আজঃ শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১
শিরোনাম

১৪০০ টাকায় মিলবে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ জার্সি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১২ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১২ অক্টোবর ২০২১ | ৫৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করতে কয়েকদিন আগে দেশ ছেড়ে ইতোমধ্যে একটি প্রস্তুতি ম্যাচও খেলে ফেলেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।

এরপর সোমবার (১১ অক্টোবর) আনুষ্ঠানিকভাবে উন্মোচন করা হলো টাইগারদের বিশ্বকাপ জার্সি।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) এবং ফ্যাশন ও লাইফস্টাইল ব্র্যান্ড আড়ংয়ের যৌথ ব্যবস্থাপনায় রাজধানীর একটি হোটেলে উন্মোচন করা হয় এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশের দুটি জার্সি। অফিসিয়াল জার্সি কিনতে আড়ংয়ে যেতে হবে ক্রিকেটপ্রেমিদের। 

পুরোপুরি মিল না থাকলেও ২০০৪-০৫ সময়কার বাংলাদেশ দলের জার্সির ধাঁচে ডিজাইন করা হয়েছে এবারের জার্সি। দুইটি রংয়ের জার্সিতে সবুজটি পরেই বেশিরভাগ ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। দুই-একটি ম্যাচ খেলা হবে লাল জার্সি পরে। জার্সি তৈরি করা প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং পার্টনার মেহতাব উদ্দিন আনোয়ার জানালেন, এবারের জার্সি অন্যান্যবারের চেয়ে অনেকটাই আলাদা।

বড়দের জার্সির দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ১৪০০ টাকা। ছোটদের জার্সি মিলবে ১ হাজার টাকায়। অনলাইনে জার্সি প্রি-অর্ডার করা যাবে সোমবার থেকেই। আড়ংয়ের আউটলেটগুলোয় পাওয়া যাবে বুধবার থেকে। দেশের বাইরে অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য থেকে অনলাইনে জার্সি অর্ডার করা যাবে।


আরও খবর



মৎস্য অধিদপ্তরে ১৩৪ জনকে নিয়োগ

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৭৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের আওতায় মৎস্য অধিদপ্তরে ‌ক্ষেত্র সহকারী পদে ১৩৪ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আগামী ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিষ্ঠানের নাম: মৎস্য অধিদপ্তর

প্রকল্পের নাম: ইলিশ সম্পদ উন্নয়ন ও ব্যবস্থাপনা প্রকল্প

পদের নাম: ক্ষেত্র সহকারী

পদসংখ্যা: ১৩৪ জন

শিক্ষাগত যোগ্যতা: বিজ্ঞানে এইচএসসি/মৎস্যে ডিপ্লোমা

বেতন: ৯,৩০০-২২,৪৯০ টাকা

চাকরির ধরন: অস্থায়ী

চাকরির মেয়াদ: জুলাই ২০২০-জুন ২০২৪

প্রার্থীর ধরন: নারী-পুরুষ

কর্মস্থল: যে কোনো স্থানবয়স: ২৫ মার্চ ২০২০ তারিখে ১৮-৩০ বছর। বিশেষ ক্ষেত্রে ৩২ বছর

আবেদনপত্র সংগ্রহ: আগ্রহীরা www.fisheries.gov.bd থেকে নির্ধারিত ফরম সংগ্রহ করতে পারবেন।

আবেদনের ঠিকানা: প্রকল্প পরিচালক, ইলিশ সম্পদ উন্নয়ন ও ব্যবস্থাপনা প্রকল্প, মৎস্য অধিদপ্তর, কক্ষ নং-৫১১, মৎস্য ভবন, ১৩ শহীদ ক্যাপ্টেন মনসুর আলী সরণি, রমনা, ঢাকা-১০০০।

আবেদনের শেষ সময়: ২৫ অক্টোবর ২০২১

নিউজ ট্যাগ: মৎস্য অধিদপ্তর

আরও খবর



ব্রেন টিউমারের লক্ষণ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৪ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৪ অক্টোবর ২০২১ | ২৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মস্তিষ্কের ভেতরে কোষের অস্বাভাবিক বৃদ্ধিকে ব্রেন টিউমার বলে থাকি। ব্রেন টিউমার দুই রকম হতে পারে। বিনাইন বা শিষ্ট টিউমার এবং ম্যালিগন্যান্ট বা দুষ্টু টিউমার।

এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানিয়েছেন, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের নিউরোসার্জারি বিভাগের সহকারী সহকারী অধ্যাপক ডা. রবিউল করিম

যেকোনো বয়সে ব্রেন টিউমার হতে পারে। মস্তিষ্কে কিছু টিউমারের সূত্রপাত বলে তাকে প্রাইমারি ব্রেন টিউমার বলে। কিছু শরীরের অন্য স্থানের টিউমার থেকে হয়, সেটি সেকেন্ডারি বা মেটাস্টাটিক ব্রেন টিউমার।

