আজঃ বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১
শিরোনাম
স্পেনের কারাগারে ম্যাকাফি অ্যান্টিভাইরাস আবিষ্কারকের ‘আত্মহত্যা’ আগস্টে মুক্তি পাচ্ছে চলচ্চিত্র ‘চিরঞ্জীব মুজিব’ গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহীতে আরও ১৮ জনের মৃত্যু ‘আ.লীগ হীরার টুকরা, যতবার কেটেছে নতুন করে জ্যোতি ছড়িয়েছে’ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার নামে মিথ্যাচারের প্রতিবাদে মানববন্ধন স্বাক্ষর জালিয়াতি ও তথ্য গোপন করায় ছাত্র ইউনিয়নের দুই শীর্ষ নেতা বহিষ্কার ইতিহাসে আওয়ামী লীগ, বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশ ও শেখ হাসিনা সমার্থক হয়ে থাকবে: : মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী পরীমনির মামলায় সেই নাসির-অমি ৫ দিনের রিমান্ডে ৯ দেশে ছড়িয়েছে ডেলটা প্লাস ধরন বিধিনিষেধের মধ্যেও শনাক্ত ও মৃত্যু বাড়ছে

বদলি জেল খাটা মিনুকে মুক্তির নির্দেশ দিলেন হাইকোর্ট

প্রকাশিত:সোমবার ০৭ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৭ জুন ২০২১ | ১০১জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
চট্টগ্রামের কোতোয়ালি থানার রহমতগঞ্জে একটি বাসায় ২০০৬ সালের জুলাই মাসে একটি বাসায় মোবাইল ফোনে কথা বলার ঘটনা কেন্দ্র করে গার্মেন্টসকর্মী কোহিনূর আক্তারকে গলা টিপে হত্যা করা হয়

হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি কুলসুম আক্তারের পরিবর্তে জেল খাটা মিনুর ঘটনাটি দেশের অন্যতম আলোচিত ঘটনা। যেটি ঘটেছে চট্টগ্রামে। এরপরই এক কারা কর্মকর্তা বিষয়টি আদালতের নজরে আনলে মিনুকে মুক্তির নির্দেশ দিলেন হাইকোর্ট।

সোমবার (৭ জুন) বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিম ও বিচারপতি মহি উদ্দিন শামীমের ভার্চ্যুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে মিনুর পক্ষে শুনানি করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মোহাম্মদ শিশির মনির। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ড. মো. বশির উল্লাহ।

একইসঙ্গে প্রকৃত আসামি কুলসুমকে গ্রেপ্তারে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। এছাড়া নিরপরাধ মিনুর জেল খাটার ঘটনায় ৩ আইনজীবী ও চট্টগ্রামের সংশ্লিষ্ট আদালতের এক ক্লার্ককে তলব করেছেন হাইকোর্ট।

ওই তিন আইনজীবী হলেন- চট্টগ্রাম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিশেষ পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট এম এ নাসের, অ্যাডভোকেট নুরুল আনোয়ার ও অ্যাডভোকেট বিবেকানন্দ চৌধুরী।

এর আগে ৩১ মার্চ এ ঘটনা উচ্চ আদালতের নজরে আনেন আইনজীবী মোহাম্মদ শিশির মনির। এরপর বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ আইনজীবীকে এফিডেভিট দাখিল করতে নির্দেশ দেন। এর মধ্যে ওই বেঞ্চের এখতিয়ার পরিবর্তন হওয়ায় বিষয়টি বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিমের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চে আসে।

গত ২৪ মার্চ মিনুর বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল বরাবর চট্টগ্রামের অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ চতুর্থ আদালতের বিচারক শরীফুল আলম ভূঁঞা উপ নথি পাঠিয়েছেন। একটি হত্যা মামলায় আদালত যাবজ্জীবন কারাদণ্ডসহ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ১ বছরের কারাদণ্ড দেন কুলসুম আক্তার কুলসুমীকে। আর আদালতে আত্মসমর্পণ করে জেল খাটছেন মিনু। বিষয়টি চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার মো. শফিকুল ইসলাম খান আদালতের নজরে আনেন।

