আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

৫ দিনের যুদ্ধবিরতিতে ৭০ জিম্মিকে মুক্তি দেবে হামাস

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ১৫ নভেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

গাজা উপত্যকায় ইসরাইল ও হামাসের মধ্যে যুদ্ধবিরতির চেষ্টায় মধ্যস্থতা করছে কাতার। ইসরাইলের সঙ্গে ৫ দিনের যুদ্ধবিরতির বিনিময়ে গাজায় আটক ৭০ জন নারী ও শিশুকে মুক্তি দিতে প্রস্তুত হামাস।

সোমবার হামাসের সামরিক শাখা আল কাসেম ব্রিগেড কাতারের মধ্যস্থতাকারীদের এ কথা বলেছে। এ সম্পর্কে হামাসের টেলিগ্রাম চ্যানেলে আল কাসেম ব্রিগেডের মুখপাত্র আবু উবায়দার বক্তব্য ধারণ করা একটি অডিও ক্লিপও প্রকাশ করা হয়েছে।

অডিও ক্লিপে আবু উবায়দা বলেন, এই যুদ্ধবিরতি হতে হবে পূর্ণমাত্রার আর  যুদ্ধবিরতি চলাকালীন গাজা উপত্যকার সব জায়গায় ত্রাণসহ মানবিক সহায়তা পৌঁছানোর সুযোগ থাকতে হবে। আরব নিউজ।

হামাসের হাতে ২৪০ জনের মতো ইসরাইলি জিম্মি বন্দি। এর আগে কাতারের মধ্যস্থতায় চার জিম্মিকে মুক্তি দিয়েছিল তারা।


আরও খবর



সীমান্তে বিজিবি সদস্যদের ধৈর্য ধরার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

Image

সীমান্তে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সদস্যদের ধৈর্য ধারণের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) সংসদে সংসদে প্রশ্ন জিজ্ঞাসা ও উত্তরদান পর্বে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান কামালের পক্ষে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক এ কথা জানান।

 সংসদে বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ ও জাতীয় পার্টির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু জানতে চান, মিয়ানমারের সীমান্তে যে যুদ্ধের পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। এতে সীমান্তের পরিস্থিতি প্রতিনিয়ত ঝুঁকিপূর্ণ হচ্ছে এবং উত্তেজনা বাড়ছে। দেশটির অভ্যন্তরীণ কোন্দল এবং ইনসার্জেন্সির যে ঘটনা, এর পরিপ্রেক্ষিতে নিরাপত্তার জন্য বাংলাদেশ সরকার কী কী ব্যবস্থা নিচ্ছে?

এমন প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পক্ষে আইনমন্ত্রী বলেন, সীমান্তে উত্তেজনার পরিস্থিতি সরকার নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণে রেখেছে। মিয়ানমারের সঙ্গে আলোচনার জন্য পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিষয়টি দেখছে। বিজিবি সদস্যদের ধৈর্য ধরার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই সঙ্গে সীমান্তবর্তী স্কুলগুলো বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

মিয়ানমারের অভ্যন্তরে চলমান সংঘর্ষের জেরে এখন পর্যন্ত দেশটির সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিপি) ৯৫ সদস্য অস্ত্রসহ বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির তুমব্রু সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছেন। বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) তাদেরকে নিরস্ত্রীকরণ করে নিরাপদ আশ্রয়ে নিয়েছে। এ ব্যাপারে পরবর্তী কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

 অপরদিকে সোমবার দুপুরে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের জলপাইতলি এলাকায় মিয়ানমারের ছোড়া মর্টারশেলের আঘাতে বাংলাদেশিসহ দুজন নিহত হয়েছেন। এদের মধ্যে হোসনে আরা (৫৫) ওই এলাকার বাদশা মিয়ার স্ত্রী। তবে নিহত রোহিঙ্গা পুরুষের (৫৫) পরিচয় জানা যায়নি।


আরও খবর
জানুয়ারিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ৪৮৬ মৃত্যু

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




মিমির জন্মদিনে শুভশ্রীর উপহার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

