আজঃ শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১
শিরোনাম

বাংলাদেশ থেকে কর্মী নিতে সার্বিয়াকে প্রস্তাব

প্রকাশিত:বুধবার ১৩ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৩ অক্টোবর ২০২১ | ৩৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাদেশ থেকে জনশক্তি নেওয়ার জন্য সার্বিয়াকে প্রস্তাব দিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। সার্বিয়ার প্রেসিডেন্ট আলেকজান্ডার ভুসিকের সঙ্গে এক বৈঠকে বাংলাদেশ থেকে বিভিন্ন খাতে দক্ষ-আধা দক্ষ কর্মী নেওয়ার এই অনুরোধ করেন তিনি।

আজ বুধবার (১৩ অক্টোবর) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায়।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বৈঠকে সার্বিয়ার প্রেসিডেন্ট করোনা মহামারির চ্যালেঞ্জ সত্ত্বেও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের উন্নয়ন যাত্রার ভূয়সী প্রশংসা করেন।

বৈঠকে ড. মোমেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং সাবেক যুগোস্লাভিয়ার প্রেসিডেন্ট জোসেপ ব্রোজ টিটোর মধ্যে ব্যক্তিগত বন্ধুত্বের কথা উল্লেখ করেন। বাংলাদেশ বর্তমানে শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করছে জানতে পেরে সার্বিয়ার প্রেসিডেন্ট উচ্ছ্বসিত হন।

সার্বিয়ার চলমান এবং উচ্চাভিলাষী উন্নয়ন কর্মসূচির জন্য বিশাল মানবসম্পদের প্রয়োজন বলে পর্যবেক্ষণ করে ড. মোমেন বাংলাদেশ থেকে আইটি পেশাজীবী, ইলেকট্রিশিয়ান, প্লাম্বার প্রভৃতি খাতে দক্ষ ও আধা-দক্ষ কর্মী নেওয়ার প্রস্তাব দেন। সার্বিয়ান প্রেসিডেন্ট তার প্রস্তাবকে উষ্ণভাবে স্বাগত জানান। বাংলাদেশ থেকে শ্রম ও জনশক্তি নেওয়ার ক্ষেত্রে সহযোগিতার জন্য একটি প্রাতিষ্ঠানিক প্রক্রিয়া তৈরির ওপর জোর দেন তিনি।

বৈঠকে রোহিঙ্গা সংকট তুলে ধরে ড. মোমেন বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের স্বেচ্ছায়, নিরাপদ ও টেকসই প্রত্যাবাসনের জন্য মিয়ানমার জান্তার ওপর চাপ সৃষ্টি করতে সার্বিয়ার মতো বন্ধুত্বপূর্ণ দেশের সমর্থন চান। সার্বিয়ার প্রেসিডেন্ট আলেকজান্ডার ভুসিক এ বিষয়ে বাংলাদেশের উদারতার প্রশংসা করেন।

বৈঠকে ড. মোমেন সার্বিয়ান প্রেসিডেন্টকে বাংলাদেশের প্রেসিডেন্টের পক্ষ থেকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান, যা তিনি গ্রহণ করেন। তিনি বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীকেও সার্বিয়া সফরের আমন্ত্রণ জানান।

উল্লেখ্য, পররাষ্ট্রমন্ত্রী বেলগ্রেডে জোট নিরপেক্ষ আন্দোলন-ন্যামের ৬০তম বার্ষিকী উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন। অনুষ্ঠানের ফাঁকে সার্বিয়ার প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি।


আরও খবর



হাতিয়ার স্বর্ণদ্বীপে ৪৫ জন রোহিঙ্গা আটক

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৫ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৫ অক্টোবর ২০২১ | ৫২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

এবার নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার স্বর্ণদ্বীপে ৪৫ জন রোহিঙ্গাকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতদের মধ্যে ১৫জন শিশু বাকী ৩৫জন নারী ও পুরুষ রয়েছে। তবে তাৎক্ষণিক আটককৃতদের নাম ঠিকানা জানাতে পারেনি জেলা পুলিশ প্রশাসন।

মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) সকালের দিকে তাদেরকে স্বর্ণদ্বীপে দেখে স্থানীয় এলাকাবাসী আটক করে পুলিশকে অবহিত করে।

