আজঃ শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪
শিরোনাম

বান্দরবানে সব বাহিনীর সদস্য বাড়ানোর ঘোষণা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০৬ এপ্রিল ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বান্দরবান প্রতিনিধি

Image

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, বান্দরবানে আমরা সব বাহিনীর সদস্য আরও বাড়াবো এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষার্থে যা যা করা দরকার তা করব।

আজ শনিবার দুপুরে বান্দরবান সার্কিট হাউসে বান্দরবান জেলার আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত এক সভা শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

সন্ত্রাসীদের ছাড় দেওয়া হবে না জানিয়ে আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, কোনো অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীকে ছাড় দেওয়া হবে না। বান্দরবানের রুমার ঘটনায় সন্ত্রাসীরা তাদের সক্ষমতা প্রর্দশন দেখানোর চেষ্টা করেছে মাত্র। তবে নিরাপত্তা বাহিনী তাদের সব সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ধূলিসাৎ করে দেবে।

তিনি বলেন, বান্দরবানের ঘটনায় বিদেশি কোনো মদদ নেই। বিদেশি যাদের কথা বলা হচ্ছে, তারা নিজেদের সমস্যা সমাধানে ব্যস্ত। এই অপরাধে জড়িত কেউ দেশের বাইরে গেলে সেখান থেকে তাকে এনে বিচার করা হবে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, কেএনএফ যে হামলা ও লুটের ঘটনা ঘটিয়েছে, সেটা কোনোভাবেই ছাড় দেওয়া হবে না। প্রধানমন্ত্রী সামরিক বাহিনীকে নির্দেশনা দিয়েছেন শক্তিশালী অভিযান চালানোর। সমন্বিত অভিযানের বিষয়ে সেনাবাহিনী সিদ্ধান্ত নেবেন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীন বাহিনী তাদের মতো অভিযান চালাবে।

এর আগে আজ সকালে ঢাকা থেকে হেলিকপ্টারযোগে বান্দরবানে রুমা উপজেলায় যান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সেখানে সোনালী ব্যাংকে শাখা পরিদর্শন করেন এবং উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের কাছে ঘটনার বিবরণ শোনেন।


আরও খবর
গৃহবধূকে ডেকে নিয়ে দলবদ্ধ ধর্ষণ

বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪




এত পরিশ্রমের পরও কটু কথা কষ্ট দেয়, সবকিছু অর্থহীন মনে হয়: জাহ্নবী

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

বর্তমানে বলিউডে যে কজন তারকা সন্তান অভিনয় করছেন তাদের মধ্যে অন্যতম শ্রীদেবীকন্যা জাহ্নবী কাপুর। ইতোমধ্যে পায়ের নিচের মাটি খানিকটা শক্ত করেছেন তিনি। শুরু থেকেই মা শ্রীদেবীর সঙ্গে তুলনা টানা হতো জাহ্নবীর। এমনকি তাঁকে নানাভাবে কটাক্ষও করা হতো। সে সময় মানসিকভাবে ভেঙে পড়তেন তিনি। তবে এখন তিনি এসব নিয়ে বাঁচতে শিখেছেন। মিলি, বাওয়াল, গুঞ্জন সাক্সেনা: দ্য কারগিল গার্ল, গুডলাক জেরির মতো ছবিতে অভিনয়ের পর তাঁর কদর আরও বেড়েছে। নিজের প্রতিভা প্রমাণের সুযোগ পেয়েছেন।

কিছুদিন আগেই এক বিবৃতিতে মায়ের সঙ্গে তুলনা প্রসঙ্গে জাহ্নবী বলেন, মাম্মার [শ্রীদেবী] মতো কেউ বৈচিত্র্যময় হয়ে উঠতে পারবেন না। তাঁর যা উচ্চতা, সেই উচ্চতায় কেউ পৌঁছাতে পারবেন বলে আমি মনে করি না। তাই দয়া করে আমাকেও রেহাই দিন।

ক্যারিয়ারের শুরুতে মানুষের কটু কথায় মন খারপ হতো জাহ্নবীর। তবে এখন অনেকটাই সামলে নিতে শিখেছেন। এর পরও মাঝেমধ্যে যে মন খারাপ হয় না, তা নয়। এ অভিনেত্রী বলেন, এত পরিশ্রমের পরও কটু কথা আমাকে কষ্ট দেয়। আমার রক্ত, ঘাম ঝরানো পরিশ্রম অর্থহীন বলে মনে হয়। কিছু মানুষের তির্যক মন্তব্য শুনে মন অশান্ত হয়ে ওঠে। তবে ইতিবাচক সমালোচনাকে সব সময় সম্মান জানাই।