ওপার বাংলার জনপ্রিয় অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তীর জন্মদিন ছিল ১১ ফেব্রুয়ারি। কেক, শুভেচ্ছা, উপহার আর ফুলে জন্মদিনের উদ্‌যাপন ভালোই করেছেন অভিনেত্রী। ইন্ডাস্ট্রির অনেকেই মিমিকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সমাজিকমাধ্যমের পাতায়। তবে শুধু শুভেচ্ছা নয়, শুভশ্রীর পক্ষ থেকে মিমির জন্য এল জন্মদিনের উপহারও।

মিমি নিজেই উপহারের সেই ছবি ভাগ করে নিয়েছেন ইনস্টা স্টোরিতে। সুন্দর একটি ফুলের তোড়া মিমিকে উপহার দিয়েছেন শুভশ্রী। তবে উপহারের গায়ে অবশ্য লেখা ইউভান এবং ইয়ালিনীর নাম। দুই সন্তানের পক্ষ থেকেই এই উপহার, সেটাই বোধ হয় বোঝাতে চাইলেন শুভশ্রী এবং রাজ। উপহার যার পক্ষ থেকেই আসুক, মিমি ফুলের ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, ধন্যবাদ। পুচকুগুলোকে অনেক আদর।এই পোস্টে অবশ্য শুভশ্রীকে ট্যাগও করেছেন মিমি।

মিমির সঙ্গে রাজ চক্রবর্তীর প্রেমের সম্পর্কের কথা অজানা নয়। বোঝে না সে বোঝে না ছবির শুটিংয়ের সময় থেকেই রাজের ঘনিষ্ঠতা বাড়ে মিমির সঙ্গে। তবে সেই সম্পর্কও টেকেনি। সম্পর্ক ভাঙার নেপথ্যের কারণ অবশ্য আজও স্পষ্ট নয়। শুভশ্রী আর দুই সন্তানকে নিয়ে রাজের এখন ভরা সংসার। মিমিও নিজের শর্তে জীবন কাটাচ্ছেন। অভিনয়, গান, সাংসদের দায়িত্ব, পোষ্যদের দেখাশোনা- বেজায় ব্যস্ত অভিনেত্রী। তবে এত কাজের মাঝেও জীবনের নতুন অধ্যায় শুরু করার কথা ভাবছেন কি না, তার কোনও ইঙ্গিত অবশ্য এখনও তিনি দেননি।


আরও খবর
ভারতীয় পরিচালক কুমার সাহানি আর নেই

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ইসরায়েলের চার নাগরিকের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২4 | হালনাগাদ:শুক্রবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২4 | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

পশ্চিমতীরে ফিলিস্তিনিদের ওপর হামলার অভিযোগে অবৈধ ইহুদি বসতি স্থাপনকারী চার ইসরায়েলির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের গত ৭৫ বছরের ইতিহাসে এই প্রথম ইসরায়েলের ৪ জন নাগরিককে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

গতকাল বৃহস্পতিবার নিষেধাজ্ঞা আরোপের বিষয়টিতে অনুমোদন দিয়ে এক নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। তিনি বলেছেন, পশ্চিম তীরে সহিংসতা অসহনীয় পর্যায়ে পৌঁছেছে। খবর আলজাজিরার

নিষেধাজ্ঞা পাওয়া চার ইসরায়েলি হলো- ডেভিড চাই চাসদাই, আইনান তানজিল, শালোম জিকারম্যান ও ইয়িনন লেভি। যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্টের এক নির্বাহী আদেশে বলা হয়, নিষেধাজ্ঞার আওতায় ওই চার ইসরায়েলি যুক্তরাষ্ট্রে থাকা তাদের সম্পত্তি ও দেশটির আর্থিক ব্যবস্থা ব্যবহারের সুযোগ থেকে বঞ্চিত হবেন।

