আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

আজকের রাশিফল: রবিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২৩

প্রকাশিত:রবিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
জীবন ধারা ডেস্ক

Image

আজ নতুন কী ঘটতে চলেছে? আজ কি আপনার জন্য ভাল কিছু অপেক্ষা করে আছে? কেমন থাকবে আপনার আর্থিক অবস্থা? নাকি খারাপ কিছুর অপেক্ষা করে আছে আপনার ভাগ্যে। বিখ্যাত জ্যোতিষীর দ্বারা বিশ্লেষণের পর আজকের দিন নিয়ে ভবিষ্যত গণনা জানুন আপনার আজকের রাশিফলে।

মেষ : কাজের চাপ বেশি থাকায় পরিবারকে সময় দিতে পারবেন না। আজ শরীর কিছুটা দুর্বল থাকবে। তাই যতটা সম্ভব বিশ্রাম নেওয়ার চেষ্টা করুন। আয় বেশি হবে না, তাই ব্যয় কমানোর চেষ্টা করুন।

বৃষ : সমস্ত কাজ গুরুত্বের সাথে করার চেষ্টা করুন। ভালোবাসার মানুষের সমর্থন পাবেন। স্ত্রীয়ের কাজে হস্তক্ষেপ করবেন না। এ'থেকে মনোমালিন্য হতে পারে। পেশাদারি যোগাযোগ বাড়তে পারে।

মিথুন : আমোদপ্রমোদ করে কাটবে আজকের দিন। অতিরিক্ত খরচের কারণে কোনও বড় প্রকল্প আটকে যেতে পারে। সৃজনশীল কাজের সাথে যুক্ত মানুষেরা আজ তাদের শ্রেষ্ঠ কাজ করতে পারেন।

কর্কট : আর্থিক বিষয়ে স্ত্রীয়ের পরামর্শ কাজে দিতে পারে। বন্ধুদের সহায়তায় কোনও গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির সঙ্গে আলাপ হবে আজ। তিনি আপনার চিন্তাধারা বদলে দিতে পারেন। অপরিচিত ব্যক্তিদের এড়িয়ে চলুন।

সিংহ : বিনোদনের জন্য বেশি খরচ করা উচিত হবেনা। আয় বুঝে ব্যয় করার চেষ্টা করুন। স্ত্রীয়ের সাথে কিছু আনন্দঘন মুহূর্ত কাটাবেন। এর ফলে আপনার একাকীত্ব কেটে যাবে।

কন্যা : সমস্ত নেতিবাচক অনুভূতিগুলি ঝেড়ে ফেলুন মন থেকে। নতুন উদ্যোগ থেকে প্রচুর লাভ হতে পারে। ফলে অনেকগুলি আর্থিক প্রয়োজন আজ মিটে যাবে। বিনোদনের পক্ষে আজ উপযুক্ত দিন।

তুলা : নিজের শখ ও সৃজনশীলতা নিয়ে আজ সময় কাটবে। কাজের প্রশংসা পাবেন। একসময় ঝুঁকি নিয়ে করা বিনিয়োগগুলি থেকে লাভ পেতে পারেন আজ। পরিবারের সমর্থনে কাজে মন বসাতে পারবেন।

বৃশ্চিক : আপনার কষ্টের রোজগার কোথায় খরচ হয়ে যাচ্ছে সেদিকে নজর রাখুন। না হলে অকারণ ব্যয় ভবিষ্যতে সমস্যায় ফেলবে। নিজের স্বার্থের জন্য ক্ষমতার অপব্যবহার করবেন না।

ধনু : আজ আয় বাড়লেও অতিরিক্ত খরচের ফলে সঞ্চয় করতে পারবেন না। শৈশবের কথা ভেবে মন ভালো হয়ে যাবে। কাজের চাপ বেশি থাকায় পরিবার অথবা বন্ধুদের সাথে কথা বলার সময় পাবেন না।

মকর : আজ আপনার মধ্যে ধৈর্যের অভাব দেখা যাবে। সমস্ত কাজে বিরক্ত বোধ করবেন। আজ অনেকগুলি ক্ষেত্রে খরচ হবে। ফলে সঠিক পরিকল্পনা অনুযায়ী খরচ না করলে সমস্যা তৈরি হতে পারে।

