আজঃ মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

৫ ঘণ্টা পর ঢাকার সঙ্গে সারাদেশের ট্রেন যোগাযোগ স্বাভাবিক

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৭ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৭ ডিসেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

ঢাকার সঙ্গে সারাদেশের ট্রেন চলাচল প্রায় পাঁচ ঘণ্টা পর স্বাভাবিক হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর) রাতে ঢাকা রেলওয়ে স্টেশনের ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ মাসুদ সারওয়ার বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন।

আরও পড়ুন>> তেজগাঁওয়ে ক্রেনের ধাক্কায় ট্রেন লাইনচ্যুত, ঢাকার সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ

এর আগে রাজধানীর তেজগাঁও রেল স্টেশন থেকে ঢাকা রেলওয়ে স্টেশনে আসার পথে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের ক্রেনের আঘাতে লাইনচ্যুত হয় তিতাস কম্পিউটার ট্রেন। এতে বিকেল ৫টা থেকে রাত পৌনে ১০টা পর্যন্ত ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকে।

ঢাকা রেলওয়ে স্টেশনের ব্যবস্থাপক বলেন, তিতাস কম্পিউটার ট্রেন তেজগাঁও স্টেশন ছেড়ে আসার পর দুর্ঘটনার শিকার হয়। এতে ঢাকার সঙ্গে সারাদেশের ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। রাত পৌনে ১০টা নাগাদ উদ্ধার কাজ শেষ হলে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়।


আরও খবর



১৯ বছর পর ওটিটিতে আসছে অমিতাভ-রানির ‘ব্ল্যাক’

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

সঞ্জয় লীলা বানসালি পরিচালিত জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত বলিউড সিনেমা ব্ল্যাক প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছিল ২০০৫ সালে। প্রেক্ষাগৃহে তেমন সাড়া ফেলতে না পারলেও দর্শক সমালোচকদের মন জয় করে। সিনেমাটি সেরা ফিচার ফিল্মসহ ৩টি বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পায়। অমিতাভ বচ্চন সেরা অভিনেতা হিসেবে জাতীয় পুরস্কার ঘরে তোলেন।

মুক্তির ১৯ বছর পর অমিতাভ বচ্চন ও রানি মুখার্জি অভিনীত সিনেমাটি মুক্তি পেয়েছে ওটিটি প্ল্যাটফর্মে। আজ রোববার স্ট্রিমিং জায়ান্ট নেটফ্লিক্স এক্সে (টুইটার) ব্ল্যাকের মুক্তির ঘোষণা দেয়।

অমিতাভ বচ্চনও এক্সে (টুইটার) ভক্তদের উদ্দেশ্যে বিষয়টি শেয়ার করেছেন। অমিতাভ লিখেছেন, ব্ল্যাক মুক্তির ১৯ বছর হয়ে গেছে এবং আজ আমরা নেটফ্লিক্সে এটির প্রথম ডিজিটাল রিলিজ উদ্‌যাপন করছি। দেবরাজ এবং মিশেলের যাত্রা আমাদের সকলের জন্য একটি অনুপ্রেরণা এবং আমরা আশা করছি এটি আপনাদেরও শক্তি এবং সমবেদনায় অনুপ্রাণিত করবে।

অমিতাভ ও রানি মুখার্জি ছাড়াও সিনেমাটিতে আরও অভিনয় করেছেন আয়েশা কাপুর, নন্দনা সেন, শেরনাজ পাটেল ও ধৃতিমান চ্যাটার্জি।


আরও খবর



দ্বিতীয়বার মা হলেন আনুশকা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

পুত্রসন্তানের মা হয়েছেন আনুশকা শর্মা। আজ ইনস্টাগ্রামে দ্বিতীয়বার মা-বাবা হওয়ার সুসংবাদ দেন আনুশকা ও বিরাট কোহলি।

এই তারকা দম্পতি জানিয়েছেন, গত ১৫ ফেব্রুয়ারি তাদের দ্বিতীয় সন্তানের জন্ম হয়েছে। যৌথ বিবৃতিতে সদ্যোজাত সন্তানের জন্য সবার শুভকামনা চেয়েছেন এই তারকা দম্পতি। একই সঙ্গে তাদের ব্যক্তিগত গোপনীয়তার প্রতিও সম্মান দেখানোর অনুরোধ করেছেন।

