আজঃ শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪
শিরোনাম

বেগুনি-হলুদ রঙিন ফুলকপি চাষে সফল ঈশ্বরদীর শফিকুল

প্রকাশিত:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি

Image

ঈশ্বরদীতে পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ সবজি বেগুনী ও হলুদ ফুলকপির বাণিজ্যিকভাবে চাষ করছেন এক কৃষক। উপজেলার দাশুড়িয়া ইউনিয়নের নওদাপাড়া গ্রামের কৃষক মো. শফিকুল ইসলাম বেগুনী ও হলুদ ফুলকপির চাষ করে বাম্পার ফলনে লাভবান হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন। অন্যান্য ফুলকপির মতোই এ বেগুনী ও হলুদ জাতের ফুলকপির চাষ পদ্ধতি এবং খরচও কম।

নওদাপাড়া গ্রামে রঙিন ফুলকপি দেখতে ও কিনতে আসেন একই গ্রামের আঃ সালাম, আলামিন, মুক্তা এবং মনিকা। তারা বলেন, প্রথমবার এমন বাহারি রঙের বেগুনী ও হলুদ ফুলকপি দেখলাম। শফিকুল ভাইয়ের কাছ থেকে হলুদ ও বেগুনি রঙের ফুলকপি কিনলাম। বাহারি রঙের ফুলকপি দেখতেও বেশ ভালো লাগছে। খেয়েছি, এটা খুবই সুস্বাদু। শফিকুল ভাই এটা আবাদ করে লাভবান হয়েছে। আগামী বছর আমরাও এই রঙিন ফুলকপির চাষ করবো।

কৃষক শফিকুল ইসলাম জানান,  প্রতি বছর সাদা ফুলকপি চাষ করলেও এবার ১০ কাঠা জমিতে বেগুনি ও হলুদ ফুলকপির চাষ করেছি। জাগরণী চক্র ফাউন্ডেশন (এনজিও) এর সদস্য হওয়ায় এই রঙিন ফুলকপির বীজ পাঁচ হাজার টাকায় ১০ গ্রাম প্রদান করেন কর্তৃপক্ষ। প্রথমে মনে করেছিলাম হয়তো এই আবাদে লাভ আসবে না। কিন্তু যখন ক্ষেতে এই রঙিন কপি ভরে যায় তখন লাভের আসায় মনটা ভরে যায়।  বর্তমান বাজারে অন্য কপির চেয়ে বেগুনী ও হলুদ ফুলকপির চাহিদা বেশি, প্রতি পিস বেগুনী ও হলুদ রঙের ফুলকপি বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা। ১০ কাঠা জমি থেকে ৬৫ থেকে ৭০ হাজার টাকার কপি বিক্রি হবে আশা করি।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, আমার এই কপি চাষে উপজেলা কৃষি অফিস থেকে কোন পরামর্শ বা সহযোগিতা পাইনি। এমনকি ইউনিয়নে যে উপ-সহকারী কর্মকর্তা থাকেন তিনিও কখনও খোঁজ খবর নেননি। সহযোগিতা পেলে হয়তো আরো বেশি পরিমাণ জমিতে কপি চাষ করতে পারতাম, আরোও লাভবান হতাম।

ঈশ্বরদী উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মিতা সরকার জানান, উপজেলায় ৯৫০ হেক্টর জমিতে ফুলকপি চাষ হয়েছে। রঙিন ফুলকপি খুব কম পরিমাণ চাষ হয়েছে। তিনি বলেন, ফুলকপি চাষে কৃষকদের আমি তো তেমন সুযোগ সুবিধা দিতে পারি নাই, শুধু টেকনোলজিক্যাল সাপোর্ট আমার এসও সাহেবরা যেটুকু দিতে পারছে সেটুকই। এছাড়া অর্থনৈতিক সাপোর্ট আমি দিতে পারি নাই। আমার যে সকল প্রদশনী ছিল সেগুলোতে আমি আমার প্রকল্প থেকে যে সাপোর্টা সেটা পুরোপুরিই দিয়েছি। ফুলকপির প্রদশর্নী কয়েকটি ছিল।


