আজঃ সোমবার ০৮ মার্চ ২০২১
শিরোনাম

আবারও নামছে তাপমাত্রা, তিন জেলায় শৈত্যপ্রবাহ

প্রকাশিত:শনিবার ২৩ জানুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৯৮জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্রায় এক সপ্তাহে তাপমাত্রা কিছুটা বেশি ছিল। সঙ্গে ছিল ঘন কুয়াশা। এরপর গত সপ্তাহের শেষে এসে দুদিনের গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি। এরপর গতকাল শুক্রবার সূর্যের দেখা পাওয়া গেলেও আজ শনিবার (২৩ জানুয়ারি) আবারও নেমে গেছে তাপমাত্রা। দেশের তিন জেলার ওপর দিয়ে আবারও বইতে শুরু করেছে শৈত্যপ্রবাহ। এটি আরও কিছু এলাকায় ছড়িয়ে পড়তে পারে। পাশাপাশি আগামী দুই থেকে তিনদিন এই ধরনের আবহাওয়াই বিরাজ করবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।

রাঙামাটি, শ্রীমঙ্গল ও পঞ্চগড়ের ওপর দিয়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। তা অব্যাহত থাকতে পারে। রাজশাহী, ঈশ্বরদী, বদলগাছি ও রাঙামাটির তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যেই আছে।

আজ দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা শ্রীমঙ্গলে ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা গত কয়েকদিনের মধ্যে সবচেয়ে কম। বিভাগীয় শহরগুলোর মধ্যে ঢাকায় আজ ১৩,  ময়মনসিংহে ১৩ দশমিক ২, চট্টগ্রামে ১৩ দশমিক ২, সিলেটে ১২ দশমিক ৫, রাজশাহীতে  ১০ দশমিক ৬,  রংপুরে ১২, খুলনায়  ১২ দশমিক ৪ এবং  বরিশালে ১১ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। যা গত সপ্তাহের তুলনায় প্রায় ২ থেকে ৩ ডিগ্রি কম। সারাদেশের তাপমাত্রা ৯ থেকে ১৫ ডিগ্রির মধ্যেই অবস্থান করছে।

আবহাওয়াবিদ আব্দুল মান্নান বলেন, বাতাস কমে যাওয়ার কারণে বেড়ে গিয়েছিল কুয়াশা। পশ্চিমা লঘুচাপের প্রভাবে বৃষ্টি হচ্ছিল। এখন এসব কেটে গিয়ে আবারও বইছে উত্তরের হাওয়া। ফলে তাপমাত্রা কিছুটা নেমে গেছে। আগামী দুদিন এই অবস্থা থাকতে পারে। এরপর আবার তাপমাত্রা কিছুটা বাড়তে পারে। তিনি জানান, দেশের কয়েকটি জেলায় এখন শৈত্যপ্রবাহ বইছে। এটি আরও এলাকায় ছড়িয়ে পড়তে পারে।

আবহাওয়া অধিদফতর জানায়, উপমহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও এর আশেপাশের এলাকায় অবস্থান করছে। মৌসুমি লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। এর প্রভাবে দেশের কোথাও কোথাও আকাশ আংশিক মেঘলাসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।  অন্যদিকে মধ্যরাত থেকে সকাল  পর্যন্ত সারাদেশের মাঝারি থেকে ঘন  কুয়াশা পড়তে পারে।

Share

আরও খবর
গুলি করে ইউপি সদস্যকে হত্যা

সোমবার ০৮ মার্চ ২০২১




বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে নেত্রকোনায় আনন্দ উদযাপন

প্রকাশিত:রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১ | ৬১জন দেখেছেন
Share

Image

নেত্রকোনা থেকে মোনায়েম খান

ঐতিহাসিক ৭ মাচ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠান ও বাংলাদেশ এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের চুড়ান্ত সুপারিশ প্রাপ্তিতে রবিবার বিকালে নেত্রকোনা মডেল থানার উদ্যোগে কেক কেটে আনন্দ উদযাপন করা হয়েছে।

এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা পুলিশ সুপার আকবর আলী মুনসী, অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সংরক্ষিত আসনের এমপি হাবিবা রহমান খান শেফালী, বিশেষ অতিথি জেলা প্রশাসক কাজি মো: আব্দুর রহমান, পৌর মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ নজরুল ইসলাম খান সহ জেলার প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন। 

