আজঃ শুক্রবার ০৫ মার্চ ২০২১
শিরোনাম

আড়াইহাজারে কিশোরীকে ধর্ষণের মামলায় গ্রেফতার ২

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৮৫জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
কিশোরীর মা বাদী হয়ে অভিযুক্ত আপন ও সহযোগী মাহাবুবের বিরুদ্ধে আড়াইহাজার থানায় মামলা দায়ের করেন। এরপর মঙ্গলবার সকালে আড়াইহাজার থানা পুলিশ আপন ও মাহাবুবকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে এক কিশোরীকে (১৪) ধর্ষণের ঘটনায় আপন (২০) ও তার সহযোগী মাহাবুবকে (১৯) পুলিশ গ্রেফতার করেছে। মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে আড়াইহাজার থানা পুলিশ ডেঙ্গুরকান্দী এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করে।

পুলিশ ও ওই কিশোরীর পরিবার জানায়, গত রবিবার সন্ধ্যায় উপজেলার ডেঙ্গুরকান্দী এলাকার কিশোরী মুরগি খুঁজতে বের হয়। এ সময় একই এলাকার আপন ও মাহাবুব ওই কিশোরীকে মুখ ও হাত-পা বেঁধে পাশের ফহিন্যার চকে নিয়ে যায়। সেখানে মাহাবুবের সহযোগিতায় আপন কিশোরীকে ধর্ষণ করে। কিশোরীকে তারা সেখানে ফেলে চলে যায়। পরে ওই সে সেখান থেকে বাড়ি ফিরে পিতা-মাতাকে ঘটনাটি খুলে বলে। সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) রাতে কিশোরীর মা বাদী হয়ে অভিযুক্ত আপন ও সহযোগী মাহাবুবের বিরুদ্ধে আড়াইহাজার থানায় মামলা দায়ের করেন। এরপর মঙ্গলবার সকালে আড়াইহাজার থানা পুলিশ আপন ও মাহাবুবকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, ধর্ষণের শিকার কিশোরীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। মঙ্গলবার বিকালে আসামিদের নারায়ণগঞ্জ আদালতে পাঠানো হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: নারায়ণগঞ্জ
Share

আরও খবর



ভূঞাপুরে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে ছাই পাঁচটি দোকান

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৫ মার্চ ২০২১ | ৫৯জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শুক্রবার (৫ মার্চ) ভোর সাড়ে ৬টায় হাজী মার্কেটে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। পরে ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় লোকজন একঘণ্টার চেষ্টায় সাড়ে ৭টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনের লেলিহান শিখায় পুড়ে যায় টিভি, ফ্রিজ, জুতার দোকানসহ ৫টি দোকান। এতে ক্ষতি হয়েছে প্রায় ২০ লাখ টাকা। বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস।

স্থানীয়রা জানান, ফজরের নামাজ শেষে মুসুল্লিরা বাসায় ফেরার সময় হাজী মার্কেটের একটি দোকানে হঠাৎ আগুন দেখতে পান। মুহূর্তেই আগুন পাশের দোকানে ছড়িয়ে পড়ে। পরে তারা ভূঞাপুর ফায়ার স্টেশনে খবর দেন। ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় লোকজন আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন।

ক্ষতিগ্রস্ত দোকান মালিক ইব্রাহীম আকন্দ বলেন, আমার চারটি দোকানে টিভি, ফ্রিজ ও প্লাস্টিকের ফার্নিচার ছিলো। সব পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। কিছুই বের করতে পারিনি। ১৬ লাখ টাকার মালামাল নিমিষেই পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

এ বিষয়ে ভূঞাপুর ফায়ার সার্ভিসের লিডার একাব্বর আলী জানান, খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছে অল্প সময়ের মধ্যে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হন। বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে বলে জানিয়েছেন তিনি।