আরও খবর



মধ্যপ্রদেশের হারদায় বাজি কারখানায় বিস্ফোরণ, নিহত ৬

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ভারতের মধ্যপ্রদেশের হারদায় একটি বাজি কারখানায় বিস্ফোরণে অন্তত ছয়জন নিহত হয়েছেন, আহত হয়েছেন আরও ৬০ জন। এরমধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির এক প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা যায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিস্ফোরণের তীব্রতায় কেঁপে উঠেছে আশপাশের এলাকা। এখনো আগুন নিয়ন্ত্রণে আসেনি। চেষ্টা করতে যোগ দিয়েছে অতিরিক্ত ফায়ার ইঞ্জিন।

প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী মোহন যাদব পরিস্থিতি নিয়ে কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলছেন, তিনি জানিয়েছেন, ভোপাল ও ইন্দোরের হাসপাতালগুলোতে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। আগুনে পুড়ে যাওয়া রোগীদের চিকিৎসার জন্য প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে চিকিৎসকদের।

ঘটনাস্থলের এক ভিডিওতে দেখা গেছে, বিস্ফোরনের পর কারখানা থেকে লেলিহান শিখা বের হচ্ছে। পাশের রাস্তার সবাই আতঙ্কে ছোটাছুটি করছে।

দ্রুত সেখানে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণের কাজ শুরু করেন দমকলকর্মীরা। ন্যাশনাল ডিজ্যাস্টার রিসপন্স ফোর্সও সেখানে যোগ দিচ্ছে বলে জানিয়েছেন জেলা কর্মকর্তা ঋষি গার্গ।

আগুনের লেলিহান থেকে বেঁচে ফেরা একজন কর্মী জানান, ঘটনার সময় অন্তত ১৫০ কর্মী সেখানে আটকা পড়েছেন।


আরও খবর



বাংলাদেশ সফরে আসছেন বিশ্বব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

ঝটিকা সফরে বাংলাদেশ সফরে আসছেন বিশ্বব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক অ্যানা বেজার্ড। বাংলাদেশে এটিই তার প্রথম সরকারি সফর। একদিনের সফরে তিনি আজ শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যার পর ঢাকায় পৌঁছাবেন বলে জানিয়েছে বিশ্বব্যাংকের ঢাকা অফিস।

বিশ্বব্যাংকের ঢাকা অফিস জানায়, অ্যানা বেজার্ড বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী এবং অন্যান্য ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তা, সুশীল সমাজ এবং বেসরকারি খাতের নেতাদের সঙ্গে দেখা করবেন। তার সঙ্গে থাকবেন দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের বিশ্বব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট মার্টিন রাইসার।

সংস্থাটি আরও জানায়, স্বাধীনতার পর বাংলাদেশকে সহায়তাকারী প্রথম উন্নয়ন সহযোগীদের মধ্যে বিশ্বব্যাংক ছিল অন্যতম। দেশ স্বাধীনের পর বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশে ৪১ বিলিয়নের বেশি প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। এই ঋণের বেশিরভাগই অনুদান বা রেয়াতি ঋণ। বাংলাদেশে বর্তমানে বিশ্বব্যাংক গ্রুপের ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট অ্যাসোসিয়েশন (আইডিএ) দ্বারা সমর্থিত বৃহত্তম চলমান কর্মসূচি রয়েছে।


আরও খবর
শপথ নিলেন নতুন ৭ প্রতিমন্ত্রী

শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪




৯ মার্চ জাতীয় পার্টির কাউন্সিল ঘোষণা করলেন রওশন

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

জাতীয় পার্টির একাংশের চেয়ারম্যান রওশন এরশাদ আগামী ৯ মার্চ কাউন্সিলের ঘোষণা দিয়েছেন। রোববার (১৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে গুলশানের বাস ভবনে সংবাদ সম্মেলনে রওশন এরশাদ এ ঘোষণা দেন।

