আজঃ শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১
শিরোনাম

বাংলাদেশেই যুদ্ধ বিমান তৈরি করতে চাই: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৬৬জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
আজ বাংলাদেশ বিমান বাহিনী দেশে ও দেশের বাইরে এক সম্মানজনক অবস্থায় উন্নীত হয়েছে। তাছাড়া আমরা যেহেতু জাতিসংঘ মিশনেও বাংলাদেশ ভূমিকা রাখছে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমাদের একটা আকাঙ্ক্ষা আছে, বাংলাদেশেই যুদ্ধ বিমান তৈরি করতে চাই। কাজেই এর ওপর গবেষণা করা এবং আমাদের আকাশসীমা আমরা নিজেরাও যেন রক্ষা করতে পারি সেভাবে প্রস্তুতি নিচ্ছি। দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষা ও প্রতিরক্ষার ক্ষেত্রে আরও ১০ ধাপ এগিয়ে নিতে কাজ করছি। এক্ষেত্রেও সফল হবো বলে বিশ্বাস করি।

আজ মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) বিমান বাহিনীর ১১ স্কোয়াড্রন ও ২১ স্কোয়াড্রনকে জাতীয় পতাকা প্রদান অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হন। এ সময় বিমান বাহিনী প্রধানসহ সরকারের পদস্থ কর্মকর্তা ও বিমান বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, দেশের বিমান বাহিনীর একটা গৌরবময় ইতিহাস রয়েছে। জাতির পিতার ডাকে সাড়া দিয়ে সাধারণ মানুষের সঙ্গে কাঁধ মিলিয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেয় বিমান বাহিনী। মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানের অসংখ্য লক্ষ্যবস্তুতে হামলা করেছে তারা। সেসময় সীমিত শক্তি নিয়েও তারা যে সাহসিকতার পরিচয় দিয়েছে, জাতি চিরদিন স্মরণ রাখবে।

বিমান বাহিনীর আধুনিকায়নে সরকারের বিভিন্ন কার্যক্রমের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণে উৎকর্ষ আনতে বিমান বাহিনী একাডেমির জন্য এই ঘাঁটিতে নির্মাণ করা হয়েছে আন্তর্জাতিক মানের বঙ্গবন্ধু কমপ্লেক্স। মহাকাশ গবেষণা, দেশের বিমান বাহিনী এবং বেসামরিক বিমানকে দ্রুত এগিয়ে নেওয়ার লক্ষ্যে আমরা প্রতিষ্ঠা করেছি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অ্যাভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারোস্পেস বিশ্ববিদ্যালয়। যেটা লালমনিরহাটে প্রতিষ্ঠা হবে।

ইতোমধ্যে তার কাজ আমরা শুরু করেছি। এসব কার্যক্রম বিমান বাহিনীর সক্ষমতা বহুলাংশে বাড়িয়েছে। আজ বাংলাদেশ বিমান বাহিনী দেশে ও দেশের বাইরে এক সম্মানজনক অবস্থায় উন্নীত হয়েছে। তাছাড়া আমরা যেহেতু জাতিসংঘ মিশনেও বাংলাদেশ ভূমিকা রাখছে। সেক্ষেত্রেও বিমান বাহিনীকেও আমরা উপযুক্ত করে গড়ে তুলছি। বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর এই বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে সঙ্গে আমরা অ্যারোনটিক্যাল সেন্টার নির্মাণ করছি। আর আমাদের একটা আকাঙ্ক্ষা আছে, বাংলাদেশেই আমরা আমাদের যুদ্ধ বিমান তৈরি করবো। দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষা করা এবং প্রতিরক্ষার ক্ষেত্রে আরও কয়েক ধাপ এগিয়ে যাওয়ার পদক্ষেপ আমরা নিয়েছি। ইনশাল্লাহ আমরা এ ব্যাপারে সাফল্য অর্জন করবো বলে বিশ্বাস করি।

জাতীয় পতাকা পাওয়া বিমান বাহিনীর সদস্যদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতীয় পতাকা পাওয়ার যোগ্যতা অর্জন করা গৌরব ও সম্মানের। এ পতাকার মান রক্ষা করা সবার দায়িত্ব।

Share



আর একদফা বাড়লো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৮০জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
গেল বছরের ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। কয়েক ধাপে বাড়ানোর পর আজ ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছুটি ছিল। এবার ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ছুটি বাড়নো হলো

বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। করোনা মহামারির কারণে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের (কওমি ছাড়া) চলমান ছুটি আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা এম এ খায়ের রবিবার সকালে এ তথ্য জানিয়েছেন।

