আজঃ শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১
শিরোনাম

আজকের দর্পণ সিলেট ব্যুরো অফিস উদ্বোধন

প্রকাশিত:শুক্রবার ০১ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ অক্টোবর ২০২১ | ২০৩৫জন দেখেছেন
Image

সিলেট থেকে আমজাদ হোসাইন

দৈনিক আজকের দর্পণ সিলেট ব্যুরো অফিস নগরীর শাহজালাল (রঃ) মাজার সংলগ্ন ঝরনারপার এলাকায় হোটেল হলিল্যান্ড কমপ্লেক্সে শুক্রবার জুমআর নামাজের পর জমকালো অনুষ্ঠানের মাধ্যমে উদ্ভোধন করা হয়েছে। 

পত্রিকার মহাব্যবস্থাপক মোঃ রফিকুল ইসলামের সভাপতিতে এবং ব্যুরো প্রধান মুহাম্মদ আমজাদ হোসাইনের পরিচালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকবাল সিদ্দিকী।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, সংবাদপত্র মানুষের কল্যাণে কাজ করে। সেই  সাথে সমাজ পরিবর্তনে শক্তিশালী ভূমিকা রাখে। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ মানুষের হৃদয়কে নাড়া দেয়। বর্তমান কঠিন পরিস্থিতিতে আজকের দর্পণ চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে বাজারে এসেছে। সুতরাং যেতে হবে বহুদূর। তবে এ ক্ষেত্রে সংবাদপত্রের মালিকপক্ষকে আরো দায়িত্ববান হতে হবে। সাংবাদিকদের ন্যায্য দাবি ধাওয়া পূরণ ও সব রকম সুযোগ সুবিধা প্রদান করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, সমাজে যারা দুর্বৃত্ত আছে তাদের ক্ষমতা বেশি। দুর্বৃত্তদের মানুষ ভয় পেয়ে কথা বলতে পারে না। সংবাদপত্রে এসকল দুর্বৃত্তের পরিচয় তুলে ধরতে হবে। তাদেরকে শাস্তির আওতায় নিয়ে আসতে হবে। তখনই সমাজে সত্য প্রতিষ্ঠিত হবে। আগামীতে সংবাদপত্রের ভবিষ্যত ঝুঁকিপূর্ণ উল্লেখ করে তিনি বলেন, আজকের দর্পণ একটি গুরুত্বপূর্ণ পত্রিকা হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করবে বলে আমি বিশ্বাস করি। বিশেষ করে সিলেটে এ পত্রিকা দ্রুত জনপ্রিয়তা পাবে বলে আশাবাদ ব্যাক্ত করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর এডভোকেট সালমা সুলতানা, সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, পায়রা সমাজকল্যাণ সংঘের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান দুদু, হলিল্যান্ড নিউজ বিডি ডটকমের সম্পাদক আলহাজ্ব সালেহ আহমদ ও পায়রা সমাজকল্যাণ সংঘের সিনিয়র সহসভাপতি জাহাঙ্গীর আহমদ।

সভাপতির বক্তব্যে দৈনিক আজকের দর্পন এর মহাব্যবস্থাপক মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেন, সিলেটবাসীর দাবি দাওয়া পূরণে আজকের দর্পণ কাজ করে যাবে। সিলেটে আমরা প্রথম ব্যুরো অফিস দিয়ে যাত্রা শুরু করেছি। বিশ্বাস করি দেশের প্রতিটি এলাকার মানুষের হাতে পৌঁছাবে আজকের দর্পণ। এখানে হলুদ সাংবাদিকতা থাকবেনা। এটি হবে জনমানুষের দর্পণ। এজন্য তিনি সিলেটবাসীর সহযোগিতা কামনা করেন।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন দি ডেইলি ট্রাইবুনাল এর সিলেট ব্যুরো প্রধান রাজ্জাক হোসেন, আমার কাগজ সিলেটের ব্যুরো চীফ খালেদ আহমদ, সাংবাদিক আফতাব উদ্দিন, সিলেট প্রেসক্লাবের পাঠাগার ও প্রকাশনা সম্পাদক কবির আহমদ, দৈনিক জালালাবাদ এর চীফ রিপোর্টার আহবাব মোস্তফা খান, সাংবাদিক আমিরুল ইসলাম চৌধুরী এহিয়া, সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক পাঠাগার ও প্রকাশনা সম্পাদক খালেদ আহমদ, দৈনিক জালালাবাদের সিনিয়র রিপোর্টার মুহিবুর রহমান, সাংবাদিক গোলাম মর্তুজা বাচ্চু, আজকের দর্পণের হবিগঞ্জ প্রতিনিধি শরিফ চৌধুরী, সিলেট জেলা প্রতিনিধি আইয়ুব আলী, পায়রা সমাজকল্যাণ সংঘের যুগ্ন সম্পাদক মুছাদ্দিকুন নবী, সংস্কৃতিকর্মী মোঃ আনোয়ার হোসাইন, হলিল্যান্ড নিউজ বিডি ডটকমের নির্বাহী সম্পাদক নাহিদ আহমেদ সিদ্দিকী, দৈনিক সবুজ সিলেট এর স্টাফ ফটো সাংবাদিক করিম মিয়া, সিলেট বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের কন্ট্রাকটর মোঃ আইনুল হক, ভাই ভাই সেচ প্রকল্পের পরিচালক মহরম আলী সুমন, আজকের দর্পণের দক্ষিণ সুরমা প্রতিনিধি ইমন দাস, শিক্ষানুরাগী হারুনুর রশীদ, সাংবাদিক মোঃ নাছির হোসেন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আলতু মিয়া, রুহেল আহমদ মনি, ব্যবসায়ী রাকিব আহমদ, রায়হান আহমদ।


