আজঃ মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

‘বাজার স্থিতিশীল রাখতে প্রয়োজনে আরও ডিম আমদানি করা হবে’

প্রকাশিত:সোমবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বাণিজ্য সচিব তপন কান্তি ঘোষ বলেছেন, চারটি কোম্পানিকে এক কোটি করে মোট চার কোটি ডিম আমদানির অনুমতি দেওয়া হয়েছে। ভোক্তাদের কথা বিবেচনায় নিয়ে আমরা এ অনুমতি দিয়েছি। আমাদের প্রতিদিন প্রায় চার কোটি ডিম প্রয়োজন হয়। সেই হিসেবে আমরা মাত্র একদিনের ডিম আমদানির অনুমতি দিয়েছি। বাজার স্থিতিশীল রাখতে প্রয়োজন হলে আমরা আরও বেশি ডিম আমদানির অনুমতি দেব।

সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর) বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন সচিব। তিনি বলেন, আমরা প্রতিনিয়ত বাজার পর্যবেক্ষণ করছি। আমরা দেশীয় উৎপাদিত ডিমকে অগ্রাধিকার দিতে চাই। তবে এই সুযোগ নিয়ে ডিমের অতিরিক্ত দাম নেওয়াটা যৌক্তিক নয়।

চার প্রতিষ্ঠানকে ভারত থেকে ডিম আমদানির অনুমোদন দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। অনুমোদন পাওয়া প্রতিষ্ঠানগুলো হলো মেসার্স মীম এন্টারপ্রাইজ, প্রাইম এনার্জি ইম্পোর্টার্স অ্যান্ড সাপ্লাইয়ার্স, টাইগার ট্রেডিং, অর্নব ট্রেডিং লিমিটেড।

সচিব বলেন, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় গতমাসে ডিমের দাম ভোক্তা পর্যায়ে ১২ টাকা নির্ধারণ করেছে। কিন্তু এই দামে বিক্রি হচ্ছে না। তাই বাণিজ্য মন্ত্রণালয় চারটি প্রতিষ্ঠানকে চার কোটি ডিম আমদানির অনুমতি দিয়েছে। এর মধ্যে একটি কোম্পানি ভারত থেকে আমদানি করবে বলে জানিয়েছে। বাকিরা সুবিধামতো সোর্স থেকে আমদানি করবে।

আরও পড়ুন>> ৪ কোটি ডিম আমদানির অনুমোদন

ডিম আমদানিতে কোনো শর্ত আছে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমদানিতে কোনো শর্ত নেই। তবে বিক্রির ক্ষেত্রে সরকার নির্ধারিত দামে বিক্রি করতে হবে। তবে বার্ড ফ্লু-মুক্ত দেশ থেকে ডিম আমদানি করতে হবে। এছাড়াও আমদানি করা ডিম বার্ড ফ্লু ভাইরাস কিংবা ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়ামুক্ত মর্মে সনদ দাখিল করতে হবে।

ডিম আমদানিতে দেশীয় উৎপাদিত বাজারে কোনো প্রভাব পড়বে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, যেহেতু আমাদের দেশে প্রতিদিন চার কোটি ডিমের চাহিদা রয়েছে তাই এই ডিম আমদানিতে দেশীয় উৎপাদনের বাজারে কোনো প্রভাব পড়বে না। আমরা দেশীয় উৎপাদিত ডিমকে অগ্রাধিকার দিতে চাই। তবে এই সুযোগ নিয়ে তারা সিন্ডিকেট করে যদি দাম বাড়িয়ে দেয় তাহলে বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখতে আমদানির বিকল্প থাকবে না।

আরো অনেক পণ্যের দাম নির্ধারণের পরও নির্ধারিত দামে বিক্রি হচ্ছে না, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, গত বৃহস্পতিবার আলু এবং পেঁয়াজের দাম নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে। এই নির্ধারণের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট খাতের বিশেষজ্ঞ, কোল্ড স্টোরেজের মালিক এবং খুচরা পর্যায়ের ব্যবসায়ী ও তাদের নেতারা উপস্থিত ছিলেন। এটা যৌক্তিক দাম বলে আমরা মনে করি। এক্ষেত্রে পণ্য সাপ্লাই চেইনের সব ধরনের লভ্যাংশ অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। নির্ধারিত দামে বিক্রি হচ্ছে কি না তা মনিটরিং করতে সব জেলা প্রশাসক এবং উপজেলা পর্যায়ের নির্বাহী অফিসারদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও কৃষি বিপণন ও উপজেলা কৃষি এবং মৎস্য কর্মকর্তাদের নিয়ে ভোক্তা অধিকার অভিযান পরিচালনা করবে। মনিটরিং আরো জোরদার করতে ডিসিদের নিয়ে দুএকদিনের মধ্যে একটি ভার্চুয়াল বৈঠকও করা হবে।