নিউজ ট্যাগ: নেত্রকোনা
Share

আরও খবর



ইউএস বাংলা থেকে প্রায় সাড়ে চার কোটি টাকার স্বর্ণ উদ্ধার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১১৮জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের পরে যাত্রীদের উচ্ছিষ্ট খাবারের বক্স গাড়িতে তোলার পর তল্লাশি চালিয়ে একটি বক্স থেকে ৬০ পিস স্বর্ণের বার জব্দ করে

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে দুবাই থেকে আসা ইউএস বাংলা এয়ারলাইনস থেকে ৬ কেজি স্বর্ণ জব্দ করেছে শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগ। এসময় সন্দেহভাজন ৭ জনকে আটক করা হয়েছে।

শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার (৯ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাতটার দিকে ইউএস বাংলার দুবাই থেকে আসা ফ্লাইট বিএস ৩৪২ শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের পরে যাত্রীদের উচ্ছিষ্ট খাবারের বক্স গাড়িতে তোলার পর তল্লাশি চালিয়ে একটি বক্স থেকে ৬০ পিস স্বর্ণের বার জব্দ করে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের সদস্যরা। যার আনুমানিক মূল্য প্রায় সাড়ে চার কোটি টাকা।

Share

আরও খবর



বাইডেনের নির্দেশে সিরিয়ায় বিমান হামলা, নিহত ১৭

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৭৮জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সিরিয়ায় ইরানের অনুগত মিলিশিয়া বাহিনীর স্থাপনায় বিমান হামলা চালিয়েছে মার্কিন বাহিনী। পেন্টাগন অফিস জানিয়েছে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের অনুমতি নিয়ে এই হামলা চালানো হয়েছে।

আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হামলায় অন্তত ১৭ জন ইরান সমর্থিত যোদ্ধা নিহত হয়েছে। ইরাকে মার্কিন বাহিনীর স্থাপনায় হামলার জেরে বদলা হিসেবে এই হামলা বলে পেন্টাগন জানিয়েছে।

মার্কিন মুখপাত্র জন কিরবি এক বিবৃতিতে বলেছেন, প্রেসিডেন্ট বাইডেনের মার্কিন বাহিনী পূর্ব সিরিয়ায় ইরান-সমর্থিত গোষ্ঠীর স্থাপনায় বিমান হামলা চালিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ইরাকে মার্কিন ও জোট কর্মকর্তাদের ওপর সাম্প্রতিক হামলা এবং ওই কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ক্রমাগত হুমকির জবাবে এই হামলার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস এএফপি'কে জানিয়েছে, হামলায় ১৭ জন ইরান সমর্থিত যোদ্ধা নিহত হয়েছেন।

সংস্থার প্রধান রামি আব্দুল রহমান বলেন, হামলায় যুদ্ধাস্ত্র বহনকারী তিনটি লরি ধ্বংস হয়েছে অনেক হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। আল জাজিরা বিবিসি।

Share

আরও খবর



প্রবাসী আয়ে শীর্ষ তিন দেশের মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ

প্রকাশিত:সোমবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১১৫জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

২০২০ সালে প্রবাসী আয়ে শীর্ষ তিন দেশের মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশও। প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ব্রিটেনের ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিট। ২০২১ সালে রেমিট্যান্স ৭ শতাংশ কমবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে সংস্থাটি। প্রবাসী আয়ে রেকর্ড করা বাকি দুই দেশ মেক্সিকো আর পাকিস্তান।