আগামী শুক্রবার মুক্তি পাচ্ছে এই অভিনেত্রীর নতুন সিনেমা মিস্টার অ্যান্ড মিসেস মাহিশরণ শর্মা পরিচালিত এই সিনেমায় তিনি অভিনয় করেছেন রাজকুমার রাওয়ের সঙ্গে।এই ছবিতে এক উঠতি ক্রিকেটারের চরিত্রে অভিনয় করেছেন জাহ্নবী। সম্প্রতি ছবির ট্রেলার প্রকাশ্যে এসেছে। অনুরাগীদের মধ্যে সাড়া ফেলেছে এই ট্রেলার। এই চরিত্রের জন্য বেশ কাঠখড় পোড়াতে হয়েছে জাহ্নবীকে।

জাহ্নবী বলেন, এই ছবির জন্য আমি প্রচুর পরিশ্রম করেছি। মিলি ছবির প্রচারণার সময় এই ছবির জন্য ক্রিকেটের প্রশিক্ষণ নেওয়া শুরু করে দিয়েছিলাম। প্রায় দুই বছর প্রশিক্ষণ নিয়েছি। শরণ (পরিচালক) এই ছবিতে কোনো ভিএফএক্স ব্যবহার করেননি।তিনি চেয়েছিলেন ক্রিকেটের দৃশ্যগুলো বাস্তব দেখাতে। পর্দায় যেন আমাকে প্রকৃত ক্রিকেটারের মতো দেখতে লাগে তাই টানা পরিশ্রম করেছি।ট্রেনিংয়ের সময় অনেক চোট পেয়েছি। আমার দুই কাঁধের হাড় সরে গিয়েছিল। এতটাই কষ্ট হয়েছিল মাঝেমধ্যে ভেবেছিলাম ছবিটি ছেড়ে দেই।

নিজের সম্পর্কে খুব বেশি খোলামেলা কথা বলেন না অভিনেত্রী জাহ্নবী কাপুর। তবে বলিউডে কান পাতলেই শোনা যায়, শিখর পাহাড়িয়ার সঙ্গে সম্পর্কে রয়েছেন শ্রীদেবীকন্যা। আকারে-ইঙ্গিতে অবশ্য জাহ্নবী নিজেও বুঝিয়েছেন, শিখরের সঙ্গেই প্রেমের সম্পর্কে আবদ্ধ তিনি।

তবে সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে শিখরকে নিয়ে জাহ্নবী বললেন, আমার যখন ১৫-১৬ বছর বয়স, তখন থেকে ও আমার সঙ্গে আছে। আমার স্বপ্নগুলো ও নিজের করে নিয়েছে। ওর স্বপ্নগুলোও আমি আমার নিজের স্বপ্ন করে তুলেছি। আমরা পরস্পরের খুব কাছের। আমরা সব সময় পরস্পরের পাশে এমনভাবে থেকেছি যেন আমরাই পরস্পরকে বড় করে তুলেছি।

নিউজ ট্যাগ: জাহ্নবী কাপুর

আরও খবর



শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন সোনিয়া, রাহুল ও প্রিয়াঙ্কা গান্ধী

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১০ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ভারতের নয়াদিল্লিতে আইটিসি মৌর্য হোটেলে আজ সোমবার বিকেলে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন কংগ্রেসের সংসদীয় দলের চেয়ারপারসন সোনিয়া গান্ধী, কংগ্রেসের সাবেক প্রেসিডেন্ট রাহুল গান্ধী এবং দলটির সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভাদরা। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

টানা তৃতীয় মেয়াদে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে গতকাল রোববার শপথ নেন মোদি। সেই অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গত শনিবার দিল্লিতে পৌঁছান শেখ হাসিনা। শপথ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ছাড়াও শ্রীলঙ্কা, ভুটান, নেপাল, মৌরিতাস, মালদ্বীপ ও সিসিলিসের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ সাংবাদিকদের বলেন, পরপর তৃতীয়বারের মতো ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নরেন্দ্র মোদির শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার সাথে একান্ত সাক্ষাতে মিলিত হন। এ সময় তিনি নরেন্দ্র মোদি এবং এনডিএ জোটকে নির্বাচনে বিজয়ের জন্য আবারও অভিনন্দন দেন এবং নরেন্দ্র মোদিকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান।