ভোক্তা অধিকার খুচরা পর্যায়ে অভিযান করলেও পাইকারি পর্যায়ে কোনো অভিযান করা হচ্ছে না, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, পণ্যের উৎস পর্যায়েও মনিটরিং করা হচ্ছে। সাধারণত কোল্ড স্টোরেজের মালিকরা কিন্তু সেখানে আলু রাখেন না। আলু রাখেন বড় ব্যবসায়ীরা। জেলা প্রশাসকদের বলা হয়েছে ওই ব্যবসায়ীদের নিয়ে বসে তাদের দায়িত্ববোধ সম্পর্কে সচেতন করা। তারপরও তারা যদি নির্ধারিত দামে বিক্রি না করলে কোল্ড স্টোরেজেও অভিযান চালানো হবে। ইতোমধ্যেই কোনো জেলায় শুরু হয়েছে। সোর্স পর্যায়ে মনিটরিং করলে দাম কমে আসবে।


আরও খবর



স্ত্রীর মৃত্যুর পরদিন জামিনে মুক্তি পেলেন বিএনপি নেতা চাঁদ

প্রকাশিত:রবিবার ৩০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ৩০ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জেলা প্রতিনিধি

Image

কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি পেয়েছেন রাজশাহী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সাঈদ (চাঁদ)। রোববার (৩০ জুন) দুপুর ১২টার দিকে তিনি রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে মুক্তি পান।

এদিকে আবু সাঈদ চাঁদের স্ত্রী শাহানা বেগম (৬০) শনিবার (২৯ জুন) দুপুরে মারা গেছেন। রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার মাড়িয়া গ্রামে রোববার বিকেলে তার জানাজা হওয়ার কথা রয়েছে।

কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে আবু সাঈদ গ্রামের বাড়ির উদ্দেশে রওনা হন। এর আগে গত ২৪ মার্চ আবু সাঈদের মা আশরাফুন্নেশা মারা যান। সেদিন আড়াই ঘণ্টার জন্য প্যারোলে মুক্তি পেয়ে মায়ের জানাজায় অংশ নেন এই বিএনপি নেতা।

চাঁদের আইনজীবী ও জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহফুজুর রহমান মিলন জানান, চাঁদের বিরুদ্ধে এ পর্যন্ত মোট ২১টি মামলা হয়েছে। সব মামলায় উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিতে হয়েছে। সবশেষ ঈদের আগে ফরিদপুরের একটি মামলায় চাঁদের জামিন হয়। এরপর থেকে তিনি মুক্তির অপেক্ষায় ছিলেন। রোববার দুপুরে উচ্চ আদালত থেকে জামিনের আদেশ রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে এসে পৌঁছায়। এরপর কারা কর্তৃপক্ষ তাকে মুক্তি দেয়।

গত বছরের ১৯ মার্চ রাজশাহীর পুঠিয়ায় জেলা বিএনপির এক সমাবেশে প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি দেয়ার অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে। এর জেরে দেশের বিভিন্ন স্থানে তার বিরুদ্ধে মামলা হতে থাকে। পরে ২৪ মার্চ পুলিশ মহানগরের ভেড়িপাড়া মোড় থেকে বিএনপির এই নেতাকে গ্রেপ্তার করে।


আরও খবর



চট্টগ্রামে অনুমোদনহীন দুই হোটেলকে জেলা প্রশাসনের জরিমানা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৪ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
রাহুল সরকার, চট্টগ্রাম ব্যুরো

Image

নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতকল্পে মোবাইল কোর্ট মাধ্যমে অভিযান চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন। এসময় লাইসেন্সবিহীন রেস্তোরা এবং বিএসটিআই এর অনুমোদনহীন পণ্য উৎপাদন ও বিপণন করায় ২টি হোটেলকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। পাশাপাশি ভুয়া দাঁতের চিকিৎসককে ২০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) নগরীর অলংকার মোড় সংলগ্ন এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। অভিযানে নেতৃত্ব দেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের কাট্টলী সার্কেল ভূমি অফিসের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট আরাফাত সিদ্দিকী ।

