সহজ করে দিয়েছিলেন বাংলাদেশের বোলাররা। ছোট এই লক্ষ্য তাড়া করতে নেমেও বেশ চাপে ছিলেন বাংলাদেশের ব্যাটাররা। তবে সব শঙ্কা উড়িয়ে শেষ পর্যন্ত ২ উইকেটের জয়ে বিশ্বকাপে শূভসূচনা করলো লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা।

শনিবার (৮ জুন) ডালাসের গ্র্যান্ড প্রেইরি স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১২৪ রানের সংগ্রহ করে শ্রীলঙ্কা। জবাবে ২ উইকেট এবং ১ ওভার হাতে রেখেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় টাইগাররা।

এর আগে, ব্যাটিংয়ে নেমে প্রথম দুই ওভারে ১৩ রান তুলে নেয় শ্রীলঙ্কা। ইনিংসের তৃতীয় ওভারে আক্রমণে আসেন তাসকিন। তার ওভারের প্রথম দুই বলেই চার হাঁকান কুশল মেন্ডিস। তবে টাইগার এই পেসারের লেংথ ডেলিভারিতে ফাঁদে পড়েন তিনি। ইনসাইড-এজে শেষ পর্যন্ত প্যাভিলিয়নে ফেরেন এই ওপেনার। এতে প্রথম উইকেটের দেখা পায় বাংলাদেশ।

ইনিংসের পঞ্চম ওভারে সাকিবের ওপর চড়াও হয়েছিলেন নিশাঙ্কা। চারটি বাউন্ডারি হাঁকান তিনি। পাঁচ ওভার শেষে ৮ বাউন্ডারির বিপরীতে একটি ছক্কা হাঁকায় লঙ্কানরা।

এরপর আক্রমণে এসেই কামিন্দু মেন্ডিস ফেরান মোস্তাফিজ। মিড-অফে তানজিমের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন এই ব্যাটার।

বাউন্ডারি-ওভার বাউন্ডারিতে বাংলাদেশকে রীতিমত দুশ্চিন্তায় রেখেছিলেন নিশাঙ্কা। তবে মোস্তাফিজ ঝলকে শেষ পর্যন্ত তাকে ফেরায় বাংলাদেশ। ১ ছক্কা ও ৭ চারে ফিফটির কাছাকাছি গিয়ে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন তিনি।

এরপর দলীয় ১০০ পেরোনোর পরই রিশাদকে স্লগ সুইপ করতে চেয়েছিলেন আসালাঙ্কা। তবে যুতসই ছিল না। এতে স্কয়ার লেগে সাকিবের হাতে ধরা পড়েন তিনি। বিশ্বমঞ্চে এটিই রিশাদের প্রথম উইকেট।

ঠিক পরের বলেই নিজের দ্বিতীয় শিকার পেয়েছেন রিশাদ। এবার আউটসাইড-এজড হন শ্রীলঙ্কা অধিনায়ক ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা। তবে হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনা জাগালেও শেষ পর্যন্ত তা আর হয়নি।

এক ওভার পরেই রিশাদের ফ্লাইট আর টার্নে পরাস্ত হন ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা। এতে ১৭তম ওভারে এসে ষষ্ঠ উইকেট হারায় লঙ্কানরা।

এরপর তাসকিনের বলে জায়গায় দাঁড়িয়ে কাট করতে চেয়েছিলে দাসুন শানাকা। তবে ঠিকঠাক মতো টাইমিং না হওয়ায় প্যাভিলিয়নে ফিরতে হয় তাকে।

শেষ দিকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বমঞ্চে তানজিম সাকিবের অভিষেক উইকেটে ১২৪ রানেই থামে লঙ্কানরা।


আরও খবর



বাণিজ্য ব্যবস্থাপনায় শতভাগ অটোমেশন বাস্তবায়ন চাই: বিজিএমইএ

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৭ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