কুম্ভ : আজ আপনার দানশীল মনোভাবের সুবিধা পাবেন অনেক ক্ষেত্রে। আর্থিক সমস্যা আসতে পারে। তবে আপনার বিচক্ষণতার ফলে সবকিছু সামলে নিতে পারবেন। স্ত্রীয়ের থেকে সমর্থন পাবেন না।

মীন : শরীর ভালো থাকবে। বন্ধুদের সাথে আজ কোথাও খেলতে যেতে পারেন। ধার নেওয়া টাকা ফেরত দেওয়ার সময় সমস্যায় পড়তে পারেন। কাজের ধরনে আধুনিকতা আনার চেষ্টা করুন।


আরও খবর
নারীর জন্য প্রয়োজনীয় পাঁচ ভিটামিন

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

২৩ ফেব্রুয়ারি : ইতিহাসে আজকের এই দিনে

শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




১১ ইটভাটার আগুনে পুড়ছে এক গ্রামের তিন ওয়ার্ডের মানুষ

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নরসিংদী প্রতিনিধি

Image

গ্রামের নাম সররাবাদ। বেলাব উপজেলার সল্লাবাদ ইউনিয়নের সররাবাদ ও পাশের ইব্রাহীমপুর এই দুই গ্রামের তিন ওয়ার্ডে রয়েছে ১১ ইটভাটা। এসব ভাটার বিষাক্ত কালো ধোঁয়ায় বাড়ছে শ্বাসকষ্টসহ নানা রোখ। অন্যদিকে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে ফসলী জমি ও হাছগাছালীর। সররাবাদ গ্রামের পুরাতস ব্রহ্মপুত্র নদের তীরে পাশাপাশি স্থাপন করা এসব ভাটার অনুমোদ পেল কিভাবে সেটা নিয়ে রয়েছে জনমনে নানা প্রশ্ন। তাছাড়াও বেলাব উপজেলার পাটুলী ইউনিয়ন, আমলাব ইউনিয়ন ও বাজনাব ইউনিয়ন, বেলাব ইউনিয়নেও রয়েছে একাধিক ইটভাটা। এসব ভাটার বেশিরভাগই কাগজপত্রে গড়মিল।

তবে জেলা পরিবেশ অধিদপ্তর কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি তারা পরিবেশ দূষণ ও পরিবেশগত ছাড়পত্র না থাকায় সল্লাবাদ ইউনিয়নের সররাবাদ গ্রামে নির্মিত পিএসবি ব্রিকস ও ন্যাশনাল ব্রিকস নামে দুটি ভাটাকে তিন লক্ষ টাকা করে ছয় লক্ষ টাকা জরিমানা করেছেন। তবে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে জরিমানা করা ওইসব ভাটায় নিয়মিত ইট পুড়ানো হয়। 

জানা গেছে সররাবাদ এলাকার পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদের তীরের ফসলী জমির উপর পাশাপাশি রয়েছে বেশকিছু ইটভাটা। এর মধ্যে সচল রয়েছে ১১টি ভাটা। সচল থাকা এসব ইটভাটার মধ্যে বেশিরভাগ ইটভাটারই নেই কোন বৈধ কাগজপত্র। এসব ইটভাটার কারনে এ এলাকায় ফসলী জমিতে এখন আর ফসল ফলেনা। কৃষকরা জানান, যে জমিতে তারা চাষাবাদ করে জীবিকা নির্বাহ করতো সে জমি এখন ভাটা মালিকদের দখলে।

সররাবাদ এলাকার আবু ছালেহ রনি নামে এক যুবক জানান, এক মাঠে এতগুলো ইটভাটার অনুমোদন কিভাবে দিল। সেটা আমার বুঝে আসেনা। এসব ভাটার বিষাক্ত কারো ধোয়ার কারণে বয়স্ক মানুষ ও বাচ্চাদের শ্বাসকষ্ট রোগ দেখা দিয়েছে।