আরও খবর



রাসেলকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৪৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
আসামিপক্ষের আইনজীবী রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিনের আবেদন করেন। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষ বিরোধিতা করেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে বিচারক একদিন জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের আদেশ দেন

ইভ্যালির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মো. রাসেলকে রিমান্ড নামঞ্জুর করে একদিন জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। ধানমণ্ডি থানার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে আদালত নামঞ্জুর করে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দেন।

আজ বৃহস্পতিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সাদবীর ইয়াছির আহসান চৌধুরী এ আদেশ দেন। এ সময় আসামিপক্ষের আইনজীবী রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিনের আবেদন করেন। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষ বিরোধিতা করেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে বিচারক একদিন জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের আদেশ দেন।

এদিকে, ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির সব নথি তলব করেছেন হাইকোর্ট। এ সংক্রান্ত এক আবেদনের শুনানি নিয়ে আজ বৃহস্পতিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। ১১ অক্টোবরের মধ্যে এসব নথিপত্র আদালতে দাখিল করতে রেজিস্ট্রার জয়েন্ট স্টক কম্পানিজ অ্যান্ড ফার্মসকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এ তথ্য জানিয়েছেন আইনজীবী সৈয়দ মাহসিব হোসেন।

এর আগে প্রতারণা ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে গত ১৬ সেপ্টেম্বর গ্রাহক আরিফ বাকের ইভ্যালির মো. রাসেল ও তার স্ত্রী শামীমা নাসরিনের বিরুদ্ধে রাজধানীর গুলশান থানায় মামলা করেন। ওইদিন বিকালেই রাজধানীর মোহাম্মদপুরের বাসায় অভিযান চালিয়ে রাসেল দম্পতিকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।


আরও খবর



আন্তর্জাতিক ফ্লাইট ‍শুরু করতে চায় তালেবান

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আফগানিস্তানের তালেবান সরকার দেশটিতে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট শুরু করার আহ্বান জানিয়েছে। এয়ার লাইনসগুলোকে তারা সর্বাত্মক সহায়তা করতে প্রস্তুত বলেও অঙ্গীকার করেছে গোষ্ঠীটি। খবর রয়টার্সের।

খবরে বলা হয়েছে, অন্তর্বর্তী সরকার গঠন করার পর তালেবান দেশের অর্থনীতিসহ সব কিছু সচল করার উদ্যোগ নিয়েছে। এ ছাড়া তারা আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি অর্জনেরও চেষ্টা করছে।

রোববার তালেবান সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, কাবুল বিমানবন্দরের সমস্যা সমাধান করা হয়েছে।

১৫ আগস্ট তালেবান কাবুল নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর রাজধানীতে অবস্থিত হামিদ কারজাই বিমানবন্দর থেকে আন্তর্জাতিক ও বাণিজ্যিক ফ্লাইট স্থগিত করা হয়।

এরপর গত ৩ সেপ্টেম্বর কাতার ও তুরস্কের সহায়তায় আফগানিস্তানে অভ্যন্তরীণ বিমান চলাচলের ঘোষণা দেয় রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন আরিয়ানা আফগান এয়ারলাইনস।

আফগানিস্তানে বর্তমান স্বল্প সংখ্যক আন্তর্জাতিক ফ্লাইট যাত্রী ও খাদ্যসহ অন্যান্য সহযোগিতা সামগ্রী বহন করছে। কিন্তু স্বাভাবিক বাণিজ্যিক ফ্লাইট এখনও শুরু হয়নি।

তালেবান সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আব্দুল কাহার বালখি বলেন, আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালু না থাকার কারণে আফগানিস্তানে বহু নাগরিক বিদেশে আটকা পড়েছে। তা ছাড়া মানুষজন পড়ালেখা ও চাকরির জন্যও বিদেশে যেতে পারছে না।

