আজঃ বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২
শিরোনাম

আজকের রাশিফল ১১ মে ২০২২

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১১ মে ২০২২ | ৪৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

১১ মে ২০২২ বুধবার, চন্দ্রের যোগাযোগ দিনের বেলায় সিংহ রাশিতে থাকবে যখন চাঁদ গভীর রাতে কন্যা রাশিতে আসবে। চাঁদের এই যোগাযোগ কীভাবে আপনার রাশিচক্রকে প্রভাবিত করবে? কর্মজীবন, আর্থিক, স্বাস্থ্য, শিক্ষা এবং পারিবারিক বিষয়ে ভাগ্য কতটা সাহায্য করবে, দেখুন রাশিফল।

মেষ রাশি:

মেষ রাশির জাতকদের আজ ভাগ্য আপনার সঙ্গে আছে, আপনি শুভ কাজে অংশ নেবেন। আপনার কথাবার্তা মিষ্টি হবে, যার কারণে আপনি অন্যকে আপনার দিকে আকৃষ্ট করবেন। আপনি আপনার চতুরতা এবং বুদ্ধিমত্তা দিয়ে আপনার কাজ সফল করবেন। আজ আপনি ভালো লোকেদের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করবেন, যারা আপনাকে কাজে সাফল্য পেতে সহায়তা করবেন এবং গাইড করবেন। কর্মক্ষেত্রে প্রত্যাশিত সাফল্য অর্জিত হবে।

বৃষ রাশি

বৃষ রাশির আজ পারিবারিক জীবন উত্থান-পতনে পূর্ণ হবে। আপনার কঠোর পরিশ্রম এবং বোঝাপড়া আপনাকে জীবনকে সুখী করতে সাহায্য করবে। কর্মক্ষেত্রে আপনার কাজের প্রশংসা করা হবে। পরিবারের সুখ আশানুরূপ হতে চলেছে। আপনি সারা দিন খুশি থাকবেন, আজ আপনি পরিবার বা বন্ধুর সঙ্গে ভ্রমণ করবেন। আজ আপনি আপনার পরিবারের যত্ন নেবেন এবং তাদের চাহিদা পূরণের চেষ্টা করবেন।

মিথুন রাশি:

মিথুন রাশির জাতকদের জন্য আজকের দিনটি ভালো শুরু হতে চলেছে। কাজ বা পারিবারিক সুখের জন্য আজকের দিনটি ভালো যাচ্ছে, দিনটি শুভ হবে। আজ কর্মক্ষেত্রে প্রভাব পড়বে। আজ মেজাজ ভালো যাচ্ছে, পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ভালো সময় কাটবে। আজ আপনি আপনার বুদ্ধিমত্তা এবং ক্ষমতার সম্পূর্ণ সুবিধা পাবেন। ভালো অর্থ লাভ হবে। পরিবারের চাহিদার পূর্ণ খেয়াল রাখবে।

কর্কট রাশি:

কর্কট রাশির জাতকদের আজ সারাদিন সতেজ থাকবে, চাকরিতে সাফল্য আসবে। ব্যবসায় লাভ হবে। পারিবারিক কলহের অবসান হবে। পরিবারের সঙ্গে ভালো সম্প্রীতি বজায় থাকবে। আজকের দিনটি আপনার জন্য শুভ। এই দিনে আপনার মনে নতুন উদ্যম ও উদ্দীপনা দেখা যাবে। কর্মক্ষেত্রে ভালো আর্থিক লাভ হবে। এছাড়াও আপনি টাকা সংরক্ষণ করতে পারেন।

সিংহ রাশি:

সিংহ রাশির জাতকদের আজকের দিনটি আপনার জন্য স্মরণীয় হয়ে থাকবে। আপনি মিষ্টি কথাবার্তা এবং আপনার চতুরতার সাহায্যে কাজে সাফল্য পাবেন। কাজের জন্য আজকের দিনটি খুব ভালো হবে। আদালত সংক্রান্ত বিষয় আটকে থাকলে আজ তাতে কিছুটা স্বস্তি পাওয়া যাবে। কাজে সফলতা পাবেন। কর্মক্ষেত্রে লাভজনক ফলের প্রাধান্য বজায় থাকবে।

কন্যা রাশি:

কন্যা রাশির জাতক জাতিকাদের আজ মন খুশি থাকবে। পরিবারের সঙ্গে ভালো সময় কাটবে, ভ্রমণ উপভোগ করবেন ইত্যাদি। ব্যবসায় ভালো লাভ হবে। কর্মক্ষেত্রে ভালো অবস্থা দেখতে পাবেন। কর্মরত ব্যক্তিদের পদোন্নতির লক্ষণ রয়েছে। আজ আপনি ভালো লোকেদের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করবেন, যারা আপনাকে কাজে সাফল্য পেতে সহায়তা করবে এবং গাইড করবে।

তুলা রাশি:

তুলা রাশির জাতকদের আজ ভাগ্য আপনার সঙ্গে আছে। আজ কর্মক্ষেত্রে আপনার কর্মক্ষমতা ভালো হতে চলেছে। আপনার কথা বলার শিল্প আছে, যা আপনাকে যে কোনও ক্ষেত্রে সাফল্যের শিখরে নিয়ে যেতে সহায়ক হবে। আপনি সময়ে সময়ে পরিবারের সমর্থন পাবেন। আপনি যেখানেই কাজ করুন না কেন আপনি সহকর্মীদের পূর্ণ সমর্থনও পাবেন। ছাত্র-ছাত্রীদের মন পড়াশোনায় ব্যস্ত থাকবে না।

বৃশ্চিক রাশি:

বৃশ্চিক রাশির জাতকদের আজকের দিনটি চটপটে থাকবে। কঠোর পরিশ্রমের ফল আজ অবশ্যই পাওয়া যাবে। কোনও বিবাহ অনুষ্ঠান বা মাঙ্গলিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করবেন। মনের মধ্যে সুখ থাকবে। পারিবারিক সুখ ভালো যাচ্ছে, আজ আপনি সুখী হবেন এবং এই দিনটি হাসি-খুশিতে কাটাবেন। দিন শুরু হবে আত্মবিশ্বাস নিয়ে। পরিবারের ভালোবাসা ও সমর্থন পাবেন।

ধনু রাশি:

ধনু রাশির জাতকদের আজ কাজে সাফল্য আসবে। একটি নতুন ব্যবসা শুরু করার ধারণাগুলি মনে আসতে পারে বা এটিকে বাস্তবে রূপ দিতে পারে। আজ ভাগ্য আপনার সহায় হবে। আজ আপনি মাঠে আপনার প্রতিযোগীদের থেকে এগিয়ে থাকবেন। আজ চতুরতার পরিচয় দিলে কাজে সফল হবেন। বাড়ির সকলের স্নেহ পাবেন। আপনি আপনার ইচ্ছা অনুযায়ী আপনার কাজের পরিকল্পনা সম্পূর্ণ করবেন।

মকর রাশি:

মকর রাশির জাতকদের আজ আপনাকে পূর্ণ উদ্যমে দেখা যাবে, ভাগ্য আপনার সঙ্গে আছে। কাজে উৎসাহ থাকবে। শিক্ষার্থীরা প্রতিযোগিতার ক্ষেত্রে সাফল্য পাবে। পরিবার বা প্রেমিকদের সঙ্গে ভালো সময় কাটবে। শরীরে একটা চঞ্চলতাও থাকবে। আপনি আজ আপনার বন্ধু বা পরিচিতের সাথে দেখা করবেন, যার কারণে আপনার মুখে খুশি প্রতিফলিত হবে।

কুম্ভ রাশি:

কুম্ভ রাশির জাতকদের এই দিনে ক্ষেত্র বিশেষে আসা সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন। আপনার সমস্ত কাজ সফল হবে। অর্থের জন্য আজকের দিনটি খুব গুরুত্বপূর্ণ হবে, অর্থ সংক্রান্ত বিষয়গুলি ভালো থাকবে। আজ আপনি আপনার স্ত্রী এবং সন্তানদের কাছ থেকে সুখকর সংবাদ পাবেন। আপনি আজ আপনার পুরানো বন্ধুর সঙ্গে কথা বলতে পারেন।

মীন রাশি:

মীন রাশির জাতকদের আজকের দিনটি খুব একটা ভালো যাবে না। আপনাকে একটি সংঘাতময় পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হতে পারে, এমন সময়ে আপনি অবশ্যই পরিবারের সমর্থন পাবেন, তাই সাহস হারাবেন না এবং আসন্ন কঠিন পরিস্থিতিকে দৃঢ়তার সাথে মোকাবেলা করুন। আপনার স্ত্রীর সঙ্গে আপনার সম্পর্ক ভালো থাকবে। আজ ব্যবসায়ী শ্রেণী বিশেষ ভাবে ভালো ফল পাবেন, যার কারণে অর্থ ও লাভের যোগ হবে। আজ আপনি আপনার ভাগ্যের পূর্ণ সমর্থন পাবেন।


আরও খবর
‘‘আম’’ চিনুন তারপর কিনুন

বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২

আজকের রাশিফল!

বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২




ফিল্ম স্টুডিও বানাতে চেয়েছিলেন নিকোলাস কেজ

প্রকাশিত:সোমবার ২৫ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৫ এপ্রিল ২০২২ | ৩৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

লাস ভেগাসে একটি ফিল্ম স্টুডিও তৈরি করতে চেয়েছিলেন নিকোলাস কেজ। জিমি কিমেল লাইভ শোতে তিনি এ কথা জানিয়েছেন। এজন্য তিনি ৮ কোটি ডলারও জমা করেছিলেন। কিন্তু সম্ভব হয়নি। কেননা, ইলোন মাস্কের প্রজেক্ট মাঝখানে চলে আসে। লাস ভেগাসের পক্ষ থেকেই স্টুডিও নির্মাণের জন্য রাখা টাকা টেসলা করপোরেশনে দেয়া হয়েছিল।

ভেগাসের সঙ্গে নিকোলাসের সম্পর্ক বহুদিনের। তার অনেক সিনেমা ভেগাসের পটভূমিতে তৈরি। এর মধ্যে লিভিং ভেগাস ও হানিমুন ইন ভেগাস অন্যতম। এর মধ্যে লিভিং ভেগাস সিনেমার জন্য তিনি অস্কার পেয়েছিলেন। ভেগাসের প্রতি তাই তার ভালোবাসা রয়েছে। কেজ বলেন, ভেগাস আমার জন্য বেশ ভালো ছিল। এটা একদিকে যেমন মফস্বলের মতো, তেমনি অন্যদিকে বেশ বড় একটা শহর। একটি স্বতন্ত্র ঠিকানা। আপনি ক্লাবে যেতে পারেন, আবার এখানকার মানুষদের সঙ্গেও মিশে যেতে পারেন।

করসংক্রান্ত সুবিধার কারণে কেজ ভেগাসে এসেছিলেন। কিন্তু থাকতে থাকতে তিনি শহরটিকে ভালোবেসে ফেলেন। সেই আবেগ থেকেই তিনি একটি ফিল্ম স্টুডিও করার চিন্তা করেছিলেন। বিষয়টি নিয়ে কেজ বলেন, আমি একটা মুভি স্টুডিও করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু তখন ইলোন মাস্ক নতুন প্রজেক্ট নিয়ে এল। আমি ৮ কোটি ডলার দিয়েছিলাম, যেটা তখন টেসলা করপোরেশনকে দেয়া হয়। কেজের কণ্ঠে এক ধরনের হতাশার সুর শোনা যায় যখন তিনি বলেন, আমি স্টুডিওটা প্রায় করে ফেলেছিলাম!

নিকোলাস কেজ এ সময় তার নতুন সিনেমার প্রচারে ব্যস্ত। দ্য আনবিয়ারেবল ওয়েইট অব ম্যাসিভ ট্যালেন্ট নামের এ সিনেমায় কেজের জীবনকে ভিত্তি করে একটি কাল্পনিক চরিত্র তৈরি করা হয়েছে। সিনেমাটিতে কিছুটা কমেডি আছে, খানিকটা হালকা চালের। ভ্যারাইটির সিনেমা ক্রিটিক ওয়েন গিলবারম্যানের মতে, এটা এক ধরনের বাণিজ্যিক কমেডি ধারার সিনেমা হলেও শেষ পর্যন্ত বিশেষ হয়ে ওঠে।