সরেজমিনে সল্লাবাদ ইউনিয়নের সররাবাদ ও ইব্রাহিমপুরের গ্রামে গিয়ে দেখা যায়,শুধু এই দুই গ্রামের তিনটি ওয়ার্ডেই গড়ে উঠেছে বেশকিছু ইটভাটা। এসব ইটভাটার মধ্যে সিক্সলাইন ব্রিকস, ভরসা ব্রিকস, জেএমবি ব্রিকস, ডিএমপি ব্রিকস, কেএমবি ব্রিকস, ন্যাশনাল ব্রিকস, পিএসবি ব্রিকস, এসআরবি ব্রিকস, আরএসবি ব্রিকস, এশিয়া ব্রিকস, বিবিবি ব্রিক ফিল্ডসহ মোট ১১টি ইট ভাটায় ইট পুড়ানো হচ্ছে নিয়মিত। ভাটাগুলো ব্রহ্মপুত্র নদের তীরে কয়েকশ একর ফসলী জমির উপর নির্মিত। একেকটা ইটভাটার গা ঘেষে আরেকটি ইটভাটা। এভাবেই ১১টি ভাটার অবস্থান। এসব ইটভাটার মধ্যে বেশিরভাগই পরিবেশ আইন লঙ্গন করে গড়ে উঠা। নদের তীরে ইটভাটা এলাকায় রয়েছে ইব্রাহিমপুর বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ইব্রাহীমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নামে দুটি বিদ্যালয়সহ কয়েকশ বসতি। ভাটার আগুনে এসব ফসল গাছাগাছালীর ক্ষতিরসহ ভাটার বিষাক্ত ধোঁয়ায় শ্বাসকষ্টসহ নানা ব্যাধীতে আক্রান্ত হচ্ছে বয়স্ক মানুষ ও শিশুরা।

স্থানীয়দের অভিযোগ, জনবসতি ও ফসলি জমিতে ইটভাটা স্থাপনে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও সব মহলকে ম্যানেজ করেই গড়ে তোলা হচ্ছে একের পর এক ইটভাটা। অথচ সংশ্লিষ্ট দপ্তরের এ ব্যাপারে নেই কোন মাথাব্যাথা।

আব্দুল ওহাব মিয়া নামে এক কৃষক জানান, ইটভাটাতে আসা ইছারমাতা নামক অবৈধ যানের কারনে গ্রামের চারপাশে ধুলাবালির আস্তরণ পড়ে। এই অবৈধ যান ইছারমাতা দিয়ে ভাটার মালিকরা ইট বিভিন্ন এলাকার গ্রাহকদের কাছে পৌছে দেয়। এসব যানের বিকট শব্দ ও আনাড়ি ড্রাইভার কারণে প্রায়ই ঘটে ছোটবড় দূঘর্টনা।

সররাবাদ এলাকার মেসার্স বিবিবি ব্রিক ফিল্ড এর স্বত্তাধিকারী মোঃ শাহ আলম বলেন, আমার ইটভাটার কাগজপত্র সঠিক আছে। আমার ভাটায় গাছ বা কাঠ পুড়িনা। ইছারমাতা ছাড়াতো আর ইট আনা নেওয়া করা যায়না। তাই ইছারমাতা ব্যবহার করি। পরিবেশ দূষনের ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন ভাটার কারনে পরিবেশের তেমন ক্ষতি হচ্ছেনা।

নরসিংদী জেলা পরিবেশ অধিদপ্তরের ডিডি শেখ মোহাম্মদ নাজমুল হুদা বলেন, আমরা ইতিমধ্যে বেলাব উপজেলার সররাবাদ এলাকায় অভিযান চালিয়ে পরিবেশ দূষণ ও পরিবেশগত ছাড়পত্র না থাকাসহ বিভিন্ন কারণে দুটি ইটভাটাকে তিনলক্ষ টাকা করে ছয় লক্ষ টাকা জরিমানা করেছি। বাকিগুলোতেও আমরা পর্যায়ক্রমে পরিদর্শন করে যেগুলোর সমস্যা রয়েছে সেগুলোর ব্যাপারে ব্যবস্থা নিব।