আদেশটি পশ্চিম তীরে সরাসরি সহিংসতা বা ভীতি প্রদর্শনের জন্য অভিযুক্ত চার ব্যক্তিকে লক্ষ্য করে দেওয়া হয়। বাইডেন প্রশাসনের একজন উর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেছেন, দাঙ্গায় নেতৃত্ব দেওয়া অভিযুক্ত ব্যক্তিসহ ভবন নির্মাণ, ভূমি দখল, ও যানবাহনে আগুন ধরানো, বেসামরিক লোকদের ওপর হামলা ও সম্পত্তির ক্ষতি করার কারণে তাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়।

গতকাল বৃহস্পতিবার গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, গত ৭ অক্টোবর সংঘাত শুরুর পর থেকে উপত্যকাটিতে ২৭ হাজার ১৯ জন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন ৬৬ হাজার ১৩৯ ফিলিস্তিনি। ইসরায়েলে ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাসের হামলার পর শুরু হওয়া সংঘাতে ইসরায়েলের নিহত হয়েছেন ১ হাজার ১৩৯ জন।


আরও খবর



‘সরকারি মাল দরিয়ামে ঢাল’ বললে হবে না : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশে আজ যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতি হয়েছে। এই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে হবে। আর যে কাজগুলো করে দিচ্ছি সেগুলো রক্ষণাবেক্ষণ, যত্ন করতে হবে। সরকারি মাল দরিয়ামে ঢাল বললে হবে না। সরকার কিন্তু চলে জনগণের পয়সায়। সরকার করে দেয় কিন্তু জিনিসটা জনগণের। এটা মাথায় রাখতে হবে। সেভাবে যত্নশীল হতে হবে।

রবিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস ২০২৪ অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকারের জনপ্রতিনিধিদের উদ্দেশ্যে তিনি এসব কথা বলেন।

জনপ্রতিনিধিদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জনগণের কাছে দেওয়া ওয়াদা রক্ষা করুন। কমিশনের কথা চিন্তা করে প্রকল্প নেওয়া যাবে না। জনগণ ও প্রকৃতি-পরিবেশের কথা মাথায় রেখেই প্রকল্প নিতে হবে। প্রতিটি ক্ষেত্রে অর্থ সাশ্রয় করে কাজ করতে হবে।

সরকারপ্রধান বলেন, দেশে ভূমি ও গৃহহীন মানুষ থাকবে না। প্রথমে বিভাগ, তারপর জেলা পর্যায়ে খাদ্য সংরক্ষণাগার করা হবে। দেশে ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চলে খাদ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ কারখানা হবে।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা একটি সমস্যা হিসেবে দেখা দিয়েছে। শুধু নেয়ার জন্য কোনো প্রকল্প নেবেন না; জনগণের কাজে লাগে কিনা সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। পরিবেশ সংরক্ষণের দিকেও দৃষ্টি দিতে হবে। জলাধার যথাযথভাবে রক্ষণাবেক্ষণ করতে হবে। যারা বেশি বিদ্যুৎ ব্যবহার করবেন, তাদের বিদ্যুৎ বিল অন্যদের চেয়ে বেশি হবে। অর্থাৎ তাদের বিদ্যুতের রেট অন্যদের চেয়ে বেশি হবে। নির্দিষ্ট ইউনিট পর্যন্ত ব্যবহারে কম বিল দেবেন স্বল্প আয়ের ব্যবহারকারীরা।

এসময় তিনি বলেন, এক ইঞ্চি জমিও যেন অনাবাদি না থাকে। সমন্বিত চাষাবাদ বা সমবায়ের মাধ্যমে চাষাবাদের আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রত্যেক এলাকায় মাস্টারপ্ল্যান করে কাজ করলে জমির উৎপাদন বাড়ানো সম্ভব। আধুনিক পদ্ধতিতে চাষাবাদ ও উৎপাদিত পণ্যের যথাযথ বণ্টন নিশ্চিত করতে হবে। সবাইকে সর্বজনীন পেনশন স্কিমে যুক্ত হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