Share

আরও খবর



ধর্ষণের ফলে জন্ম নেয়া শিশু এক যুগ পরে পেল পিতৃপরিচয়সহ

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৯৮জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ধর্ষণের ফলে জন্ম নেয়া শিশুর পিতৃপরিচয়সহ ১২ বছর আগে নিজের ওপর হওয়া অপরাধের বিচার পেলেন এক নারী। ২০০৮ সালে রংপুরের পীরগাছা উপজেলায় ধর্ষণের শিকার হন তিনি। 

সোমবার (০৮ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে ওই ঘটনায় দায়ের করা মামলার প্রধান আসামি শফিকুল ইসলামকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও এক লাখ টাকা অর্থদণ্ড দেন রংপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালত-২ এর বিচারক রোকনুজ্জামান।

আদালত ওই রায়ে তরুণীকে ধর্ষণের কারণে তার গর্ভে জন্ম নেয়া আসামি শফিকুলের ছেলেকে উত্তরাধিকারী হিসেবে ঘোষণা করেন এবং ২১ বছর বয়স পর্যন্ত তার সমস্ত ব্যয়ভার প্রয়োজনে আসামির সহায় সম্পদ বিক্রি করে প্রদান করার আদেশ দেন।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০০৮ সালের ১ ডিসেম্বর পীরগাছা উপজেলার ওই নারীকে একই গ্রামের মজিবর রহমানের ছেলে আসামি শফিকুল ইসলাম বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দিনের পর দিন ধর্ষণ করে। এতে মেয়েটি গর্ভবতী হয়ে পড়লে আসামি শফিকুল তাকে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানিয়ে গর্ভের সন্তানকে নষ্ট করার জন্য চাপ দেয়।

এ ঘটনায় নির্যাতিতা রংপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতে পিটিশন মামলা দায়ের করে। আদালত মেয়েটির গর্ভে জন্ম নেয়া শিশুটির পিতৃপরিচয় নিশ্চিত করতে আদালতের নির্দেশে উভয়ের ডিএনএ পরীক্ষা করা হলে গর্ভজাত শিশু ডিএনএ টেষ্টে শিশুটি আসামি শফিকুলের বলে প্রমাণিত হয়।

দীর্ঘ ১২ বছর ধরে মামলার বিচারকালে ৭ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য ও জেরা গ্রহণ শেষে আসামি শফিকুল ইসলামকে দোষী সাব্যস্ত করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানার আদেশ দেন। মামলায় অপর দুই আসামি মজিরন বেগম ও মজিবর রহমানের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাদের বেকসুর খালাসের আদেশ দেন আদালত।

বাদী পক্ষের মামলা পরিচালনাকারী আইনজীবী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালত ২ এর বিশেষ পিপি অ্যাড জাহাঙ্গীর আলম বলেন, আদালত ঐতিহাসিক রায়ের মাধ্যমে সন্তানের স্বীকৃতি ও তার ভরণপোষণের জন্য সম্পদ বিক্রি করার আদেশ দেবার মাধ্যমে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠিত হল।

Share

আরও খবর
অবশেষে জামিন পেলেন কার্টুনিস্ট কিশোর

বৃহস্পতিবার ০৪ মার্চ ২০২১




একুশে পদক দেওয়া হবে শনিবার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৮৫জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আগামী শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টায় রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে একুশে পদক ২০২১ দেওয়া হবে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়েছে।

এ বছর সরকার বিভিন্ন ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে ২১ জন বিশিষ্ট নাগরিককে ২০২১ সালের একুশে পদক দেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

এরা হলেন- ভাষা আন্দোলনে মরহুম মোতাহার হোসেন তালুকদার (মোতাহার মাস্টার) (মরণোত্তর), মরহুম শামছুল হক (মরণোত্তর) ও মরহুম আফসার উদ্দিন (মরণোত্তর)। শিল্পকলা বিভাগে সঙ্গীতে পাপিয়া সরোয়ার, অভিনয়ে রাইসুল ইসলাম আসাদ, সালমা বেগম সুজাতা (সুজাতা আজিম), নাটকে আহমেদ ইকবাল হায়দার, চলচ্চিত্রে সৈয়দ সালাউদ্দিন জাকী, আবৃত্তিতে ড. ভাস্বর বন্দ্যোপাধ্যায় ও আলোকচিত্রে পাভেল রহমান।