নিউজ ট্যাগ: নরসিংদী ইটভাটা

আরও খবর



আমদানির খবরে কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

Image

গতকাল যে পেঁয়াজ খুচরা বাজারে প্রতি কেজি ১২০ টাকায় বিক্রি হয়েছে, একদিনের ব্যবধানে সেই পেঁয়াজের দাম ১০ টাকা কমে ১১০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুপারিশে বাংলাদেশসহ আরও পাঁচ দেশে সরকারিভাবে সীমিত আকারে পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি দেওয়ার সিদ্ধান্তের পরদিনই দেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম কমতে শুরু করেছে।

হঠাৎ লাফিয়ে বৃদ্ধি পাওয়া পেঁয়াজের বাজার গেল ১০ দিন ধরে প্রতি কেজি ১২০ থেকে ১৩০ টাকার মধ্যে চলছিল। গত মাসে মাঝামাঝি পর্যন্ত প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম ছিল ৭০ থেকে ৮০ টাকার মধ্যে কিন্তু মাসের ঠিক শেষে এসে হঠাৎ ১০০ টাকায় চলে যায় দাম। আর চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে এসে সেই পেঁয়াজ গিয়ে ঠেকে ১২০ থেকে ১৩০ টাকায়।

মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, খুচরা দোকানে প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১১০ টাকা দরে, তবে গতকাল ওইসব খুচরা দোকানেই একই পেঁয়াজ ১২০ টাকায় বিক্রি করেছেন তারা।

বিক্রেতারা বলছেন, প্রায় ১০ দিন হলো পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। মুড়িকাটা পেঁয়াজ একেবারে শেষ দিকে হওয়ায় বাজারে সরবরাহ কম, সে কারণেই বাড়তি দাম যাচ্ছিল পেঁয়াজের। প্রধান জাতের পেঁয়াজ অর্থাৎ হালিকাটা পেঁয়াজ বাজারে পর্যাপ্ত এলেই দাম কমে যেত। এরমধ্যে ভারত থেকে পেঁয়াজ আসার খবরে এখনই দাম কমতে শুরু করেছে।

রাজধানীর মালিবাগ এলাকার এক পেঁয়াজ বিক্রেতা রবিউল ইসলাম বলেন, গতকাল পাইকারি বাজার থেকে ১১০ টাকা দরে পেঁয়াজ কিনে এনে খুচরা ১২০ টাকা বিক্রি করছিলাম। কিন্তু আজ বাজার একটু কমেছে তাই সব দোকানি ১১০ টাকা দরে পেঁয়াজ বিক্রি করছেন। সে কারণে আমিও ১০ টাকা কমিয়ে এখন ১১০ টাকায় বিক্রি করছি। বাজার যখন যেমন হবে আমাদের সেভাবেই তো বিক্রি করতে হবে।

গত কিছুদিনে হঠাৎ এভাবে পেঁয়াজের দাম বেড়ে যাওয়ার কারণ হিসেবে তিনি বলেন, বাজারে মুড়িকাটা পেঁয়াজ একেবারেই শেষের দিকে। কৃষকদের কাছে আর মুড়ি কাটা পেঁয়াজ নেই। সে কারণে বাজারে পেঁয়াজের সরবরাহ কমে গেছে। পেঁয়াজের দাম বাড়তি যাচ্ছিল। এখন প্রধান পেঁয়াজ অর্থাৎ হালিকাটা পেঁয়াজ উঠতে শুরু করবে তাই এমনিতেই পেঁয়াজের দাম কমে যাবে। এছাড়া ভারত থেকে পেঁয়াজা আমদানি বন্ধ ছিল, এখন আবার ভারত আমাদের দেশে পেঁয়াজ রপ্তানি করবে। তাই বাজারে পেঁয়াজের দাম কমে যাবে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের হিসেব মতে, চলতি বছর ২ লাখ ৬০ হাজার হেক্টর জমিতে ৩৬ লাখ ৭৩ হাজার টন পেঁয়াজ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে চারা পেঁয়াজ ২৭ লাখ ২৮ হাজার টন, কন্দ পেঁয়াজ ৮ লাখ ১৯ হাজার ও পেঁয়াজবীজ ৫৬ হাজার টন। দেশে পেঁয়াজের চাহিদা প্রায় ৩০ লাখ টন। সর্বশেষ অর্থবছরে ৩৪ লাখ টনের বেশি উৎপাদন হয়। তবে মাঠ পর্যায় থেকে ভোক্তা পর্যন্ত যেতে এক-চতুর্থাংশ পেঁয়াজ নষ্ট হয় কিংবা শুকিয়ে কমে যায়। গত বছরের মার্চে প্রতি কেজি পেঁয়াজ ৩০-৩৫ টাকায় বিক্রি হয়েছিল।

