আজঃ শুক্রবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩
শিরোনাম

আবুধাবিতে সোফা কারখানায় আগুন, ৪ বাংলাদেশি নিহত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ৩০ মে ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
প্রবাসে বাংলা

Image

আবুধাবির শারজাতে একটি সোফা ফ্যাক্টরিতে অগ্নিকাণ্ডে ঘুমন্ত অবস্থায় দগ্ধ হয়ে নোয়াখালীর সেনবাগের ৪ প্রবাসী মারা গেছেন। মঙ্গলবার (৩০ মে) সকাল ৭টার দিকে তিনজনের পরিবার অগ্নিকাণ্ডের খবর পায়। আজ ভোর ৪টার দিকে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে নিহতদের পরিবার জানিয়েছে।

নিহতরা হচ্ছেন, নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার ডমুরুয়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড তারাবাড়িয়া গ্রামের দুলাল কোম্পানী পাটোয়ারী বাড়ির আবদুল কাদেরের ছেলে মো. ইউসুফ মিয়া (৪৫), একই গ্রামের মীর আহম্মদের বাড়ির মীর হোসেনের ছেলে তারেক হোসেন বাদল (৪২) ও আতর আলী হাজী বাড়ির আবদুল ওহাবের ছেলে মো. রাসেল (২৬)। অপর নিহতের বাড়ি কুমিল্লা জেলার নাঙ্গলকোট এলাকায়।

আরও পড়ুন: দর্শনায় পুকুরে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু

নিহতদের পরিবারের সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সকাল ৭টার দিকে তিনজনের পরিবার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা জানতে পারে। এরপর বেলা ১১টার দিকে নিহত ইউছুপের ছোট ভাই ইমরান হোসেন আবুধাবি থেকে তিনজনের মৃত্যুর খবর পান। এরপর চার পরিবারসহ এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। স্বজন, প্রতিবেশি ও শত শত নারী-পুরুষ ছুটে আসেন চার বাড়িতে।

নিহত ইউছুপের ছোট ভাই ডা. গোলাম রসুল জানান, ২৫ বছর ধরে তাঁর বড় ভাই মো. ইউছুপ জীবিকার সন্ধানে আবুধাবিতে পাড়ি জমায়। এক বছর আগে তিনি আবুধাবির শারজাহতে সামাইয়া পাঁচ নম্বর এলাকায় ধার দেনা করে একটি সোফা ফ্যাক্টরির ব্যবসা শুরু করেন। এতে এলাকার বেশ কয়েক জনকে তার প্রতিষ্ঠানে নিয়ে যান। ঘটনার সময় তারা চারজন ঘুমিয়ে ছিলেন। মুহূর্তের মধ্যে ফ্যাক্টরি পুড়ে যায় এবং তারা চারজনই দগ্ধ হয়ে মারা যান। পাশে তার অপর ভাই আনোয়ার হোসেনের ফ্যাক্টরিও পুড়ে যায়। এতে কয়েক কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে।

আরও পড়ুন: হিলি বন্দরে ভারতীয় ট্রাক থেকে মদ উদ্ধার, চালক আটক

নিহত ইউছুপের ভাইজি রিতা জানান, জুলাই মাসে চাচা দেশে আসার কথা ছিল। তার মিলন (২২) ও সিফাত (১৩) নামে দুই সন্তান পিতাকে হারিয়ে স্তব্ধ। নিহত ইউছুপের শতবর্ষী মা মহববতের নেছা পুত্র শোকে বারবার মূর্ছা যান।

নিহত বাদলের পিতা মীর আহাম্মদ জানান, ৮ মাস আগে পরিবারের অনটন গোছাতে বাংলাদেশ থেকে ইউছুপের ফ্যাক্টরিতে কাজ নেয়। বাদলের দুই ভাই প্রতিবন্ধী। তার সাজ্জাদ, জাহিদ ও আবীর নামে তিন ছেলে লেখা পড়া করছে। বাদলের মৃত্যুতে পরিবারটি অসহায় হয়ে পড়ল। পুত্রশোকে পিতা মীর আহাম্মদ ও মাতা পেয়ারা বেগম বারবার জ্ঞান হারাচ্ছেন।

