আজঃ মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০21
শিরোনাম

আজকের রাশিফল: জেনে নিন কেমন কাটবে দিন

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ এপ্রিল ২০২১ | ৯৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পুরনো জ্যোতিষশাস্ত্রের এমন একটি ধরন, যার মাধ্যমে বিভিন্ন সময়কাল নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়। যেমন দৈনিক রাশিফল প্রতিদিনের ঘটনার ভবিষ্যকথন করে, তেমন সাপ্তাহিক, মাসিক তথা বার্ষিক রাশিফল যথাক্রমে সপ্তাহ, মাস এবং বছরের ভবিষ্যদ্বাণী করে। বৈদিক জ্যোতিষে ১২টি রাশি- মেষ, বৃষ, মিথুন, কর্কট, সিংহ, কন্যা, তুলা, বৃশ্চিক, ধনু, মকর, কুম্ভ ও মীন-এর ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়। একই রকমভাবে ২৩টি নক্ষত্রেরও ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়ে থাকে।

মেষ: শুভ কাজে যুক্ত হওয়ার সম্ভাবনা। পদস্থ ব্যক্তির আনুকূল্য পাবেন। ব্যাবসায়িক কিছু বকেয়া বিল আদায়ের চেষ্টা সফল হতে পারে। দূরদৃষ্টির সঙ্গে অর্থের সদ্ব্যবহার করুন।

বৃষ: কোনো প্রচেষ্টার অগ্রগতি হবে। বিদেশ থেকে ভালো সংবাদ পেতে পারেন। শিক্ষার্থীদের শিক্ষায় অগ্রগতি। আর্থিক অবস্থা ভালো বলা যায়। প্রিয়জনের অনুপ্রেরণায় উদ্যমী হয়ে উঠবেন।

মিথুন: কর্মপ্রার্থীরা নতুন কাজের সন্ধান পাবেন। স্বার্থের পরিপন্থী কারো অনুরোধ রক্ষা করতে হতে পারে। ভুল সিদ্ধান্তে বিপর্যয় আসার আশঙ্কা। দ্বিধা-দ্বন্দ্বে না থেকে প্রয়োজনে বলিষ্ঠ সিদ্ধান্ত নিন।

কর্কট: কর্মক্ষেত্রে আপনার গুরুত্ব বাড়বে। অবিবাহিতদের বিয়ের আলোচনায় অগ্রগতি। আর্থিক যোগাযোগ শুভ। যৌথ কাজে অগ্রগতি। অন্যের দায়িত্ব নেবেন না। ইতিবাচক মনোভাব রাখুন।

সিংহ: পরিবারের সঙ্গে সামাজিক ক্রিয়াকলাপ আনন্দদায়ক হবে। প্রতিকূল অবস্থার মধ্যেও ভালো কিছু হবে। এমন ব্যক্তির সঙ্গে মেলামেশা বন্ধ করুন যারা আপনার সুনাম নষ্ট করবে। আবেগ পরিহার করুন।

কন্যা: আকস্মিক প্রাপ্তির সম্ভাবনা আছে। কর্মক্ষেত্রে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা পাবেন। প্রত্যাশা পূরণে বাধা-বিপত্তি দূর হবে। কাজে পারদর্শিতা দেখাতে সমর্থ হবেন।

তুলা: আর্থিক বিষয়ে দুশ্চিন্তা কমবে। সম্পত্তিসংক্রান্ত কাজে অগ্রগতি। আর্থিক বিষয়ে কোনো যোগাযোগে আশাবাদী হবেন। কর্মপরিবেশ অনুকূলে থাকবে। বকেয়া আদায়ে সচেষ্ট হতে পারেন।

বৃশ্চিক: কোনো শুভ প্রচেষ্টার জন্য দিনটি শুভ। বর্তমান পরিস্থিতি পরিবর্তনের সুযোগ আসবে। পেশাগত যোগাযোগ ফলপ্রসূ হবে। সমস্যা সমাধানে অন্যের সহযোগিতা পাবেন।

ধনু: অর্থপ্রাপ্তির সম্ভাবনা আছে। সামাজিক কাজে অংশীদার হতে পারেন। ব্যবসায়ীরা নতুন উদ্যোগ গ্রহণ করতে পারেন। একাগ্রতার সঙ্গে কাজ করলে সুফল পাবেন। ভালো থাকবেন।