ট্রেডিং কর্পোরেশনের অব বাংলাদেশের (টিসিবি) সহকারী পরিচালক (বাজার তথ্য) নাসির উদ্দিন তালুকদার জানিয়েছেন, গতকালের বাজারে পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে প্রতি কেজি ১২০ টাকা। গত মাসে এই পেঁয়াজের দাম ছিল ৭০ থেকে ৮০ টাকা। আর গত বছর ঠিক এই সময় বাজারে পেঁয়াজ প্রতি কেজি বিক্রি হয়েছে ৩০ থেকে ৩৫ টাকার মধ্যে।


আরও খবর
২৪ দিনে প্রবাসী আয় ১৮ হাজার কোটি টাকা

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




শরীর নিয়ে কটাক্ষ পরিচালকের, জবাবে যা বলেন ম্রুনাল ঠাকুর

প্রকাশিত:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

দক্ষিণ ভারতের জনপ্রিয় অভিনেত্রী ম্রুণাল ঠাকুর। দক্ষিণী সিনেমা সীতা রামম থেকে হাই নান্নার মতো জনপ্রিয় সিনেমা দিয়ে দর্শক থেকে সমালোচকদের প্রশংসা কুড়িয়েছেন। তবে নিজের শারীরিক গড়ন নিয়ে ক্যারিয়ারে কিছু ঘটনার সম্মুখীন হতে হয়েছে অভিনেত্রীকে। এমন অপ্রীতিকর পরিস্থিতি নিয়ে এবার মুখ খুললেন তিনি।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বডি শেমিং নিয়ে কথা বলেছেন ম্রুণাল। তিনি জানান, এক পরিচালক একবার মুখের ওপর তাঁকে বলেন, সে দেখতে একটুও সেক্সি নয়। অভিনেত্রী তখন পালটা জানতে চান, মন্তব্যটি কি তাঁর অভিনীত চরিত্রটির জন্য নাকি পরিচালক বাস্তব জীবনে ম্রুণালকে দেখে এ মন্তব্য করেছেন।

ম্রুণালের প্রশ্নে পরিচালক তখন জবাব দেন, হ্যাঁ, খুব সেক্সি একটা চরিত্র। তুমি তো এর ধারেকাছেও নেই। ম্রুনাল ছেড়ে দেওয়ার পাত্রী নন, পরিচালককে তখন লুক টেস্ট নেওয়ার কথা বলেন অভিনেত্রী। ফটোশুটের শুরুতে ফটোগ্রাফারও অপমান করেন ম্রুণালকে। বলে ওঠেন, এই গেঁয়ো মেয়েটা কে? মুখে জবাব দেননি ম্রুনাল, জবাব দিয়েছেন কাজে। পরে মত বদলে ক্ষমা চান ওই ফটোগ্রাফার। ম্রুণালের কথায়, অভিনেতা হিসেবে জরুরি হল ন্যাচারাল থাকা। হাসিমুখে তিনি বলেন, যখন সেক্সি কথাটা বলা হয়, আর সেটা যদি আমি ভাবি, তাহলে আমার পায়ের মরা চামড়াও তখন সেক্সি লাগবে।

যৌন আবেদন ব্যাপারটা সবার কাছে সমান নয় জানান অভিনেত্রী। ম্রুনাল যোগ করেন, আমি একবার একটা গান করেছিলাম। সেখানে লোকজন বলছিল আমাকে ওজন কমাতে হবে। আমি পালটা বলি, আমার থাই মোটা এবং সেটা একান্ত আমার নিজের। সেটা নিয়ে যদি আমার কোনও সমস্যা না হয়, তাহলে আপনাদের সমস্যাটা কোথায়?