নোয়াখালী জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মো.শহীদুল ইসলাম মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে ৪৫জন রোহিঙ্গাকে আটকের সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি আরো জানান, ৪৫ জন রোহিঙ্গা স্বর্ণদ্বীপে আটকে আছে মর্মে সংবাদ পাওয়া গেছে। তারা ভাসানচর রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে পালানোর জন্য বের হলে বোটের মাঝি কৌশলে তাদের সেখানে নামিয়ে দিয়ে চলে যায়। গত ২ দিন যাবৎ তারা না খেয়ে আছে মর্মে জানা যায়। আটক ৪৫ জন রোহিঙ্গাদের মধ্যে ১৫ জন শিশু বাকিরা নারী ও পুরুষ।

ভাসানচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.রফিকুল ইসলাম জানান, কোস্টগার্ড হাতিয়ার একদল সদস্য আটক রোহিঙ্গাদের স্বর্ণদীপ থেকে উদ্ধার করে নিয়ে আসার জন্য ঘটনাস্থলে গিয়েছে। তবে তারা এখনো আটক রোহিঙ্গাদের নিয়ে ভাসানচর এসে পৌঁছায়নি। তারা ফিরে এলে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে।


আরও খবর



এবার গেইলের রেকর্ডও ভাঙলেন বাবর আজম

প্রকাশিত:সোমবার ০৪ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ অক্টোবর ২০২১ | ৪৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সময়টা দুর্দান্ত যাচ্ছে পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজমের। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে দুই কিংবদন্তি বিরাট কোহলি ও গেইলকে ছাড়িয়ে গেলেন তিনি।

পাকিস্তানের জাতীয় টি-টোয়েন্টি কাপে বৃহস্পতিবার সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে ভারতের অধিনায়ককে পেছনে ফেলেছেন বাবর। টি-টোয়েন্টিতে ৩১৫ ম্যাচে অংশ নিয়ে কোহলির সেঞ্চুরি ৫টি। তার চেয়ে ১২১ ম্যাচ কম খেলে একটি সেঞ্চুরি বেশি করলেন বাবর।

সেই রেকর্ডের তিন দিনের মাথায় টি-টোয়েন্টির 'বস' ক্রিস গেইলের রেকর্ডও ভাঙলেন বাবর। সবচেয়ে কম ইনিংস খেলে টি-টোয়েন্টিতে সাত হাজার রানের রেকর্ড গড়লেন পাকিস্তানের অধিনায়ক।  

টি-টোয়েন্টি সংস্করণে ১৯২ ইনিংস খেলে ৭ হাজার রানের মাইলফলক ছুঁয়েছিলেন গেইল। আর তার থেকে ৫ ইনিংস কম খেলে এই মাইলফলক স্পর্শ করলেন বাবর। সেই অর্থে ক্যারিবীয় জায়ান্টকে ছাড়িয়ে ৭ হাজারে দ্রুততম এখন বাবর আজম।

২১২ ইনিংসে ৭ হাজার করেন কোহলি, এ মাইলফলক ছুঁতে ফিঞ্চ ও ডেভিড ওয়ার্নারের লেগেছে যথাক্রমে ২২২ ও ২২৩ ইনিংস।

 

নিউজ ট্যাগ: বাবর আজম

আরও খবর



নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন, নোয়াখালীতে সেই ধর্ষণ মামলার রায় আজ

প্রকাশিত:সোমবার ০৪ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ অক্টোবর ২০২১ | ৪৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন ও ধর্ষণের ঘটনায় দায়ের করা চাঞ্চল্যকর মামলার রায় আজ (সোমবার) ঘোষণা করবেন আদালত। আজ সোমবার (৩ অক্টোবর) সকালে নোয়াখালীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক জয়নাল আবেদীনের আদালতে চাঞ্চল্যকর এ মামলার রায় ঘোষণার কথা রয়েছে। রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলী মামুনুর রশীদ লাভলু এই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, গত বছরের ৬ অক্টোবর দায়ের করা মামলায় চলতি বছরের ১৭ ফেব্রুয়ারি দুই আসামি দেলোয়ার হোসেন দেলু ও তার সহযোগী মোহাম্মদ আলী ওরেফে আবুল কালামের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে আদালত। মাত্র ১৩ কার্যদিবসে বাদীপক্ষের ১২ জন ও আসামিপক্ষের তিনজনসহ মোট ১৫ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ করা হয়।