সন্ধ্যায় একই ইউনিয়নের নিহত রাসেলের বাড়িতে গিয়ে দেখা গেছে, বাড়িতে শত শত নারী-পুরুষের সমাগম ও কান্নার রোল। সন্তানকে হারিয়ে নিহত রাসেলের মা শরীফা বেগম জ্ঞানের হারিয়ে বারবার মূর্ছা যাচ্ছেন। স্বামীকে হারিয়ে স্ত্রী পান্না পাথর হয়ে দুই চোখে অশ্রু ঝরছিল। পাশে তার স্বজনসহ অর্ধশতাধিক নারী-পুরুষ।

আরও পড়ুন: গাজীপুরে ট্রেনে কাটা পড়ে পুলিশ সদস্যের মৃত্যু

নিহত রাসেলের চাচা সাহাব উদ্দিন জানান, গত বছরের এপ্রিল মাসে ধার-দেনা ও কিস্তি নিয়ে রাসেল ইউছুপের সোফা ফ্যাক্টরিতে যায়। নিজের কোনো ভূমি বা বসতঘরও নেই। তাঁর মা, স্ত্রী ও এক সন্তান চাচা আবদুস ছাত্তারের ঘরে থাকেন। কিস্তির টাকাও পরিশোধ করতে পারেননি রাসেল। রাসেলের কন্যা সন্তানও প্রতিবন্ধী।

লাশগুলোর ধ্বংসাবশেষ দেশে ফেরাতে সরকারের কাছে তিন পরিবার আকুতি জানিয়েছেন।

নিউজ ট্যাগ: কারখানায় আগুন

আরও খবর



এনআইডি ইসি থেকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে নিতে সংসদে বিল

প্রকাশিত:সোমবার ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) নিবন্ধন নির্বাচন কমিশন (ইসি) থেকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনে নিতে সংসদে বিল উত্থাপন করা হয়েছে। সোমবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন বিল-২০২৩ নামের বিলটি সংসদে উত্থাপন করেন।

২০১০ সালের জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন আইন রহিত করে নতুন এই আইন করা হচ্ছে। এই আইনের মাধ্যমে জন্মের পর থেকে একজন নাগরিক জাতীয় পরিচয়পত্র পাবেন।

বিদ্যমান ব্যবস্থায় এনআইডি দিয়ে থাকে নির্বাচন কমিশন। নতুন আইনটি কার্যকর হলে ইসি সে ক্ষমতা হারাবে। এটি সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা বিভাগের অধীনে একটি নিবন্ধকের আওতায় যাবে।

বিলে বলা হয়েছে, বিদ্যমান আইনটি রহিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে নির্বাচন কমিশনের কাছে রক্ষিত এবং নির্বাচন কমিশন সংগৃহীত জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন ও জাতীয় পরিচয়পত্র সংক্রান্ত সব তথ্য-উপাত্ত নিবন্ধকের কাছে হস্তান্তরিত হবে।

বিলটি পাশ হলে নির্বাচন কমিশনের স্বাধীনতা খর্ব হবে এবং ভোটার তালিকা প্রণয়নে জটিলতা হবে-এমন অভিযোগ করে এর বিরোধিতা করেন জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য ফখরুল ইমাম।

জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, ভোটার লিস্টের ক্ষেত্রে এই জাতীয় পরিচয়পত্র আইন কোনো অন্তরায় ঘটবে না। সেখানে নির্বাচন কমিশনের প্রতিনিধিরাও থাকবেন। আমরা ওইভাবেই প্রসেস করব। যখন নাগরিকের বয়স ১৮ বছর হয়ে যাবে তখনই ভোটার হয়ে গেছেন বলে নোটিশ পেয়ে যাবেন। তার নাম ভোটার লিস্টে অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাবে।

বিলে বলা হয়েছে, জাতীয় পরিচয়পত্র দেওয়ার জন্য একজন নিবন্ধক থাকবেন। তিনি সরকার কর্তৃক নিযুক্ত হবেন। জাতীয় পরিচয়পত্র পাওয়ার জন্য প্রত্যেক নাগরকিকে পরিচয় নিবন্ধন করতে হবে। এজন্য নির্ধারিত পদ্ধতিতে নিবন্ধকের কাছে আবেদন করতে হবে। একজন নাগরিককে নিবন্ধক একটি নম্বর দেবেন। সেটা একক পরিচিতি নম্বর (ইউনিক আইডেনটিফিকেশন নম্বর) হিসেবে সবখানে ব্যবহার হবে।