উল্লেখ্য, ২০২৩ সালে একাধিক কাজে দেখা গেছে ম্রুণালকে। এ বছরই বিজয় দেবেরাকোন্ডা এবং পরিচালক পরশুরাম পেটলার সঙ্গে ফ্যামিলি স্টারে অভিনয় করবেন তিনি। এ ছাড়াও সামনে তাঁকে পূজা মেরি জান সিনেমায়ও দেখা যাবে।


আরও খবর
ভারতীয় পরিচালক কুমার সাহানি আর নেই

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




দিল্লিমুখী কৃষকদের ওপর টিআরশেল, রাবার বুলেট

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ভারতের রাজধানী দিল্লিমুখী শস্যের ন্যূনতম মূল্যের দাবিতে কৃষকদের থামাতে দ্বিতীয় দিনের মতো টিআরশেল এবং রাবার বুলেট ব্যবহার করেছে দেশটির পুলিশ। আন্দোলনরত কৃষকদের বেশির ভাগই পাঞ্জাব প্রদেশের। এ ছাড়া হরিয়ানা এবং উত্তর প্রদেশের হাজার হাজার কৃষকও দিল্লিমুখী হয়েছেন। তারা গতকাল বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) দিল্লি থেকে ২০০ কিলোমিটার দূরের হরিয়ানা রাজ্যের শম্ভু সীমান্তে পৌঁছেছেন।

দিল্লির দিকে আসার জাতীয় মহাসড়কে কংক্রিট এবং পেরেক পুঁতে, কাঁটাতারের বেড়া দিয়ে বহু স্তরীয় প্রতিবন্ধক সৃষ্টি করেছে পুলিশ। একাধিক স্তরে রাজ্য ও কেন্দ্রীয় পুলিশও মোতায়েন করা হয়েছে। এক মাসের জন্য ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে রাজধানীতে।

গত মঙ্গলবার কৃষকরা ব্যারিকেড সরানোর চেষ্টা করলে হরিয়ানা পুলিশ টিআরশেল নিক্ষেপ করেছে।

গতকাল সকালে প্রকাশিত ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, হাজার হাজার বিক্ষোভকারীকে থামাতে দিল্লি সীমান্তে দাঙ্গা পুলিশ এবং আধাসামরিক বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। শম্ভু সীমান্তে কৃষকরা বিক্ষোভকারীদের আত্মরক্ষার জন্য চশমা বিতরণ করছেন। পুলিশ তাদের মিছিল থামাতে টিআরশেল নিক্ষেপ করায় তারা প্রতিরক্ষার জন্য এসব সরঞ্জাম এনেছেন। কৃষকদের দিল্লিমুখী অভিযানের মূল দাবিগুলোর অন্যতম এমএসপিকে আইনের আওতায় আনা, স্বামীনাথন কমিশনের সুপারিশের পূর্ণ রূপায়ণ, কৃষিঋণ মওকুফ এবং কৃষকদের বিরুদ্ধে করা মামলা প্রত্যাহার।

২০২০-২১ সালে কৃষকদের দিল্লি অবরোধের সময়ও এগুলোই ছিল মুখ্য দাবি। কৃষি আইন ও বিদ্যুৎ বিল প্রত্যাহারের দাবি সেবার মেনে নিলেও এমএসপিকে আইনি বৈধতা দেওয়ার বিষয়টি বিজেপি বিবেচনার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। কৃষক নেতাদের অভিযোগ, কেন্দ্র টালবাহানা করে যাচ্ছে। দাবি পূরণ করেনি। অন্যদিকে সরকারের বক্তব্য, কৃষক নেতারা নতুন নতুন দাবি জানাচ্ছেন।

কেন্দ্রীয় সরকারের দাবি স্বামীনাথন কমিশনের সুপারিশ মেনে সব পণ্যের এমএসপির জন্য আইনি বৈধতা দিলে সেই ফসল কিনতে সরকারের ভর্তুকি পাঁচ গুণ বেড়ে যাবে। এদিকে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী বলেছেন, কংগ্রেস ক্ষমতায় গেলে স্বামীনাথন কমিশনের সুপারিশ মেনে কৃষকদের ফসলের জন্য এমএসপির আইনি নিশ্চয়তা দেওয়া হবে। গত মঙ্গলবার ছত্তিশগড়ে তিনি এই প্রতিশ্রুতি দেন।