এর আগে, ২০২০ সালের ১৪ ডিসেম্বর ম্যাজিস্ট্রেট কোর্ট থেকে অভিযোগপত্র নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এ স্থানান্তর করা হয়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান জানান, ২০২০ সালে বেগমগঞ্জের একলাশপুর ইউনিয়নের জয়কৃষ্ণপুর গ্রামে স্থানীয় দেলোয়ার বাহিনী স্বামীকে গাছের সঙ্গে বেঁধে স্ত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এতে ব্যর্থ হয়ে গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে প্রহার করে। সেই দৃশ্য মোবাইল ফোনে ধারণ করেন অভিযুক্তরা। আহত ওই নারী চিকিৎসার পর সুস্থ হয়ে জেলা সদরে তার বোনের বাসায় পালিয়ে যান।

সেখানে গিয়েও অভিযুক্তরা তার কাছে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে তাদের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের প্রস্তাব দেন। গৃহবধূ এতে রাজি না হওয়ায় আগের ধারণ করা ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছেড়ে দেওয়া হয়।

৪ অক্টোবর সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনার পর সন্ত্রাসীদের ভয়ে পালিয়ে বেড়ানো ওই নারীকে উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় বেগমগঞ্জ মডেল থানায় ধর্ষণ, নির্যাতন ও পর্নোগ্রাফি আইনে তিনটি মামলা করেন নির্যাতিত নারী।



আরও খবর



বরিশালে সব পূজামণ্ডপে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের নির্দেশ

প্রকাশিত:বুধবার ০৬ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৬ অক্টোবর ২০২১ | ৩৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বরিশাল মহানগরের সব পূজামণ্ডপে নিরাপত্তায় সিসি ক্যামেরা স্থাপনের নির্দেশ দিয়েছেন বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান।

বুধবার দুপুরে বরিশাল পুলিশ লাইন্সের ড্রিল শেডে শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত সমন্বয় সভায় এ নির্দেশনা দেয়া হয়।

এ সময় তিনি বলেন, আসন্ন শারদীয় দুর্গাপূজা শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমুখর পরিবেশে উদযাপনের লক্ষ্যে বরিশাল মহানগর পুলিশের পক্ষ থেকে গ্রহণ করা হয়েছে প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ। বরিশাল মহানগরকে বিভিন্ন স্তরের নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেওয়াসহ সব আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সমন্বয়ে গ্রহণ করা হয়েছে শক্তিশালী নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা। তবে সবকিছু ছাপিয়ে আমাদের সব চাইতে শক্তিশালী অস্ত্র হলো বাঙালির হাজার বছরের লালিত ঐতিহ্য, 'অসাম্প্রদায়িক চেতনার সম্প্রীতি' যা আমাদের গর্বের বিষয়।

পুলিশ কমিশনার বলেন, পুলিশ, র্যা ব, বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা, কমিউনিটি পুলিশিং কমিটি, বিট পুলিশিং, বিভিন্ন শ্রেণি-পেশা ও ধর্মের লোকদের নিয়ে গঠিত অসম্প্রদায়িক কমিটি, স্বেচ্ছাসেবী দলসহ সংশ্লিষ্ট সবার সমন্বয়ে  উৎসবমুখর পরিবেশে আসন্ন শারদীয় দুর্গাপূজা উদযাপনের লক্ষ্যে আমাদের সবার পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। তাই যেকোনো বিষয়ে গুজবে কান না দিয়ে সরাসরি আমাদের অবহিত করুন। প্রয়োজনে ৯৯৯ কল করুন।

