আজঃ রবিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২৩
শিরোনাম

বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর ১০ম স্কোয়াড্রন কমান্ডার্স কোর্সের সনদপত্র বিতরণ অনুষ্ঠান

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৯ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ জানুয়ারী ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর সহকারী বিমান বাহিনী প্রধান (পরিচালন) এয়ার ভাইস মার্শাল এ এইচ এম ফজলুল হক, বিবিপি, বিএসপি, এনডিইউ, এএফডব্লিউসি, পিএসসি ১৯ জানুয়ারি ২০২৩, বৃহস্পতিবার বিমান বাহিনী ঘাঁটি বাশার এ অবস্থিত কমান্ড ও স্টাফ ট্রেনিং ইনস্টিটিউটে (সিএসটিআই) অনুষ্ঠিত ১০ম স্কোয়াড্রন কমান্ডার্স কোর্স (এসসিসি) এর সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে প্রশিক্ষণোত্তীর্ণ কর্মকর্তাদের সনদপত্র প্রদান করেন।

সহকারী বিমান বাহিনী প্রধান (পরিচালন) অনুষ্ঠান স্থলে এসে পৌঁছালে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী ঘাঁটি বাশার এর এয়ার অধিনায়ক এয়ার ভাইস মার্শাল মোঃ শরীফ উদ্দীন সরকার, জিইউপি, বিপিপি, এনডিসি, পিএসসি এবং কমান্ড ও স্টাফ ট্রেনিং ইনস্টিটিউট (সিএসটিআই) এর অধিনায়ক গ্রুপ ক্যাপ্টেন আবদুল্লাহ আল ফারুক, এনডিসি, পিএসসি তাঁকে স্বাগত জানান। ইনস্টিটিউটের অধিনায়ক তার স্বাগত ভাষণে ১০ম স্কোয়াড্রন কমান্ডার্স কোর্সের প্রশিক্ষণ ও শিক্ষা কার্যক্রমের উপর সংক্ষিপ্ত বিবরণ তুলে ধরেন। উক্ত কোর্সে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর ০৯ জন কর্মকর্তা অংশগ্রহণ করেন। বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর স্কোয়াড্রন কমান্ডারগণের কার্যকরী ব্যবস্থাপনা এবং নেতৃত্ব প্রদানের প্রশিক্ষণ এই কোর্সের উদ্দেশ্য। ২০০৯ সাল থেকে এসসিসি উত্তীর্ণ কর্মকর্তাগণ তাদের অর্জিত কর্মলব্ধ জ্ঞান সশস্ত্র বাহিনীর বিভিন্ন পর্যায়ে কমান্ড, স্টাফ এবং নির্দেশমূলক দায়িত্ব পালনে প্রয়োগ করে আসছে। প্রধান অতিথি প্রশিক্ষণোত্তীর্ণ সকল কর্মকর্তাদের মাঝে সনদপত্র প্রদান করেন এবং দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য প্রদান করেন।

তিনি উক্ত কোর্স সাফল্যের সাথে সম্পন্ন করার জন্য সিএসটিআই এর ভূয়সী প্রশংসা করেন। সবশেষে তিনি প্রশিক্ষণোত্তীর্ণ সকল কর্মকর্তাদের সাথে আলোকচিত্রে অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ এবং অন্যান্য অতিথিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর
রমজানে যেসব কাজ বেশি বেশি করবেন

বৃহস্পতিবার ২৩ মার্চ 20২৩




ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুইশত কৃতি শিক্ষার্থীকে বৃত্তি প্রদান

প্রকাশিত:শনিবার ১১ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ১১ নভেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
মোঃ রাসেল আহমেদ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

Image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুইশত কৃতি শিক্ষার্থীকে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করা হয়েছে। শনিবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সমিতি ঢাকার উদ্যোগে ইউনির্ভাসিটি অব ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ক্যাম্পাস প্রাঙ্গণে এই মেধাবৃত্তি প্রদান করা হয়।

