আজঃ বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১
শিরোনাম

আগামীকাল থেকে সীমিত পরিসরে খোলা থাকবে ব্যাংক

প্রকাশিত:রবিবার ০৬ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৬ জুন ২০২১ | ২০১জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
করোনার বিস্তার রোধকল্পে সরকার কর্তৃক বিধিনিষেধের মধ্যে সীমিত পরিসরে ব্যাংকিং কার্যক্রম অব্যাহত রাখার লক্ষ্যে আগামী ১৬ জুন পর্যন্ত সীমিত পর্যায়ে ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালিত হবে

করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে না আসায় লকডাউন আরও ১০ দিন বাড়িয়েছে সরকার।  ফলে ১৬ জুন পর্যন্ত বিধিনিষেধ বহাল থাকবে। এ সময় সীমিত পরিসরে খোলা থাকবে ব্যাংক।

রবিবার বাংলাদেশ ব্যাংকের ডিপার্টমেন্ট অব অফ-সাইট সুপারভিশন থেকে এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধকল্পে সরকার কর্তৃক আরোপিত বিধিনিষেধের মধ্যে ব্যাংকিং কার্যক্রম চালু রাখার বিষয়ে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে সার্কুলারে।

এতে বলা হয়েছে, করোনার বিস্তার রোধকল্পে সরকার কর্তৃক বিধিনিষেধের মধ্যে সীমিত পরিসরে ব্যাংকিং কার্যক্রম অব্যাহত রাখার লক্ষ্যে আগামী ১৬ জুন পর্যন্ত সীমিত পর্যায়ে ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালিত হবে।

এ সময় দৈনিক ব্যাংকিং লেনদেন হবে সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত। লেনদেন-পরবর্তী আনুষঙ্গিক কার্যক্রম সম্পাদনের জন্য সংশ্লিষ্ট ব্যাংক শাখা এবং প্রধান কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট বিভাগ বিকাল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে।

এছাড়া প্রতিটি ব্যাংকের উপজেলা শহরের একটি শাখা খোলা থাকবে বৃহস্পতিবার, রবিবার ও মঙ্গলবার। সিটি করপোরেশনের এলাকার দুই কিলোমিটারের মধ্যে একটি শাখা প্রতি কর্মদিবস খোলা রাখতে হবে।


আরও খবর



নাসির-অমিসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে মাদকের মামলা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৫ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৫ জুন ২০২১ | ৭৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ধর্ষণচেষ্টা ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে ঢাকাই ছবির আলোচিত চিত্রনায়িকা পরীমণির করা মামলায় গ্রেপ্তার নাসির উদ্দিন মাহমুদ (৬৫) ও তুহিন সিদ্দিকী অমিসহ (৩৩) পাঁচজনের বিরুদ্ধে ডিএমপির বিমানবন্দর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে। গতকাল সোমবার (১৫ জুন) দিবাগত গভীর রাত ১২টা ৫ মিনিটে রাজধানীর বিমানবন্দর থানায় এ মামলাটি দায়ের করেন গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ।

মামলার বাকি তিন আসামি হলেন: লিপি আক্তার (১৮), সুমি আক্তার (১৯) ও নাজমা আমিন স্নিগ্ধা (২৪)। বিমানবন্দর থানার ডিউটি অফিসার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. মশিউর আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মশিউর আলম বলেন, তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা করা হয়েছে। ডিএমপির গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) গুলশান জোনাল টিমের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মানিক কুমার সিকদার বাদী হয়ে রাতে মামলাটি করেন।

এরআগে, সোমবার (১৪ জুন) বিকেল ৩টার দিকে উত্তরা ১ নম্বর সেক্টরের ১২ নম্বর রোডের একটি বাসা থেকে নাসির উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করা হয়। একই সময় মামলার ২ নম্বর আসামি অমি এবং আরও তিন নারীকেও গ্রেপ্তার করা হয়। তিন নারী হলেন লিপি, সুমি ও স্নিগ্ধা। মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের গুলশান বিভাগ এই ৫ জনকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। যে বাসা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে সেটি মামলার আসামি অমির ভাড়া নেওয়া বলে জানা গেছে।

