আজঃ বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২
শিরোনাম
চট্টগ্রাম-দোহাজারী রেলপথ

৫২ কিলোমিটার ডুয়েলগেজে রূপান্তরেই ১০,০৪৮ কোটি টাকা

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | ১৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কক্সবাজারের সঙ্গে রেলসংযোগ স্থাপনে নির্মাণ করা হচ্ছে দোহাজারী-কক্সবাজার রেলপথ। যতিও চট্টগ্রাম থেকে দোহাজারী অংশটি জরাজীর্ণই রয়ে গেছে। তাই মিটারগেজ এ রেলপথটি ডুয়েলগেজে রূপান্তরের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। তবে প্রকল্পটির ব্যয় ধরা হয়েছে অনেক বেশি। সমজাতীয় প্রকল্পের তুলনায় তা প্রায় তিনগুণ। এমনকি নতুন রেলপথ নির্মাণের চেয়েও ডুয়েলগেজ রূপান্তরে ব্যয় বেশি ধরা হয়েছে।

তথ্যমতে, বর্তমানে চট্টগ্রাম থেকে দোহাজারী পর্যন্ত ৪৭ কিলোমিটার মিটারগেজ রেলপথ রয়েছে। এ পথটি ডুয়েলগেজে রূপান্তরের পাশাপাশি ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথের সঙ্গে কানেক্টিং কার্ভও নির্মাণ করা হবে। এতে রেলপথটির দৈর্ঘ্য দাঁড়াবে ৫২ কিলোমিটার। প্রকল্পটি বাস্তবায়নে প্রায় ১০৩ একর জমি অধিগ্রহণ করতে হবে। ডাবল লাইন হওয়ায় ১০৭ কিলোমিটার ট্র্যাক ডুয়েলগেজে রূপান্তর ছাড়াও ২৪টি মেজর ও ৯৫টি মাইনর সেতু পুনর্নির্মাণ করতে হবে প্রকল্পটির আওতায়। এ প্রকল্পের আওতায় দুটি স্টেশন নতুন করে নির্মাণ করতে হবে।

চট্টগ্রাম-দোহাজারী রেলপথ ডুয়েলগেজে রূপান্তরে সম্ভাব্য ব্যয় ধরা হয়েছে ১১৬ কোটি ৮৪ লাখ ডলার বা ১০ হাজার ৪৮ কোটি ১৬ লাখ টাকা। এতে কিলোমিটারপ্রতি ব্যয় পড়ছে ১৯৩ কোটি ২৩ লাখ টাকা। অথচ দোহাজারী থেকে কক্সবাজার হয়ে গুনদুম পর্যন্ত ১২৮ কিলোমিটার ডুয়েলগেজ রেলপথ নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ১৮ হাজার ৩৪ কোটি ৪৮ লাখ টাকা। এক্ষেত্রে নতুন রেলপথ নির্মাণে ব্যয় পড়ছে কিলোমিটারপ্রতি ১৪০ কোটি ৮৯ লাখ টাকা।

এদিকে জয়দেবপুর-ঈশ্বরদী মিটারগেজ রেলপথকে ডুয়েলগেজে রূপান্তরে কিলোমিটারপ্রতি ব্যয় পড়ছে ৬৪ কোটি ৯ লাখ টাকা। প্রকল্পটির আওতায় ১৯৮ দশমিক ২৯ কিলোমিটার রেলপথকে ডুয়েলগেজে রূপান্তরে ব্যয় পড়ছে ১২ হাজার ৭০৮ কোটি ৩২ লাখ টাকা। এ প্রকল্পটিতে ঋণ দিতে চায় জাপান আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সংস্থা (জাইকা)। আজ এ প্রকল্পের পিডিপিপি নিয়েও ইআরডির সঙ্গে রেলওয়ের বৈঠক রয়েছে।