বিলে আরও বলা হয়েছে, নির্বাচন কমিশনের চাহিদা মোতাবেক নিবন্ধক প্রয়োজনীয় তথ্য-উপাত্ত দেবে। এজন্য নিবন্ধকের কার্যালয়ের অধীন একটি সেল থাকবে। এই সেলে নির্বাচন কমিশনের এক বা একাধিক কর্মচারী দায়িত্ব পালন করবেন। এর ফলে নিবন্ধকের দপ্তর থেকে সরবরাহকৃত তথ্যের ভিত্তিতে ইসি ভোটার তালিকা তৈরি করবে।

এছাড়া নিবন্ধন কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা, সমন্বয় ও পরিবীক্ষণের জন্য একটি সমন্বয় কমিটি থাকবে। এই কমিটির সভাপতি হবেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব। নিবন্ধক হবেন এই কমিটির সদস্য সচিব। নির্বাচন কমিশন ও সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের প্রতিনিধিরা থাকবেন সদস্য।


আরও খবর



কাস্টমসের সুরক্ষিত গুদাম থেকে ৫৫ কেজি স্বর্ণ গায়েবের ঘটনায় মামলা

প্রকাশিত:সোমবার ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে কাস্টমসের সুরক্ষিত গুদাম থেকে প্রায় ৫৫ কোটি টাকা মূল্যের ৫৫ কেজি স্বর্ণ গায়েবের ঘটনায় মামলা হয়েছে। গতকাল রোববার রাত সাড়ে ১০টার দিকে বিমানবন্দর থানায় বাদী হয়ে মামলাটি করেন কাস্টমস হাউজের সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন।

বিমানবন্দর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. এনায়েত কবির মামুন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাস্টমস হাউজের নিজস্ব গুদাম থেকে স্বর্ণ হারানোর ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। এতে ৫৫ দশমিক ৫১ কেজি স্বর্ণ হারানোর কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

মামলার আসামি অজ্ঞাত। এজাহারে কোনো সংখ্যা উল্লেখ করা নেই। এ ঘটনায় ইতিমধ্যে তদন্ত শুরু হয়েছে। জড়িতদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান এনায়েত কবির মামুন। 

আরও পড়ুন>> দুপুরের মধ্যেই ঢাকাসহ ১৩ জেলায় তীব্র ঝড়ের পূর্বাভাস

এর আগে রোববার ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে কাস্টমসের গুদাম থেকে স্বর্ণ হারানোর খবর বিভিন্ন গণমাধ্যমে উঠে আসে। তবে এ বিষয়ে তখন কাস্টমসের কোনো কর্মকর্তা মুখ খোলেননি।

এদিকে এর রহস্য উদ্ঘাটনে মাঠে নেমেছে কাস্টমসসহ বিমানবন্দরে দায়িত্বরত বিভিন্ন সংস্থার সদস্যরা। তারা সিসি ক্যামেরার ফুটেজ বিশ্লেষণসহ গুদামের দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদেরও জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন। এসব কর্মকর্তাকে রাখা হয়েছে সন্দেহের তালিকায়। তবে ঘটনার ব্যাপারে মুখে কুলুপ এঁটেছেন ঢাকা কাস্টমস হাউসের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

এর আগেও একাধিকবার কাস্টমসের গুদাম থেকে স্বর্ণ, মোবাইল ফোন, মেমোরি কার্ডসহ বিভিন্ন মূল্যবান মালামাল চুরি হয়েছে। এ নিয়ে একাধিক মামলাও হয়। জানা গেছে, সাধারণত যাত্রীদের কাছ থেকে জব্দ করা স্বর্ণসহ মূল্যবান জিনিস কাস্টমসের গুদামে রাখা হয়। গুদামে রক্ষিত স্বর্ণের হিসাব মেলাতে গিয়েই থলের বিড়াল বেরিয়ে আসে। 