রাষ্ট্রপতি ভবনে এ সাক্ষাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুই দেশের বন্ধনকে আরও দৃঢ় করতে নরেন্দ্র মোদির নতুন সরকারের সাথে কাজ করার আন্তরিক আগ্রহ ব্যক্ত করেন বলেও জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

ড. হাছান বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় উন্নীত হয়েছে এবং নিকটতম প্রতিবেশী হিসেবে বাংলাদেশ ও ভারতের অনেক কাজের সুযোগ রয়েছে। মানুষে মানুষে সংযোগ বৃদ্ধিতে যোগাযোগ অবকাঠামো উন্নয়নসহ উভয় দেশের আরও উন্নতিকল্পে আমাদের একযোগে কাজ করে যেতে হবে।


আরও খবর



জামিনের আবেদন খারিজ, জেলেই থাকছেন কেজরিওয়াল

প্রকাশিত:বুধবার ০৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী ও আম আদমি পার্টির (আপ) আহ্বায়ক অরবিন্দ কেজরিওয়ালের অন্তর্বর্তী জামিনের আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে আগামী ১৯ জুন পর্যন্ত জেল হেফাজতেই থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। বুধবার দিল্লির রোজ অ্যাভিনিউ আদালত এ আদেশ দেন।

আবগারি (মদ) দুর্নীতি মামলায় জড়িত থাকার অভিযোগে গত ২১ মার্চ কেজরিওয়ালকে গ্রেপ্তার করে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। দুই সপ্তাহ পর তাকে পাঠানো হয় তিহাড় কারাগারে। ১০ মে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে ২১ দিনের জামিন পান দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী। তা শেষ হলে আবারও কারাগারে যেতে হয় তাকে। পরে শারীরিক অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে আরও ৭ দিনের জন্য অন্তর্বর্তীকালীন জামিনে করেন কেজরিওয়ালের আইনজীবী। বুধবার সেই আবেদন খারিজ করেন আদালত। 

এদিকে আম আদমি পার্টির (এএপি) নেত্রী ও দিল্লির মন্ত্রী আতিশী দাবি করেন, ধুরন্ধর অপরাধীরাও তিহাড় কারাগারে কুলার পেয়েছে। দিল্লিতে ৫০ ডিগ্রির বেশি গরম। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে কোনো কুলার দেওয়া হয়নি। আমি বিজেপির থেকে জানতে চাই- ওরা আর কত নিচে নামবে। আত্মসমর্পণ করার পরই তাকে একটা গরম সেলে রাখা হয়েছে, কুলার ছাড়াই। বিজেপি ও প্রধানমন্ত্রীকে আমি বলতে চাই- দিল্লির মানুষ তো বটেই, ঈশ্বরও তাদের ক্ষমতা করবে না।


আরও খবর



সাবেক সেনাপ্রধানের ওপর নিষেধাজ্ঞা নিয়ে যা বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল (অব.) আজিজ আহমেদের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা আরোপের বিষয়টি এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে পাননি বলে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান। তিনি বলেছেন, কেন এই নিষেধাজ্ঞা আসছে, সেটা আমার কাছে এখনো আসেনি। আমি কেবল একটি বিজ্ঞপ্তির কথা শুনেছি।

আজ মঙ্গলবার সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সভাকক্ষে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর সংবাদিকদের এ তথ্য জানান মন্ত্রী। এ সময় এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এটা নিয়ে আমার কোনো মন্তব্য নেই। কেন এই নিষেধাজ্ঞা আসছে, সেটা আমার কাছে এখনো আসেনি। আমি কেবল একটি বিজ্ঞপ্তির কথা শুনেছি। এটা বিস্তারিতভাবে না জেনে প্রশ্নের জবাব দিতে পারব না।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, একটা জিনিস আমি বুঝতে পেরেছি, মার্কিন সরকার অনেক দেশের অনেক ব্যক্তির ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। এটা তাদের জন্য নতুন কিছু না। আমাদের দেশে যাকে দেওয়া হয়েছে, আমাদের কাছে এখনো সেটা সঠিকভাবে আসেনি। আসলে পরে জানতে পারবো, কেন দেওয়া হয়েছে!