এছাড়া মুক্তিযুদ্ধে গোলাম হাসনায়েন, ফজলুল রহমান খান ফারুক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুমা সৈয়দা ইসাবেলা (মরণোত্তর)। সাংবাদিকতায় অজয় দাসগুপ্ত, গবেষণায় ড. সমীর কুমার সাহা, শিক্ষায় মাহফুজা খানম, অর্থনীতিতে ড. মির্জা আব্দুল জলিল, সমাজসেবায় প্রফেসর কাজী কামরুজ্জামান।

ভাষা ও সাহিত্যে এ সম্মাননা পেয়েছেন কবি কাজী রোজী, বুলবুল চৌধুরী ও গোলাম মুরশিদ।

Share

আরও খবর



প্রেস ক্লাবে পুলিশ চরম ধৈর্যের পরিচয় দিয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ০১ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০১ মার্চ ২০২১ | ৭৩জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
সরকারের রূপকল্প বাস্তবায়ন ও উন্নয়ন নিরাপত্তা স্থিতিশীল রাখার নিয়ামক হিসেবে কাজ করে যাচ্ছে পুলিশ। পুলিশ বাহিনী শুধু আইনশৃঙ্খলা রক্ষায়ই নয় জঙ্গি নির্মূলেও কাজ করে যাচ্ছে। জঙ্গি উত্থানের সময়

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, গতকালও আমরা দেখলাম প্রেস ক্লাবের সামনে একা একজন পুলিশকে পেয়ে কীভাবে পেটানো শুরু হয়েছিল। তা সবাই দেখেছেন। সেখানে পুলিশ ধৈর্যের পরিচয় দিয়েছে। প্রেস ক্লাবে কোনোদিন আমাদের পুলিশ ভেতরে ঢোকে না এবং এদিন যেভাবে ইটপাটকেল ছুড়ছিল সে সময় দু-একজন হয়ত ঢুকেছে। কিন্তু যেভাবে ইট-পাটকেল ও মারামারির সৃষ্টি হয়েছিলো সেখানে উচিত ছিল মারামারি না করা। চরম ধৈর্যের সঙ্গে পরিস্থিতি মোকাবিলা করেছে পুলিশ।

পুলিশ মেমোরিয়াল ডে-২০২১ উপলক্ষে সোমবার (১ মার্চ) পুলিশ স্টাফ কলেজের স্মৃতিস্তম্ভে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা এবং স্বীকৃতি স্মারক প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সরকারের রূপকল্প বাস্তবায়ন ও উন্নয়ন নিরাপত্তা স্থিতিশীল রাখার নিয়ামক হিসেবে কাজ করে যাচ্ছে পুলিশ। পুলিশ বাহিনী শুধু আইনশৃঙ্খলা রক্ষায়ই নয় জঙ্গি নির্মূলেও কাজ করে যাচ্ছে। জঙ্গি উত্থানের সময় পুলিশকে আহত করা হয়। সে চিত্রও আমরা রাজশাহীতে এক জঙ্গিবিরোধী অভিযানে দেখেছি। গতকালও দেখলাম প্রেস ক্লাবে।