আরও খবর



আসছে নতুন অর্থবছরের বাজেট

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১১ মে ২০২২ | ৩৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আগামী ৯ জুন বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে নতুন অর্থবছরের বাজেট উপস্থাপন করবেন অর্থমন্ত্রী। এটা স্বাধীন বাংলাদেশের ৫২তম এবং বর্তমান সরকারের টানা ১৪তম ও অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের এটি হবে চতুর্থ বাজেট। আগামী ২০২২-২৩ অর্থবছরের জন্য সরকার ৬ লাখ ৮০ হাজার কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা করতে যাচ্ছে। যা চলতি অর্থবছরের বাজেটের চেয়ে ৭৫ হাজার ৬৬৯ কোটি টাকা বেশি। নতুন এই বাজেটে মোট দেশজ উৎপাদনে (জিডিপি) প্রবৃদ্ধি অর্জনের লক্ষ্যমাত্রা ৭ দশমিক ৫ শতাংশ ধরা হচ্ছে। এতে মূল্যস্ফীতি ধরা হবে ৫ দশমিক ৫ শতাংশ। চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরের মূল বাজেটের আকার ছিল ৬ লাখ ৩ হাজার ৬৮১ কোটি টাকা। এতে মোট দেশজ উৎপাদনে (জিডিপি) প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৭ দশমিক ২ শতাংশ। ২০২০-২১ অর্থবছরের মূল বাজেটের আকার ছিল ৫ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকা। করোনাভাইরাস সঙ্কট পরবর্তী অর্থনীতিকে পুনরুজ্জীবিত করতে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি ও সামাজিক নিরাপত্তা খাতকে প্রধান্য দিয়ে আগামী ২০২২-২০২৩ অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাবনা করা হচ্ছে।

আগামী বাজেটের ঘাটতি ধরা হয়েছে প্রায় আড়াই লাখ কোটি টাকা। যা মোট জিডিপির সাড়ে ৫ শতাংশ। চলতি অর্থবছরে বাজেট ঘাটতি ধরা হয়েছিল ২ লাখ ১৫ হাজার কোটি টাকা। সেই হিসাবে আগামী অর্থবছরে ঘাটতি বাড়তে পারে ২৮ হাজার কোটি টাকা। আগামী অর্থবছরে মোট আয় ধরা হয়েছে ৪ লাখ ৩৭ হাজার কোটি টাকা। এটি জিডিপির ৯ দশমিক ৯ শতাংশ। চলতি অর্থবছরে মোট আয় ধরা হয় ৩ লাখ ৮৯ হাজার কোটি টাকা। ফলে আগামী বাজেটে মোট আয় বাড়ছে ৪৮ হাজার কোটি টাকা। আগামী অর্থবছরের মোট আয়ের মধ্যে এনবিআরকে ৩ লাখ ৭০ হাজার কোটি টাকা আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা দেওয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে। এটি জিডিপির প্রায় ৮ দশমিক ৪ শতাংশ। চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরে এনবিআরকে ৩ লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকার লক্ষ্যমাত্রা দেওয়া আছে। সে হিসেবে লক্ষ্যমাত্রা ৪০ হাজার কোটি টাকা বাড়িয়ে প্রস্তাব করা হবে নতুন অর্থবছরের বাজেটে। এছাড়া আগামী বাজেটে মোট আয়ের মধ্যে এনবিআর বহির্ভূত খাত থেকে আয় ধরা হয়েছে ১৮ হাজার কোটি টাকা। কর বহির্ভূত রাজস্ব ধরা হয়েছে ৪৯ হাজার কোটি টাকা।

আগামী অর্থবছরের জন্য ২ লাখ ৫০ হাজার কোটি টাকার এডিপির প্রস্তাব করা হয়েছে। চলতি অর্থবছরে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচীর (এডিপি) আকার ধরা হয়েছে ২ লাখ ২৫ হাজার ৩২৪ কোটি টাকা। আগামী অর্থবছরের জিডিপির আকার প্রাক্কলন করা হয়েছে ৪৪ লাখ ১৭ হাজার ১০০ কোটি টাকা। বাজেটের মোট আকার শেষ মুহূর্তে কিছু বাড়তে-কমতে পারে। এ ছাড়া আসন্ন অর্থবছরে মূল্যস্ফীতির হার ৫ দশমিক ৫ শতাংশ ধরা হচ্ছে বলে জানা গেছে। চলতি অর্থবছরে যা ধরা হয়েছিল ৫ দশমিক ৩ শতাংশ।