আরও পড়ুন>> এক্সপ্রেসওয়েতে প্রথম দিনে ১৩ লাখ টাকা টোল আদায়

বিমানবন্দরের সূত্র বলছে, উধাও হওয়া স্বর্ণের বার ও অলঙ্কার মিলিয়ে প্রায় ৫৫ কেজি স্বর্ণ কাস্টমসের গুদামের একটি আলমারিতে বাক্সের মধ্যে সংরক্ষিত ছিল। কিন্তু আলমারি ভেঙে সেই বাক্সটিই চুরি হয়ে গেছে। গুদামে কাস্টমসের কর্মকর্তা ছাড়া অন্য কারও প্রবেশের সুযোগ নেই। তাই কাস্টমসের কেউই এটা করেছে।


আরও খবর



ভোলার মাছের পোনা অবমুক্তকরণ কর্মসূচি পালিত

প্রকাশিত:শনিবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
পরান আহসান, ভোলা

Image

ভোলার লালমোহন উপজেলায় আজ দেশি প্রজাতির মাছের উৎপাদন বৃদ্ধিতে মাছের পোনা অবমুক্ত করা হয়েছে।

শনিবার ১৬ সেপ্টেম্বর দুপুরে উপজেলা মৎস্য অফিসের আয়োজনে ও জেলা মৎস্য অফিসের সার্বিক তত্ত্বাবধানে উপজেলা পরিষদের পুকুরে কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য নূরুন্নবী চৌধুরী শাওন। ২০২৩-২০২৪ অর্থবছরের রাজস্ব খাতের আওতায় উপজেলার ১৬টি প্রাতিষ্ঠানিক ও উন্মুক্ত জলাশয়ে সাড়ে ৫শ কেজি কার্প জাতের পোনা অবমুক্ত করা হবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোল্লা এমদাদ্যুল্লা, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ গিয়াসউদ্দিন আহমেদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অনামিকা নজরুল, উপজেলা মৎস্য অফিসার মারুফ হোসেন মিনার, উপজেলা সমাজসেবা অফিসার মামুন হোসেন প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

পরে সংসদ সদস্য নূরুন্নবী চৌধুরী শাওন উপজেলা পরিষদ চত্বরে ইলিশ সম্পদ উন্নয়ন ও ব্যবস্থাপনা প্রকল্পের আওতায় মৎস্যজীবীদের মাঝে বিকল্প কর্মসংস্থান লক্ষে ১৭টি বকনা বাছুর বিতরণ করেন।

নিউজ ট্যাগ: ভোলা

আরও খবর
পেঁয়াজের দাম কেজিতে বাড়লো ১৩ টাকা

শুক্রবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩




চট্টগ্রামে বঙ্গবন্ধু টানেলের উদ্বোধন ২৮ অক্টোবর

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১২ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১২ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
রাহুল সরকার, চট্টগ্রাম ব্যুরো

Image

চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীর তলদেশ দিয়ে দুই প্রান্তকে সড়কপথে যুক্ত করা ৩ দশমিক ৩২ কিলোমিটার দীর্ঘ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেল নির্মাণের কাজ শেষ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ২৮ অক্টোবর চট্টগ্রামবাসীর স্বপ্নের এ টানেলের উদ্বোধন করবেন, পরদিন ২৯ অক্টোবর থেকে যানবাহন চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করা হবে। সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সেতু বিভাগের সচিব মো. মনজুর হোসেন এ তথ্য জানান।

মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের প্রস্তুতিমূলক সভা হয় চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে। চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের আয়োজনে এ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সেতু সচিব।

তিনি বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশেই প্রথম এই টানেল। এটির উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে ইতিহাসের অংশ হচ্ছে চট্টগ্রাম। টানেল পার হতে সবাইকে টোল দিতে হবে। শুধু যারা জরুরি কাজে থাকবে তারাই এই টোলের আওতামুক্ত হবে। টানেল পরিচালনার জন্য একটি বিদেশি প্রতিষ্ঠানকে পাঁচ বছরের জন্য দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। ২৮ অক্টোবর উদ্বোধনের সম্ভাব্য সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। সেদিন প্রধানমন্ত্রী টানেল উদ্বোধন করবেন। উদ্বোধনের পরদিন ২৯ অক্টোবর জনসাধারণের জন্য টানেল খুলে দেওয়া হবে। টানেলের প্রি কমিশনিং শেষ। এখন সেইফটি ড্রিল হবে।