মহামারিতে ২০২০ সালের পুরোটাই বিপর্যস্ত ছিলো বিশ্ব অর্থনীতি। বন্ধ ছিলো আন্তর্জাতিক যোগাযোগ। বিভিন্ন দেশে প্রবাসী আয় ছিলো নিম্নমুখী। কিন্তু বাংলাদেশের চিত্র ভিন্ন। ব্রিটিশ গবেষণা সংস্থা ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্সের রিপোর্ট বলছে, ২০২০ সালে প্রবাসী আয়ে রেকর্ড গড়েছে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও মেক্সিকো।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০২০ সালে বাংলাদেশে রেমিট্যান্স এসেছে ১৯শ' ৮০ কোটি ডলার। যেখানে ২০১৯ সালে রেমিট্যান্স এসেছিলো ১৮শ' ৪০ কোটি ডলার। গেলো বছর মেক্সিকোর রেমিট্যান্স এসেছে ৪ হাজার ৫০ কোটি ডলার। পাকিস্তানের রেমিট্যান্স এসেছে ২৪শ' ১০ কোটি ডলার। এই তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে বাংলাদেশ। বিশ্বব্যাংক বলছে, ২০১৯ সালে মেক্সিকোর রেমিট্যান্স ছিলো ৩৯শ কোটি ডলার আর পাকিস্তানের রেমিট্যান্স ছিলো ২২শ' ২০ কোটি ডলার।

কোভিড নাইনটিন অ্যান্ড মাইগ্র্যান্ট রেমিট্যান্স বিষয়ক এই প্রতিবেদনে বলা হয়, সারাবিশ্বে ২০১৯ সালের তুলনায় ২০২০ সালে রেমিট্যান্স প্রবাহ কমেছে অন্তত ৫ হাজার কোটি ডলার। সারাবিশ্বের বিভিন্ন দেশ গেলো বছর ৬৬ হাজার ৬শ' কোটি ডলার রেমিট্যান্স পেয়েছে, যেখানে ২০১৯ সালে পেয়েছিলো ৭১ হাজার ৬শ' কোটি ডলার। ২০২১ সালেও নিম্নমুখী এ প্রবণতা অব্যাহত থাকবে বলে জানায় সংস্থাটি। সংস্থাটি বলছে, ২০২১ সালে সারাবিশ্বে রেমিট্যান্স প্রবাহ কমেছে ৭ শতাংশ, যেখানে ২০০৯ সালের মহামন্দার সময় রেমিট্যান্স প্রবাহ কমেছিলো ৫ শতাংশ।

মহামারিতে রেমিট্যান্স প্রবাহে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। অথচ এই রেমিট্যান্স আয়ই অনেক দরিদ্র দেশের আয়ের অন্যতম উৎস। প্রবাসী আয় বেশি আসে এমন শীর্ষ ১০টি উন্নয়নশীল দেশের মধ্যে ৭টিরই গেলো বছর রেমিট্যান্স কমেছে।

প্রবাসী আয় কমার তালিকায় আছে ভারত, চীন, ফিলিপিন্স, মিসর, নাইজেরিয়া, ভিয়েতনাম ও ইউক্রেন। ভারতে প্রবাসী আয় ২০১৯ সালের চেয়ে ৮শ' কোটি ডলার কমেছে। ২০২০ সালে দেশটিতে প্রবাসী আয় এসেছে ৭ হাজার ৫শ' ৯০ কোটি ডলার। চীনের প্রবাসী আয় কমেছে ৯শ' কোটি ডলার, রেমিট্যান্স এসেছে ৫ হাজার ৯শ' ৫০ কোটি ডলার।

নিউজ ট্যাগ: রেমিট্যান্স
Share

আরও খবর
স্বর্ণের দাম আরেক দফা কমলো

শনিবার ০৬ মার্চ ২০২১




‘আমরা চাই, মানুষ বীমা সম্পর্কে আরও আস্থাশীল হোক’

প্রকাশিত:সোমবার ০১ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০১ মার্চ ২০২১ | ১০৯জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
বঙ্গবন্ধু শিক্ষা বীমা চালু করা হয়েছে। বার্ষিক ৮৫ টাকা দিয়ে একটা পলিসি করতে পারবে। এক্ষেত্রে নতুন বিবাহিত কাপল বীমা করলে সন্তান শিক্ষা সমাপনী পর্যন্ত আর কোনো সমস্যায় পড়তে হবে না, এরকম ব্যবস্থা করতে হবে