এর আগে, রবিবার (১৩ জুন) সন্ধ্যার সময় ফেসবুক পোস্টে পরীমণি অভিযোগ করেন, তাকে ধর্ষণচেষ্টা ও হত্যাচেষ্টা করা হয়েছে। ফেসবুক পোস্টে এ অভিযোগ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে বিচার দাবি করেন পরীমণি।


নিউজ ট্যাগ: পরীমণি

আরও খবর



সারাদেশে গ্যাসের সংকট থাকবে ১৪ থেকে ১৬ জুন

প্রকাশিত:সোমবার ১৪ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৪ জুন ২০২১ | ৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সাগরে বৈরী আবহাওয়ার কারণে এলএনজি সরবরাহে বিঘ্ন ঘটায় ১৪ থেকে ১৬ জুন তিনদিন সারাদেশে গ্যাসের সংকট থাকবে।

তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বৈরী আবহাওয়ার কারণে সাগর উত্তাল থাকায় বিঘ্ন ঘটছে এলএনজি খালাসে। এর ফলে প্রতিদিন অন্তত ৪০০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস পাইপলাইনে সরবরাহ করা সম্ভব হবে না। এজন্য ১৪-১৬ জুন পর্যন্ত তিন দিন আবাসিক, শিল্প, বিদ্যুৎ ও বাণিজ্যিক কাজে গ্যাস সরবরাহ ব্যাহত হবে।

তিতাসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলী ইকবাল মো. নুরুল্লাহ বলেন, বৈরী আবহাওয়ার কারণে এলএনজি ঢুকতে পারছে না। আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী, আগামী তিন দিন আবহাওয়া খারাপ থাকবে। ফলে এলএনজি নামাতে পারবে না। এ কারণেই আগামী তিনদিন সারা দেশে গ্যাসের স্বল্প চাপ বিরাজ করবে।

নিউজ ট্যাগ: তিতাস গ্যাস

আরও খবর



শিবচরে শিশু ধর্ষণ মামলার আসামী গ্রেফতার

প্রকাশিত:বুধবার ০২ জুন 2০২1 | হালনাগাদ:বুধবার ০২ জুন 2০২1 | ১৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মাদারীপুর থেকে দেলোয়ার হোসাইন

মাদারীপুরের শিবচরে সাত বছর বয়সী এক শিশু ধর্ষণ মামলার পলাতক আসামীন সোহান মাদবর (২০) কে গ্রেফতার করেছে শিবচর থানা পুলিশ।

বুধবার (২ জুন) দুপুরে মাদারীপুর সদর থানার থানতলী এলাকা শিবচর থানার উপ-পরিদর্শক শেখ আল আমিনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল অভিযান চালিয়ে সোহানকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারকৃত সোহান মাদবর শিবচর উপজেলার মাদবরচর ইউনিয়নের খাড়াকান্দি গ্রামের লাভলু মাদবরের ছেলে।

শিবচর থানা সূত্রে জানা গেছে, গত ৮ মার্চ শিবচর উপজেলার মাদবরচর বাজারে মুরগী ব্যবসায়ী সোহান মাদবর তার দোকানে ডেকে নিয়ে ৭ বছরের শিশুটিকে জোরপূর্বক ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করে। এ পর্যায়ে প্রচুর রক্তপাত হলে লম্পট সোহান শিশুটিকে মুরগি কাটার চাকু দেখিয়ে ভয়ভীতি দেখায়। কাউকে কিছু বললে কেটে আড়িয়াল খাঁ নদীতে ভাসিয়ে দিবে বলে ভয় দেখিয়ে রক্তমাখা শরীর মুছিয়ে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। পরবর্তীতে শিশুটির পরিবার বিষয়টি টের পেলে শিবচর থানায় মামলা দায়ের করেন।

শিবচর থানার উপ-পরিদর্শক শেখ আল আমিন বলেন, আসামী পলাতক ছিল। গোপন সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারি সে মাদারীপুর সদর থানার থানতলী এলাকাতে রয়েছে। পরে সদর থানা পুলিশের সহায়তায় তাকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হই।

শিবচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিরাজ হোসেন বলেন, ঘটনার পর থেকে পলাতক ছিল ওই আসামী। গোপন সংবাদ পেয়ে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তবে দুপুরেই তাকে মাদারীপুর জেল-হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।