গত ২২ মার্চ সকালে অতিরিক্ত চতুর্থ মহানগর দায়রা জজ শরীফুল আলম ভূঁঞার আদালতে পিডব্লিউ মূলে মিনুকে আদালতে হাজির করা হয়। পরে জবানবন্দি শুনে এ মামলার আপিল উচ্চ আদালতে বিচারাধীন থাকায় মিনুর উপ-নথি ২৩ মার্চ হাইকোর্টে পাঠানোর আদেশ দেন। ওইদিন অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউট (পিপি) মো. নোমান চৌধুরী গণমাধ্যমকে বলেন, আদালতে সংরক্ষিত ছবি সম্বলিত নথিপত্র দেখে কুলসুম আক্তার কুলসুমী আর মিনু এক নন বলে নিশ্চিত হয়েছেন আদালত। যেহেতু এরই মধ্যে এ মামলার রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করা হয়েছে, তাই মামলার উপ-নথি দ্রুত হাইকোর্টে পাঠানো হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট মামলায় মিনুর পক্ষে শুনানি করেছেন আইনজীবী গোলাম মাওলা মুরাদ।

উল্লেখ্য, চট্টগ্রামের কোতোয়ালি থানার রহমতগঞ্জে একটি বাসায় ২০০৬ সালের জুলাই মাসে একটি বাসায় মোবাইল ফোনে কথা বলার ঘটনা কেন্দ্র করে গার্মেন্টসকর্মী কোহিনূর আক্তারকে গলা টিপে হত্যা করা হয়। এরপর রহমতগঞ্জে একটি গাছের সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখা হয়। পারভিন আত্মহত্যা করেছেন বলে দাবি করেন গার্মেন্টসকর্মী কুলসুম আক্তার কুলসুমী। এরপর থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়। মামলায় পুলিশ দুই বছর তদন্ত শেষে হত্যা করা হয়েছে উল্লেখ করে প্রতিবেদন দিলে মামলাটি হত্যা মামলায় রূপান্তর করা হয়। এর মধ্যে ১ বছর ৩ মাস জেল খেটে জামিনে মুক্তি পান কুলসুম।

মামলার বিচার শেষে ২০১৭ সালের নভেম্বর তৎকালীন অতিরিক্ত চতুর্থ মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. নুরুল ইসলাম ওই হত্যা মামলায় আসামি কুলসুম আক্তার কুলসুমীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ১ বছরের কারাদণ্ডাদেশ দেন। সাজার পরোয়ানামূলে কুলসুম আক্তার কুলসুমীর বদলি মিনু গত ২০১৮ সালের ১২ জুন কারাগারে যান।

এদিকে গত ১৮ মার্চ চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার মো. শফিকুল ইসলাম খান নারী ওয়ার্ড পরিদর্শনকালে মিনু কোনো মামলার আসামি নন বলে জানতে পারেন। পরে বিষয়টি আদালতের নজরে আনা হয়। কারাগারের সংরক্ষিত হাজতি রেজিস্ট্রার অনুসারে- আসামি কুলসুম আক্তার গত ২০০৭ সালের ২৬ অক্টোবর কারাগারে আসেন। তিনি কারাগারে প্রায় ১ বছর ৩ মাস ছিলেন। চট্টগ্রামের অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ চতুর্থ আদালত ২০০৯ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি জামিন মঞ্জুর করেন। ওই দিন কারাগার থেকে মুক্তি পান কুলসুম আক্তার কুলসুমী।

জেলে থাকা মিনুর ভাই মো. রুবেল জানান, গত ২০১৮ সালের রমজান মাসে জাকাতের টাকা ও খাদ্যসামগ্রী দেবে বলে মিনু আপাকে ডেকে নিয়ে যান আমাদের পাশের মর্জিনা আক্তার নামে এক নারী। এরপর আমার বোন মিনু আক্তার আর বাড়িতে ফেরেননি। অনেক খোঁজাখুঁজি করেছিলাম তখন।


আরও খবর



শরীয়তপুরের ডামুড্যায় মুক্তিযোদ্ধাকে লাঞ্চিত করার প্রতিবাদে মানববন্ধন

প্রকাশিত:সোমবার ৩১ মে ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ৩১ মে ২০২১ | ১২৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শরীয়তপুর প্রতিনিধি:

শরীয়তপুরের ডামুড্যায় বীর মুক্তিযোদ্ধা খলিল বেপারীকে লাঞ্চিত করার প্রতিবাদে ওয়াসিম মাদবরের বিরুদ্ধে মানববন্ধন, মিছিল ও সমাবেশ করা হয়েছে।

জানা যায়, বুধবার(২৬ মে) সন্ধ্যার পর বীর মুক্তিযোদ্ধা খলিল বেপারী স্থানীয় সেলিম ফকিরের চায়ের দোকানে চা খেতে যায়। আগে থেকেই প্রস্তুত হয়ে থাকা ইসলামপুরের ওয়াসিম মাদবর গংরা খলিল বেপারীকে বেধড়ক মারধর করতে থাকে। মারধরের এক পর্যায়ে তাকে ভ্যান গাড়ির সাথে চেপে ধরে তার মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়। মারধরের সময় তাকে জুতা দিয়েও পেটানো হয় বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

এঘটনায় সোমবার(৩১ মে) সকাল ১১ টায় ডামুড্যা উপজেলা শহীদ মিনার চত্তরে উপজেলার সকল মুক্তিযোদ্ধার পরিবার, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে মানববন্ধন, মিছিল ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে। সমাবেশে বক্তারা ২৪ ঘন্টার মধ্যে মূল অপরাধীকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার দাবী জানান। যদি তাদের গ্রেফতার করতে প্রশাসন  ব্যর্থ হয়, তাহলে কঠিন থেকে কঠিনতর কর্মসূচি দেবেন বলে হুশিয়ারি দেন।

মানববন্ধনে শরীয়তপুর জেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমিটির সভাপতি, জেলা পরিষদের সদস্য, পূর্ব মাদারীপুর কলেজ ছাত্র সংসদের সাবেক ভিপি আবুল মনসুর আজাদ শামিম খান বলেন, গত কয়েক দিন আগে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান, দেশ মাতৃকার মাথার মুকুট বীর মুক্তিযোদ্ধা খলিল বেপারীকে রক্তাক্ত করে লাঞ্চিত করা হয়েছে। কিন্তু ৫ দিন অতিবাহিত হয়ে যাওয়ার পরও কোনো আসামি গ্রেফতার করা হয়নি। উল্টো আসামী পক্ষের লোকজন খলিল বেপারীকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করতেছে। প্রশাসনের ভূমিকায় আমরা হতাশ, আমরা শুধু বলব অতি দ্রুত আসামীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হোক।

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল বাতেন হাওলাদার, বীর মুক্তিযোদ্ধা আ. রব ফকির, বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক সরদার, বীর মুক্তিযোদ্ধা সালাহ উদ্দিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসমাঈল বেপারী, বীর মুক্তিযোদ্ধা হাসেম বেপারীসহ উপজেলার প্রায় সকল মুক্তিযোদ্ধা, তাদের পরিবার ও অঙ্গ-সংঠনসমূহ।


আরও খবর



ত্রিশালে বিএনপি’র পদবঞ্চিতদের ফের ঝাড়ু মিছিল

প্রকাশিত:বুধবার ১৬ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৬ জুন ২০২১ | ১১৩জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলা ও পৌর বিএনপির নতুন কমিটিতে সাবেক ত্যাগী নেতাদের কমিটির বাহিরে রাখায় উত্তেজনায় ফের ঝাড়ু মিছিল করেছে দলীয় নেতা কর্মীরা।

জানা যায়, গত ১৩ জুন ত্রিশাল উপজেলা ও পৌরসভা বিএনপির নতুন কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়। নতুন কমিটিতে অনেক প্রবীণ ও ত্যাগী নেতারা বাদ পড়লে ১৪ জুন ত্রিশালে ঝাড়ু মিছিল ও ডাঃ মাহবুবুর রহমানের কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়। এ নিয়ে সাংগঠনিক ভাবে কেন্দ্রীয় ভাবে কোন সাড়া না দিলে ১৬ জুন বিকেলে আবারো ত্রিশাল মহিলা ডিগ্রী কলেজ এলাকা হতে কয়েকশত নেতাকর্মী জড়ো করে ক্ষোভ প্রকাশ করে ঝাড়ু নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেন। মিছিলটি পৌরশহরের কয়েকটি রাস্তায়  প্রদক্ষিণ করে দরগা মহল্যা রাস্তার মাথা এসে শেষ করেন।