তিনি বলেন, আমাদের প্রিয় সংগঠন জাতীয় পার্টি এখন চরম বিপর্যয়ের মধ্যে পড়েছে। এই অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য এবং পার্টিকে আবার সুসংগঠিত করার লক্ষ্যে নেতাকর্মীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে আমি পার্টির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব গ্রহণ করে আগামী ৯ মার্চ দশম জাতীয় কাউন্সিল আয়োজনের ঘোষণা দিচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, সর্বস্তরের অসংখ্য নেতাকর্মী আমার পাশে দাঁড়িয়েছেন। আমরা সবাই মিলে সুন্দর একটি জাতীয় সম্মেলন উপহার দিয়ে জাতীয় পার্টিতে আবার প্রাণ শক্তি ফিরিয়ে আনতে চাই।

রওশন বলেন, একটি রাজনৈতিক দলে গণতন্ত্র চর্চার প্রধান ক্ষেত্র হচ্ছে, সময়মতো পার্টির জাতীয় সম্মেলন। জাতীয় পার্টির সম্মেলন আয়োজনের মেয়াদ অনেক আগেই শেষ হয়ে গেছে। এখন আমরা জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠানের যে ঘোষণা দিয়েছি সেই সম্মেলন সফলভাবে সম্পন্ন করার জন্য আমি একটি সম্মেলন বাস্তবায়ন কমিটি গঠন করেছি। 

আরও পড়ুন>> গাজায় যা ঘটছে তা গণহত্যা, আনাদোলুকে প্রধানমন্ত্রী

তিনি আরও বলেন, আগামী ৯ মার্চ অনুষ্ঠিতব্য জাতীয় পার্টির দশম জাতীয় সম্মেলন সম্পন্ন হওয়া পর্যন্ত জাতীয় পার্টির সম্মেলন বাস্তবায়ন কমিটিতে আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন কাজী ফিরোজ রশীদ, কো-আহ্বায়ক থাকবেন সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, যুগ্ম-আহ্বায়ক থাকবেন গোলাম সরোয়ার মিলন, সদস্য সচিব থাকবেন রফিকুল ইসলাম সেন্টু এবং কোষাধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন অ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা।


আরও খবর



আবু ধাবিতে মন্দির উদ্বোধন করবেন নরেন্দ্র মোদি

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সংযুক্ত আরব আমিরাতের (ইউএই) রাজধানী আবু ধাবিতে একটি বিশাল হিন্দু মন্দির উদ্বোধন করবেন।

আবু ধাবির বিএপিএস হিন্দু মন্দিরটি সংযুক্ত আরব আমিরাত সরকার কর্তৃক দান করা ২৭ একর জায়গা জুড়ে নির্মাণ করা হয়েছে।

২০১৮ সালে মোদির সংযুক্ত আরব আমিরাত সফরের সময় এটি নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছিল ভারত সরকার।

বিশ্লেষকরা বলছেন, দুই মাসের মধ্যে ভারতে হতে যাওয়া সাধারণ নির্বাচনের আগে মোদির এই মন্দিরের উদ্বোধন বিজেপি সরকারের হিন্দু জাতীয়তাবাদী অ্যাজেন্ডা বৃদ্ধি করবে।

উত্তর ভারতীয় শহর অযোধ্যায় হিন্দু দেবতা রামের একটি বিশাল মন্দির উদ্বোধন করার কয়েক সপ্তাহ পরেই নতুন এই মন্দিরটি উদ্বোধন করা হচ্ছে।

দেবতা রামের মন্দিরটি ১৯৯২ সালে হিন্দু জনতার ভেঙে ফেলা ১৬ শতকের বাবরি মসজিদের জায়গার উপর নির্মাণ করা হয়েছে। মসজিদটি ভাঙায় দাঙ্গা শুরু হয়েছিল এবং এতে প্রায় ২ হাজার মানুষ নিহত হয়েছিল।