আরও খবর



কার্টুনিস্ট কিশোরের শরীরে নির্যাতনের চিহ্ন পাওয়া যায়নি

প্রকাশিত:রবিবার ০৬ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৬ জুন ২০২১ | ১১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোরের শারীরিক অবস্থা জানতে গঠিত ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের তিন সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে তার শরীরে কোনও আঘাতের চিহ্ন পায়নি। আদালতে জমা দেওয়া প্রতিবেদনে কিশোরের শরীরে নির্যাতনের চিহ্ন না পাওয়ার কথা উল্লেখ করেছেন বোর্ডের তিন চিকিৎসক। রবিবার (৬ জুন) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের সংশ্লিষ্ট সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

আদালতের নির্দেশনা মোতাবেক গত ২০ মার্চ ঢামেকের নাক-কান-গলা (ইএনটি) বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. শেখ নুরুল ফাত্তাহ রুমী, অর্থোপেডিক বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. ফখরুল আমিন খান ও মেডিসিন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক মো. হাফিজ সর্দার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে একটি প্রতিবেদন দাখিল করেন।

গত ১০ মার্চ কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অজ্ঞাত সদস্যদের বিরুদ্ধে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে মামলা দায়ের করেন। গত ১৪ মার্চ ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক কে এম ইমরুল কায়েশ, কান, পা ও শরীরের যেখানে আঘাত পেয়েছেন বলে কিশোর জানিয়েছিলেন, সেগুলো পরীক্ষা করতে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করতে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল পরিচালককে নির্দেশ দেন।

অভিযোগে বলা হয়, গত বছরের ৫ মে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কার্টুনিস্ট আহমেদ কবীর কিশোর গ্রেফতার হন। কিন্তু তার তিনদিন আগে ২ মে বিকাল পৌনে ছয়টায় বাসা থেকে সাদা পোশাকধারী ১৬ থেকে ১৭ জন লোক তাকে মুখোশ পরিয়ে, হাতকড়া লাগিয়ে নির্জন-অচেনা জায়গায় নিয়ে যায়। এরপর ২ মে থেকে ৩ মে পর্যন্ত তাকে বিভিন্নভাবে নির্যাতন করা হয়।

নির্যাতনের বিষয়ে অভিযোগে কিশোর বলেন, গত বছরের ২ মে বিকাল সাড়ে পাঁচটার দিকে বাসার কলিং বেলে আমার ঘুম ভাঙে। দরজা খুললেই অপরিচিত এক লোক আমাকে বলেন- দরজা খোলেন না কেন? পরনের লুঙ্গি খুলে প্যান্ট পরে নেন। সাথে একটা ভালো শার্ট পরেন। আমি পরিচয় জিজ্ঞাসা করলে তারা আমাকে পরিচয় দেয় নাই। আলাপ-আলোচনায় তাদের একজনকে জসিম বলে ডাকতে শুনি। সবাই ঘরে ঢুকেই তল্লাশি শুরু করেন। তারা আমাকে কোনও গ্রেফতারি পরোয়ানা দেখাতে পারেনি। বাসা থেকে আমার মোবাইল ফোন, সিপিইউ ও পোর্টেবল যত ধরনের ডিজিটাল ডিভাইস ছিল তা অবৈধভাবে নিয়ে যায়।

তিনি বলেন, আমাকে যখন হাতকড়া পরিয়ে বাসার নিচে নামানো হয়, তখন বাসার সামনে ছয় থেকে সাতটি গাড়ি অপেক্ষা করছিল। আমার বাসার সামনে অনেক লোকজন জড়ো হয় এবং একটি গাড়িতে আমাকে ওঠানো হয়। আমি তখন প্রচণ্ডভাবে জোরে জোরে চিৎকার করতে থাকি। কিন্তু তারা গাড়িতে অনেক জোরে জোরে শব্দ করে গান-বাজনা বাজাচ্ছিল। হয়তো আমার চিৎকার বাইরে শোনা যাচ্ছিল না।