ঝাড়ু নিয়ে করা বিক্ষোভ মিছিলে নতুন কমিটি প্রত্যাহারের দাবী তুলে জেলা বিএনপি আহবায়ক ডাঃ মাহবুবুর রহমানকে ত্রিশাল ছাড়তে স্লোগান দেন।

কমিটির বাহিরে থাকা নেতারা বক্তব্যে বলেন, ডাঃ মাহবুবুর রহমান লিটন তার আদিপত্য ঠিক রাখতে ত্রিশাল বিএনপি প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকে করে আসা ত্যাগী নেতাদের কমিটির বাহিরে রেখে তার আনুগত্য দুর্বল কিছু লোক ও তার প্রতিষ্ঠানের কর্মরত লোক দিয়ে নতুন কমিটি অনুমোদন দিয়েছেন যা আগামী দিনে ত্রিশাল বিএনপির ধ্বংস করার মহাপরিকল্পনা ।

এ বিষয়ে থানা যুবদলের সাবেক বর্তমান নেতা ও ছাত্রদলের বর্তমান সাবেক নেতাদের সাথে কথা বললে তারা জানান, এই ডাঃ মাহবুবুর রহমান লিটন ত্রিশাল বিএনপিতে যুক্ত হওয়ার পর থেকেই তারেক জিয়ার নাম ভাঙ্গিয়ে ত্যাগী সিনিয়র নেতাদের ছাঁটাই করতে শুরু করেন। এ ছাঁটাইয়ে সাবেক এমপি, সাবেক উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাধারণ সম্পাদকসহ প্রভাবশালী নেতাদের পদ শূন্য করে দলের পক্ষে কথা বলতে বোবা বানিয়ে রাখছিলেন।

নেতারা আরো বলেন, ডাঃ লিটন বিভিন্ন সময় আন্দোলন সংগ্রামে মাঠে না থাকলেও দলের প্রভাবশালী নেতাদের দল থেকে ছিটকে ফেলতে সবসময় তৎপর  ছিলেন। দীর্ঘদিন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি  সরকারে না থাকায় সারাদেশে বিএনপির খারাপ সময় গেলেও এই মাহবুবুর রহমান লিটনের খুব উজ্জল সময় অতিক্রম করছেন। বিভিন্ন সময় ত্যাগী নেতারা মাঠে থাকলেও তার অস্তিত্ব খোঁজে পাওয়া যায়নি। নেতারা ক্ষোভ প্রকাশ করে আরো বলেন, যতদিন পর্যন্ত ত্রিশালে এই নতুন কমিটি প্রত্যাহার না হবে আর ত্যাগীরা কমিটিতে দায়িত্বে না আসবে ততদিন পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।

এই বিক্ষোভ মিছিলে অংশগ্রহণ করেন, থানা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শওকত হোসেন, থানা বিএনপি'র সাবেক সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম, থানা শ্রমিক দ‌লের সা‌বেক সভাপ‌তি শ‌ফিকুল ইসলাম শোভা, থানা যুবদ‌লের সা‌বেক সাংগঠ‌নিক সম্পাদক আবুল কালাম চাঁনু, থানা বিএন‌পির সা‌বেক সহ-প্রচার সম্পাদক ম‌হিউ‌দ্দিন খান, থানা ছাত্রদ‌লের সা‌বেক সহ সভাপ‌তি আবুল কালাম, সাংগঠ‌নিক সম্পাদক ওবায়দুল হক, জেলা ছাত্রদ‌লের সহ সভাপ‌তি হুমায়ুন কবীর, উপ‌জেলা স্বেচ্ছা‌সেবক দ‌লের যুগ্ম আহবায়ক রাজরুল ওয়াহ‌াব রাজু, ত্রিশাল ইউ‌নিয়ন ছাত্রদ‌লের সা‌বেক সভাপ‌তি মাহবুবুল আলম, উপ‌জেলা যুবদল নেতা ম‌রিরুজ্জামান ফ‌কির শুভ্র, মাহবুবুল আলম পল্টন, বা‌ছির মন্ডল, ইমরান হো‌সেন, সে‌লিম তরফদার, সাজ্জাত মন্ডল, মোরাদ, জাকা‌রিয়া, রাহাত প্রমুখ।