মন্ত্রী আরও বলেন, ‌পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে প্রতি বছর উল্লেখযোগ্য সংখ্যক পুলিশ সদস্য মারা যাচ্ছেন। ২০২০ সালে বিভিন্ন অবস্থায় বিভিন্ন পদের ৪৫৭ জন পুলিশ সদস্য মৃত্যুবরণ করেছেন। এদের মধ্যে ২০৮ জন কর্তব্যরত অবস্থায় জীবন উৎসর্গ করেছেন। আমি নিহত ও মৃত্যুবরণকারী শোক সন্তপ্ত পুলিশ সদস্য পরিবারের প্রতি শোক-সমবেদনা জ্ঞাপন করছি। পুলিশ সদস্যদের আন্তরিকতা কর্মনিষ্ঠা এবং নিজেদের জীবন উৎসর্গ করার মত চরম ত্যাগে দায়িত্ব পালনে যে অনন্য নজির স্থাপন করেছেন, সেজন্য পুলিশ বাহিনীসহ আমরা দেশবাসী গর্বিত। পুলিশ বাহিনী তাদের অর্পিত দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করে যাচ্ছে। বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে অগ্রযাত্রায় প্রথম দরকার আইনশৃঙ্খলা নিরাপত্তা নিশ্চিত করা। সেটা পুলিশ সঠিকভাবেই করে যাচ্ছে।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, করোনায় যখন আমরা কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে গেছিলাম, যখন আমাদের কাছে তখন করোনার কোনো প্রতিষেধক ছিল না, করোনায় মৃত্যুবরণকারী মায়ের ডেড বডি হাসপাতাল থেকে সন্তান যখন নিতে আসছিল না, তখন পুলিশ সেই মায়ের ডেড বডি বাড়িতে পৌঁছে দিয়ে জানাজা ও দাফনের ব্যবস্থা করেছে। করোনায় দুস্থ অসহায়দের পাশে দাঁড়িয়েছে পুলিশ। বর্তমান সরকার সর্বদাযই পুলিশ বাহিনীর উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। চাকরিরত অবস্থায় মৃত্যুবরণকারী পুলিশ সদস্যদের পরিবারের দিকে লক্ষ্য রেখে প্রত্যেক পরিবারকে এককালীন আট লাখ টাকা প্রদানে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। এছাড়া চাকরিরত অবস্থায় স্থায়ী অক্ষম ও অবসরে গেলে চার লাখ টাকা অনুদানের ব্যবস্থা করা হয়েছে।’

তিনি জানান, ২০১৩ থেকে ২০২৯ সাল পর্যন্ত জামায়াত-বিএনপি, শিবির, হেফাজত ও দুর্বৃত্তদের হামলায় বিভিন্ন পদমর্যাদার ২৮ জন সদস্যের পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিল থেকে ২ কোটি ৭২ লাখ টাকার আর্থিক অনুদান করা হয়েছে। এছাড়া ২০২০ সাল থেকে আজীবন রেশনের ব্যবস্থাও করা হয়েছে।

‘প্রেস ক্লাবের সামনে এবং ভেতরে বহিরাগতদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় পুলিশ প্রেস ক্লাবের দিকে তাক করে টিয়ারশেল নিক্ষেপ করছে। বহিরাগত ও পুলিশ প্রেস ক্লাবে ঢুকলো। তাহলে কি প্রেসক্লাব অনিরাপদ?

অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রেস ক্লাব অনিরাপদ হয়নি। আপনারা নিশ্চয়ই দেখেছেন, আমিও আধঘণ্টা ধরে দেখেছি, আপনারাই ছবি তুলে প্রচার করেছেন। ঘটনা যখন অতিমাত্রায় চলে যায় তখন পুলিশ টিয়ার গ্যাস মেরে তাদেরকে সরানোর কৌশল মাত্র।’

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন বলেন, জীবন মৃত্যুতে কারও হাত নেই। তবে চেষ্টা থাকবে কারও যেন অকালে বা অকারণে মৃত্যু না হয়। দেশের জন্য দেশের মানুষের জন্য জীবন দেয়া গৌরবময় বিষয়। নতুন নতুন অপরাধ বাড়ছে। অপরাধের ধরন বদলাচ্ছে। অনেক ঝুঁকি নিয়ে পুলিশ সদস্যদের কাজ করতে হচ্ছে। বাংলাদেশ পুলিশ প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে এখন যেকোনো ধরনের সঙ্কট মোকবিলায় সক্ষম। সে সক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে।