আজ মঙ্গলবার ইনস্টাগ্রামে কোহলি লিখেছেন, আপনাদের সকলকে খুশির সঙ্গে জানাচ্ছি, গত ১৫ ফেব্রুয়ারি আমাদের পরিবারে একজন পুত্র সন্তানের আগমন ঘটেছে। যার নাম রাখা হয়েছে অকায়। আপনাদের সকলের আশীর্বাদ ও দোয়া কামনা করছি। আমরা অনুরোধ করছি, আমাদের গোপনীয়তাকে আপনারা সম্মান করবেন।

আনুশকা শর্মা ও বিরাট কোহলির মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে ২০১৩ সালে। ২০১৭ সালের ১১ ডিসেম্বর ইতালির তাসকেনি প্রদেশের ফ্লোরেন্সে এক ঐতিহ্যবাহী রিসোর্টে বিরাট কোহলির সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন আনুশকা শর্মা।

এটি ছিল ২০১৭ সালে বলিউডের সবচেয়ে আলোচিত বিয়ের অনুষ্ঠান। ২০২০ সালের ২৭ আগস্ট একটি ছবি পোস্ট করে আনুশকা ও বিরাট তাদের সন্তানের আগমনের খবরটি জানিয়েছিলেন সবাইকে। ২০২১ সালের ১১ জানুয়ারি প্রথমবার মা হয়েছেন আনুশকা শর্মা। তারা মেয়ের নাম রাখেন ভামিকা।


আরও খবর



দেশের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি খারাপ: জি এম কাদের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
রংপুর প্রতিনিধি

Image

দেশের বর্তমানে রাজনৈতিক অস্থিরতা চোখে পড়ছে না। কিন্তু ভেতরে ভেতরে অস্থিরতা রয়েছে। তবে দেশের বর্তমান অর্থনৈতিক পরিস্থিতি অত্যন্ত খারাপ। জিনিসপত্রে দাম লাগামহীনভাবে বাড়ছে। এটার জন্য সরকারের কোনও ব্যবস্থাই কাজ করছে না বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় নেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের।

বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রংপুরের পল্লী নিবাসে নির্বাচিত ১১ সংসদ সদস্যকে নিয়ে জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রয়াত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের কবর জিয়ারত শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, সাধারণ মানুষের আয় যেভাবে কমছে সেভাবে জিনিসপত্রের দাম কমছে না। মানুষ কষ্টে আছে, ভেতরে ভেতরে মানুষের মধ্যে ক্ষোভ বাড়ছে। আমরা প্রথম দিন থেকেই সেটা বলছি। দ্রব্যমূল্য সহনীয় করতে না পারলে সামনের দিকে সরকারের দিনগুলো সুখকর হবে না।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের অসন্তোষ বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, আমি ঠিক জানি না অসন্তোষ বলতে কি বোঝায়। আমরা স্পিকারের কাছে আমাদের কী কী প্রত্যাশা তা বলেছি এবং যুক্তি দিয়ে বলেছি। তারপরও অনেকে বলছে রেওয়াজ ছিল না। রেওয়াজ তো মানুষেই তৈরি করে, রেওয়াজ তো কোনও আইন নয়। আসলে তিনি কেন অসন্তুষ্ট হলেন আমার জানা নেই। সংসদের বক্তব্য নিয়ে যারা অসন্তুষ্ট হয়েছেন তারা হয়তো আমার বক্তব্যটা ভালোভাবে বুঝতে পারেন নাই।

এ সময় জাতীয় পার্টির মহাসচিব ও বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ মজিবুল হক চুন্নুসহ জাতীয় পার্টির অন্যান্য কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ ও সংসদ সদস্য উপস্থিত ছিলেন। এর আগে সবাইকে নিয়ে গোলাম মোহাম্মদ কাদের জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রয়াত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের কবর জিয়ারত করেন।


আরও খবর



মাদক-কিশোর গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে ‘অলআউট অ্যাকশন’ : র‌্যাব ডিজি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