মেধাবৃত্তি প্রদান উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সংসদ সদস্য, বেসামরিক বিমান পরিবহন পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সমিতি ঢাকার সভাপতি র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী।

মেধাবৃত্তি প্রদান উপ-কমিটি-২০২৩-এর আহবায়ক মোঃ আবদুল হামিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের সদস্য ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সমিতি ঢাকার সাধারণ সম্পাদক মোঃ খলিলুর রহমান, সমিতির সহ-সভাপতি ও গণপূর্ত অধিদপ্তরের সাবেক প্রধান প্রকৌশলী কবির আহম্মেদ ভূঞা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার মেয়র মিসেস নায়ার কবির প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি বলেন, মাদক সমাজের বিভিন্ন স্তরে ছড়িয়ে পড়েছে। মাদকের গ্রাস থেকে আমাদের ছেলে-মেয়েদেরর রক্ষা করতে হবে। সন্তানের প্রতি অভিভাবকদের খেয়াল রাখতে হবে। মাদককে প্রতিহত করতে হবে। এক্ষেত্রে শিক্ষা, ক্রীড়া ও বিনোদনের কোনো বিকল্প নেই। আমাদের ছেলে-মেয়েদেরকে  সুশিক্ষায় শিক্ষিত করতে হবে। তাহলেই এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে এখন নারী শিক্ষা অনেক দূর এগিয়ে গেছে।  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, নারীরা এগিয়ে গেলেই দেশ এগিয়ে যাবে। তাই বলে যে ছেলেদের জন্য নয় তা ঠিক নয়। আমরা চাই ছেলে মেয়ে একসাথে তালে তাল মিলিয়ে চলবে। তাহলেই আমাদের দেশ দ্রুত উন্নয়ন হবে। পরে প্রধান অতিথি ও অন্যান্য অতিথিগণ ২০২২ সালে এস.এস.সি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ প্রাপ্ত দুইশত কৃতি শিক্ষার্থীর হাতে নগদ ৫ হাজার টাকার শিক্ষাবৃত্তি, ফুল, সনদসহ শিক্ষা সামগ্রী তুলে দেন।


আরও খবর



আঘাত করেনি হামাস, মুক্তি পাওয়া ইসরাইলিরা সবাই সুস্থ

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ নভেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজার শাসকগোষ্ঠী হামাস ও ইসরাইলের মধ্যে সম্মতিতে চার দিনের যুদ্ধবিরতি চলছে। শুক্রবার থেকে চলা যুদ্ধবিরতিতে এরই মধ্যে ২৫ ইসরাইলিকে মুক্তি দিয়েছে হামাস। তাদের কারও কারও দুর্বলতা বা ক্লান্তি থাকলেও সবাই সুস্থ আছে বলে জানিয়েছেন ইসরাইলের চিকিৎসকরা। বন্দিদের বিষয়ে আগেই হামাস জানিয়েছিল, তারা মেহমান। সেভাবেই তাদের রাখার চেষ্টা করা হচ্ছে।

টাইমস অব ইসরাইল এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ইসরাইলের পেটাহ টিকভা হাসপাতালে নেওয়া হয় হামাসের কাছ থেকে মুক্তি পাওয়া ৮ জন শিশু ও নারীকে। তাদের স্বাস্থ্য পর্যবেক্ষণ করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, পেটাহ টিকভার স্নাইডার মেডিকেল সেন্টারে স্বাস্থ্যপরীক্ষার পর দেখা গেছে আটজনের অবস্থাই ভালো।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তাদের পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তবে তাদের পর্যবেক্ষণের জন্য চিকিৎসক ও মনোবিদরা রয়েছেন।