মকর: কর্মক্ষেত্রে কিছু ইতিবাচক সংবাদ পাবেন। নিজের কাজে অন্যকে খুশি করতে পারবেন। বকেয়া আদায়ে অগ্রগতি। পুরনো সমস্যা কাটিয়ে উঠতে পারবেন। প্রার্থনায় শান্তি পাবেন।

কুম্ভ: প্রত্যাশিত কাজে কিছু ঝামেলা দেখা দিতে পারে। অহেতুক ব্যয়ের কারণে চাপ থাকতে পারে। গুরুদায়িত্ব গ্রহণে অনীহা আসতে পারে। সময়োচিত সিদ্ধান্ত কাজে সাফল্য আনবে।

মীন: কোনো আশা পূরণ হতে পারে। শুভ সংবাদে আশাবাদী হবেন। কর্মক্ষেত্রে সুনাম বজায় থাকবে। অর্থ উপার্জনের সুযোগ আসবে। কাজে কৌশলী হলে সফলতা পাবেন।


আরও খবর
যেভাবে বানাবেন শসার স্মুদি

সোমবার ১৯ এপ্রিল ২০২১




বনানীতে সমাহিত হবেন ওয়াসিম

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৮ এপ্রিল ২০২১ | ৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলা চলচ্চিত্রের সোনালি দিনের নায়ক ওয়াসিমকে রাজধানীর বনানী কবরস্থানে সমাহিত করা হবে। এর আগে বাদ জোহর সেখানেই তার জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। গতকাল শনিবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে রাজধানীর শাহাবউদ্দিন মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। গুরুতর অসুস্থ হয়ে বেশ কিছুদিন শয্যাশায়ী ছিলেন এ চিত্রনায়ক। তিনি কিডনী রোগসহ নানা জটিলতায় ভুগছিলেন।

ওয়াসিমকে বনানী কবরস্থানে সমাহিতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান। তিনি বলেন, ওয়াসিম ভাইকে এখন গোসল করানো হচ্ছে। এরপর তার মরদেহ ফ্রিজিং গাড়িতে রাখা হবে।

আজ রবিবার জোহরের নামাজের পর গুলশান আজাদ মসজিদে ওয়াসিমের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। এরপর বনানী কবরস্থানে দ্বিতীয় জানাযা শেষে সেখানেই সমাহিত করা হবে তাকে।


আরও খবর



‘একাত্তরেই মিমাংসিত হয়েছে বাংলাদেশ অসাম্প্রদায়িক শক্তির দেশ’

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৩ এপ্রিল ২০২১ | ২৯১জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, একাত্তর সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে অসাম্প্রদায়িকতার বিজয়ের মাধ্যমে মিমাংসিত হয়েছে বাংলাদেশ অসাম্প্রদায়িক শক্তির দেশ। আমাদের জাতিসত্তার পরিচয় আমরা বাঙালি। সে লক্ষ্যেই বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে একাত্তর সালে মুক্তিযোদ্ধারা যুদ্ধ করেছেন, ত্রিশ লক্ষ শহিদ জীবন দিয়েছেন, দুই লক্ষ মা-বোন সম্ভ্রম হারিয়েছেন। আমরা সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে মোকাবিলা করেছি একাত্তরে। একাত্তর সালেই সিদ্ধান্ত হয়েছে এ দেশ সাম্প্রদায়িক অপশক্তির নয়, অসাম্প্রদায়িক শক্তির। সে বাংলাদেশকে ধরে রাখার জন্য বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে যখন উন্নয়নের অগ্রযাত্রা সূচিত হয়, তখন তাকে হত্যা করা হয় ১৯৭৫ সালে। তারপর আবার স্বাধীনতাবিরোধীরা রাষ্ট্র ক্ষমতায় আসে। দীর্ঘ ২৬ বছর রাষ্ট্র ক্ষমতায় তারা বিভিন্নভাবে প্রতিষ্ঠিত ছিল। তাদের মোকাবিলা করেই আজ আমরা উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণ করছি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে। এ অবস্থায় অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি করে জঙ্গি আচরণের মধ্য দিয়ে যারা অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশকে ধ্বংসের চেষ্টা চালাচ্ছে তাদের ব্যাপারে সকলকে সোচ্চার হতে হবে।

মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত স্থানীয় কৃষকদের মাঝে কৃষি প্রণোদনার সার, বীজ ও কৃষি যন্ত্রপাতি বিতরণের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে রাজধানীর বেইলী রোডের সরকারি বাসভবন থেকে ভার্চুয়ালি সংযুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।

ইসলামের উন্নয়নে বঙ্গবন্ধু সরকার ও শেখ হাসিনা সরকার যা করেছে তা অন্য কোন সরকার করেনি উল্লেখ করে এসময় মন্ত্রী আরো বলেন, বর্তমানে শেখ হাসিনা ইসলামের উন্নয়ন ও সম্প্রসারণে কাজ করছেন। পাশাপাশি তিনি অন্য ধর্মের জন্যও কাজ করছেন। অথচ একদল ধর্ম ব্যবসায়ী বোঝাতে চাইছে শেখ হাসিনার কাছে ইসলাম নিরাপদ নয়। ইসলামের যারা প্রকৃত আলেম-ওলামা তারা এতে বিশ্বাস করেন না। ধর্ম ব্যবসায়ীরা দেশকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করছে। প্রকৃত ইসলামকে যারা ধারণ করেন তারা এ জাতীয় অপরাধের সাথে সম্পৃক্ত নন। অননৈতিক কাজে যারা জড়িত তাদের কাছে ইসলাম নিরাপদ কীনা ভাবতে হবে। যারা একাত্তরে ধর্ষণ, লুন্ঠনে সহায়তা করেছে, মুক্তিযোদ্ধাদের হত্যা করেছে তাদের হাতে ইসলাম নিরাপদ কীনা সেটা বিবেচনায় রাখতে হবে।

এ সুন্দর বাংলাদেশ বিনির্মাণে আমাদের অনেক ত্যাগ স্বীকার করতে হয়েছে। এই বাংলাদেশ যেন কেউ ধ্বংস করতে না পারে। এজন্য যেখানে যখনি অসাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী অনাকাঙ্ক্ষিত অবস্থা সৃষ্টি করবে তখনই প্রতিরোধ গড়ে তুলে তাদের সমূলে বিনাশ করতে হবে।-আহ্বান জানান শ ম রেজাউল করিম।

বর্তমান সরকার কৃষিবান্ধব সরকার উল্লেখ করে এ সময় তিনি আরো যোগ করেন, বঙ্গবন্ধু দেশ স্বাধীন হবার পর যেমন কৃষকদের বিনামূল্যে সার, কীটনাশক ও কৃষি যন্ত্রপাতি সরবরাহ করেছিলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা একই প্রক্রিয়ায় সে ধারা অব্যাহত রেখেছেন। আজ কৃষকদের কোথাও হাহাকার করতে হয় না। শেখ হাসিনা সরকার না চাইতেই কৃষকদের ভর্তুকি দিয়ে কৃষি সরঞ্জামাদি, সার, কীটনাশক সরবরাহ করছে। কৃষকদের উৎপাদন অব্যাহত রাখতে হবে। তাহলে আমরা খাদ্যে পরিপূর্ণতা অর্জন করতে পারবো। আজ দেশ মাছ, মাংস, ডিমসহ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে কৃষকদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে।

করোনাকালে কৃষি, প্রাণিসম্পদ ও মৎস্য কর্মকর্তাদের মাঠে কৃষকদের সহায়তা করার নির্দেশ দেন মন্ত্রী। একজন মানুষও যেন সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সহায়তা পাননি বলে অভিযোগ তুলতে না পারে সে ব্যাপারে সতর্ক করেন তিনি।

মন্ত্রী আরো বলেন, করোনা পরিস্থিতিতেও আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। লকডাউনের নীতি-নিয়ম অনুসরণ করে কৃষি কাজ চালিয়ে যাওয়া, খাদ্য উৎপাদন করা এবং মানুষের প্রয়োজনীয় সকল কিছুর যোগান আমাদের নিশ্চিত করতে হবে। না হলে দেশের মানুষ বিপন্ন অবস্থায় পড়বে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনা পরিস্থিতির শুরু থেকে আজ পর্যন্ত দেশের প্রতিটি অঞ্চলের প্রতিটি মানুষের অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা, চিকিৎসাসহ সকল সাংবিধানিক অধিকার নিশ্চিত করার জন্য নিরলস পরিশ্রম করে চলেছেন।

নাজিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ ওবায়দুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে নাজিরপুরের বিশিষ্ট সমাজ সেবক এস এম নজরুল ইসলাম, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শেখ মুস্তাফিজুর রহমান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহরিয়ার ফেরদৌস রুনা, নাজিরপুর মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার মোসলেমউদ্দিন ফরাজী, পিরোজপুর জেলা পরিষদ সদস্য সুলতান মাহমুদ খান, উপজেলা প্রকৌশলী জাকির হোসেন মিয়া, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা দিগবিজয় হাজরা, সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা গৌতম মন্ডল, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মোঃ সিরাজুল ইসলাম, নকৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা আয়েশা আক্তার প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



করোনায় আরও ৬৩ মৃত্যু, শনাক্ত ৭৪৬২

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৯ এপ্রিল ২০২১ | ১০১জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গত ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে দেশে করোনা শনাক্ত হয়েছেন সাত হাজার ৪৬২ জন। গতকাল শনাক্ত হয়েছিলেন ছয় হাজার ৮৫৪ জন। নতুন শনাক্ত হওয়াদের নিয়ে দেশে এখন পর্যন্ত সরকারি হিসাবে করোনা শনাক্ত হলেন ছয় লাখ ৭৩ হাজার ৫৯৪ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের সংখ্যা বাড়লেও কমেছে মৃত্যুর সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৬৩ জন, গতকাল মারা গিয়েছিলেন ৭৪ জন। মারা যাওয়া ৬৩ জনকে নিয়ে দেশে সরকারি হিসাবে এখন পর্যন্ত করোনায় মারা গেলেন ৯ হাজার ৫৮৪ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন তিন হাজার ৫১১ জন, তাদের নিয়ে দেশে করোনা থেকে এখন পর্যন্ত সুস্থ হলেন পাঁচ লাখ ৬৮ হাজার ৫৪১ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, গত ২৯ মার্চ অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে করোনা শনাক্ত হন ৫ হাজার ১৮১ জন, সেই রেকর্ড ভেঙে ৩১ মার্চ শনাক্ত হন ৫ হাজার ৩৮৫ জন। ১ এপ্রিল ফের শনাক্ত দাঁড়ায় ৬ হাজার ৪৬৯ জন। ২ এপ্রিল দাঁড়ায় ৬ হাজার ৮৩০ জন। এরপর ৪ এপ্রিল সব রেকর্ড ভেঙে সাত হাজার ছাড়িয়ে একদিনে শনাক্ত হন ৭ হাজার ৮৭ জন। ৫ এপ্রিল শনাক্ত হন ৭ হাজার ৭৫ জন। ৬ এপ্রিল মঙ্গলবার ৭ হাজার ২১৩ জন। এর পরদিন বুধবার শনাক্ত হন ৭ হাজার ৬২৬ জন; যেটা এখন পর্যন্ত দেশে সর্বোচ্চ শনাক্ত এবং ৮ এপ্রিল শনাক্ত হন ৬ হাজার ৮৫৪ জন। এই হিসাবে আজ শুক্রবার করোনায় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সংখ্যক রোগী শনাক্ত হলেন।

শুক্রবার (৯ এপ্রিল) স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ২৩ দশমিক ৫৭ শতাংশ এবং এখন পর্যন্ত শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৬২ শতাংশ। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৪ দশমিক ৪০ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যু হার এক দশমিক ৪২ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা সংগৃহীত হয়েছে ৩১ হাজার ৮৭৯টি এবং পরীক্ষা করা হয়েছে ৩১ হাজার ৬৫৪টি। দেশে এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৪৯ লাখ ৪৭ হাজার ৪১২টি। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা করা হয়েছে ৩৭ লাখ পাঁচ হাজার ২৩৪টি এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা করা হয়েছে ১২ লাখ ৪২ হাজার ১৭৮টি।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ৬৩ জনের মধ্যে পুরুষ ৪৩ জন আর নারী ২০ জন। করোনায় আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত পুরুষ মারা গেছেন সাত হাজার ১৭৩ জন এবং নারী মারা গেছেন দুই হাজার ৪১১ জন। শতকরা হিসাবে পুরুষ ৭৪ দশমিক ৮৪ শতাংশ এবং নারী ২৫ দশমিক ১৬ শতাংশ।