সূত্রমতে, চট্টগ্রাম-দোহাজারী রেলপথ ডুয়েলগেজে রূপান্তরে এডিবির কাছে ঋণ চাওয়া হয়েছে ৭৬ কোটি ৭৬ কোটি ডলার বা ছয় হাজার ৬০১ কোটি ৪০ লাখ টাকা। বাকি তিন হাজার ৩৪৬ কোটি ৭৬ লাখ টাকা সরকারের তহবিল থেকে দেয়া হবে। যদিও প্রকল্পটির ব্যয় অনেক বেশি মনে করছে এডিবি। গত মার্চে রেলওয়ে ও এডিবির মাঝে অনুষ্ঠিত দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে এ মন্তব্য করেন এডিবির মিশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে রেলওয়ের মহাপরিচালক ডিএন মজুমদার বলেন, চট্টগ্রাম-দোহাজারী মিটারগেজ রেলপথ ডুয়েলগেজে রূপান্তর প্রকল্পটির আওতায় ডাবল লাইন নির্মাণ করা হবে। ফলে প্রকল্পটির আওতায় ১০৭ কিলোমিটার ডুয়েলগেজ রেলপথ নির্মাণ করা হবে। তাই ব্যয় কিছুটা বেশি পড়ছে। এছাড়া জমি অধিগ্রহণেও প্রচুর ব্যয় হবে। তাই ব্যয় কিছুটা বেশি ধরা হয়েছে।

যদিও এ বক্তব্য সঠিক নয় বলে মনে করছেন রেলওয়ের একাধিক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা। তারা জানান, জমি অধিগ্রহণ বাদ দিলেও রেলপথটি ডুয়েলগেজে রূপান্তরে কিলোমিটারপ্রতি ব্যয় হবে ১৪৬ কোটি ৫৩ লাখ টাকা। আর ডাবল লাইন ধরলেও কিলোমিটারপ্রতি ব্যয় পড়ে ৭১ কোটি ২১ লাখ টাকা। অথচ জয়দেবপুর-ঈশ্বরদী মিটারগেজ রেলপথ ডুয়েলগেজ রূপান্তর প্রকল্পে ব্যয় পড়ছে আরও কম। আর ওই প্রকল্পেও ডাবল লাইন নির্মাণ করা হবে।

সূত্র জানায়, চট্টগ্রাম-দোহাজারী রেলপথ ডুয়েলগেজে রূপান্তর প্রকল্পটির সম্ভাব্যতা যাচাই ও বিস্তারিত নকশা প্রণয়ন শেষ হয়েছে। ফেব্রুয়ারি মাসে প্রকল্পটির পিডিপিপি অনুমোদনের জন্য পরিকল্পনা কমিশনে পাঠানো হয়েছে। এতে দেখা যায়, প্রকল্পটির জমি অধিগ্রহণে ব্যয় ধরা হয়েছে দুই হাজার ৪২৮ কোটি ৩৯ লাখ টাকা। আর মূল ট্র্যাক (রেলপথ) নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে এক হাজার ৭৫৩ কোটি ৮৭ লাখ টাকা এবং মাটির কাজে (আর্থ ওয়ার্ক) এক হাজার ৭২ কোটি ৭৭ লাখ টাকা। এছাড়া উল্লেখযোগ্য ব্যয়ের মধ্যে রয়েছে স্টেশন ও বিল্ডিং নির্মাণে ৭১১ কোটি ৯৭ লাখ টাকা, সেতু ও কালভার্ট নির্মাণে এক হাজার ৩১৪ কোটি ৩৬ লাখ টাকা, সিগন্যালিং ও টেলিকমে ৩০৫ কোটি ৭৭ লাখ টাকা এবং প্ল্যান্ট ও ইক্যুইপমেন্টে ৩০৯ কোটি ৭৩ লাখ টাকা। এর বাইরে পরামর্শক খাতে ৫৮৮ কোটি টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে। আর প্রাইস কনটিনজেন্সি খাতে ৭৩০ কোটি ৭৭ লাখ টাকা ও ফিজিকাল কনটিনজেন্সি খাতে ১৮২ কোটি ৬৯ লাখ টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে।


আরও খবর



আফগানিস্তানে ভারী বৃষ্টি-বন্যায় নিহত ২২

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৫ মে ২০২২ | ৩৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আফগানিস্তানে ভারী বৃষ্টি ও বন্যায় অন্তত ২২ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এর মধ্যেই এবার দেশটিতে তীব্র বৃষ্টির ফলে বন্যার সৃষ্টি হয়েছে। এতে অন্তত ২২ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এছাড়া অসংখ্য ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত এবং ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ফসলের জমি। খবর প্রকাশ করেছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আজ বৃহস্পতিবার (৫ মে) আফগানিস্তানের জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ জানিয়েছে, দেশের এক তৃতীয়াংশেরও বেশি প্রদেশে দুর্যোগ ব্যবস্থার মোকাবিলা করছে তালেবান সরকার। সাহায্যের জন্য আন্তর্জাতিক ত্রাণ সংস্থাগুলোর কাছেও যাবে তারা।