গেল বছরের ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। কয়েক ধাপে বাড়ানোর পর আজ ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছুটি ছিল। এবার ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ছুটি বাড়নো হলো।

গত ২২ জানুয়ারি করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে গাইডলাইন প্রকাশ করে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর। এ গাইডলাইন অনুসরণ করে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার প্রস্তুতি নিতে বলা হয়। স্কুল-কলেজগুলোতে ৩৯ পাতার গাইডলাইন পাঠিয়ে বলা হয়, ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে স্কুলগুলো প্রস্তুত করে রাখতে।

Share

এইচএসসি মানোন্নয়নের ফল রবিবার

শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১




চরিত্রের জন্য পরিচালক আমাকে নর্তকী বানিয়েছে: অদিতি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১৩০জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বলিউডে প্রথম ছবি থেকেই সবার নজর কেড়েছেন অভিনেত্রী অদিতি রাও হায়দারি। দ্য গার্ল অন দ্য ট্রেন ছবিতে নিজের চরিত্র নুসরাতকে নিখুঁত রোদের মেয়ে বলে আখ্যায়িত করেছেন তিনি।

২০১৬ সালে পলা হকিন্সের উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত একই নামের মূল ছবির হিন্দি রিমেক অদিতির দ্য গার্ল অন দ্য ট্রেন। মূল ছবিতে মনস্তাত্ত্বিক থ্রিলার হ্যালি বেনেট মেগান চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন এমিলি ব্লান্ট। রিবু দাশগুপ্তের পরিচালনায় এই ছবির বলিউড সংস্করণে অদিতির পাশাপাশি মীরা চরিত্রে পর্দায় হাজির হবেন পরিণীতি চোপড়া।

মূল ছবিতে মেগান একটি রহস্যময়, আবেগগতভাবে বিরক্ত মেয়ে। বলিউড সংস্করণে নুসরাত তার থেকে কতটা আলাদা? নির্মাতা রিবু তার ছবিতে নুসরাতকে কেমন রূপে হাজির করবেন?

এ প্রসঙ্গে একটি সংবাদমাধ্যমকে অদিতি বলেন, নুসরাত চরিত্রটির পেছনের গল্পে অনেককিছু এনেছিলেন পরিচালক রিবু। দুটি বিপরীত চরিত্রকে (নুসরাত ও মীরা) তিনি যেভাবে উপস্থাপন করেছেন তা সত্যিই অসাধারণ।

তিনি আরো জানিয়েছেন, নুসরাত চরিত্রে নতুন সংযোজন তাকে বিশেষ করে তুলেছে। পরিচালক আমাকে নর্তকী বানিয়েছে। যেখানে সুখ-দুঃখ যাই হোক না কেন, তার নাচের মাধ্যমেই সেটি প্রকাশ পায়।

নাচ একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। সংগীত এবং নৃত্য, এই সূক্ষ্ম জিনিসগুলো একজন ব্যক্তির পক্ষে কতটা গুরুত্বপূর্ণ এবং এটি কিভাবে কোন ব্যক্তির মধ্যে বিশেষ কিছু নিয়ে আসে তা আমি জানি, যোগ করেন অদিতি।

মূল গল্প অনুসারে, দ্য গার্ল অন দ্য ট্রেন ছবির প্রতিটি চরিত্র স্তরযুক্ত। নুসরাত ও মীরা উভয় চরিত্রের অন্ধকার দিকগুলো প্রকাশ করে নির্মাতা যেভাবে গল্প বলেছেন তার ভূয়সী প্রশংসা করেছেন অদিতি।

Share

প্রথমবারের মতো একসঙ্গে আলিয়া-অজয়

শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১

খোলামেলা লুকে হাজির হলেন সোহিনী

শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১




সু চির বিরুদ্ধে আরেক মামলা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৭৫জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মিয়ানমারের গৃহবন্দি নেতা অং সান সু চির বিরুদ্ধে আরেকটি মামলা হয়েছে।  জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা আইনে এই মামলা হয়েছে বলে মঙ্গলবার জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি।

গত পহেলা ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী ক্ষমতাসীন নেতা অং সান সু চিকে গৃহবন্দি করে অভ্যুত্থান ঘটায়। এর কয়েক দিনের মাথায় সু চির বিরুদ্ধে আমদানি-রপ্তানি আইনে মামলা হয়। ওই মামলায় তাকে রিমান্ডের আবেদনও করা হয়েছিল।

সু চির আইনজীবী জানিয়েছেন, এনএলডির নেতার বিরুদ্ধে দ্বিতীয় মামলা হয়েছে। দেশের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা আইন লঙ্ঘনের অভিযোগে এই মামলা হয়েছে।