ব্রেন টিউমার অত্যন্ত জটিল এবং সংযোজনশীল অঙ্গের টিউমার। ফলে রোগটির চিকিৎসা পদ্ধতিও জটিল এবং ক্ষেত্রবিশেষে অনেক ব্যয়বহুল। কোনো কোনো ক্ষেত্রে ব্রেন টিউমারের চিকিৎসা করেও কাঙ্ক্ষিত ফল পাওয়া যায় না।

ব্রেন টিউমারের লক্ষণ

ব্রেন টিউমারের প্রধান বা স্বাভাবিক লক্ষণ মাথাব্যথা। এ ব্যথা রোগীর কর্মকাণ্ডের সাথে তীব্র হয়। অর্থাৎ রোগী বিশ্রামে থাকলে ব্যথা কম থাকে। কোনো কাজ করলে বাড়ে। অনেক সময় ভোরে মাথাব্যথা হয়। পাশাপাশি বমি বমি ভাব, বমি হয় এবং দৃষ্টিশক্তি কমে যেতে থাকে।

অনেক সময় রোগীর খিঁচুনি হতে পারে। শরীরের যেকোনো একদিকের হাত- পা দুর্বল বা অবশ হয়ে যেতে পারে। আচরণে অস্বাভাবিকতা দেখা দেয়।

ব্রেন টিউমার নির্ণয়

নিউরো মেডিসিন বা নিউরো সার্জন ব্রেনের সিটিস্ক্যান ও এমআরআই, স্নায়ুতন্ত্রের কার্যকারিতা দেখার জন্য ইলেকট্রো এনকেফালোগ্রাফি বা ইইজি, স্নায়ুতন্ত্রের পরিবহন ক্ষমতা বা নার্ভ কন্ডাকশন টেস্ট বা ইলেকট্রোমায়োগ্রাফি, সিটি গাইডেড এফএনএসির মাধ্যমে রোগটি নির্ণয় করে থাকেন। তবে এমআরআই পদ্ধতি সব থেকে আধুনিক এবং ব্রেন টিউমার নির্ণয়ের জন্য উন্নত পরীক্ষা।

ব্রেন টিউমারের চিকিৎসা

ব্রেন টিউমারের চিকিৎসা বেশ জটিল। তবে চিকিৎসা নির্ভর করে টিউমারের ধরন, আকার ও অবস্থানের ওপর। সার্জারি, কেমোথেরাপি ও রেডিওথেরাপি দেয়া হয়। খিঁচুনি, বমির মতো লক্ষণ দেখে এগুলো বন্ধে ওষুধ দেয়া হয়।

নিউজ ট্যাগ: ব্রেন টিউমার

আরও খবর
২৪ ঘণ্টায় করোনায় ৪ জনের মৃত‌্যু

শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১

ডেঙ্গু: আরও ১২৩ জন হাসপাতালে

শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১




মুহিবুল্লাহ হত্যা প্রত্যাবাসনে প্রভাব ফেলবে না: পররাষ্ট্র সচিব

প্রকাশিত:শনিবার ০৯ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৯ অক্টোবর ২০২১ | ৪৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কক্সবাজারে রোহিঙ্গানেতা মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় বিশাল এই শরণার্থীগোষ্ঠীর মিয়ানমারে প্রত্যাবাসনের ওপর কোনো প্রভাব পড়বে না বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন।

রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে আজ শনিবার বিকেলে ঢাকায় যাওয়ার পথে কক্সবাজার বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন সচিব।

পররাষ্ট্র সচিব আরও বলেন, আমরা রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করেছি। রোহিঙ্গা নেতাদের সঙ্গে কথা বলেছি। কথা বলেছি অজ্ঞাত বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত মুহিবুল্লার পরিবারের সঙ্গেও। তাদের নিরাপত্তার বিষয়টিও দেখা হচ্ছে। ক্যাম্পে কোনো ধরনের অনিয়মকে প্রশ্রয় দেওয়া হচ্ছে না। প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া শুরুর জন্যও বিভিন্ন বিষয়ে কাজ চলমান রয়েছে। ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের মানবিক সেবা কার্যক্রম প্রক্রিয়ায় জাতিসংঘ যুক্ত হয়েছে। আস্তে আস্তে সবকিছু সরকারের নিয়ন্ত্রণে থাকছে।

সচিব জানান, ভাসানচরে এরই মধ্যে ১৬ থেকে ১৭ হাজার রোহিঙ্গাকে স্থানান্তর করা হয়েছে। ওখানে এক লাখ রোহিঙ্গাকে নিয়ে যাওয়ার জন্য সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আগামী নভেম্বর থেকে আবার বাকি রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে স্থানান্তর কার্যক্রম শুরু করা হবে।