Image

বিজিএমইএ সহ-সভাপতি রাকিবুল আলম চৌধুরী বলেছেন, দেশের ব্যবসা পরিবেশবান্ধব নিশ্চিতকরণ, সকল ক্ষেত্রে সহজী অগ্রসর ও পরিচালনায় ব্যয় হ্রাস করে সহনীয় পর্যায়ে করার জন্য কাস্টমস ব্যবস্থাপনায় শতভাগ অটোমেশন এখন সময়ের দাবী।

সোমবার (২৭ মে) বিজিএমইএ ভবনে চট্টগ্রামের বিভিন্ন তৈরী পোশাক শিল্পের কর্মকর্তাদের নিয়ে বিজিএমইএ, এনবিআর ও কাস্টম বন্ড ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (সিভিএমএস) প্রশিক্ষণ কর্মশালায় এক প্রশিক্ষণ কর্মশালায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রশিক্ষণ কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন বিজিএমইএ পরিচালক মোস্তফা সরওয়ার রিয়াদ, রাকিব আল নাসের, গাজী মোঃ শহীদউল্লাহ্, কাস্টম বন্ড কমিশনারেট উপ-কমিশনার শাহেদ আহমেদ।

 রাকিবুল আলম চৌধুরী বলেন, বতর্মান বিশ্ব এক প্রতিযোগিতার বিশ্ব। এখানে প্রতিযোগিতা করে আমাদের টিকে থাকতে হচ্ছে। তার জন্য প্রয়োজন প্রযুক্তির সর্বোত্তম ব্যবহার। অটোমেশন ব্যবসা বাণিজ্যে তরান্বিত করণে বড় ভূমিকা রাখবে। বর্তমানে পণ্যের এইচ.এস. কোড, ডিকলারেশেন এবং কাস্টমস্ সংক্রান্ত নানা জটিলতার কারণে ব্যবসা বাণিজ্য বিঘ্ন হচ্ছে। অন্যদিকে ব্যয় বেড়ে গিয়ে হতে হচ্ছে হয়রানির শিকার। এই অবস্থায় কাস্টমস্ এর ব্যবস্থাপনায় শতভাগ বাস্তবায়ন অতীব জরুরী।

এসময় চট্টগ্রামের বিভিন্ন গার্মেন্টস্ শিল্পের বাণিজ্যিক কর্মকর্তা ও সিনিয়র কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

নিউজ ট্যাগ: চট্টগ্রাম

আরও খবর



এবার বেনজীরের কোম্পানি-ফ্ল্যাট ক্রোকের নির্দেশ

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আদালত প্রতিবেদক

Image

সাবেক আইজিপি বেনজীর আহমেদ, তার স্ত্রী জিশান মির্জা, বড় মেয়ে ফারহিন রিস্তা বিনতে বেনজীর এবং ছোট মেয়ে তাহসিন রাইসা বিনতে বেনজীরের নামে বিভিন্ন সম্পত্তির দলিল, ঢাকায় ফ্ল্যাট ও কোম্পানির আংশিক শেয়ার জব্দের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

রোববার দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ মোহাম্মদ জগলুল হোসেন এ আদেশ দেন।

দুদকের আইনজীবী মাহমুদ হোসেন জাহাঙ্গীর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, বেনজীর ও তার পরিবারের সম্পত্তির দলিল ১১৪, ঢাকায় ফ্ল্যাট চারটি, চারটি শতভাগ মালিকানা কোম্পানি, ১৫ টি  আংশিক মালিকানা কোম্পানি ও চারটি বিও একাউন্ট দুদকের পক্ষে তদন্তকারী কর্মকর্তা আবেদন করেন। আদালত তদন্ত কর্মকর্তার আবেদনটি মঞ্জুর করেন।

এর আগে, ২৩ মে সাবেক আইজিপি বেনজীর আহমেদ, তার স্ত্রী জিশান মির্জা, বড় মেয়ে ফারহিন রিস্তা বিনতে বেনজীর এবং ছোট মেয়ে তাহসিন রাইসা বিনতে বেনজীরের ৩৩টি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ও ৮৩ দলিলের সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ দেন আদালত।


আরও খবর