আব্দুল কাহার বালখি বলেন, কাবুল বিমানবন্দর এখন অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক ফ্লাইটের জন্য পূর্ণ প্রস্তুত। সব এয়ারলাইনসকে ইসলামিক আমিরাত অব আফগানিস্তান সহায়তা করতে প্রস্তুত।


আরও খবর



বাসের ধাক্কায় বশেমুরবিপ্রবির শিক্ষকের মৃত্যু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৪ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৪ অক্টোবর ২০২১ | ৮০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে মৃত্যুরবরণ করে শিক্ষক কাজী মসিউর রহমান রাজিব

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক এবং সাবেক ছাত্র উপদেষ্টা কাজী মসিউর রহমান রাজিব সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছেন।  মৃত রাজিবের স্ত্রী ও পুত্র খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

বুধবার (১৩ অক্টোবর) সন্ধ্যায় ঢাকা-পিরোজপুর মহাসড়কের নাজিরপুর থানার কবিরাজবাড়ি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে মসিউর রহমান তার স্ত্রী ও শিশুপুত্রকে নিয়ে অটোরিকশায় করে পিরোজপুর থেকে গোপালগঞ্জের দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় নাজিরপুরের কবিরাজ বাড়ি এলাকায় ইমাদ পরিবহনের একটি বাস তাদের ধাক্কা দেয়। এতে তিনিসহ তার স্ত্রী ও ছেলে গুরুতর আহত হন। সন্ধ্যায় তাদের উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে মৃত্যুরবরণ করে শিক্ষক কাজী মসিউর রহমান রাজিব।

পিরোজপুর সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র থাকা অবস্থায় মসিউর রহমান রাজিব বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের সাথে যুক্ত ছিলেন।  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মেধাবী এ শিক্ষার্থী  পিরোজপুর বলেশ্বর মুক্ত স্কাউট গ্রুপের সাবেক পেট্রোল লিডার ও পিরোজপুর শহরের টাউন স্কুলের সাবেক প্রধান শিক্ষক ও শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রীয় নেতা কাজী মুজিবুর রহমানের ছেলে।

নাজিরপুর থানার ওসি মো. আশ্রাফুজ্জামান জানান, ঘাতক বাসটিকে আটক করা হয়েছে। চালককে আটকে অভিযান চলছে।

প্রসঙ্গত, সহকারী অধ্যাপক কাজী মসিউর রহমান রাজিব দেশের বেশ কয়েকটি জাতীয় দৈনিকে নিয়মিত কলাম লিখতেন।

নিউজ ট্যাগ: বশেমুরবিপ্রবি

আরও খবর



মেয়েদের সামনে মাকে কুপিয়ে হত্যা

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৭৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলায় মেয়েদের সামনে মাকে দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করলেন বাবা। বুধবার সকালে উপজেলার মাওহা ইউনিয়নের বীরআহাম্মদপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত গৃহবধূর নাম ললিতা বেগম (৪০)। তার বাড়ি একই এলাকায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রফিক সকালে ফজরের নামাজ পড়ে ঘরে এসেই দা দিয়ে কুপিয়ে তার স্ত্রীকে গুরুতর জখম করে। এ সময় ঘরে থাকা তার মেয়েরা ফিরাতে গেলেও মাকে শেষ রক্ষা করতে পারেনি। ললিতাকে গৌরীপুর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের ছোট ভাই শামীম আহাম্মেদ জানান, বোনজামাই মো. রফিকুল ইসলাম রফিকের (৫০) সঙ্গে তার বোনের কোনো বিরোধ ছিল না। কিছু দিন আগে সড়ক দুর্ঘটনায় রফিক গুরুতর আহত হন।

গত দুই মাস ধরে তিনি মানসিক সমস্যায় ভুগছিলেন। মানসিক রোগের জন্য তিনি চিকিৎসাধীন। জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রণিতা সূত্রধর জানান, হাসপাতালে নিয়ে আসার আগেই ওই গৃহবধূ মারা যায়।

গৌরীপুর থানার ওসি খান আব্দুল হালিম সিদ্দিকী জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: কুপিয়ে হত্যা

আরও খবর



মাহবুব কবীরকে ইভ্যালির ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে নিয়োগ

প্রকাশিত:সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১ | ৪৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আলোচিত অতিরিক্ত সচিব (ওএসডি) মাহবুব কবীরকে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

কোম্পানিটির ব্যবস্থাপনা ও মনিটরিংয়ের জন্য চেয়ারম্যানসহ আরও চার সদস্য নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের একক হাইকোর্ট বেঞ্চ সোমবার (১৮ অক্টোবর) এ আদেশ দেন।