সহকারী পুলিশ কমিশনার (স্টাফ অফিসার) মোহাম্মদ ইব্রাহিমের সঞ্চালনায় পূজা উদযাপন সংক্রান্তে ঝুঁকি পর্যালোচনা, নিরাপত্তা পরিকল্পনা প্রণয়ন, ফোর্স মোতায়েন, ডিউটি স্থান, ডিউটি পোস্টের সংখ্যা, ফোর্সের সংখ্যা, পূজা উদযাপন কমিটির করণীয়-বর্জনীয়, বাংলাদেশ পূজা  উদযাপন পরিষদ কর্তৃক প্রদত্ত নির্দেশনা ও ট্রাফিক ব্যবস্থা নিয়ে উন্মুখ আলোচনা করা হয়। আলোচনাকালে বিভিন্ন পূজা উদযাপন কমিটির পক্ষ থেকে আগত সদস্যরা নানান বিষয় তুলে ধরেন।

নিউজ ট্যাগ: পূজামণ্ডপ

আরও খবর



ফ্রান্সে মেসির বিলাসবহুল হোটেলে ডাকাতি

প্রকাশিত:শনিবার ০২ অক্টোবর 2০২1 | হালনাগাদ:শনিবার ০২ অক্টোবর 2০২1 | ৭৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গত আগস্টে পরিবার নিয়ে প্যারিসে পাড়ি জমিয়েছেন লিওনেল মেসি। নতুন শহরে এখনও নিজেদের চাহিদামতো বাসা খুঁজে পাননি পিএসজি সুপারস্টার। তাঁর ক্লাব পিএসজি আপাতত তাঁকে বিলাসবহুল হোটেলেই রেখেছে। স্থায়ীভাবে বাসা না পাওয়া পর্যন্ত প্যারিসের হোটেল লে রয়্যাল মনসু হোটেলে থাকছেন মেসি ও তাঁর পরিবার। কিন্তু প্যারিসে মেসি অবস্থান করা ওই হোটেলেই ডাকাতি হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম মার্কার এক প্রতিবেদনে এমনটাই বলা হয়েছে।

দ্য সানের বরাত দিয়ে মার্কা জানিয়েছে, বুধবার রাতে মেসিরা হোটেলের যে অংশে থাকেন, তার ঠিক ওপরের তলায় ডাকাতি হয়। ডাকাতরা বেশ কয়েকটি কক্ষ ভেঙে লাখ টাকার অলংকার ও দামি জিনিসপত্র নিয়ে গেছে। পাঁচ তারকা সেই হোটেলের ছাদের দিকের একটি ব্যালকনির দরজা দিয়ে ঢুকেছে ডাকাতেরা। সবার মুখ মুখোশে ঢাকা ছিল। একজনের রুম থেকে ৫০ হাজার ইউরোর বেশি জিনিসপত্র নিয়ে গেছে। তবে মেসিদের রুমে কোনো সমস্যা হওয়ার কথা শোনা যায়নি। এই ঘটনার পর হোটেলটির চারপাশে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে।

দ্য মিরর জানিয়েছে, বর্তমানে লে রয়্যাল লে রয়্যাল মনসু হোটেলে মেসির পরিবারকে রাখতে প্রতি রাতে ১৭ হাজার পাউন্ড ভাড়া গুনছে পিএসজি। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় ২০ লাখ টাকার মতো।

প্রতি রাতে ২০ লাখ টাকা দেওয়ার মতোই হোটেলই লে রয়্যাল মনসু। প্যারিসের খুব বিখ্যাত হোটেল এটি। যেখানে বিখ্যাত ব্যক্তিরাও প্যারিস ভ্রমণে এলে থাকেন। সাবেক ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী উইনস্টন চার্চিল, ওয়াল্ট ডিজনি ও রবার্ট ডি নিরোসহ বহু বিখ্যাত মানুষ এই হোটেলে থেকেছেন। ২০১৭ সালে নেইমার পিএসজিতে যাওয়ার পর তাঁকেও এই হোটেলেই রাখা হয়েছে।

দ্য সান জানিয়েছে, পাঁচ তারকা এই হোটেলটিতে সুইমিং পুল, ব্যক্তিগত সিনেমা হল, ছয়টি রেস্তোরাঁসহ রয়েছে সব ধরনের সুযোগ সুবিধা। লিওনেল মেসি ওই হোটেলের বারান্দা থেকেই হাত নাড়িয়ে নতুন ভক্তদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।


আরও খবর