আজঃ সোমবার ০৮ মার্চ ২০২১
শিরোনাম

বগুড়া-ঢাকা মহাসড়কে বাস-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ৬

প্রকাশিত:রবিবার ২১ ফেব্রুয়ারী 20২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২১ ফেব্রুয়ারী 20২১ | ১৩৪জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বগুড়ার শেরপুরে বাস-ট্রাকের সংঘর্ষে ৬ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন কমপক্ষে আরও ১০ জন।

আজ রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) ভোর ৫টার দিকে বগুড়া-ঢাকা মহাসড়কে শেরপুর পৌর শহরে কলেজ রোড এলাকায় দুর্ঘটনাটি ঘটে।

দুর্ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আহতদের উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

শেরপুর হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ বানিউল আনাম বলেন, দুর্ঘটনার পর মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে। পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক আনা হলে পুনরায় যানবাহন চলাচল শুরু হয়।

Share

আরও খবর
বগুড়ায় বাস-সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ৪

শুক্রবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১




‘পৌরসভা নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে অনুষ্ঠিত হচ্ছে’

প্রকাশিত:সোমবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১২৯জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা বলেছেন, কেশবপুর পৌরসভা নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে সম্পন্ন করা হবে। নির্বাচনের পরিবেশ অত্যন্ত ভালো। কোন ঝুঁকি নেই। ইভিএমে ভোট প্রদানে ভোটারদের কোনো অসুবিধা হবে না। বিকেল ৫টা পর্যন্ত ভোটারদের ভোট প্রদান সম্পপন্ন না হলে লাইনে যারা থাকবেন তারা ভোট অধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন।

যশোরের কেশবপুর পৌরসভা নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পপন্ন করার লক্ষে সোমবার দুপুরে উপজেলা পরিষদের মিলনায়তনে ভোট গ্রহণ কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা এসব কথা বলেন।

যশোর জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে ভোট গ্রহণ কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) এর প্রকল্প পরিচালক ব্রিগ্রেডিয়ার আবুল কাশেম, যশোরের পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার, বিভাগীয় নির্বাচন কর্মকর্তা ইউনুচ আলী, যশোর জেলা নির্বাচন অফিসার হুমায়ূন কবির ও কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এম এম আরাফাত হোসেন।

উপজেলা নির্বাচন অফিসার বজলুর রশিদ জানান, আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি কেশবপুর পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কেশবপুর পৌরসভার ভোটার সংখ্যা ২০ হাজার সাতশ ২৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার দশ হাজার একশ ৮৫ জন ও নারী ভোটার দশ হাজার পাঁচশ ৪০ জন। পঞ্চম ধাপের এ নির্বাচনে ইভিএমের মাধ্যমে ভোট গ্রহণ সম্পপন্ন করা হবে।

Share

আরও খবর
ঢাবিতে ভর্তির আবেদন শুরু

সোমবার ০৮ মার্চ ২০২১




রোহিঙ্গাদের রাখতে চায় না ভারত

প্রকাশিত:সোমবার ০১ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০১ মার্চ ২০২১ | ১০২জন দেখেছেন
Share

Image

আন্দামান সাগর থেকে উদ্ধার করা ৮১ রোহিঙ্গাকে ভূখণ্ডে ঢুকতে দেবে না ভারত। তাদের কোস্টগার্ডের তত্ত্বাবধানে রাখা হয়েছে।

ইঞ্জিন বিকল হওয়ায় কয়েকদিন ধরে সাগরে বেসে বেড়াচ্ছিল রোহিঙ্গাদের বহনকারী নৌকাটি। ভারতীয় কোস্ট গার্ডের দুটি জাহাজ তাদের উদ্ধার করেছে। তবে নৌকার আট যাত্রী মারা গেছেন। একজন নিখোঁজ।

ভারতের সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তার বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মালয়েশিয়া যেতে আগ্রহী ওই রোহিঙ্গাদের নিয়ে একটি নৌকা গত ১১ ফেব্রুয়ারি কক্সবাজার থেকে রওনা হয়েছিল। তাদের সেই নৌকাটি বিকল হয়ে যায়। সেটি মেরামত করে বা অন্য একটি নৌযানে করে তাদের বাংলাদেশে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।