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) হিসাবে গত ফেব্রুয়ারিতে দেশে মূল্যস্ফীতির হার দাঁড়িয়েছে ৬ দশমিক ১ শতাংশ। আগামী অর্থবছরে যেসব খাতে বেশি করে ভর্তুকি ও প্রণোদনা দেওয়া হতে পারে, সেগুলো হচ্ছে বিদ্যুত খাত ১৮ হাজার কোটি টাকা, তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাসের (এলএনজি) আমদানি মূল্য পরিশোধ ও প্রণোদনা প্যাকেজের সুদ ভর্তুকি ১৭ হাজার ৩০০ কোটি, খাদ্য ভর্তুকি ৬ হাজার ৭৪৫ কোটি এবং কৃষি প্রণোদনা বাবদ ১৫ হাজার কোটি টাকা। বিদ্যুত, সার ও গ্যাসের মূল্য সমন্বয় করা না হলেই অবশ্য এমনটা হবে।

রাশিয়া-ইউক্রেন চলমান যুদ্ধ পরিস্থিতিতে খাদ্য ও জ্বালানি পণ্যের দাম বাড়ার আশঙ্কা এবং দেশের প্রধান রফতানি বাজার ইউরোপীয় ইউনিয়নে মন্দার পূর্বাভাস সত্ত্বেও আগামী অর্থবছরে ৭.৫ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করতে যাচ্ছে অর্থ মন্ত্রণালয়। একই সঙ্গে সার্বিক মূল্যস্ফীতির হার এখনকার তুলনায় নতুন অর্থবছর বেশ কমে আসবে বলে মনে করা হচ্ছে। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ দ্রুত শেষ হলে এবং নতুন করে দেশে কোভিড পরিস্থিতির অবনতি না হলে লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী প্রবৃদ্ধি অর্জন সম্ভব হবে। প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সম্প্রসারণমূলক আর্থিক নীতি অনুসরণ করার পাশাপাশি বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচীতে বাড়তি ব্যয়ের পরিকল্পনা করা হচ্ছে।

চলতি অর্থবছরের বাজেটে ৭.২ শতাংশ প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে, যা সংশোধিত বাজেটেও অপরিবর্তিত থাকছে। মূলত, আমদানি-রফতানিতে উচ্চ প্রবৃদ্ধি, ম্যানুফ্যাকচারিং ও সেবাখাতে চাঙ্গাভাব ফিরে আসা, কৃষিখাতের প্রবৃদ্ধি অব্যাহত থাকার পাশাপাশি বাড়তি রাজস্ব আয়ের কারণে এই প্রবৃদ্ধি সম্ভব হবে বলে মনে করা হচ্ছে। এছাড়া, নতুন অর্থবছরে রফতানির প্রবৃদ্ধির ধারা অব্যাহত থাকার পাশাপাশি দেশের শিল্প ও কৃষিখাতে প্রবৃদ্ধি অব্যাহত থাকবে। চলতি অর্থবছর জনশক্তি রফতানিতে ৩৭৩ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হওয়ায় খুব শীঘ্রই রেমিটেন্স প্রবাহেও উচ্চ প্রবৃদ্ধি আশা করা হচ্ছে। চলতি অর্থবছরের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত রফতানি প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৩০ দশমিক ৮৬ শতাংশের বেশি, এই সময়ে আমদানি বেড়েছে ৪৬ দশমিক ২১ শতাংশ। তবে আমদানি ব্যয়ের মধ্যে পেট্রোলিয়াম ও শিল্পের কাঁচামাল আমদানি বৃদ্ধি পাওয়ায় আগামীতে বাড়তি প্রবৃদ্ধির। জুলাই-ডিসেম্বর সময়ে মূলধনী যন্ত্রপাতি আমদানি বেড়েছে ৪২ দশমিক ৮১ শতাংশ ও জুলাই-জানুয়ারি সময়ে শিল্পের কাঁচামাল আমদানির ঋণপত্র খোলার হার বেড়েছে ৫১ শতাংশেরও বেশি।