Image

মাদক ও কিশোর গ্যাং এর বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার কথা জানিয়েছেন র‌্যাবের মহাপরিচালক এম খুরশীদ হোসেন।

তিনি বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশ হচ্ছে মাদকের একটি ট্রানজিট রোড। এর থেকে যদি বাঁচতে হয়, তবে আমাদের সম্মিলিতভাবে মাদকের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে হবে। এছাড়া মাদক-কিশোর গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে অল-আউট অ্যাকশন-এ যাবে র‌্যাব।

মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে জাতীয় শহীদ মিনারে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের নিরাপত্তা সংক্রান্ত মতবিনিময় শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

এদিন র‍্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈনের লেখা মাদকের সাতসতেরো: বাংলাদেশের বাস্তবতা ও সমাধানসূত্র এবং 'কিশোর গ্যাং: কীভাবে এলো, কীভাবে রুখব শীর্ষক দুটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেন র‌্যাব ডিজি।

এম খুরশীদ হোসেন বলেন, আমাদের মূল কাজ হচ্ছে জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা। মানুষ যেন নির্বিঘ্নে চলাচল করতে পারে। সমাজ ব্যবস্থা যেন সুন্দরভাবে পরিচালনা হতে পারে, সমাজের মানুষ যেন কোনো প্রকার হুমকির মধ্যে না থাকেন সেটি নিশ্চিত করা। আপনারা জানেন রাজধানীর মোহাম্মদপুর ও মিরপুরে এই কিশোর গ্যাং এর বিস্তার খুব বেড়ে গিয়েছিল, যেখানে র‌্যাব অভিযান পরিচালনা করে তা নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছে।

র‌্যাব মহাপরিচালক বলেন, এসব কিশোর গ্যাং এর কেউ না কেউ আশ্রয়-প্রশ্রয় দাতা আছেন। এরা সব সময় থাকে, অতীতেও ছিল এখনও আছে ভবিষ্যতেও থাকবে। আমরা চেষ্টা করছি কিশোর গ্যাং সমূলে কিভাবে বিনাশ করা যায়, পাশাপাশি যারা এদের পরিচালনা করছে আমরা তাদেরকেও আইনের আওতায় আনবো।

এম খুরশীদ বলেন, মাদকের বিষয়ে কিছু দিন আগেও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে মিটিং হয়েছে। সেখানে গোয়েন্দা সংস্থা থেকে শুরু করে সকল বাহিনীর প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন। মাদকের বিষয়টি এমন হয়েছে যে শুধু পুলিশ-র‌্যাব ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর দিয়ে কোনোভাবেই নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয়। বিশ্বের অন্যান্য দেশগুলো মাদক নিয়ন্ত্রণে অনেক বেআইনি পদক্ষেপও নিয়েছে। কিন্তু আমরা সেই পথে যাচ্ছি না, আইনের মধ্যে থেকেই মাদক নিয়ন্ত্রণে কাজ করছি।

র‌্যাব প্রধান বলেন, দেশে যখন জঙ্গী উত্থান হয়েছিল, আমরা তখন দল মত নির্বিশেষে সামাজিকভাবে এর মোকাবিলা করলাম তখন কিন্তু জঙ্গি নির্মূল করা সম্ভব হয়েছে। সেভাবে মাদকও নিয়ন্ত্রণ সম্ভব। এক সময় বাংলাদেশে মাদক আসতো স্থল পথে। তখন বেশি প্রচলন ছিল ফেনসিডিল ও হেরোইনের। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পরে যখন ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক হলো তারপরে কিন্তু বাংলাদেশে ফেনসিডিল আসা বন্ধ হয়েছে। কারণ তখন ভারতের বর্ডার এলাকাগুলোতে ফেনসিডিলের কারখানা ছিল। এরপরেই বাংলাদেশ ফেনসিডিলের চাহিদা অনেকটাই কমে গেছে। স্থল পথে রাজশাহীর চারঘাট, বাগমারা এলাকা দিয়ে গোদাগাড়ীর ওদিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও দিনাজপুর কুমিল্লা বিভিন্ন জায়গা দিয়ে মাদকগুলো আসতো। এখন শুধুমাত্র ফেনসিডিল নয় অনেক বিপজ্জনক মাদক বাংলাদেশে আসছে বিভিন্ন স্থলপথ- বর্ডার এলাকা দিয়ে, জলপথ ও আকাশপথেও আসছে।