আইনজীবী খিন মং জ বলেন, তার বিরুদ্ধে আমদানি-রপ্তানি আইনের ৮ ধারা এবং প্রাকৃতিক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা আইনের ২৫ ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে।

তিনি জানান, সু চির সঙ্গে এখনও কোনো যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। পহেলা মার্চ বিচারের সময় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তাকে হাজির করা হতে পারে।

সেনা মুখপাত্র জ মিন তুন জানিয়েছেন, সু চি নিরাপদ স্থানে রয়েছেন এবং তার শারীরিক অবস্থাও ভালো।

Share

পশ্চিমবঙ্গে ভোট শুরু ২৭ মার্চ, হবে ৮ দফায়

শুক্রবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১

সৌদি বাদশাহর সঙ্গে যে কথা হল বাইডেনের

শুক্রবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১




ট্রাম্পের অভিশংসন প্রক্রিয়া চালানোর পক্ষে ভোট সিনেটের

প্রকাশিত:বুধবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৯৫জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসন প্রক্রিয়া শুরুর অনুমোদন দিয়েছে মার্কিন সিনেট। সিনেটে ৫৬-৪৪ ভোটে বিচার প্রক্রিয়া এগিয়ে নেওয়ার পক্ষে রায় আসে। গত ৬ জানুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাপিটলেভয়াবহ হামলার ঘটনায় সহিংসতায় উস্কানি দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে।

মঙ্গলবার (৯ ফেব্রুয়ারি) একটি ভিডিও প্রদর্শনের মাধ্যমে কার্যক্রম শুরু হয় এবং এ ভিডিওটি ছিল ট্রাম্পের ৬ জানুয়ারির বক্তৃতা এবং তার সমর্থকদের তাণ্ডবের দৃশ্য। ম্যারিল্যান্ড থেকে নির্বাচিত প্রতিনিধি জ্যামি রাসকিন বলেন, এটা বড় অপরাধ ও অসদাচরণ। এটা অভিশংসনযোগ্য অপরাধ না হলে আর কিছুই তা হতে পারে না।

তবে ৫৬-৪৪ ভোটের অর্থ হলো অন্তত ছয় জন রিপাবলিকান সিনেটর ট্রাম্পের বিচারের পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। এরপরও এটি প্রমাণ করে যে সিনেটে শাস্তি এড়াতে ট্রাম্পের যথেষ্ট সমর্থন আছে। কারণ বিচার করে শাস্তি দিতে হলে সিনেটের দুই তৃতীয়াংশ সদস্যের সমর্থন দরকার হবে। তবে শাস্তি পেলে  ট্রাম্প ভবিষ্যতে আর প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না।

এদিকে সিনেট কার্যক্রমের শুরুতে ডেমোক্র্যাটরা যুক্তি দেখান যে তাদের উদ্যোগ আইনসম্মত। এরপর দশ মিনিটের ভিডিওটি দেখানো হয় যেখানে ট্রাম্প তার সমর্থকদের জীবন বাজি রেখে লড়াইয়ের কথা বলেন। এরপরই ক্যাপিটলে হামলার ঘটনা ঘটে।

প্রতিটি পক্ষ এখন ১৬ ঘণ্টা করে সময় পাবে নিজেদের সপক্ষে যুক্তি তুলে ধরতে, যা শুরু হবে বুধবার দুপুর থেকে। এ যুক্তিতর্ক পুরো পর্যন্ত চলবে বলে ধারণা। এরপর সিনেটররা দুপক্ষকেই জেরা করার সুযোগ পাবেন।

তবে ডোনাল্ড ট্রাম্প এরই মধ্যে বলে দিয়েছেন, তিনি অভিশংসন শুনানিতে যোগ দেবেন না এবং কোনো বক্তব্যও দেবেন না। দুপক্ষের আইনপ্রণেতারাই বলেছেন, তারা দ্রুত এ প্রক্রিয়া শেষ করার পক্ষে।

সব মিলে যে ধরনের সময়সূচি দেখা যাচ্ছে, ধারণা করা যায়, ট্রাম্পকে দোষী সাব্যস্ত করা হবে কি হবে না, সে ব্যাপারে আগামী সোমবার নাগাদ একটা ভোটাভুটিতে যেতে পারে সিনেট।