আবু ধাবির মন্দিরটি বিএপিএস স্বামীনারায়ণ সংস্থা দ্বারা পরিচালিত হয়। সংস্থাটি নিজেকে 'আধ্যাত্মিক, স্বেচ্ছাসেবক দ্বারা পরিচালিত সংঘ' বলে দাবি করে। এটির লক্ষ্য হল 'বিশ্বাস, সেবা এবং বৈশ্বিক সম্প্রীতির হিন্দু মূল্যবোধকে লালন করা।'

সংস্থাটির সদর দফতর নরেন্দ্র মোদির নিজ রাজ্য গুজরাটে।

আরব আমিরাতে কয়েক দশক ধরেই মন্দির থাকলেও বলা হচ্ছে, এটিই প্রথম মন্দির যেটি ঐতিহ্যবাহী কৌশল ব্যবহার করে নির্মাণ করা হয়েছে।

মন্দিরটি রাজস্থানের গোলাপি বেলেপাথর এবং সাদা ইতালীয় মার্বেল দিয়ে তৈরি করা হয়েছে। মন্দিরটি ভারতে খোদাই করে দুবাইতে এনে যুক্ত করা হয়েছে।

ভারত এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের মধ্যে ভালো সম্পর্ক রয়েছে এবং ৮৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যে যুক্ত আছে।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের সব থেকে বেশী প্রবাসী ভারতীয় এবং দেশটিতে হাজার হাজার হিন্দু বসবাস করে।

বিশ্ব নেতাদের ফোরাম ওয়ার্ল্ড গভার্নমেন্টস সামিটে অংশ নিতে নরেন্দ্র মোদি বর্তমানে সংযুক্ত আরব আমিরাতে অবস্থান করছেন।

সফরের প্রথম দিন মঙ্গলবারে (১৩ ফেব্রুয়ারি) তিনি সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাষ্ট্রপতির সাথে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করেন।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, দুই দেশ একটি দ্বিপাক্ষিক বিনিয়োগ চুক্তি এবং একটি বড় অর্থনৈতিক অংশীদারিত্ব চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছে।

চুক্তিগুলো দুই দেশের মধ্যে সুরক্ষা, বাণিজ্য এবং আধুনিক অবকাঠামোগত উন্নয়নে পারস্পরিক সহযোগিতা বাড়ানোর উদ্দেশ্যে করা হয়েছে।

মোদি আবু ধাবিতে ভারতীয় সম্প্রদায়ের এক সমাবেশে ভাষণ দিয়েছেন। সেখানে তিনি মন্দিরের জন্য জমি বরাদ্দ দেওয়ায় সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাষ্ট্রপতিকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।


আরও খবর



পোশাক কারখানায় ছাঁটাই বন্ধ ও কারখানাভিত্তিক রেশন চালুর দাবি

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২4 | হালনাগাদ:শুক্রবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২4 | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের নেতারা সারা দেশে রপ্তানিমুখী তৈরি পোশাক কারখানার শ্রমিকদের বিরুদ্ধে অব্যাহত ছাঁটাই-বরখাস্ত, গ্রেড কারচুপি, টার্গেটের নামে ফাও খাটানোসহ সকল হয়রানি, নির্যাতন অবিলম্বে বন্ধ এবং রেশনিং ব্যবস্থা চালুর দাবি জানিয়েছেন।

শুক্রবার (০২ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে কেন্দ্রীয় শ্রমিক সমাবেশে এসব দাবি জানান সংগঠনের নেতারা। গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সভাপতি শ্রমিকনেতা মন্টু ঘোষের সভাপতিত্বে এবং সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ শাহাজাহানের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন গার্মেন্ট টিইউসির উপদেষ্টা আবদুল্লাহ ক্বাফী রতন, সাধারণ সম্পাদক সাদেকুর রহমান শামীম, সহসভাপতি জলি তালুকদার, কেন্দ্রীয় নেতা দুলাল সাহা, আব্দুস সালাম বাবুল, বাবুল হোসেন ও মাসুদ রানা প্রমুখ।