বীমার প্রিমিয়াম জমা দেয়া ও ক্ষতি নিরূপণে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার (১ মার্চ) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জাতীয় বীমা দিবস-২০২১ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা চাই, মানুষ বীমা সম্পর্কে আরও আস্থাশীল হোক। এতে তারা যেন সুফলটা ভোগ করতে পারে। সেজন্য বীমা পদ্ধতির আধুনিকায়ন ও যাবতীয় আইন করে দিয়েছি। বীমায় গ্রাহকদের সর্বোচ্চ সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে। বীমার দাবি পূরণে সতর্ক থাকতে হবে। গ্রাহকের পাওনা সহজে পাওয়ার বিষয়ে যত্নবান হতে হবে। পাশাপাশি আর্টিফিশিয়াল ক্ষতি দেখিয়ে কেউ যেন বীমা দাবি করতে না পারে, সে ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের দেশে এই সমস্যা আছে। একটা সুবিধার ব্যবহারের চেয়ে অপব্যবহার করতে চায় অনেকে। এ বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। আমি হাতেনাতে ধরতে পেরেছি বলে বললাম। বীমা জীবন ঘনিষ্ঠ সেবা। এই সেবাকে যাতে অন্যভাবে ব্যবহার করতে না পারে, খেয়াল রাখতে হবে। অবশ্য এটা এখন অনেকে কমে গেছে। বীমার সুফল সম্পর্কে সচেতনতার অভাব আছে। সচেতনতা বাড়াতে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে। জাতির পিতা এই সচেতনতা তৈরিতে কাজ করেছিলেন। ১৯৬১ সালের ১ মার্চ আলফা ইনস্যুরেন্স কোম্পানিতে আঞ্চলিক প্রধান হিসেবে যোগদান করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এখানে বসেই ৬ দফা রচনা করেছিলেন। তাই এটা শুধু বীমার নয়, রাজনৈতিকভাবেও গুরুত্বপূর্ণ।

শেখ হাসিনা বলেন, বঙ্গবন্ধু শিক্ষা বীমা চালু করা হয়েছে। বার্ষিক ৮৫ টাকা দিয়ে একটা পলিসি করতে পারবে। এক্ষেত্রে নতুন বিবাহিত কাপল বীমা করলে সন্তান শিক্ষা সমাপনী পর্যন্ত আর কোনো সমস্যায় পড়তে হবে না, এরকম ব্যবস্থা করতে হবে। বার্ষিক ২৮৫ টাকা দিয়ে একজন খেলোয়াড়ও নিজের জীবন সুরক্ষিত রাখতে পারবে প্রবাসীদের জন্যও বীমার সুযোগ রাখা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু যুদ্ধ বিধ্বস্ত দেশ গড়ার কাজ করে গেছেন। শূন্য থেকে শুরু করেন। অর্থনৈতিক উন্নতিসহ সব জায়গায় হাত দিয়েছেন। একটি রাষ্ট্র গঠনে সব কাজই তিনি করে গেছেন। উন্নয়নের এই পথেই আসে আঘাত। তাকে হত্যা করা হয়। শুধু তাকে নয় পুরো পরিবারকে। এতে পরিবার শুধু নয় বাঙালি জাতি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে৷ জাতি তাদের সম্ভাবনাকে হারিয়েছে।

সম্মাননাপ্রাপ্ত ও শিক্ষা বীমাপ্রাপ্তদের শুভেচ্ছা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি নিজে গিয়ে সম্মাননা দিতে পারলে ভালো লাগত। কিন্তু করোনা আমাকে একরকম বন্দি করে দিয়েছে। কারণ আমি বের হলে হাজারখানেক লোকের কাজে সম্পৃক্ততা হয়। এতে ঝুঁকি তৈরি হয়। নিজের জন্য তো অন্যের জীবন ঝুঁকিতে ফেলতে পারি না। তবে সমস্যা কাটিয়ে উঠতে আমরা টিকা নিয়ে আসছি। দেয়াও হচ্ছে। টিকা গ্রহণের পরও স্বাস্থ্য সুরক্ষা মেনে চলতে হবে। হাত ধোয়া, মাস্ক পরা, এগুলোর মাধ্যমে নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে হবে।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ইনস্যুরেন্স এসোসিয়েশনের সভাপতি শেখ কবির হোসেন ও আর্থিক বিভাগের সিনিয়র সচিব আসাদুল ইসলাম।

Share

আরও খবর
স্বর্ণের দাম আরেক দফা কমলো

শনিবার ০৬ মার্চ ২০২১