আরও খবর



গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে মৃত্যু আরো ৩৬৬০

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৮ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৮ মে ২০২১ | ১০৬জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মহামারি করোনা ভাইরাসে বর্তমানে সবচেয়ে বেশি ধুঁকতে থাকা দেশ ভারতে কিছুটা স্বস্তি দিচ্ছে প্রতিদিনের নতুন রোগী শনাক্তের হার। তবে সংখ্যার নিরিখে সেটা এখনো রয়ে গেছে দুই লাখের কাছাকাছি।

মৃত্যুর সংখ্যা গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৬৬০ জন। যা চার হাজারের নিচেই রয়েছে। শুক্রবার (২৮ মে) এ তথ্য জানায় ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া।

সংবাদ মাধ্যমটির তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ১ লাখ ৮৬ হাজার। যা গত ৪৪ দিনের মধ্যে সর্বনিম্ন।  মৃত্যু আরো ৩ হাজার ৬শ ৬০ জনের। সাপ্তাহিক ও প্রাত্যাহিক শনাক্তের হার গত চার দিন ধরে কমছে। একদিনে সুস্থ হয়েছে আড়াই লাখের বেশি মানুষ। গত ২৪ ঘণ্টায় পরীক্ষা করা হয়েছে ২০ লাখ ৭০ হাজার।

এ নিয়ে দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগী দাঁড়ালো ২ কোটি ৭৫ লাখ ৫৫ হাজার ৪৫৭ জনে। একই সময়ে মোট মৃত্যু ৩ লাখ ১৮ হাজার ৮৯৫ জনের।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



সিনেমা হলে মুক্তির অপেক্ষায় ‘কসাই’

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৩ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৩ জুন ২০২১ | ১১৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কসাই ছবির মাধ্যমে দর্শকের সামনে এসেছেন নতুন নায়িকা প্রিয়মনি। তার বিপরীতে রয়েছেন চিত্রনায়ক নিরব। তবে ছবিটি প্রেক্ষাগৃহে নয়। গেলো ঈদে একটি ওটিটি প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পায়।

এবার সিনেমা হলে মুক্তির অপেক্ষায় অনন্য মামুন পরিচালিত কসাই। কিন্তু ছবিটি সেন্সর বোর্ডে জমা দিলে কিছু দৃশ্য ও সংলাপে আপত্তি জানানো হয়।

জানা গেছে, গেলো ১৬ মার্চ সেন্সর বোর্ডের সদস্যরা ছবিটি দেখে সেগুলো সংশোধনের কথা বলেন।

সূত্রমতে জানা যায়, এরপর ছবিটি সংশোধন করে পুনরায় সেন্সর বোর্ডে জমা দেয়া হয়েছে। বর্তমানে ছবিটি পর্যবেক্ষণে রয়েছে। যদিও এর প্রদর্শনের তারিখ এখনো ঠিক হয়নি। তবে আগামী সপ্তাহে ছবিটি দেখবে সেন্সর বোর্ড।

নিউজ ট্যাগ: নায়িকা প্রিয়মনি

আরও খবর



লোক হাসাতে হাসাতে আজ একা ঘরে হাউহাউ করে কাঁদছি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২২ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২২ জুন ২০২১ | ৮৩জন দেখেছেন
এস এম মনির

Image

গত কয়েক দিন ধরেই পশ্চিমবঙ্গের জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতা কাঞ্চন মল্লিকের দাম্পত্য জীবন নিয়ে খবরের শিরোনাম হচ্ছে। সেই ঝামেলা শেষ পর্যন্ত থানায় গিয়ে গড়ায়।