আরও খবর



মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগ সভাপতির উপর হামলাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবীতে বিক্ষোভ

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
মশিউর রাহাত (পিরোজপুর)

Image

পিরোজপুর মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগের জেলা কমিটির সভাপতি ও নৌকা প্রতীকের এজেন্ট ফয়সাল আকনের উপর সন্ত্রাসী হামলা ও তাদের গডফাদারদের অবিলম্বে গ্রেপ্তারের দাবীতে শনিবার বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

প্রতিবাদ সমাবেশ বক্তব্য রাখেন জেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি জাহিদুল ইসলাম পিরু, জেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন, আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের পৌর শাখার সহ-সভাপতি ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা শেখ হাসান মামুন, ছাত্রলীগ নেতা জুনায়েত রাসেল, পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোমেন মোর্শেদ শুভ্রসহ নেতৃবৃন্দ।

আহত ফয়সালের পিতা মোফাজ্জেল আকন জানান, ফয়সাল বাড়ি থেকে রাতে বের হয়ে সামনে যান। সেখানে পূর্ব থেকে ওৎ পেতে থাকা সন্ত্রাসী সাইদুল ফকির, মিজান সিকদার, জামাল, সাইদুল ফরাজীসহ আরও ১০-১২ জন অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ফয়সালকে মারাত্মক জখম করে।

আরো পড়ুন :পিরোজপুরে মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্মলীগ সভাপতিকে কুপিয়ে জখম

মোফাজ্জেল আকন জানান, জেলা শহরতলীর নামাজপুর এলাকায় শুক্রবার রাত ৮টা ৪৫ মিনিটের সময় কুপিয়ে জখম করেছে সন্ত্রাসীরা। আহত ফয়সালকে উদ্ধার করে জেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানের কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠিয়েছে। সদ্য সমাপ্ত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ফয়সাল পিরোজপুর-১ আসনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী শ ম রেজাউল করিমের নির্বাচনী এজেন্ট ছিল নামাজপুর এলাকার একটি ভোট কেন্দ্রে। এ ছাড়া সে নৌকার প্রচারণার জন্য একটি ক্যাম্পও পরিচালনা করতো।

জেলা হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক আরিফ জানান, ফয়সাল আকনের শরীরের বিভিন্ন জায়গায় মারাত্মক জখম আছে, অবস্থা যথেষ্ট সংকটাপন্ন। শরীর  থেকে প্রচুর পরিমানে রক্তক্ষরণ হয়েছে, তার কোনো পালস পাওয়া যায়নি। স্যালাইনের মাধ্যমে ইমারজেন্সি ম্যানেজমেন্ট দিয়ে খুলনায় রেফার্ড করা হয়েছে। ওই রাতে অবস্থা আরো অবনতি হলে ঢাকা মেডিকেল কলেজের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে।

এদিকে ফয়সাল আকনের উপর হামলার প্রতিবাদে শুক্রবার রাতেই শহরে বিক্ষোভ করেছে পিরোজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য শ ম রেজাউল করিমের অনুসারীরা। বিক্ষোভ মিছিল থেকে ফয়সাল আকনের উপর হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবী জানানো হয়। ফয়সাল আকনের উপর হামলার খবর পেয়ে সংসদ সদস্য শ ম রেজাউল করিম পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে গিয়ে তার চিকিৎসার খোঁজখবর নেন।

শ ম রেজাউল করিম জানান, উচ্চশিক্ষিত ফয়সাল আকনের অপরাধ বিগত নির্বাচনে সে নৌকা প্রতীকের এজেন্ট হয়েছিল। ফয়সাল নৌকার পক্ষে থাকায় আজ এই ভয়াবহ পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হয়েছে। এ সময় তিনি ফয়সাল আকনের উপর হামলাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবী জানান।

প্রসংগত পিরোজপুর-১ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করে বিজয়ী হন শ ম রেজাউল করিম আর তার নিকটতম হন ঈগল প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করা পিরোজপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ কে এম এ আউয়াল।


আরও খবর