আফগানিস্তানের জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের যোগাযোগ ও তথ্য প্রধান হাসিবুল্লাহ শেখানি বলেন, ১২টি প্রদেশে বন্যা ও ঝড়ের কারণে ২২ জন মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া আহত হয়েছেন আরও ৪০ জন।

এর বাইরে ৫০০ ঘরবাড়ি ধ্বংস, ২ হাজার বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত, ৩০০ গবাদি পশুর মৃত্যু এবং প্রায় ৩ হাজার একর ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, যোগ করেন তিনি।


আরও খবর



রোনালদোর সাবেক ক্লাব জুভেন্টাসে যাচ্ছেন ডি মারিয়া

প্রকাশিত:সোমবার ২৫ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৫ এপ্রিল ২০২২ | ৩৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

লিওনেল মেসি আর ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর সঙ্গে একই দলের হয়ে খেলার সৌভাগ্য হয়েছে আর্জেন্টাইন ফুটবল তারকা আনহেল ডি মারিয়ার। জাতীয় দলে মেসির সঙ্গে খেলা ৩৪ বছর বয়সী এ ফরোয়ার্ড এখন ক্লাব ফুটবলেও একই সঙ্গে খেলছেন। দুইজনই মাঠ মাতাচ্ছেন প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ের হয়ে। তবে চলতি মৌসুমের পর মেসিকে ছেড়ে যাচ্ছেন ডি মারিয়া। ক্লাব ফুটবলে তার নতুন ঠিকানা হচ্ছে রোনালদোর সাবেক ক্লাব জুভেন্টাস।

চলতি মৌসুমেই পিএসজির সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ শেষ হবে ডি মারিয়ার। ইচ্ছে থাকলেও চুক্তির মেয়াদ না বাড়ায় ইতালিয়ান ক্লাবে পাড়ি দিচ্ছেন তিনি। আপাতত জুভেন্টাসের সঙ্গে ডি মারিয়ার চুক্তি হবে ১ বছরের। তবে দুই পক্ষের মধ্যে আলোচনা চলছে- সেই চুক্তির মেয়াদ অন্তত দুই বছরে নেওয়ার। জুভেন্টাস কোচ ম্যাসিমিলানো অ্যালেগ্রি মনে করেন, তার দলের জন্য ডি মারিয়া দারুণ সংযোজন হবেন।

২০১৫ সালের ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে ৫২ মিলিয়ন ইউরোতে পিএসজিতে যোগ দেন আর্জেন্টাইন ফুটবল তারকা। সেখানে পার করেন সাত বছর। প্যারিসের ক্লাবটিতে এই সাত বছরের ক্যারিয়ারে পাঁচটি লিগ ওয়ান শিরোপা জিতেছেন এই আর্জেন্টাইন। এখন পর্যন্ত ২৯১ ম্যাচে ৯১ বার প্রতিপক্ষের জাল খুঁজে পেয়েছেন ডি মারিয়া। সতীর্থদের দিয়ে গোল করিয়েছেন ১১৭ বার।


আরও খবর



ইরাকে ভয়াবহ ধূলিঝড়ে হাসপাতালে ভর্তি পাঁচ হাজার

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৬ মে ২০২২ | ৩৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আবারও ভয়াবহ ধূলিঝড়ের কবলে পড়েছে ইরাক। এ নিয়ে এক মাসের মধ্যে সাত বার ধূলিঝড়ের কবলে পড়ল ইরাক।

বৃহস্পতিবার দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাইফ আল-বাদর এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, সর্বশেষ ধূলিঝড়ে রাজধানী বাগদাদে অন্তত একজন নিহত এবং কমপক্ষে পাঁচ হাজার মানুষ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এছাড়া কয়েক ঘণ্টা ধরে বিমানের উঠানামা বন্ধ থাকে।

দেশটিতে দফায় দফায় এ ধরনের ধূলিঝড়ের কারণে বিপুল সংখ্যক লোকজন অ্যাজমার মতো শ্বাস-প্রশ্বাসজনিত রোগে ভুগছেন। এছাড়া যে সমস্ত বৃদ্ধ লোক হার্টের সমস্যায় ভুগছেন তাদের জন্য এই ধূলিঝড় বাড়তি ভোগান্তির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ইরাকের স্বাস্থ্য বিভাগের মুখপাত্র বলেন, ঝড়ের ফলে যে হাজার হাজার মানুষ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন তাদের বেশিরভাগই প্রাথমিক বা সামান্য চিকিৎসা নিয়ে হাসপাতাল থেকে চলে গেছেন।