শনিবার রাতে নিউ আলিপুর থানায় কাঞ্চনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন স্ত্রী পিঙ্কি ব্যানার্জি। স্বামীর বান্ধবী শ্রীময়ী চট্টরাজের বিরুদ্ধেও অভিযোগ করেন তিনি। এর পর দিনই স্ত্রীর নামে পাল্টা অভিযোগ করেন কাঞ্চন।

দুজনের পাল্টাপাল্টি অভিযোগের পর সদ্য বিজয়ী তৃণমূল বিধায়ক কাঞ্চন ঘটনার বিস্তারিত জানাতে আনন্দবাজারে কলাম লেখেন।

সেখানে স্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুলে অভিনেতা বলেন, অন্যকে মিথ্যে দোষারোপ করতে গিয়ে নিজেই প্রকৃত সত্য সামনে এনে ফেললেন পিঙ্কি। তিনি নিজে প্রেমে পড়েছেন। অর্থাৎ পরকীয়া করছেন। সেই জন্যেই কি তার পরিণত দুজন মানুষের পরকীয়ায় আপত্তি নেই? নাকি সেই জায়গা থেকে ছাড় পেতে আমাকে শ্রীময়ী চট্টরাজের সঙ্গে জড়িয়ে দিলেন? যার সঙ্গে আমার পরকীয়া দূরঅস্ত কাজের বাইরে কোনো সম্বন্ধই নেই! এই প্রশ্ন কেউ করেছেন তাকে?

জানতে চেয়েছেন, পিঙ্কির প্রশাসনিক মহলে কতজন বন্ধু রয়েছেন? কেউ জিজ্ঞাসা করবেন না। কারণ কোনো নারী এ ধরনের অভিযোগ তুললে সমাজ তার পক্ষে।

কাঞ্চন বলেন, পুরুষদেরও কান্না পায়, কে বুঝবে? তার ওপর সে যদি হয় লোক হাসানো কাঞ্চন মল্লিক! লোক হাসাতে হাসাতে আজ একা ঘরে হাউহাউ করে কাঁদছি। কেউ দেখার নেই! আজ মনে হচ্ছে ভাগ্যিস শ্রীময়ী আর আমার আপ্ত সহায়ককে শনিবার সঙ্গে নিয়ে গিয়েছিলাম। একা কথা বলতে গেলে বোধহয় আমার বিরুদ্ধে ৪৯৮-এ মামলা করত পিঙ্কি।

তৃণমূল বিধায়ক কাঞ্চন আরও বলেন, গণমাধ্যমে মুখ খোলার পরই ফোনের বন্যা। রাতারাতি কলঙ্কিত নায়ক আমি। রাস্তায় বেরোতে পারছি না। লোকের সঙ্গে মাথা তুলে কথা বলতে পারছি না। সবার বিস্মিত দৃষ্টি যেন তীরের মতো বিঁধছে। মাথা হেট নিজের দলের কাছে। কী উত্তর দেব মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে? তারা আমায় ভরসা করে একটি কেন্দ্রের বিধায়ক পদে প্রার্থী করেছেন। দলের কাছে, নেত্রীর কাছে এভাবে ছোট করার মানে কী?

তিনি বলেন, বিধায়ক পদে জেতার পর মিষ্টি নিয়ে শ্বশুরবাড়ি গিয়েছিলাম। পরের দিন গণমাধ্যমের কাছে পিঙ্কির আক্ষেপ, জাত অভিনেতার অপমৃত্যু হলো! আমার জয়ে তার এ মন্তব্য?

এর পরই কিন্তু একাধিক দাবি-দাওয়ার ঝুলি খুলে বসে আমার স্ত্রী। প্রতি মাসে সাড়ে তিন লাখ টাকা দিতে হবে তাকে। চাকরিও দিতে হবে ছেলের আয়ার ভাইকে! এত দাবি মেটানো আমার পক্ষে সম্ভব? বিধায়ক হলেও আদতে আমি তো ছা-পোষা অভিনেতা। আমার সঙ্গে যখন জি বাংলায় শো করতে গেল তখনও ক্যামেরার সামনে কি নিখুঁত সুখী দম্পতির অভিনয় করল!


আরও খবর