তাদের মধ্যে বয়স বিবেচনায় ষাটোর্ধ্ব রয়েছেন ৩৬ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে আছেন ১৬ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে চার জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে পাঁচ জন এবং ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে আছেন দুই জন।

মারা যাওয়া ৬৩ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগের আছেন ৪২ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের ১০ জন, রাজশাহী বিভাগের দুই জন, খুলনা বিভাগের তিন জন, বরিশাল বিভাগের চার জন এবং সিলেট ও ময়মনসিংহ বিভাগের আছেন একজন করে।


আরও খবর



মতিঝিল ও ওয়ারীর সব থানায় ‘এলএমজি চৌকি’

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৩ এপ্রিল ২০২১ | ৭৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মতিঝিল বিভাগের থানাগুলোতে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। প্রতিটি থানায় বসানো হয়েছে লাইট মেশিনগান (এলএমজি) চৌকি। চৌকিতে সর্বদা প্রস্তুত থাকছেন একজন পুলিশ সদস্য। এসব থানাগুলোর সামনে বালুর বস্তার ওপর এলএমজি স্থাপন করা হয়েছে।

সোমবার (১২ এপ্রিল) ডিএমপির মতিঝিল বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) সৈয়দ নুরুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, মতিঝিল বিভাগের মতিঝিল থানা, সবুজবাগ থানা, খিলগাঁও থানা, পল্টন মডেল থানা, রামপুরা থানা, মুগদা থানা ও শাজাহানপুর থানায় বালুর বস্তা দিয়ে চৌকি তৈরি করে সেখানে এলএমজি ও চাইনিজ রাইফেল দিয়ে পুলিশ সদস্যের ডিউটিতে নিয়োজিত রাখা হয়েছে।

ডিএমপির সদর দফতর সূত্রে জানা গেছে, দেশের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় অতিরিক্ত নিরাপত্তার স্বার্থে রাজধানীর প্রতিটি থানাতেই এলএমজি স্থাপন করা হচ্ছে।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার ঢাকার সব থানার নিরাপত্তা বৃদ্ধির নির্দেশনা দেন ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম। থানার আশপাশে ২৪ ঘণ্টা টহলের নির্দেশনা দেন তিনি।

নিউজ ট্যাগ: ডিএমপি এলএমজি

আরও খবর



১১ এপ্রিলের পর আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট বিক্রি সাময়িক বন্ধ

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ৩১ মার্চ ২০২১ | ৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
আগামী ১১ এপ্রিলের পর আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত সাময়িকভাবে বন্ধ রাখা হবে এবং আন্তঃনগর ট্রেনে ক্যাটারিং সেবা

করোনাভাইরাস সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক বাংলাদেশ রেলওয়ে ১১ এপ্রিলের পর আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট বিক্রি সাময়িকভাবে বন্ধ ঘোষণা করেছে। বুধবার (৩১ মার্চ) রেলওয়ের উপপরিচালক (টিসি) মো. নাহিদ হাসান খাঁন স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ রেলওয়ের আন্তঃনগর ট্রেনসমূহের মোট আসন সংখ্যার ৫০ শতাংশ টিকিট একইসাথে অনলাইন, মোবাইল অ্যাপ ও কাউন্টারে সকাল ৮টা থেকে অগ্রিম ব্যবস্থাপনায় ইস্যু করা হবে। এছাড়া আগামী ১১ এপ্রিলের পর আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত সাময়িকভাবে বন্ধ রাখা হবে এবং আন্তঃনগর ট্রেনে ক্যাটারিং সেবা ও ট্রেনে রাত্রিকালীন বেডিং সরবরাহের ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে প্রতিপালন করতে হবে।

টিকিট ইস্যুর ক্ষেত্রে নতুন এ নিয়ম বৃহস্পতিবার (০১ এপ্রিল) থেকে কার্যকর হবে। একই সঙ্গে সময়ে সময়ে জারিকৃত টিকিট ইস্যু এবং স্বাস্থ্যবিধি পরিপালন করার অন্যান্য নিয়মাবলী অপরিবর্তিত থাকবে।


আরও খবর