বন্দরনগরীর পতেঙ্গা নেভাল অ্যাকাডেমির পাশ দিয়ে ১৮-৩১ মিটার গভীরতায় নেমে যাওয়া এই পাতাল পথ কর্ণফুলীর ওপারে আনোয়ারায় সিইউএফএল ও কাফকোর মাঝামাঝি এলাকা দিয়ে আবার ভূপৃষ্ঠে উঠবে। ৩৫ ফুট প্রশস্ত ও ১৬ ফুট উচ্চতার টানেলে দুটি টিউব দিয়ে যাওয়া আসা করবে যানবাহন।

টানেলে প্রতিটি সুড়ঙ্গের দৈর্ঘ্য ২ দশমিক ৪৫ কিলোমিটার। একটির সঙ্গে অপর টিউবের দূরত্ব ১২ মিটারের মত। প্রতিটি টিউবে দুটি করে মোট চারটি লেইন রয়েছে।

টানেলের পূর্ব ও পশ্চিম ও প্রান্তে থাকছে ৫ দশমিক ৩৫ কিলোমিটার সংযোগ সড়ক। এ ছাড়া ৭২৭ মিটার দৈর্ঘ্যের একটি ওভারব্রিজ রয়েছে আনোয়ারা প্রান্তে।

সেতু সচিব বলেন, এটা সুন্দর রাখা সবার দায়িত্ব। সিডিএ খেয়াল রাখবে, তাদের বেশ কিছু দায়িত্ব আছে। টানেলের সুফল পেতে এন্ট্রি ও এক্সিট সহজ করা জরুরি। এই টানেলে গাড়ি চলবে ঘণ্টায় ৮০ কিলোমিটার গতিতে। তবে শুরুতে হয়ত গতি কিছুটা কম রাখতে হবে, যাতে সবাই অভ্যস্ত হতে পারে। মোটর সাইকেল বা অটোরিকশার মত তিন চাকার বাহন এ টানেলে চলবে না।

ভবিষ্যতের পরিকল্পনা করে টানেল করা হয়েছে। চট্টগ্রাম কক্সবাজারের যেসব মেগা প্রকল্প চলমান, সেগুলোর সুফলের জন্য। জনসাধারণের জন্য বাস সার্ভিস থাকবে।

মনজুর হোসেন বলেন, টানেলের মধ্যে জনসাধারণের জন্য নির্দেশনা ব্যবস্থা থাকবে এবং সেখানে আটটি রেডিও চ্যানেলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে নির্দেশনাগুলো চলতে থাকবে। টানেলের ভেতর যেই ফ্রিকোয়েন্সি থাকুক না কেন, গাড়ি যতক্ষণ টানেলে থাকবে ততক্ষণ স্বয়ংক্রিয়ভাবে এই দিকনির্দেশনা চলবে।

বঙ্গবন্ধু টানেল চালু হলে চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীর দুই তীরের চিত্র পাল্টে যাবে এবং এখানকার অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের ব্যাপক প্রসার ঘটবে।ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সঙ্গে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ককে যুক্ত করবে এই সুড়ঙ্গপথ। দেশের বাণিজ্যিক রাজধানী চট্টগ্রামর সঙ্গে দক্ষিণ চট্টগ্রামের যোগাযোগ আরও সহজ হবে।

নদীর দক্ষিণে আনোয়ারায় রয়েছে কোরিয়ান ইপিজেড, চায়না ইপিজেড, সিইউএফএল ও পারকি সমুদ্র সৈকত। কর্ণফুলী পেরিয়ে আনোয়ারা দিয়েই কক্সবাজার, বাঁশখালী ও মাতারবাড়ি বিদ্যুৎকেন্দ্র ও মাতারবাড়ি গভীর সমুদ্র বন্দরের সঙ্গে যুক্ত হওয়া যাবে।

কর্ণফুলী নদীর দুইপাড়ে চীনের সাংহাইয়ের আদলে ওয়ান সিটি টু টাউন গড়ে তুলতে এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে বাংলাদেশ সরকার। ২০১৫ সালে অনুমোদন পাওয়ার দুই বছর পর ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে কাজ শুরু হয়।