জনপ্রতিনিধিদের সচেতন থাকার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আশ্রয়ণসহ বিভিন্ন প্রকল্পে পুনর্বাসিতদের খোঁজ খবর রাখতে হবে। এ ক্ষেত্রে স্থানীয় সরকারের জনপ্রতিনিধিদের অনেক দায়িত্ব আছে। সরকারি কর্মচারীরা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত চাকরি করে। জনগণের কাছে তাদের জবাবদিহি করতে হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা ডিজিটাল বাংলাদেশ করেছি। আজকে আমরা স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পেয়েছি। এই উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। কারও কাছে মাথা নিচু করে আমরা চলব না। মাথা উঁচু করে চলতে হবে আমাদের।

তিনি আরও বলেন, আমরা দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলব। আমরা কম্পিউটার ট্রেনিং দিচ্ছি। শিক্ষার ব্যবস্থা করে দিয়েছি। প্রতিটি স্কুলের উন্নয়ন করে দিচ্ছি। প্রতিটি জেলায় বিশ্ববিদ্যালয় করে দিচ্ছি। মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় করেছি। বহুমূখী বিশ্ববিদ্যালয় করে শিক্ষার মান উন্নত করে দিচ্ছি। এতো কিছু করছি এদেশের মানুষের জন্য।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ইনশাআল্লাহ জাতিসংঘ ঘোষিত সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট গোল সেটাও যেমন আমরা অর্জন করব, ২০৪১ সালের মধ্যে স্মার্ট বাংলাদেশ, দক্ষ জনশক্তি, দক্ষ সরকার, দক্ষ অর্থনীতি, দক্ষ সমাজ আমরা গড়ে তুলব। আমাদের সব কিছুই হবে স্মার্ট।

শেখ হাসিনা বলেন, ২১০০ সালের ডেল্টা প্লান করে দিয়েছি। তাও বাস্তবায়ন শুরু করেছি। জলবায়ুর অভিঘাত থেকে এই ব-দ্বিপকে রক্ষা করে আমাদের দেশের মানুষের উন্নয়নের অভিযাত্রা যেন অব্যাহত থাকে, প্রজন্মের পর প্রজন্ম সুন্দর জীবন পায় সেটাই আমাদের লক্ষ্য।


আরও খবর
জানুয়ারিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ৪৮৬ মৃত্যু

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




সাবেক এমপির গাড়িতে ফেনসিডিল

প্রকাশিত:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি

Image

সিরাজগঞ্জে বঙ্গবন্ধু সেতু এলাকা থেকে ঢাকাগামী সাবেক সংসদ সদস্যের (এমপি) শুল্কমুক্ত গাড়ি থেকে ৪৪২ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করেছে র‌্যাব-১২। এ সময় গাড়ি থেকে সুজন (২৯) নামের এক যুবককে আটকের পর গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। তার বাড়ি চাঁদপুরের মতলব থানার এখলাসপুর গ্রামে।

আজ রবিবার দুপুরে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানান র‌্যাব-১২-এর অধিনায়ক মো. মারুফ হোসেন। এর আগে গতকাল শনিবার দুপুরে অভিযান চালিয়ে ওই গাড়ি থেকে মাদকের চালানটি জব্দ করা হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, শনিবার দুপুরে সিরাজগঞ্জ বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানার গোলচত্বর মহাসড়কে চেকপোস্ট বসিয়ে একটি গাড়িতে (রেজিস্ট্রেশন নম্বর ঢাকা মেট্রো-ঘ-০২-২৯১৫) তল্লাশি চালানো হয়। এ সময় গাড়ির তেলের ট্যাংক থেকে ৪৪২ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়। সেখানে সুজনের কাছ থেকে নগদ টাকা, একটি মোবাইল ফোন ও গাড়িটি জব্দ করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, গ্রেপ্তার সুজন দীর্ঘদিন ধরে বড় বড় মাদকের চালান সিরাজগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় সরবরাহ করে আসছিলেন। তার বিরুদ্ধে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানায় একটি মামলা হয়েছে। তবে জব্দ হওয়া গাড়িটি সাবেক কোন এমপির, তা জানায়নি র‌্যাব।


আরও খবর