গত ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের রফতানি প্রবৃদ্ধি প্রায় ৪৮ শতাংশ ও ইউরোপীয় ইউনিয়নে প্রায় ২৮ শতাংশ। চলতি অর্থবছরের বাকি সময়েও প্রধান দুই বাজারে রফতানি প্রবৃদ্ধির এ ধারা অব্যাহত থাকবে। গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় চলতি অর্থবছরের জুলাই-মার্চ সময়ে মার্কিন ডলারের বিপরীতে টাকার বিনিময় হারের কিছুটা ডিপ্রেসিয়েশন হয়েছে। গত মার্চ শেষে এই হার ছিল ডলার প্রতি ৮৬ দশমিক ২০ টাকা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ৮৪.৮০ টাকা; তবে এটি উদ্বেগজনক নয়। বর্তমান অর্থবছরে ইউরোর বিপরীতে টাকা কিছুটা শক্তিশালী হচ্ছে। চলতি মার্চ শেষে ইউরোর বিপরীতে টাকার বিনিময় হার ছিল ৯৪ দশমিক ৬৫ টাকা, গতবছর একই সময়ে এটি ছিল ১০১ দশমিক ০৬ টাকা।

তবে যুদ্ধ প্রলম্বিত হলে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুত প্রকল্পের মতো বড় প্রকল্পের বাস্তবায়ন অগ্রগতি লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় কম হওয়ার আশঙ্কার পাশাপাশি বিশ্ববাজারে তেল ও খাদ্যপণ্যসহ পণ্যবাজার সার্বিকভাবে উর্ধমুখী থাকায় সামনের দিনগুলোতে উন্নয়ন ব্যয়সহ সরকারের সার্বিক ব্যয় বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কাও রয়েছে। আন্তর্জাতিক মূল্য পরিস্থিতিতে জ্বালানি, বিদ্যুত, ইন্ডাস্ট্রিয়াল মেশিনারি, কাঁচামাল ও খাদ্যপণ্যের দাম সহসাই কমবে- এমন ধারণা করার ভিত্তি নেই। পেট্রোলিয়াম প্রোডাক্ট, গ্যাস, বিদ্যুতসহ বাংলাদেশে কিছু গৃহস্থালি নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী রয়েছে, যা মূল্যস্ফীতি বাড়াতে ভূমিকা রাখে। আবার ফেব্রুয়ারিতে ঋণপ্রবৃদ্ধি কমে গেছে। বিদ্যমান আন্তর্জাতিক পরিস্থিতিতে আগামী বছর বিনিয়োগ থেকে বড় ধরনের প্রবৃদ্ধি আসবে বলে মনে হয় না। ভোক্তা ব্যয় বাড়ছে মূলত মূল্যস্ফীতির কারণে। তাই ভোক্তার প্রকৃত ব্যয় বাড়েনি। সরকারী ব্যয়ও খুব একটা বাড়েনি।

রেমিটেন্স প্রবাহও আগের অর্থবছরের তুলনায় এবার কমে গেছে, যা ভোক্তার ব্যয় নিয়ন্ত্রণ করছে। এ পরিস্থিতিতে চলতি অর্থবছর ৬ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হতে পারে। বিশ্ব পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে এবং কোভিড পরিস্থিতির অবনতি না হলে আগামী অর্থবছর প্রবৃদ্ধি ৬ শতাংশের বেশি হওয়া স্বাভাবিক। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের শান্তিপূর্ণ সমাধান হলেও ইউরোপের মন্দার ঝূঁকি রয়েছে, যা আমাদের রফতানি প্রবৃদ্ধিকে ব্যাহত করতে পারে। এ বছর জনশক্তি রফতানি অনেক বৃদ্ধি পাওয়ায় নতুন বছর রেমিটেন্স প্রবাহ বাড়বে। সার্বিক পরিস্থিতিতে ৭ দশমিক ৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জনের জন্য যে পরিমাণ বিনিয়োগ প্রয়োজন, বিদ্যমান বৈশ্বিক পরিস্থিতিতে তা সম্ভব হবে কি-না, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে।