Share

পশ্চিমবঙ্গে ভোট শুরু ২৭ মার্চ, হবে ৮ দফায়

শুক্রবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১

সৌদি বাদশাহর সঙ্গে যে কথা হল বাইডেনের

শুক্রবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১




জাটকা আহরণে বিরত জেলেদের জন্য ২৬ হাজার মে. টন চাল বরাদ্দ

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৮১জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জাটকা আহরণে বিরত থাকা জেলেদের জন্য মানবিক সহায়তা কর্মসূচির আওতায় ২০২০-২০২১ অর্থবছরে ২৬ হাজার ৩০৫.২০ মেট্রিক টন ভিজিএফ চাল বরাদ্দ করেছে সরকার। দেশের ২০ জেলার জাটকা সম্পৃক্ত ৯৮টি উপজেলায় ৩ লক্ষ ২৮ হাজার ৮১৫টি জেলে পরিবারকে খাদ্য সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এর আওতায় ১ম ধাপে ফেব্রুয়ারি-মার্চ দুই মাস প্রতিটি নিবন্ধিত ও কার্ডধারী জেলে পরিবারকে মাসে ৪০ কেজি হারে (২ মাসে ৮০ কেজি) চাল প্রদান করা হচ্ছে।

১৫ ফেব্রুয়ারি (সোমবার) মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকদের অনুকূলে এ সংক্রান্ত মঞ্জুরী প্রদান করেছে। ভিজিএফ চাল ২২ মার্চ ২০২১ তারিখের মধ্যে যথানিয়মে উত্তোলন ও সংশ্লিষ্টদের মাঝে বিতরণের জন্য জেলা প্রশাসকদের নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

বরাদ্দপ্রাপ্ত উপজেলাগুলো হলো ঢাকা জেলার দোহার ও নবাবগঞ্জ, মানিকগঞ্জ জেলার শিবালয়, দৌলতপুর ও হরিরামপুর, মুন্সিগঞ্জ জেলার সদর, শ্রীনগর, লৌহজং, টঙ্গিবাড়ী ও গজারিয়া, ফরিদপুর জেলার সদর, মধুখালী, সদরপুর ও চরভদ্রাসন, রাজবাড়ি জেলার সদর, পাংশা, কালুখালী ও গোয়ালন্দ, শরীয়তপুর জেলার জাজিরা, ভেদরগঞ্জ, নড়িয়া ও গোসাইরহাট, মাদারীপুর জেলার সদর, কালকিনি ও শিবচর, চট্টগ্রাম সদর, বাঁশখালী, সীতাকুন্ড, সন্দ্বীপ, আনোয়ারা ও মীরসরাই, ফেনী জেলার সোনাগাজী, নোয়াখালী জেলার সদর, হাতিয়া, সুবর্ণচর ও কোম্পানীগঞ্জ, লক্ষ্মীপুর জেলার সদর, রামগতি, রায়পুর ও কমলনগর, চাঁদপুর জেলার সদর, হাইমচর, মতলব উত্তর ও মতলব দক্ষিণ, বাগেরহাট জেলার সদর, মোংলা, মোড়েলগঞ্জ, কচুয়া, রামপাল, চিতলমারি, শরণখোলা ও ফকিরহাট, সিরাজগঞ্জ জেলার সদর, চৌহালি, বেলকুচি, কাজীপুর ও শাহজাদপুর, বরিশাল জেলার সদর, মেহেন্দিগঞ্জ, মুলাদী, হিজলা, বাবুগঞ্জ, বানারীপাড়া, উজিরপুর, গৌরনদী ও বাকেরগঞ্জ, পিরোজপুর জেলার সদর, মঠবাড়ীয়া, ভান্ডারিয়া, নেছারাবাদ, নাজিরপুর, ইন্দুরকানী ও কাউখালী, পটুয়াখালী জেলার সদর, কলাপাড়া, বাউফল, গলাচিপা, রাঙাবালি, মির্জাগঞ্জ, দশমিনা ও দুমকি, ভোলা জেলার সদর, বোরহানউদ্দিন, চরফ্যাশন, দৌলতখান, লালমোহন, তজুমদ্দিন ও মনপুরা, বরগুনা জেলার সদর, আমতলী, তালতলী, পাথরঘাটা, বামনা ও বেতাগী এবং ঝালকাঠি জেলার সদর,  কাঁঠালিয়া, নলছিটি ও রাজাপুর।

উল্লেখ্য, সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রতিবছর ০১ নভেম্বর থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত দেশব্যাপী জাটকা আহরণ, পরিবহন, মজুদ, বাজারজাতকরণ, ক্রয়-বিক্রয় ও বিনিময় সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। এর মধ্যে ফেব্রুয়ারি থেকে মে পর্যন্ত ০৪ (চার) মাস জাটকা আহরণে বিরত থাকা মৎস্যজীবীদের সরকার মানবিক সহায়তা প্রদান করে থাকে।

Share