গত সপ্তাহে জাতিসংঘ ওই রোহিঙ্গাদের উদ্ধার করতে এই অঞ্চলের সরকারগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছিল। 

এর প্রতিক্রিয়ায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন সাংবাদিকদের বলেছেন, রোহিঙ্গাদের জন্য বাংলাদেশ যথেষ্ট করেছে। এবার অন্য দেশগুলো তাদের দায়িত্ব নিক।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব জানিয়েছেন, ভারত ওই রোহিঙ্গাদের দেশে রাখতে চায় না। বাংলাদেশে ফেরত পাঠাতে চায়। 

তিনি জানিয়েছেন, 'নৌকার ৪৭ জন যাত্রীর কাছে ইউনাইটেড নেশন, হাই কমিশনার ফর রিফিউজিস (ইউএনএইচসিআর)-এর পরিচয়পত্র ছিল। তাতে লেখা, তারা মিয়ানমার থেকে ছিন্নমূল হয়ে বাংলাদেশে এসেছেন। বাংলাদেশের সঙ্গে এ ব্যাপারে কথা চলছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ তার আন্তর্জাতিক দায়দ্ধতার প্রতি পূর্ণ শ্রদ্ধাশীল। এর আগে অন্য দেশের সুমদ্রসীমায় যখন রোহিঙ্গারা অসহায় অবস্থায় ভাসছিল, তখন বাংলাদেশ সরকার অন্য দেশের সুমদ্রসীমানা থেকে তাদের উদ্ধার করেছিল।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, সমুদ্রবিষয়ক জাতিসংঘের আইন অনুযায়ী, যে দেশের সমুদ্রসীমায় এ ধরনের জাহাজ ভাসমানভাবে অবস্থান করবে, সেটি উদ্ধার করার দায়িত্ব ওই দেশের। ওই দেশগুলোর উচিত তাদের যে আন্তর্জাতিক দায়বদ্ধতা আছে, সেটি যেন তারা পূরণ করে।

 

Share

আরও খবর



করোনা : দেশে ২৪ ঘণ্টায় নতুন শনাক্ত ৪১০

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৮৯জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন ৫ জনকে নিয়ে এ পর্যন্ত করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন মোট ৮ হাজার ৩৮৪ জন। এই সময়ে নতুন ৪১০ জনকে নিয়ে দেশে এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন মোট ৫ লাখ ৪৪ হাজার ৯৫৪ জন

মহামারি করোনাভাইরাসে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন আরও ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এই সময়ে প্রাণঘাতী ভাইরাসটিতে নতুন আক্রান্ত হয়েছেন আরও ৪১০ জন। বৃহস্পতিবার বিকালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এক বিজ্ঞপ্তিতে দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতির সর্বশেষ এ তথ্য জানিয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন ৫ জনকে নিয়ে এ পর্যন্ত করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন মোট ৮ হাজার ৩৮৪ জন। এই সময়ে নতুন ৪১০ জনকে নিয়ে দেশে এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন মোট ৫ লাখ ৪৪ হাজার ৯৫৪ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও ৯৫৭ জন রোগী সুস্থ হয়েছেন। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত মোট ৪ লাখ ৯৪ হাজার ৯৫৫ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়ে উঠলেন। দেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল গত ৮ মার্চ। এর ১০ দিনের মাথায় ১৮ মার্চ প্রথম মৃত্যুর খবর আসে।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস
Share

আরও খবর



বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১১ কোটি ৬৬ লাখ

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৬ মার্চ ২০২১ | ৭০জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির সংখ্যা কোনোভাবেই কমছে না। সবশেষ করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১১ কোটি ৬৬ লাখ ৫৯ হাজার ৭৯০ জন। আর এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৫ লাখ ৯১ হাজার ২৯৫ জনে। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছে ৯ কোটি ২২ লাখ ৭৩ হাজার ৬০৮ জন। করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটার থেকে এই তথ্য জানা যায়।

ওয়ার্ল্ডওমিটারের সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে ৫ লাখ ৩৫ হাজার ৫৬৩ জন এখন পর্যন্ত মারা গেছেন। বিশ্বে সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যাও এই দেশটিতে। এই পর্যন্ত ২ কোটি ৯৫ লাখ ৯৩ হাজার ৭০৪ জন এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের পর মৃত্যু বিবেচনায় করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ হচ্ছে ব্রাজিল। লাতিন আমেরিকার দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ১ কোটি ৮ লাখ ৭১ হাজার ৮৪৩ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ৬২ হাজার ৯৪৮ জনের। তবে মৃত্যু বিবেচনায় মেক্সিকোর অবস্থান তৃতীয়।