এদিকে ইসরাইলের আরেক স্বাস্থ্যকেন্দ্র হলন হাসপাতালে হামাসের কাছ থেকে মুক্তি পাওয়া ৫ জনের স্বাস্থ্যপরীক্ষা করা হয়েছে। হাসপাতালটি জানিয়েছে, তাদের সবার অবস্থা স্থিতিশীল এবং তারা পরিবারের লোকদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছে।

আরও পড়ুন>> গাজায় যুদ্ধবিরতির মেয়াদ বাড়তে পারে: বাইডেন

এই ১৩ ইসরাইলি নাগরিক ছাড়াও ১২ থাই নাগরিককে মুক্তি দিয়েছে হামাস। চার দিনের যুদ্ধবিরতিতে ৫০ বন্দিকে হামাস মুক্তি দিতে সম্মত হয়েছে। শনিবার আরও কয়েকজনকে মুক্তি দিতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

এদিকে ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজায় যুদ্ধবিরতির পর ৩৯ ফিলিস্তিনিকে মুক্তি দিয়েছে ইসরাইল। আলজাজিরার খবরে বলা হয়েছে, ইসরাইল যে ফিলিস্তিনিদের মুক্তি দিয়েছে তাদের মধ্যে ২৪ নারী ও ১৫ তরুণ। শুক্রবার (২৪ নভেম্বর) স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় তাদের মুক্তি দেওয়া হয়। কাতারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

কাতারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাংবাদিকদের বলেছেন, আমাদের মূল লক্ষ্য জিম্মিদের নিরাপত্তা। আমাদের অপারেশন রুমের মাধ্যমে তারা যাতে নিরাপদে সেখানে পৌঁছান তা নিশ্চিত করার দিকে আমরা মনোযোগ দেব। জিম্মিদের গাজা থেকে মুক্তির বিষয়টিতে যুক্ত থাকবে রেডক্রস ও যুদ্ধের অন্য পক্ষগুলো।

দীর্ঘ ৪৮ দিনের ভয়ঙ্কর আগ্রাসনের পর শুক্রবার (২৫ নভেম্বর) গাজায় কার্যকর হয় চার দিনের যুদ্ধবিরতি। এতে কিছুটা স্বস্তি ফিরেছে শরণার্থী শিবিরে আশ্রয় নেওয়া লাখ লাখ মানুষের মনে। তাই সাহস আর তল্পিতল্পা গুছিয়ে বাড়ির পথ ধরেছেন নিরীহ মানুষগুলো। তবে হামলায় বাসস্থানগুলো টিকে আছে কিনা তা জানা নেই তাদের।


আরও খবর



ইলিশের জালে ধরা পরল ১৪ কেজির পাঙ্গাশ

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ০৮ নভেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বঙ্গোপসাগরে ইলিশের জালে ধরা পড়ছে একের পর এক বড় সাইজের পাঙ্গাশ। সোমবার সকালে জেলে মানিক মিয়ার ইলিশের জালে প্রায় ১৪ কেজি ওজনের একটি পাঙ্গাশ মাছ ধরা পরে। এ মাছটি দুপুরে কুয়াকাটা মাছ বাজরের মুন্নি ফিস আড়তে নিয়ে আসা হয়। পরে পাঙ্গাশ মাছটি আনোয়ার হাওলাদার নামে এক মৎস্য ব্যবসায়ী ৭০০ টাকা কেজি দরে ক্রয় করেন।

জেলে মানিক মিয়া বলেন, সে প্রতিদিনের মত সোমবার সকালে সাগরে জাল তুলতে যায়। তার ইলিশের জালে অন্যান্য মাছের সাঙ্গে এ মাছটি উঠে আসে। প্রথমে জাল থেকে পাঙ্গাশ মাছটি ট্রলারে তুলতে তাদের বেগ পেতে হয়েছে। এ মাছটি ভালো দামে বিক্রি করতে পেড়েছে বলে এই ভাগ্যবান জেলে জানান।