এর আগে বাংলাদেশ সময় গতকাল সোমবার রাতে নিজেদের ওয়েবসাইটে একটি বিবৃতি প্রকাশ করে ইউনাইটেড স্টেটস ডিপার্টমেন্ট অব স্টেট। এতে দুর্নীতিতে সম্পৃক্ততার অভিযোগে বাংলাদেশের সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল (অব.) আজিজ আহমেদে ও তার পরিবারের সদস্যদের ওপর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার কথা জানান দেশটি।


আরও খবর



দুদকের চিঠি পড়ে আছে বেনজীরের বাড়ির অভ্যর্থনা কক্ষে

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০১ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

গুলশান-১ এর লেকপাড় থেকে ১৩০ নম্বর সড়ক ধরে কয়েক কদম হাঁটলেই ১২৬ নম্বর সড়ক। দুই সড়কের সীমানায় গড়ে ওঠা সুউচ্চ ভবনটিই পুলিশের সদ্য সাবেক মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদের বাড়ি। এই ঠিকানায় গত ২৮ মে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে বেনজীর আহমেদকে আগামী ৬ জুন এবং তার স্ত্রী-সন্তানদের আগামী ৯ জুন জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করে চিঠি দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

চিঠি যখন এই বাড়িতে এসে পৌঁছায় তার আগেই সাবেক পুলিশ মহাপরিদর্শক ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা দেশ ছেড়েছেন। তাই দুদকের চিঠি তাদের হাতে পৌঁছায়নি, পড়ে আছে আলিশান এই ভবনের অভ্যর্থনা কক্ষে। আজ শনিবার দুপুরে গুলশানের এই বাড়িতে গিয়ে জানা গেছে এসব তথ্য।

বেনজির এবং তাঁর পরিবারের কেউ এখন এই বাড়িতে না থাকায় তাদের পক্ষে কথা বলার মতো কাউকে পাওয়া যায়নি। কথা হয় বাড়ির নিরাপত্তারক্ষী রাকিবের সঙ্গে।

নিরাপত্তারক্ষী রাকিব  বলেন, তিন সপ্তাহ আগে তিনি (বেনজীর আহমেদ) এই বাড়ি থাইকা বাইর হয়া গেছেন। তারপরে আর আসেন নাই। কই আছেন জানি না। খবরে দেখছি উনি না-কী বিদেশ গেছেন।

এখন বেনজীর আহমেদের খোঁজে কেউ এই বাড়িতে আসে কী-না? এমন প্রশ্নের জবাবে রাকিব বলেন, পাঁচ দিন আগে দুদক থেকে তিনজন লোক আসছিল। কয়েকটা চিঠি দিয়া চইলা গেছে। তারা না থাকায় চিঠিগুলা রিসেপশনে দিয়া গেছে। এখনো ওইগুলা রিসিপসনেই আছে। এ ছাড়া কয়েকটা চ্যানেল থাইকা কয়েক দিন লোক আসছিল। তারা কিছুই পায় নাই।

এই বাড়ির দেখভালের দায়িত্বে থাকা এক ব্যক্তিকে বের হতে ও ঢুকতে দেখা গেছে। এই ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলতে চাইলে নিরাপত্তারক্ষীর সঙ্গে কথা বলার পরামর্শ দিয়ে বাড়ির ভেতরে ঢুকে যান।

নিরাপত্তারক্ষীর কাছে ভেতরে ঢোকার অনুমতি চাওয়া হয়। নিরাপত্তারক্ষী রাকিব এতে বাঁধা দিয়ে ভেতরে যাওয়ার অনুমতি নেই বলে জানান। এই গেটে দাঁড়িয়েই তার সঙ্গে কথা হয়। কথা বলে জানা যায়, এই বাসার ১২ তলার একটি ফ্ল্যাটে থাকতেন বেনজীর আহমেদ। এখন সেই ফ্ল্যাট তালাবদ্ধ। কেউ আর থাকেন না সেখানে।

তবে বিশ্বস্ত সূত্র বলছে, বাংলাদেশ ছাড়ার পরে বেনজীর আহমেদ সিঙ্গাপুরে অবস্থান করছেন। অন্য দিকে দুদক বলছে, গুলশানের এই বিলাসবহুল ফ্ল্যাটের মতো আরও কয়েকটি ফ্ল্যাট আছে বেনজীর ও তাঁর পরিবারের। এ ছাড়া তার জন্মস্থান গোপালগঞ্জে ৩৪৫ বিঘা ও মাদারীপুরে ২৭৩ বিঘা অবৈধ জমির সন্ধান পেয়েছে এই সংস্থা।


আরও খবর