আক্রান্তের দিক থেকে দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসা ভারত মৃত্যু বিবেচনায় আছে চতুর্থ অবস্থানে। এ পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ১১ লাখ ৯১ হাজার ৮৬৪ জন। আর মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৫৭ হাজার ৬৯৩ জনের।

দেশে করোনাভাইরাসের আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। এখন পর্যন্ত মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮ হাজার ৪৪১ জনে। এছাড়াও এখন পর্যন্ত দেশে মোট শনাক্তের সংখ্যা ৫ লাখ ৪৯ হাজার ১৮৪ জন।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীন থেকে সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর বিশ্বব্যাপী ছড়িয়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। গত বছরের ১১ মার্চ করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

Share

আরও খবর



‘বাঙালির সকল বিজয়ের প্রাণপুরুষ বঙ্গবন্ধু’

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৩৫৮জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এমপি বলেছেন, বাঙালির সকল বিজয়ের প্রাণপুরুষ বঙ্গবন্ধু। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সুপরিকল্পিতভাবে ভাষার লড়াই থেকে শুরু করে ক্রমান্বয়ে স্বাধীনতার আন্দোলন ও সংগ্রামে গোটা জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করেছিলেন। এভাবেই তিনি গণতান্ত্রিক উপায়ে পরাধীনতার শৃঙ্খল থেকে বাঙালি জাতিকে মুক্ত করেছিলেন।

মঙ্গলবার (০৯ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর বেইলী রোডের নিজ বাসভবন থেকে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ আয়োজিত ভাষা থেকে স্বাধীকার শীর্ষক সেমিনারে ভার্চুয়ালি সংযুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফের সভাপতিত্বে সেমিনারে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজেদুর রহমান ফারুকসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ বক্তব্য প্রদান করেন।

এসময় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী বলেন, বাংলা ভাষার বয়স হাজার বছরের ঊর্ধ্বে হলেও বাংলা ভাষাভাষীদের জাতীয়তাবোধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ করে বাঙালি জাতীয়তাবাদ প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন বঙ্গবন্ধু। তাঁর নেতৃত্বেই ১৯৪৮ সালের ৪ জানুয়ারি ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা হয়। এরপর ১৯৪৯ সালে প্রতিষ্ঠিত আওয়ামী লীগের মূল নেতৃত্বে আসীন হয়ে বঙ্গবন্ধুই ভাষা আন্দোলনের অন্যতম সংগঠক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন। দেশের সর্বত্র বাঙালি জাতীয়তাবাদের চেতনায় বাংলাদেশের মানুষদের উদ্বুদ্ধ ও সুসংগঠিত করেছিলেন।

সেমিনারে শ ম রেজাউল করিম আরো বলেন, ভাষা আন্দোলনে বঙ্গবন্ধু কারাগারে থেকে এবং কারাগার থেকে মুক্তির পরও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করার মধ্য দিয়ে বাঙালিদের ক্রমান্বয়ে অধিকার আদায়ের সংগ্রামে এগিয়ে নিয়ে যান। ৫৪র যুক্তফ্রন্ট নির্বাচনের বিজয়, ৬২র শিক্ষা কমিশন আন্দোলন, ৬৬র ছয় দফা দাবী উত্থাপন, ৬৮র আইয়ুববিরোধী আন্দোলন ও ৬৯র গণঅভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে গোটা বাঙালি জাতিকে চূড়ান্তভাবে স্বাধীনতার মন্ত্রে উজ্জীবিত করে তোলেন বঙ্গবন্ধু। তাঁরই নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ বাঙালি জাতি ১৯৭০ সালের নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয় অর্জন করে এবং ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে দেশকে স্বাধীন করে। তাই বাঙালির সকল অধিকার আদায়ের সংগ্রামে আর বিজয়ে তিনিই প্রাণপুরুষ।

Share

আরও খবর
ঢাবিতে ভর্তির আবেদন শুরু

সোমবার ০৮ মার্চ ২০২১