তবে মাছটির ক্রেতা মৎস্য ব্যবসায়ী মো. আনোয়ার হাওলাদার বলেন, পাঙ্গাশ মাছটির ওজন ১৩ কেজি ৯০০ গ্রাম। এটিকে ঢাকার বাজারে পাঠানো হবে।

এদিকে সাগর ও নদীতে ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞার পর জেলেদের জালে ইলিশের পাশাপাশি সামুদ্রিক মাছসহ বড় বড় পাঙ্গাস মাছ ধরা পড়ছে বলে একাধিক জেলেরা জানিয়েছেন।

উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা অপু সাহা বলেন, নিষেধাজ্ঞার সুফল, জেলেদের জালে ইলিশসহ নানা প্রজাতির মাছ ধরা পড়ছে।


আরও খবর



বরগুনায় নানা আয়োজনে যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

প্রকাশিত:শনিবার ১১ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ১১ নভেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
অলিউল্লাহ্ ইমরান, বরগুনা

Image

বরগুনায় বিভিন্ন আয়োজনে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ৫১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করা হয়েছে।

শনিবার (১১ নভেম্বর) দুপুর সাড়ে ১০ টার দিকে আওয়ামী লীগ জেলা কার্যালয় চত্বরে কেক কাটা ও আলোচনা সভার মধ্যে দিয়ে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর শুভ সূচনা করা হয়।

এ উপলক্ষে জেলা যুবলীগের উদ্যোগে হাতি দিয়ে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে আওয়ামী লীগের জেলা কার্যালয়ের সামনে গিয়ে শেষ হয়। র‌্যালিতে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও অংঙ্গ সংগঠনের নেতা কর্মীরা অংশ গ্রহণ করেন।

সভাপতি রেজাউল করিম অ্যাটম এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ এর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আঃ মোতালেব মৃধা, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আব্বাস হোসেন মন্টু মোল্লা, যুবলীগের সাবেক সভাপতি রাইসুল আলম রিপন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ্ মোহাম্মদ অলিউল্লাহ্ অলি, বীর মুক্তিযোদ্ধা কেএম আঃ রশিদ, যুবলীগের সহসভাপতি মোঃ আরিফ হোসেন মোল্লা, যুবলীগের সহসভাপতি তৌহিদ মোল্লা, যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক মাহমুদুল আজাদ রিপন, যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক অ্যাড. জুনায়েদ জুয়েল, যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রহিম মোল্লা, যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাড. মিলন, যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আক্তারুজ্জামান রকিব মোল্লা সহ প্রমুখ।

নিউজ ট্যাগ: বরগুনা

আরও খবর



মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে বাংলাদেশকে ১১০ দেশের সুপারিশ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৬ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৬ নভেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

জাতিসংঘ মানবাধিকার সংস্থার পর্যালোচনায় বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতির উন্নতির জন্য ১১০টি দেশের তুলে ধরা সুপারিশ চূড়ান্ত করা হয়েছে। সব মিলিয়ে ৩০১টি সুপারিশ প্রতিবেদন আকারে ইউপিআর সভায় উপস্থাপন করা হয়। পর্যালোচনা সভায় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বাংলাদেশের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দিলেও সুপারিশ অনুমোদনের সভায় তিনি ছিলেন না। তার পরিবর্তে সভায় বক্তব্য দেন জেনেভায় জাতিসংঘ মিশনে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মোহাম্মদ সুফিউর রহমান।

গতকাল বুধবার (১৫ নভেম্বর) রাতে জেনেভায় জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদের ইউনিভার্সাল পিরিয়ডিক রিভিউ (ইউপিআর) বা সর্বজনীন পুনর্বীক্ষণ পদ্ধতির ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠকে বাংলাদেশের ইউপিআর প্রতিবেদনের খসড়া গৃহীত হয়েছে।