এসময় লাইসেন্সবিহীন রেস্তোরা পরিচালনা ও বিএসটিআই এর অনুমোদনহীন পণ্য উৎপাদন ও বিপণন করায় বাংলাদেশ হোটেল ও রেস্তোরা আইন ২০১৪ এর সংশ্লিষ্ট ধারায় ২টি হোটেলকে (হোটেল আয়োজন ও হোটেল সাইমুন) দুইটি মামলায় ৪০ হাজার টাকা এবং এক ভুয়া দাঁতের চিকিৎসককে চেম্বার পরিচালনায় মেডিকেল ও ডেন্টাল কাউন্সিল আইন ২০১০ এর সংশ্লিষ্ট ধারায় ২০ হাজার টাকা জরিমানা। অভিযানে মোট ৬০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। পাশাপাশি সব হোটেল ও রেস্তোরাকে লাইসেন্স সংগ্রহ ও নবায়ন করার জন্য পরামর্শ ও সর্তক করে দেয়া হয়।

মোবাইল কোর্টে আইনানুগ সহযোগিতা করেন পাহাড়তলী থানার পুলিশ সদস্যবৃন্দ।

নিউজ ট্যাগ: চট্টগ্রাম

আরও খবর



ভালোবাসায় সিক্ত হলেন সিএমপির বিদায়ী কমিশনার কৃষ্ণ পদ রায়

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ০৩ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
রাহুল সরকার, চট্টগ্রাম ব্যুরো

Image

বিদায়বেলায় অনন্য ভালোবাসায় সিক্ত হয়েছেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) বিদায়ী পুলিশ কমিশনার অতিরিক্ত আইজিপি কৃষ্ণ পদ রায়।

বুধবার (৩ জুলাই) সিএমপি হেডকোয়ার্টার্সে বিদায়ী পুলিশ কমিশনার কৃষ্ণ পদ রায়কে আনুষ্ঠানিক বিদায় জানানো হয়।

বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) সিএমপির ৩২তম কমিশনার হিসেবে উপ-পুলিশ মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মো. সাইফুল ইসলাম দায়িত্বভার গ্রহণ করবেন। বিদায়ী কমিশনার কৃষ্ণ পদ রায়কে ঢাকায় পুলিশ অধিদপ্তরে বদলি করা হয়েছে।

এদিকে বুধবার বিদায়ী কৃষ্ণ পদ রায়কে দৃষ্টিনন্দনভাবে বিভিন্ন ধরনের ফুল দিয়ে বিশেষভাবে সাজানো কমিশনারের সুসজ্জিত গাড়িতে আরোহন করেন। বাংলাদেশ পুলিশের দীর্ঘদিনের ঐতিহ্য ও রীতি অনুযায়ী সুসজ্জিত গাড়ির সঙ্গে বাঁধা রশি টেনে সিএমপি কমিশনারকে বিদায় জানানো হয়।

বিদায়কালে সিএমপির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন পর্যায়ের পুলিশ সদস্যরা আবেগাপ্লুত হয়ে ওঠেন। এর আগে বিদায়ী কমিশনারকে বিদায়ী সালাম দেয় চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের সুসজ্জিত একটি চৌকস দল।

এর আগে, গত ২৩ জুন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ পুলিশ-১ শাখার উপ সচিব সিরাজাম মুনিরা স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে সিএমপির ৩২তম কমিশনার হিসেবে উপ-পুলিশ মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মো.সাইফুল ইসলামকে পদায়ন করা হয়। তিনি মেট্রোরেলের নিরাপত্তায় গঠন করা ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (এমআরটি) পুলিশের প্রধান পদে কর্মরত ছিলেন।

সিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার (এডিসি) কাজী মো. তারেক আজিজ বলেন, সিএমপি কমিশনার অতিরিক্ত আইজিপি কৃষ্ণ পদ রায় স্যারকে সিএমপি থেকে আনুষ্ঠানিক বিদায় জানানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে সিএমপির ৩২তম কমিশনার হিসেবে উপ-পুলিশ মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মো. সাইফুল ইসলাম স্যার দায়িত্বভার গ্রহণ করবেন।