এরপর আমি বোধশক্তি হারিয়ে ফেলি। বুঝতে পারছিলাম আমার কান দিয়ে রক্ত গড়িয়ে পড়ছে। তারপর স্টিলের পাতের লাঠি দিয়ে আমার পায়ের হাঁটুতে আঘাত করা হয়। যন্ত্রণা ও ব্যথায় আমি সংজ্ঞাহীন হয়ে পড়ি।

কিশোর বলেন, এভাবে কয়েক দফা আমার ওপর শারীরিক ও মানসিক টর্চার অত্যাচার চালায় তারা। পরবর্তীতে আমি নিজেকে র‌্যাব কার্যালয়ে দেখতে পাই। র‌্যাবের কার্যালয়ে মুশতাক আহমেদের সঙ্গে আমার দেখা হয়। মুশতাক আহমেদ আলাপের সময় আমাকে জানান তাকেও বৈদ্যুতিক শক দেওয়া হয়েছিল। গত বছরের ৬ মে আমাদের রমনা থানায় সোপর্দ করা হয়। বর্তমানে আমি শারীরিকভাবে অসুস্থ। কান দিয়ে পুঁজ পড়ে, হাঁটতে পারি না, হঠাৎ করে পড়ে যাই এবং শরীরে আরও নানাবিধ রোগের উপসর্গ দেখা যাচ্ছে।


আরও খবর



মোহাম্মদপুরে টিনের ঘরে আগুন, ২ বছরের শিশুসহ মা-বাবা দগ্ধ

প্রকাশিত:শনিবার ২৯ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৯ মে ২০২১ | ১০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানা এলাকার নবদয় হাউজিংয়ের একটি টিনশেড বাসায় মশার কয়েল থেকে লাগা আগুনে এক শিশুসহ মা-বাবা দগ্ধ হয়েছে। পরে তাদেরকে উদ্ধার করে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার রাত পৌনে ৩টার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। দগ্ধরা হলেন- মো. সোহেল (৩৫), তার স্ত্রী লাবনী আক্তার হাওয়া (২৫) ও ২ বছরের ছেলে সন্তান মো. মোসালিন।

চিকিৎসকরা জানান, সোহেলের শরীরে ৭৫ শতাংশ দগ্ধ, লাবনীর ৩০ ও মোসালিন ৮০ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, রাত ৩টার দিকে হঠাৎ তাদের রুমের ভেতরে চিৎকার শুরু হয়। পরে ঘুম থেকে উঠে তাদের রুমের সামনে গিয়ে সকলে দেখে রুমের ভেতর আগুন জ্বলছে, সোহেল ও লাবনী রুমের বাইরে, তাদের শরীরেও আগুন জ্বলছিলও। আর শিশুটি রুমের ভেতরেই ছিল। তখন তাকেও রুমের ভেতর থেকে বাইরে বের করে  সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

দগ্ধদের হাসপাতালে নিয়ে আসা প্রতিবেশী রুপা নামের এক নারী  বলেন, সোহেল বেকার। আর তার স্ত্রী অন্যের বাসায় গৃহপরিচারিকার কাজ করে। তাদের আরেক বড় মেয়ে গ্রামের বাড়িতে থাকে। নবদয় হাউজিংয়ের সি ব্লকের ২নম্বর টিনশেড বাড়িতে ভাড়া থাকতো তারা। গত ২ মাস আগেই তারা এই বাসায় ভাড়া ওঠে। মশার কয়েল থেকে এই আগুন লাগতে পারে বলে তারা জানিয়েছে।

ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তরের ডিউটি অফিসার মাহফুজ রিবেন জানান, আমরা ২টা ৪৪ মিনিটে আগুনের সংবাদ পাই। এরপর আমাদের মোহাম্মাদপুর স্টেশনের ৩টি ইউনিট ঘটনাস্থলে যায়। কিন্তু তারা যাওয়ার আগেই আগুন নিভে গেছে। এরপর ওই বাসার একই পরিবারের ৩ জনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

তিনি আরও জানান, প্রাথমিকভাবে জানা গেছে গ্যাস লাইন লিকেজ হওয়ায় রুমের ভেতর জমাট গ্যাস মশার কয়েলের সংস্পর্শে এসে এই আগুনের সূত্রপাত হয়। আগুনে তিনজন দগ্ধসহ গৃহস্থালি মালামালও পুড়ে গেছে।


আরও খবর