সোমবার বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতির ওপর পর্যালোচনায় সরকারের পক্ষ থেকে তৃতীয় ইউপিআরে উঠে আসা ১৭৬টি সুপারিশ বাস্তবায়নে অগ্রগতির চিত্র তুলে ধরেন আইনমন্ত্রী। এরপর জাতিসংঘের সদস্য ১৯৩টি দেশের মধ্যে ১১০টি দেশ তাদের মূল্যায়ন ও সুপারিশ তুলে ধরে। ওই সুপারিশগুলোর সংকলন প্রতিবেদন তৈরি করার দায়িত্ব পড়ে পাকিস্তান, কিউবা ও রোমানিয়ার ওপর। গতকাল বুধবার জেনেভায় জাতিসংঘ দপ্তরে রোমানিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি রাজভান রুসু প্রতিবেদনটি অধিবেশনে পেশ করেন। খসড়া প্রতিবেদন নিয়ে কোনো রাষ্ট্র আপত্তি না করায় তা গৃহীত হয়। এরপর জেনেভায় বাংলাদেশের স্থায়ী মিশনের রাষ্ট্রদূত ও স্থায়ী প্রতিনিধি এম সুফিউর রহমান ইউপিআর ওয়ার্কিং গ্রুপের অধিবেশনে বক্তব্য দেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের ইউপিআরে ১১০টি দেশ আলোচনায় অংশ নিয়ে মতামত দিয়েছে। এছাড়া ১২টি দেশ আগ্রিম প্রশ্ন পাঠিয়ে পর্যালোচনায় সহযোগিতা করেছে। তিনি তাদের সবাইকে ধন্যবাদ জানান।

বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশ তার প্রতিবেদনে মানবাধিকারকে এগিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে  আইনি ও বিধিবিষয়ক অগ্রগতিগুলো তুলে ধরেছে। ইউপিআরের প্রতি বাংলাদেশের জোরালো অঙ্গীকার আছে। সব সুপারিশ পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে বাংলাদেশ এ বিষয়ে ইউপিআরকে জানাবে।

গুম থেকে রক্ষাবিষয়ক আন্তর্জাতিক সনদ এবং নিষ্ঠুর শাস্তির বিরুদ্ধে সনদবিষয়ক ঐচ্ছিক প্রটোকল স্বাক্ষর করতে বাংলাদেশকে সুপারিশ করেছে স্পেন।

স্লোভাকিয়া বাংলাদেশকে আগামী জানুয়ারিতে অনুষ্ঠেয় জাতীয় নির্বাচন স্বচ্ছ ও অবাধ করার সুপারিশ দিয়েছে।

বাংলাদেশে শান্তিপূর্ণভাবে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন নিশ্চিত করার মাধ্যমে বাংলাদেশিদের ভোট ও সরকার নির্বাচনের সামর্থ্যকে সুরক্ষা দেওয়ার সুপারিশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সদস্যের বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ তদন্ত, জবাবদিহি ও বিচার নিশ্চিত করারও সুপারিশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

অস্ট্রেলিয়া, ব্রাজিলসহ কয়েকটি দেশ বাংলাদেশে মৃত্যুদণ্ডের ব্যবস্থা বিলোপ করার সুপারিশ করেছে। নেদারল্যান্ডস লেসবিয়ান, গে, বাইসেক্সুয়াল, ট্রান্সজেন্ডার, কুইর, ইন্টারসেক্স ও অন্যদের (এলজিবিটিকিউআই প্লাস) জন্য দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারাসহ এ সম্পর্কিত অন্যান্য আইন বিলোপ করার সুপারিশ করেছে। দেশটি সাইবার নিরাপত্তা আইন সংশোধন করে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইনের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ করতেও সুপারিশ করেছে।

সুইজারল্যান্ড বাংলাদেশকে আশ্রয়প্রার্থী রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে না দেওয়ার নীতি অনুসরণ করার সুপারিশ করেছে।


আরও খবর
নবম দফায় ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ চলছে

রবিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২৩