Share

আরও খবর



কর্নওয়ালের ঘূর্ণিতে ২৯৬ রানে অলআউট বাংলাদেশ

প্রকাশিত:শনিবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৯৩জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাখিম কর্নওয়ালের ঘূর্ণিতে ২৯৬ রানে অলআউট হলো বাংলাদেশ। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭১ রান করলেন লিটন দাস। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫৭ রান করেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ৫৪ রান করেছেন মুশফিকুর রহিম। ক্যারিবীয় স্পিনার রাখিম কর্নওয়াল ৭৪ রান দিয়ে শিকার করেছেন ৫টি উইকেট। এছাড়া শ্যানন গ্যাব্রিয়েল ৩টি আলজারি যোসেফ ২টি করে উইকেট শিকার করেন। প্রথম ইনিংস শেষে বাংলাদেশ পিছিয়ে ১১৩ রানে।

আজ দিনের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে প্যাভিলিয়নে ফেরেন মোহাম্মদ মিথুন। গতকাল দিন শেষে ব্যক্তিগত ৬ রানে অপরাজিত থাকা ‍মিথুন আজ ফিরেন ব্যক্তিগত ১৫ রানে। দলীয় ১৪২ রানে কর্নওয়ালের বলে শর্ট মিডউইকেটে ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েটের হাতে ক্যাচ হন তিনি।

এরপর মুশফিকুর রহিম ফিরে যান ব্যক্তিগত ৫৪ রানে। দলীয় ১৫৫ রানে কর্নওয়ালের বলে রিভার্স সুইপ খেলতে গিয়ে মায়ার্সের হাতে ক্যাচ হন তিনি। তারপর থেকে লিটন দাস ও মেহেদী হাসান মিরাজের জুটিতে এগোতে থাকে বাংলাদেশ। প্রথম সেশনে জুটি বাঁধা এই দুই ব্যাটসম্যান মিলে দ্বিতীয় সেশন পার করে দেন।

কিন্তু তৃতীয় সেশনে আবার ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ। কর্নওয়ালের করা একই ওভারে ফিরে যান লিটন দাস ও নাঈম হাসান। ৯২তম ওভারে ব্লাকউডের হাতে ক্যাচ হন লিটন। পঞ্চম বলে নাঈমও ক্যাচ হন এই ব্লাকউডের হাতে। লিটন ৭১ রান করলেও নাঈম রানের খাতা খুলতে পারেননি।

এই দুই ব্যাটসম্যানের বিদায়ের পর মিরাজও টিকতে পারেননি। দলীয় ২৮৩ রানে গ্যাব্রিয়েলের বলে কাভারে ব্র্যাথওয়েটের হাতে ক্যাচ হন মিরাজ। তার ব্যাট থেকে আসে ৫৭ রান। দলের রান যখন ২৯৬ তখন যোসেফের বলে বোনারের হাতে ক্যাচ হন আবু জায়েদ রাহি।

গত বৃহস্পতিবার মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শুরু হয়েছে বাংলাদেশ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যকার দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচ। প্রথম দিন টস জিতে ব্যাট করতে নামে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। দ্বিতীয় দিন শেষ হয় তাদের প্রথম ইনিংস। ৪০৯ রান করে অলআউট হয় ক্যারিবীয়রা।

সফরকারীদের পক্ষে এনক্রুমাহ বোনার ৯০, জশুয়া ডি সিলভা ৯২ ও আলজারি যোসেফ ৮২ রান করেন। বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে আবু জায়েদ রাহি ৪টি, তাইজুল ইসলাম ৪টি, সৌম্য সরকার ১টি ও মেহেদী হাসান মিরাজ ১টি করে উইকেট শিকার করেন। দ্বিতীয় দিনই বাংলাদেশ নিজেদের প্রথম ইনিংসের ব্যাট করতে নামে। ৪ উইকেটে ১০৫ রান করে দিনের খেলা শেষ করেছিল টাইগাররা।

নিউজ ট্যাগ: ক্যারিবীয়
Share

আরও খবর