কিশোর গ্যাং ও মাদক প্রতিরোধের বিষয়ে লেখা দুটি নিয়ে তিনি বলেন, আমি মনে করি এ ধরনের বই কিশোরদের কাছে পৌঁছে দেওয়া যেতে পারে। পাঠ্য বইয়ে মাদকের কুফল, কিশোর গ্যাং এর কুফলের বিষয়গুলো তুলে ধরা হলে অপরাধ কমে যাবে।

তিনি বলেন, আমরা যদি জাপানের দিকে দেখি, সেখানে শিশুদের প্রথম দুই বছর কোনো পাঠ্য বইয়ের শিক্ষা পড়ানো হয় না। তাদেরকে সেখানে শিখানো হয় ম্যানার (আচার-আচরণ)। দুই বছর পর তাদের পাঠ্য বইয়ে পড়াগুলোকে শেখানো হয়। যদি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে গিয়ে মাদকের কুফল কিশোর গ্যাং এর কুফল নিয়ে আলোচনা করা হয়, বা ক্লাস নেওয়া হয়, তাহলে যথেষ্ট সাড়া পাওয়া যাবে। অতীতেও আমি এ বিষয়গুলো দেখেছি। তাই সর্বোপরি সবাই সব জায়গা থেকে মাদক এবং কিশোর গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে জনসচেতনতা তৈরি করতে হবে।


আরও খবর



স্মৃতিশক্তি বাড়াতে খাদ্যতালিকায় যে সুপারফুডগুলো রাখবেন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জীবন ধারা ডেস্ক

Image

মানবদেহের সামগ্রিক বিকাশ নির্ভর করে মস্তিষ্কের উপর। যার মস্তিস্ক যত তীক্ষ্ণ তার স্মৃতিশক্তি তত ভালো। বয়স বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে মস্তিষ্কের ক্ষয় হওয়া স্বাভাবিক। যে খাবারগুলো মস্তিষ্কের স্মৃতিশক্তি বাড়াতে সাহায্য করবে তা জেনে নিন-

হলুদ-

হলুদে থাকা কারকিউমিন স্মৃতিশক্তি বাড়ানোর পাশাপাশি অ্যালঝেইমার্সের মতো রোগ দূর করতে সহায়ক। এজন্য প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় কাঁচা হলুদ রাখুন।

ব্রকলি-

ব্রকলিতে থাকা পুষ্টিগুণ মানসিক স্বাস্থ্য ভালো রাখতে বেশ কার্যকারী। এতে বিদ্যমান ভিটামিন কে স্মৃতিশক্তি বাড়াতে সাহায্য করে।

ডার্ক চকলেট-

ডার্ক চকলেটে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট কোকোয়া ফ্ল্যাভনয়েড নামে পরিচিত। ৭০% কোকোয়াবিশিষ্ট  ডার্ক চকলেট মস্তিষ্কের স্মৃতিশক্তি বাড়াতে সবচেয়ে ভালো কাজ করে।

চর্বিযুক্ত মাছ-

বিভিন্ন ধরনের চর্বিযুক্ত মাছ যেমন স্যামন, সার্ডিন ও ট্রাউট  ওমেগা-৩ এর প্রধান উৎস। ওমেগা-৩ মস্তিষ্কের স্মৃতিশক্তি লোপের শঙ্কা কমায়।

ব্লুবেরি-

ব্লুবেরিতে বিদ্যমান অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের কারনে এটি ব্রেইনবেরি নামেও পরিচিত। বিশেষজ্ঞরা বলেন প্রতিদিন খাদ্যতালিকায় ব্লুবেরি রাখলে এটি আমাদের মস্তিষ্কের বার্ধক্যজনিত রোগের ঝুঁকি কমায়। সেসঙ্গে স্মৃতিশক্তি বাড়াতেও সাহায্য করে।


আরও খবর
খাতনা করার আগে-পরে যেসব বিষয় জানা জরুরি

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

নারীর জন্য প্রয়োজনীয় পাঁচ ভিটামিন

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