গতকাল যখন ধূলিঝড় হয় তখন বাগদাদ এবং পশ্চিমাঞ্চলীয় আনবার প্রদেশসহ ছয়টি প্রদেশ ধুলোবালির চাদরে ঢেকে যায়।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে মধ্যপ্রাচ্যে এ ধরনের ধূলিঝড়ের প্রবণতা বেড়েছে। নদীর পানির অত্যধিক ব্যবহার, বেশি বেশি বাঁধ নির্মাণ এবং বন-জঙ্গল উজাড়ের কারণে এই সমস্যা তীব্রতর হচ্ছে।


আরও খবর



আইসিসি র‌্যাংঙ্কিংয়ে আফগানদের পেছনে ফেলল টাইগাররা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৫ মে ২০২২ | ৩৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত ফরম্যাট তথা টি-টোয়েন্টিতে এশিয়ার সেরা দলগুলোর মধ্যে অন্যতম আফগানিস্তান। ক্রিকেটের এই উঠতি দলটি টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে দুর্দান্ত খেলে যাচ্ছে।

আফগানিস্তান নিজেদের খেলা ৯১টি টি-টোয়েন্টির মধ্যে ৬১টি ম্যাচে জয় পেয়েছে। অথচ বাংলাদেশ ১২৫ ম্যাচে জয় পেয়েছে মাত্র ৪৪টিতে। আর সবশেষ ৯১টি টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশ জয় পেয়েছে মাত্র ৩৪টিতে। যেখানে আফগানিস্তানের জয় ৯১ ম্যাচে ৬১টি। 

এশিয়ার অন্যতম সেরা দল ভারত সবশেষ ৯১ ম্যাচে জয় পেয়েছে ৬২টি ম্যাচে। পাকিস্তান সবশেষ ৯১ ম্যাচের মধ্যে জয় পেয়েছে ৬০টিতে। আর শ্রীলংকা সবশেষ ৯১ ম্যাচের মধ্যে জয় পেয়েছে মাত্র ২৮টি। সবশেষ ৯১টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে জয়ের দিক থেকে ভারতের পরেই আছে আফাগানিস্তান, এরপর পাকিস্তান, বাংলাদেশ তারপর শ্রীলংকা।

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ৯১ ম্যাচে জয়ের দিক থেকে আফগানিস্তান এগিয়ে থাকলেও আইসিসির সবশেষ র‌্যাংকিংয়ে আফগানদের চেয়ে এগিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ। গত বছরের মে থেকে জয়ের দিক থেকে বাংলাদেশ এগিয়ে থাকায় আফগানদের পেছনে ফেলেছে টাইগাররা। আইসিসির বার্ষিক হালনাগাদে বাংলাদেশ এগিয়েছে এক ধাপ। টেস্টে আগের মতোই নবম ও ওয়ানডেতে সপ্তম স্থানে রয়েছে তারা।

আইসিসির বার্ষিক হালনাগাদ প্রকাশ করা হয় বুধবার। তিন সংস্করণে শীর্ষস্থানে কোনো পরিবর্তন আসেনি। টেস্টে আগের মতোই অস্ট্রেলিয়া, ওয়ানডেতে নিউজিল্যান্ড ও টি-টোয়েন্টিতে ভারত শীর্ষে আছে। ২০২১ সালের মে থেকে দলগুলোর পারফরম্যান্স বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে শতভাগ। আগের দুই বছরের পারফরম্যান্স বিবেচনায় এসেছে ৫০ ভাগ করে।

সবশেষ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে দেশের মাটিতে স্পিন মঞ্চ সাজিয়ে অস্ট্রেলিয়া (৪-১) ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে (৩-২) সিরিজ জেতে বাংলাদেশ। এর আগে জিম্বাবুয়েতে সিরিজ জেতে ২-১ ব্যবধানে। এই জয়গুলো র‌্যাংকিংয়ে উন্নতিতে বড় ভূমিকা রেখেছে।

দুই রেটিং পয়েন্ট বেড়ে বাংলাদেশের নতুন রেটিং এখন ২৩৩। আফগানিস্তান এ সময় ৬ রেটিং পয়েন্ট হারিয়েছে। ২২৬ রেটিং নিয়ে দুই ধাপ পিছিয়ে দশ নম্বরে নেমে গেছে দলটি। এক ধাপ এগিয়ে নবম স্থানে উঠেছে শ্রীলংকা, তাদের পয়েন্ট ২৩০।