আগামীতে টাকার আরও অবমূল্যায়ন প্রয়োজন হতে পারে, যা মূল্যস্ফীতি উস্কে দেবে। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের শান্তিপূর্ণ সমাধান হলে জ্বালানি তেলের দাম কমবে। কিন্তু অতীতে দেখা গেছে, আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম অনেক কমে গেলেও সরকার দেশে দাম সমন্বয় করেনি। তবে আন্তর্জাতিক বাজারে পণ্যমূল্য কমবে, তার প্রভাব দেশের বাজারে পড়বে। এখনও অনেক সময় আছে। সামনে কি হয়, তা তো বুঝা যায় না। পরিস্থিতি যদি এরকম থাকে, তাহলে এসব লক্ষ্যমাত্রা কোনমতেই অর্জন করা সম্ভব হবে না। আর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করা মোটেও অসম্ভব হবে না।

চলমান যুদ্ধের প্রভাবে আন্তর্জাতিক বাজারে পণ্যমূল্য বেড়ে যাওয়া ও রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুত কেন্দ্রসহ বৃহৎ উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে ধীরগতির আশঙ্কা ছাড়া অর্থনীতির বাকি সব সূচকই ইতিবাচক। দেশে কোভিড সংক্রমণের প্রথম ঢেউয়ের (এপ্রিল-মে ২০২০) সময়ে শিল্প উৎপাদন ব্যাপকভাবে ব্যাহত হয়। কিন্তু ওই বছরের জুলাই থেকেই পরিস্থিতি দ্রুত ঘুরে দাঁড়ায়। ২০২১ এর মে-জুলাই সময়ে শুরু হওয়া দ্বিতীয় ঢেউয়ের সময় শিল্প উৎপাদন কিছুটা স্তিমিত হলেও মহামারী পূর্ব সময়ের অবস্থার উপরে ছিল। এখন ম্যানুফ্যাকচারিংখাত কোভিডের ক্ষতি সামলে নিয়ে স্বাভাবিক প্রবৃদ্ধির ধারায় ফিরে এসেছে। এতে সাম্প্রতিক সময়ে শিল্পের উৎপাদন সূচকে উল্লেখযোগ্য উল্লম্ফন ঘটেছে। অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকায় বর্তমান অর্থবছরে জিডিপির প্রবৃদ্ধি উর্ধমুখী রয়েছে এবং আগামীতেও এভাবে থাকবে বলে আশা করা যায়।

নিউজ ট্যাগ: বাজেট

আরও খবর
ফের বাড়লো স্বর্ণের দাম

মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২




সিপাহি বিদ্রোহে অংশ নেওয়া ২৮২ ভারতীয় সেনার দেহাবশেষের সন্ধান

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | ৩০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

১৮৫৭ সালে ভারতের প্রথম স্বাধীনতা যুদ্ধে (সিপাহি বিদ্রোহে) অংশগ্রহণকারী ২৮২ সেনার দেহাবশেষের সন্ধান মিলেছে। পাঞ্জাব বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. জেএস সেহরাওয়াত জানিয়েছেন, অমৃতসরের কাছে এক খননের সময় এসব দেহাবশেষ পাওয়া যায়।

ধারণা করা হয় এই সেনারা শুকর ও গরুর চর্বি মাখানো কার্তুজ ব্যবহারের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করেছিলেন। এই বিদ্রোহ ইতিহাসে সিপাহী বিদ্রোহ নামে পরিচিত।

ড. জেএস সেহরাওয়াত বলেন, এসব কঙ্কাল ২৮২ জন ভারতীয় সেনার। যারা ১৮৫৭ সালে ব্রিটিশের বিরুদ্ধে প্রথম স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় নিহত হয়েছিলেন। পাঞ্জাবের অমৃতসরের কাছে অজানালায় একটি ধর্মীয় অবকাঠামোর নিচে খনন চালিয়ে সেগুলো উদ্ধার করা হয়।

ওই সহযোগী অধ্যাপক আরও বলেন, এক গবেষণায় ইঙ্গিত পাওয়া যায় এই সেনারা শুকর ও গরুর চর্বি মাখানো কার্তুজ ব্যবহারের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করেছিলেন। কয়েন, মেডেল, ডিএনএ গবেষণা, বস্তুগত বিশ্লেষণ, নৃতাত্ত্বিক, রেডিও কার্বন বয়স বিশ্লেষণ, সব পয়েন্টই একই বিষয়ের দিকে ইঙ্গিত করছে।’