এশিয়ান হাইওয়ের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন এবং ঢাকা-চট্টগ্রাম-কক্সবাজারের মধ্যে একটি নতুন সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে তোলার লক্ষ্যে বানানো হয়েছে এ টানেল। নির্মাণ কাজ করছে চীনা কোম্পানি চায়না কমিউনিকেশন কনস্ট্রাকশন লিমিটেড

চট্টগ্রাম বন্দরের বিদ্যমান সুযোগ সুবিধা বাড়াতে এবং প্রস্তাবিত গভীর সমুদ্র বন্দরের নির্মাণ কাজ ত্বরান্বিত করতেও এই টানেল ভূমিকা রাখবে বলেও সরকার আশা করছে।

বাংলাদেশ ও চীনের যৌথ অর্থায়নে টানেল প্রকল্পের শুরুর দিকে ব্যয় ধরা হয়েছিল ৯ হাজার ৮৮০ কোটি টাকা। অনুমোদনের দুই বছর পরে ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে প্রকল্পের কাজ শুরু হলে ব্যয় বাড়িয়ে ১০ হাজার ৩৭৪ কোটি টাকা করা হয়।

বিভাগীয় কমিশনার মো. তোফায়েল ইসলাম বলেন, টানেল প্রকল্প বাংলাদেশে প্রথম। এটা নিয়ে মিথ্যা বা নেতিবাচক প্রচারণা হতে পারে। এ বিষয়ে সবাইকে সচেতন থাকতে হবে। মিথ্যা ও নেতিবাচক প্রচারণা চালালে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ব্যবস্থা নেবে।

প্রকল্পের পরিচালক হারুন উর রশিদ বলেন, যানবাহন চলাচলের জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত টানেল। নিরাপত্তা নিয়ে খুঁটিনাটি বিষয় দেখা হচ্ছে। পুরো প্রকল্পের অগ্রগতি ৯৮ দশমিক ৫০ শতাংশ। ডিসেম্বরের মধ্যে পুরো কাজ শেষ করতে পারবো বলে আশা করছি। এরমধ্যে উদ্বোধন হলেও কাজ এগিয়ে নিতে কোনও সমস্যা হবে না।

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, টানেল প্রকল্প বাংলাদেশ তথা দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে প্রথম। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান স্মরণীয় করে রাখতে বিভিন্ন কর্মসূচি নেওয়া হবে। উদ্বোধনের দিন আনোয়ারা প্রান্তে একটি সুধী সমাবেশে হওয়ার কথা রয়েছে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বক্তব্য রাখবেন।

সভায় চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক আবুল বাসার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামান, চট্টগ্রাম ডিআইজি নূরে আলম মিনা, সিএমপি কমিশনার কৃষ্ণপদ রায়, চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর
পেঁয়াজের দাম কেজিতে বাড়লো ১৩ টাকা

শুক্রবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩




রাতেই পাকিস্তান যাচ্ছেন লিটন

প্রকাশিত:সোমবার ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

এশিয়া কাপে গ্রুপ পর্বের বাধা পেরিয়ে সুপার ফোর নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। সুপার ফোরের ম্যাচগুলোতে অংশগ্রহণ করতে আজ (সোমবার) রাতেই পাকিস্তান যাচ্ছেন ওপেনার ব্যাটার লিটন দাস। গণমাধ্যমকে এমনটা নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) একটি সূত্র। জানা গেছে, কাতার এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইটে রাত ৯.১৫ মিনিটে দেশ ছাড়বেন লিটন।

এর আগে এশিয়া কাপের দলে থাকলেও অসুস্থতার কারণে দলের সঙ্গে যোগ দিতে পারেননি তিনি। লিটনের পরিবর্তে বাংলাদেশ দলে যোগ দেন আরেক ওপেনার এনামুল হক বিজয়।

এশিয়া কাপের প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কার কাছে ৫ উইকেটে হারে বাংলাদেশ। তবে দ্বিতীয় ম্যাচে আফগানিস্তানকে ৮৯ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়ে সুপার ফোরে পা রাখে সাকিব আল হাসানের দল।  


আরও খবর