তিনি বলেন, তিনি প্রিয় কর্মস্থল যেখানে ২৬টি বছর আগে তাঁর প্রথম পদচারণা হয়েছিল; ৩ বছরের সেই পথচলায় তিনি যে কর্মদক্ষতা ও নিষ্ঠার স্বাক্ষর রেখে গিয়েছিলেন তা ধরে রেখেছেন আজও৷ ২০২২ সালের থেকে দ্বিতীয় দফায় তিনি এসেছিলেন সিএমপির অভিভাবক হিসেবে। নিষ্ঠা, জ্ঞান, সুকর্ম, সুশাসনে তিনি এবার নগরবাসীর হৃদয়ে চিরস্থায়ী আসন গেড়ে বসেছেন। সিএমপির কনস্টেবল থেকে অতিরিক্ত কমিশনার, নগরীর শ্রমযোদ্ধা থেকে জনপ্রতিনিধি, কুঁড়েঘর থেকে অট্টালিকা-সবখানেই সবার কাছেই তিনি হয়ে উঠেছিলেন প্রিয় কমিশনার

উল্লেখ্য, বিদায়ী সিএমপির কমিশনার অতিরিক্ত আইজিপি কৃষ্ণ পদ রায়কে ২০২২ সালের ৩০ জুন সিএমপি কমিশনার হিসেবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ পুলিশ-১ শাখার এক প্রজ্ঞাপনে পদায়ন করা হয়েছিল।

নিউজ ট্যাগ: চট্টগ্রাম

আরও খবর



বাংলাদেশ পুলিশ জনগণের কল্যাণে কাজ করে: আইজিপি

প্রকাশিত:বুধবার ২৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৬ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বাগেরহাট প্রতিনিধি

Image

পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বলেছেন, পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সাথে সাংবাদিক নেতাদের বৈঠক হয়েছে, আশা করি বিষয়টি আলোচনার মধ্য দিয়ে নিরসন হবে। সকল প্রকার ভুল বোঝাবুঝির অবসান ঘটবে।

বুধবার (২৬ জুন) বিকেলে বাগেরহাটের রামপাল এলাকায় নৌপুলিশের ট্রেনিং একাডেমিক ভবন এবং ফায়ারিং অবজারভেশন ভবনের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের সাথে আলাপ কালে তিনি একথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ পুলিশ জনগণের কল্যাণে কাজ করে। পুলিশের বিভিন্ন ইউনিট প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছিটিয়ে থাকে। নৌপুলিশ নদীর নিরাপত্তা বজায় রাখতে কাজ করে যাচ্ছে। তাদের প্রশিক্ষনের জন্য জন্য বাগেরহাটের রামপালে নৌপুলিশের ট্রেনিং একাডেমির একাডেমিক ভবন এবং ফায়ারিং অবজারভেশন ভবনের উদ্বোধন করা হয়। এটি নতুন মাইলফলক হবে এই অঞ্চলের জন্য।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আইজিপি বলেন, যেখানে এই ট্রেনিং একাডেমি হয়েছে স্থানটি অনেক সুন্দর। পরবর্তিতে সম্ভব্যতা যাচাই করে এখানে পুলিশ বিভাগের জন্য ট্রেনিং একাডেমি করার পরিকল্পনা রয়েছে।

পুলিশ প্রধান বলেন, আমরা দায়িত্ব পালনের মধ্য দিয়ে দেশের মানুষের আস্থা ও ভালবাসা অর্জন করব, মানুষকে সেবা দিয়ে গর্বিত হব। প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ পুলিশের জনবল বৃদ্ধি করেছেন, দেশে-বিদেশে পুলিশ সদস্যদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছেন, লজিস্টিকস বাড়িয়েছেন। ফলে পুলিশ বাহিনীর সক্ষমতা বেড়েছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে নৌপুলিশের অতিরিক্ত আইজিপি মোহা: আবদুল আলীম মাহমুদ, কেএমপি কমিশনার মোঃ মোজাম্মেল হক, খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি মইনুল হক, বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মোহা: খালিদ হোসেন, বাগেরহাটের পুলিশ সুপার নৌপুলিশের খুলনা অঞ্চলের পুলিশ সুপার মো: শরীফুর রহমান, বাগেরহাট প্রেসক্লাবের সভাপতি আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল বাকী, সধারণ সম্পাদক মীর জায়েসী আশরাফী জেমসসহ খুলনা রেঞ্জ, নৌপুলিশ খুলনা অঞ্চল, বাগেরহাট জেলা পুলিশ এবং পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এরআগে আইজিপি স্পীডবোট যোগে নৌপুলিশ ট্রেনিং একাডেমির জন্য নির্মিত বিভিন্ন অবস্টাকল, প্যারেড গ্রাউন্ড এবং খেলার মাঠ ঘুরে দেখেন এবং সেখানে চলমান প্রশিক্ষণ এ অংশগ্রহণকারী প্রশিক্ষক ও প্রশিক্ষনার্থীদের সাথে কথা বলেন।