কিছু ঐতিহাসিক মনে করেন ১৮৫৭ সালের বিদ্রোহ ভারতের প্রথম স্বাধীনতা যুদ্ধ। ওই সময়ে ব্রিটিশ ভারতীয় সেনাবাহিনীতে নিয়োগ করা কিছু ভারতীয় সেনা ধর্মীয় বিশ্বাসের কারণে শুকর এবং গরুর চর্বি মাখানো কার্তুজ ব্যবহারের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করে।


আরও খবর



পি কে হালদারের বিষয়ে আনুষ্ঠানিক তথ্য আসেনি

প্রকাশিত:রবিবার ১৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৫ মে ২০২২ | ৩১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, পি কে হালদারকে গ্রেপ্তারের বিষয়ে আমাদের কাছে ভারত থেকে আনুষ্ঠানিক কোনো খবর আসেনি। সেরকম তথ্য পেলে আমরা সিদ্ধান্ত নেবো। আমাদের দেশে তার বিরুদ্ধে মামলা আছে। তাকে দেশে ফেরত আনার জন্য ভারতের কাছে সহযোগিতা চাইব। তাকে দেশে আনা সম্ভব হলে বিচারের মুখোমুখি করা হবে।

শনিবার (১৪ মে) সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেছেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন, পি কে হালদারকে দেশে ফিরিয়ে আনতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হবে। এজন্য প্রয়োজনে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হবে।

তিনি বলেছেন, শুনেছি, পি কে হালদারকে শনিবার দুপুরে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের অশোকনগর থেকে গ্রেপ্তার করেছে সে দেশের কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। তারা এখনও আমাদের আনুষ্ঠানিকভাবে কিছুই জানায়নি। তবে, আমরা খোঁজ-খবর রাখছি।

অভিযোগ আছে, আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধুসহ অসাধু সিন্ডিকেটের সহায়তায় কয়েকটি লিজিং কোম্পানি থেকে অন্তত ১০ হাজার ২০০ কোটি টাকা নিয়ে দেশ থেকে পালিয়ে যান পি কে হালদার। এ অর্থের একটি বড় অংশ তিনি কানাডা, ভারত ও সিঙ্গাপুরে পাচার করেন বলে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) প্রাথমিক তদন্তে বেরিয়ে এসেছে।


আরও খবর



শুক্র-শনিবার সীমিত পরিসরে ব্যাংক খোলা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৮ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ এপ্রিল ২০২২ | ৩৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঈদুল ফিতরের আগে ব্যবসা-বাণিজ্য বৃদ্ধি পাওয়ায় গ্রাহকদের লেনদেনের সুবিধার্থে আগামীকাল শুক্রবার এবং শনিবার সীমিত পরিসরে ব্যাংক খোলা রাখার নির্দেশনা দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বৃহস্পতিবার (২৮ এপ্রিল) বাংলাদেশ ব্যাংকের এক প্রজ্ঞাপনে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়েছে, সর্বসাধারণের সুবিধার্থে শনিবার সীমিত সংখ্যক লোকবলের মাধ্যমে সারাদেশে সীমিত পরিসরে ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালিত হবে। ব্যাংকিং লেনদেনের সময়সূচী হবে সকাল সাড়ে ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত।

এ ছাড়াও, ঢাকা মহানগরী, আশুলিয়া, টঙ্গী, গাজীপুর, সাভার, ভালুকা, নারায়ণগঞ্জ ও চট্টগ্রামে অবস্থিত তফসিলি ব্যাংকের পোশাকশিল্প সংশ্লিষ্ট শাখা ও প্রধান কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট বিভাগ পর্যাপ্ত নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণপূর্বক খোলা রাখতে হবে। লেনদেন চলবে সকাল সাড়ে ৯টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত।

এই ২ দিন নগদ লেনদেনের সুবিধার্থে বাংলাদেশ ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট অফিস ও বিভাগ সীমিত পরিসরে খোলা থাকবে।


আরও খবর
ফের বাড়লো স্বর্ণের দাম

মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২