মাসুদ বিন মোমেন বলেন, মুহিবুল্লাহ হত্যার ঘটনায় জড়িত পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কারা এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত তাদের আইনের আওতায় আনতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী গুরুত্ব দিয়ে কাজ করছে। সরকারের উচ্চপর্যায়ে থেকেও বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে। তাই এ ঘটনা প্রত্যাবাসনকে ব্যাহত করতে পারবে না।

দেশীয় গণমাধ্যমের কর্মীদের ক্যাম্পে প্রবেশে কোনো বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে সচিব বলেন, এমন কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। বিষয়টি আলোচনা করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এর আগে দুইদিনের সফরের দ্বিতীয় দিনে আজ শনিবার দুপুরে প্রতিনিধি দলটি মুহিবুল্লাহ হত্যার ঘটনাস্থল কুতুপালংয়ের লম্বাশিয়া ক্যাম্প পরিদর্শন করে।

প্রতিনিধি দলে পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেন ছাড়াও ছিলেন ইউরোপীয় ইউনিয়ন বিষয়ক কর্মকর্তা ফায়াজ মুর্শিদ কাজী, পররাষ্ট্র দপ্তরের মহাপরিচালক মো. আলীমুজ্জামান, সহকারী সচিব শোয়াইব-উল ইসলাম তরফদার।

গতকাল শুক্রবার বিমানে কক্সবাজারে আসেন পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেনের নেতৃত্বে চার সদস্যের প্রতিনিধি দলটি। আজ বিকেলে তারা ঢাকার উদ্দেশে রওনা হন।


আরও খবর



আ.লীগের সম্প্রীতি সমাবেশ ও শোভাযাত্রা শুরু

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৯ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৯ অক্টোবর ২০২১ | ২৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশজুড়ে চলমান সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সম্প্রীতি সমাবেশ ও শান্তি শোভাযাত্রা কর্মসূচি শুরু করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

মঙ্গলবার সকাল সোয়া ১১টায় রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এই সমাবেশ শুরু হয়। আওয়ামী লীগের পাশাপাশি এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলোও ঢাকার পাশাপাশে সারা দেশে এই কর্মসূচি পালন করছে।

সম্প্রীতি সমাবেশে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল থেকেই নেতা-কর্মীরা রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে উপস্থিত হতে শুরু করেন। তাদের হাতে ছিল ব্যানার ও ফেস্টুন। এসব ব্যানার ও ফেস্টুনে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

এর আগে সোমবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এ কর্মসূচি ঘোষণা করে। দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নেতা-কর্মীকে দেশে সাম্প্রদায়িক অপশক্তির তৎপরতা প্রতিরোধ করার নির্দেশনা দেন এবং যেকোনো মূল্যে বাংলাদেশের হাজার বছরের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ঐতিহ্য সমুন্নত রাখার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান।



আরও খবর



‘বঙ্গবন্ধুর মতো জনগণের সেবক হিসেবে কাজ করতে হবে’

প্রকাশিত:বুধবার ০৬ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৬ অক্টোবর ২০২১ | ৪৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পদাঙ্ক অনুসরণ করে জনগণের প্রকৃত সেবক হিসেবে কাজ করতে সরকারি কর্মকর্তাদের আহ্বান প্রতি জানিয়েছেন। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে বুধবার (৬ অক্টোবর) সকালে ১১৯তম ও ১২০তম আইন ও প্রশাসন প্রশিক্ষণ কোর্সের সমাপনী ও সনদ প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। সনদপ্রাপ্ত সবাইকে অভিনন্দন জানিয়ে সরকার প্রধান বলেন, বিচারের বাণী যাতে নিভৃতে না কাঁদে। আইনের যথাযথ প্রয়োগের মাধ্যমে ন্যায়বিচার যেন নিশ্চিত হয়।

এ সময় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কথা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, আমার দেশের প্রতিটি মানুষ খাদ্য পাবে, আশ্রয় পাবে, শিক্ষা পাবে, উন্নত জীবনের অধিকারী হবে এই হচ্ছে আমার জীবনের স্বপ্ন। এই অল্প কথার মাধ্যমে এটা প্রতীয়মান হয় যে, তিনি কী কারণে সারাটা জীবন সংগ্রাম করেছেন।

মাত্র সাড়ে তিন বছর সময় পেয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু। একটি প্রদেশ ছিল বাংলাদেশ। সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকা সত্ত্বেও সকল সুবিধা থেকে ছিল বঞ্চিত। স্বাধীনতার পর তিনি রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব নেন। যেখানে একটি টাকাও রিজার্ভ মানি ছিল না। কোনো খাদ্য ছিল না।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, প্রশাসনের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পদোন্নতি, সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি ও প্রশিক্ষণের সুযোগ তৈরি করা হয়েছে। সরকারের লক্ষ্য জনবান্ধব প্রশাসন গড়ে তোলা। প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী হিসেবে, জনগণের সেবক হিসেবে আপনাদের মাঠ পর্যায়ে গিয়ে কাজ করতে হবে।


আরও খবর