পরে রামপালে নৌপুলিশ ট্রেনিং একাডেমির লেকে মাছের পোনা অবমুক্ত এবং বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন তিনি।


আরও খবর



দেশে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ২৬.৮১ বিলিয়ন ডলার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ জুলাই 2০২4 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০২ জুলাই 2০২4 | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

দেশের রিজার্ভের পরিমাণ আগের তুলনায় কিছুটা কমেছে। চলতি বছরের ৩০ জুন শেষে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২৬.৮১ বিলিয়ন ডলারে।

মঙ্গলবার (৩০ জুন) বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র মো. মেজবাউল হক এ তথ্য জানিয়েছেন।

চলতি বছরের ২৭ জুন পর্যন্ত দেশে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ছিল ২৭.১৫ বিলিয়ন ডলার। তবে ৩০ জুন শেষে এর পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২৬.৮১ বিলিয়ন ডলার। অর্থাৎ মাত্র ৩ দিনে দেশের রিজার্ভ কমেছে ০.৩৪ বিলিয়ন ডলার।

তবে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) তথ্য অনুযায়ী এ রিজার্ভের পরিমাণ আরও কম। আইএমএফ বলছে, ৩০ জুন পর্যন্ত দেশের রিজার্ভ ২১.৮৩ বিলিয়ন ডলার। সাধারণত সংস্থাটি রিজার্ভ থেকে কোনো ঋণের দায় বা অন্য সংস্থাকে ঋণ দেয়া অর্থকে রিজার্ভ হিসাবে বিবেচনা করে না।

এর আগে, গত ২৭ জুন রিজার্ভে আইএমএফ থেকে ১.১৫ বিলিয়ন বা ১১৫ কোটি ডলার ছাড়াও কোরিয়া, আইবিআরডি ও আইডিবি থেকে আরও ৯০০ মিলিয়ন বা ৯০ কোটি ডলার যোগ হয়েছিল। যার জন্য সবমিলিয়ে দেশের রিজার্ভ দাঁড়িয়েছিল ২৭.১৫ বিলিয়ন ডলারে।

বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমতে থাকায় গত বছরের ৩০ জানুয়ারি আইএমএফের সঙ্গে ৪৭০ কোটি ডলারের ঋণচুক্তি করে বাংলাদেশ। এর তিনদিন পর প্রথম কিস্তিতে ৪৭ কোটি ৬২ লাখ ৭০ হাজার ডলার ছাড় করে সংস্থাটি। এরপর গত ১৬ ডিসেম্বর আসে দ্বিতীয় কিস্তির ৬৮ কোটি ২০ লাখ ডলার।

২০২৬ সাল পর্যন্ত মোট সাতটি কিস্তিতে ঋণের পুরো অর্থ ছাড় করার কথা রয়েছে। দ্বিতীয় কিস্তির পরবর্তীগুলোতে সমান অর্থ থাকার কথা থাকলেও রিজার্ভ আরও কমে যাওয়ায় তৃতীয় ও চতুর্থ কিস্তিতে বেশি অর্থ চায় বাংলাদেশ। বেশ কিছু কঠিন শর্তের বাস্তবায়ন ও আগামীতে আরও বড় সংস্কার কার্যক্রমের প্রতিশ্রুতি দেয়ায় সংস্থাটি তৃতীয় কিস্তিতে ৬৮ কোটি ডলারের পরিবর্তে ১১৫ কোটি ডলার অনুমোদন করেছে।

আইএমএফের দেয়া ঋণের একটি অংশ জলবায়ু তহবিলের, যা বাংলাদেশকেই প্রথম দেয়া হয়েছে। এ কর্মসূচি অব্যাহত থাকুক, তা চায় সংস্থাটি। এজন্য চতুর্থ কিস্তির জন্য জুন শেষে নিট রিজার্ভের লক্ষ্যমাত্রা ৫.৩৪ বিলিয়ন ডলার কমিয়ে নির্ধারণ করা হয়েছে ১৪.৭৬ বিলিয়ন ডলার।


আরও খবর