এ সময় শ্রমিকনেতারা মজুরি আন্দোলনে কারাবন্দি শ্রমিক ও নেতৃবৃন্দের মুক্তি এবং আন্দোলনে নিহত ৪ শ্রমিকের আজীবন আয়ের সমপরিমাণ ক্ষতিপূরণ প্রদান, হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচারের দাবি জানান।

সমাবেশে শ্রমিকনেতা মন্টু ঘোষ বলেন, শ্রমিকদের দাবি ও বর্তমান বাজার পরিস্থিতি অনুসারে মজুরি বৃদ্ধি করা হয়নি। উপরন্তু যে যৎসামান্য মজুরি বৃদ্ধি হয়েছে তা থেকেও নানা অপকৌশলে শ্রমিকদের বঞ্চিত করা হচ্ছে। উল্লেখযোগ্য সংখ্যক কারখনার শ্রমিকরা অভিযোগ করেছেন, তাদের পূর্বের গ্রেড থেকে পদাবনতি ঘটানো হয়েছে। একাধিক কারখানায় শ্রম আইন লঙ্ঘন করে আন্দোলনে অংশগ্রহণকারী কমিটির নির্বাচিত সদস্যদের বরখাস্ত করা হয়েছে। নতুন মজুরি কাঠামো থেকে বঞ্চিত করতে ছাঁটাই-বরখাস্তের শিকার শ্রমিকদের নামে মিথ্যা তারিখ দিয়ে নোটিশ জারি করা হয়েছে। তিনি এসব অত্যাচার বন্ধের দাবি জানিয়ে দ্রুত সময়ের মধ্যে কারখানাভিত্তিক রেশন চালু করার দাবি জানান।

উপদেষ্টা আবদুল্লাহ ক্বাফী রতন বলেন, বর্তমানে দেশ লুটেরাদের স্বার্থে পরিচালিত হচ্ছে। দেশের ৯৫ ভাগ শ্রমিক মেহনতি মানুষ লুটপাট ও অর্থ পাচারের নির্মম পরিণতি ভোগ করছে। এই পরিস্থিতিতে শ্রমিকশ্রেণির রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল করাই মুক্তির পথ। দেশে শ্রম মন্ত্রণালয় থাকলেও সেটা শ্রমিকদের স্বার্থে কাজ না করে মালিকের স্বার্থ রক্ষা করে চলেছে। নামে শ্রম মন্ত্রণালয় হলেও প্রকৃত অর্থে তা মালিক মন্ত্রণালয়ে পরিণত হয়েছে।

সাধারণ সম্পাদক সাদেকুর রহমান শামীম বলেন, শ্রম মন্ত্রণালয়ের দুটি দপ্তর, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর ও শ্রম অধিদপ্তর এ সব অনিয়ম ও আইন লঙ্ঘনের ঘটনায় তাদের দায়িত্ব পালন করছে না। একদিকে মজুরি বোর্ড খুবই অপর্যাপ্ত মজুরি নির্ধারণ করেছে, অন্যদিকে মালিকপক্ষ নানাভাবে শ্রমিকদের হয়রানি ও নির্যাতন করছে। অবিলম্বে এই অবস্থার প্রতিকার না করলে শ্রমিকরা কঠোর অবস্থান গ্রহণে বাধ্য হবে।

সহসভাপতি জলি তালুকদার বলেন, টঙ্গী বিসিক শিল্প নগরীতে ডিসেম্বর ২০২৩-এর প্রথম সপ্তাহে প্যাট্রিয়ট ইকো অ্যাপারেল লি. কারখানার অংশগ্রহণকারী কমিটির দুজন নির্বাচিত সদস্যকে বেআইনিভাবে বরখাস্ত করা হয়। যা বাংলাদেশ শ্রম আইনের ধারা ২০৫(১০) ও ধারা ১৯৫ লঙ্ঘনের কারণে শাস্তিযোগ্য অপরাধ। অথচ দীর্ঘদিন পূর্বে অভিযোগ গ্রহণ করেও অদ্যবধি শ্রম মন্ত্রণালয়ের দুই অধিদপ্তর কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি।


আরও খবর
শপথ নিলেন নতুন ৭ প্রতিমন্ত্রী

শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