শীর্ষস্থান ধরে রাখা ভারতের রেটিং পয়েন্ট আগের মতোই ২৭০। তবে দুইয়ে থাকা ইংল্যান্ডের চেয়ে ৫ পয়েন্ট এগিয়ে দলটি, ইংলিশরা চার পয়েন্ট হারিয়েছে (২৬৫)। তিন পয়েন্ট হারিয়েছে তৃতীয় স্থানে থাকা পাকিস্তান (২৬১)।

নিউজিল্যান্ডকে পেছনে ফেলেছে দক্ষিণ আফ্রিকা ও অস্ট্রেলিয়া। ২৫০ পয়েন্ট নিয়ে কেন উইলিয়ামসনের দল রয়েছে ষষ্ঠ স্থানে। ২৫৩ পয়েন্ট নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা চতুর্থ এবং ২৫১ পয়েন্ট নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার অবস্থান পঞ্চম। ২৪০ পয়েন্ট নিয়ে বাংলাদেশের এক ধাপ ওপরে সপ্তম স্থানে রয়েছে দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ।


আরও খবর



দেশের গ্যাস নিয়ে সুখবর জানালেন নসরুল হামিদ

প্রকাশিত:সোমবার ০২ মে 2০২2 | হালনাগাদ:সোমবার ০২ মে 2০২2 | ৪১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঈদের আগে গ্যাস নিয়ে সুখবর দিলেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। সোমবার (২ মে) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে প্রতিমন্ত্রী তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে একটি পোস্টে উল্লেখ করেছেন, ঈদের ঠিক আগে আগে আপনাদের সবার সঙ্গে গ্যাস নিয়ে একটি সুখবর দিতে চাই। আমাদের রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান সিলেট গ্যাস ফিল্ডস লিমিটেড এর কৈলাশটিলা ৭ নং কূপে দৈনিক প্রায় ২ কোটি ঘনফুট গ্যাস আবিষ্কার হয়েছে।

পোস্টে তিনি লিখেছেন, সিলেট গ্যাস ফিল্ডস লিমিটেড (এসজিএফএল)-এর কৈলাশটিলা গ্যাস ফিল্ডে এখন পর্যন্ত ৭টি কূপ খনন করা হয়েছে। এর মধ্যে চলমান দুটি কূপ থেকে দৈনিক ২ কোটি ৯০ লাখ ঘনফুট গ্যাস উৎপাদন করে জাতীয় গ্রিডে সরবরাহ করা হচ্ছে। সাময়িকভাবে বন্ধ কৈলাশটিলা ৭ নং কূপে ওয়ার্কওভার করে লোয়ার গ্যাস স্যান্ড জোনে লগিং, পারফোরেশন ও টেস্টিং করে দৈনিক কমপক্ষে ১ কোটি ৮০ থেকে ৯০ লাখ ঘনফুট গ্যাস এবং দৈনিক ১৮৭ ব্যারেল কনডেনসেট আবিষ্কার নিশ্চিত করা হয়েছে। আমরা আশা করছি অবশিষ্ট কাজ শেষ করে আগামী ১০ মে ২০২২ তারিখের মধ্যে কৈলাশটিলার ৭ নং কূপ থেকে দৈনিক ১ কোটি ৯০ লাখ ঘনফুট গ্যাস উৎপাদন করে জাতীয় গ্রিডে সরবরাহ করতে পারব।

প্রতিমন্ত্রী আরও উল্লেখ করেছেন, আপনাদের স্মরণ করিয়ে দিতে একটি তথ্য দিয়ে রাখতে চাই, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৫ সালের ৯ আগস্ট বিদেশি শেল অয়েল কোম্পানির কাছ থেকে পাচঁটি বৃহৎ গ্যাস ফিল্ড নামমাত্র ৪.৫ মিলিয়ন পাউন্ড স্টার্লিং মূল্যে ক্রয় করে প্রাকৃতিক গ্যাসের উপর দেশীয় মালিকানা প্রতিষ্ঠা করে গেছেন। বঙ্গবন্ধুর ক্রয়কৃত পাচঁটি বৃহৎ গ্যাস ফিল্ডের মধ্যে রাষ্ট্রীয় মালিকাধীন প্রতিষ্ঠান সিলেট গ্যাস ফিল্ডস লিমিটেড (এসজিএফএল)-এর কৈলাশটিলা গ্যাস ফিল্ড অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: নসরুল হামিদ

আরও খবর