আপিল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি এএইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরীর নেতৃত্বে বোর্ডে থাকবেন স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত সচিব মো. রেজাউল আহসান, চার্টার্ড অ্যাকাউনন্ট্যান্ট ফখরুদ্দিন আহমেদ ও আইনজীবী খান মোহাম্মদ শামীম আজিজ ।

সরকারি বেতনে ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) হিসেবে থাকবেন অতিরিক্ত সচিব (ওএসডি) মাহবুব কবীর। 

এক গ্রাহকের করা আবেদনের শুনানি নিয়ে ২২ সেপ্টেম্বর ইভ্যালির সব ধরনের সম্পদ বিক্রি এবং হস্তান্তরে নিষেধাজ্ঞা দেন হাইকোর্ট। ৩০ সেপ্টেম্বর এক আদেশে ১২ অক্টোবরের মধ্যে ইভ্যালির নথিপত্র আদালতে দাখিল করতে রেজিস্ট্রার জয়েন্ট স্টক কোম্পানিজ অ্যান্ড ফার্মসকে নির্দেশ দিয়েছিলেন। সে অনুযায়ী নথি দাখিল করা হয়।

এরপর ইভ্যালির দুই কর্ণধার কারাবন্দি থাকার প্রেক্ষাপটে নতুন একটি বোর্ড গঠনে একজন অবসরপ্রাপ্ত বিচারক, অবসরপ্রাপ্ত সচিব, চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট ও একজন আইনজীবীর সমন্বয়ে কমিটি গঠন করা অভিপ্রায় ব্যক্ত করেছিলেন হাইকোর্ট। পরে সাবেক তিন সচিবের নাম আদালতে দাখিল করেছিল বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

২০২০ সালের ২৫ মার্চ বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান পদ থেকে মাহবুব কবীরকে রেলপথ মন্ত্রণালয়ে বদলি করা হয়। সেই পদে বেশি দিন থাকতে পারেননি তিনি। এ পদে থাকার সময় ভেজালবিরোধী খাদ্য উৎপাদন ও বিপণন বন্ধে জোরালো ভূমিকা রেখে প্রশংশিত হন মাহবুব কবীর।

রেলপথ মন্ত্রণালয়ে আলোচিত কর্মকর্তা ছিলেন মাহবুব কবীর। তিন মাসে দুর্নীতি দূর করতে ১০ কর্মকর্তার উইং চেয়ে আলোচিত অতিরিক্ত সচিব মাহবুবকে তিরস্কার করে সরকার। 

একটি লেখা প্রকাশিত হওয়ার জের ধরে চলতি বছরে আবার শাস্তি পেয়েছেন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওএসডি) মাহবুব কবীর।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, মাহবুব কবীর রেলপথ মন্ত্রণালয়ে কর্মকালে তার উদ্ধৃতি দিয়ে eisomoy365.com নামের অনলাইন পত্রিকায় বিনিয়োগ করতে এসে হু হু করে কাঁদতে দেখেছি বিদেশিদের শিরোনামে একটি লেখা প্রকাশিত হয়। যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদন ব্যতীত ও প্রকৃত দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্র ব্যতীত পত্রিকায় প্রকাশিত এ লেখায় তার মনগড়া, ভিত্তিহীন ও সরকারের জন্য অস্বস্তিকর বক্তব্য প্রকাশিত হওয়া সরকারি কর্মচারী হিসেবে তার আচরণবিধি লঙ্ঘনের শামিল হওয়ায় তার বিরুদ্ধে সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা, ২০১৮-এর বিধি ৩ (খ) অনুযায়ী অসদাচরণ এর অভিযোগে বিভাগীয় মামলা রুজু করা হয়।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, অভিযুক্ত কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আনীত অসদাচরণেরর অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় এবং অভিযোগের গুরুত্ব ও প্রাসঙ্গিক প্রশাসনিক বিষয়াদি বিবেচনায় সরকারি কর্মচারী বিধিমালা মোতাবেক তাকে তিরস্কার নামীয় লঘুদণ্ড প্রদানের প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নেওয়া হলে এ লঘুদণ্ড আরোপের বিষয়ে মহামান্য রাষ্ট্রপতি সদয় সম্মতি জ্ঞাপন করেন। 

এতে আরও বলা হয়, মাহবুব কবীরের বিরুদ্ধে সরকারি কর্মচারী বিধিমালা অনুযায়ী অসদাচরণের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় এবং অভিযোগের গুরুত্ব ও প্রাসঙ্গিক প্রশাসনিক বিষয়াদি বিবেচনায় বিধিমালার ৪ (২) (ক) বিধি মোতাবেক তাকে তিরস্কার নামীয় লঘুদণ্ড দেওয়া হলো।

নিউজ ট্যাগ: মাহবুব কবীর

আরও খবর