আজঃ বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১
শিরোনাম

বিদ্যুৎস্পৃষ্ঠ হয়ে ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্টের মৃত্যু

প্রকাশিত:বুধবার ০২ জুন 2০২1 | হালনাগাদ:বুধবার ০২ জুন 2০২1 | ১৯৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গাইবান্ধায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ঠ হয়ে ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট ফয়সাল মামুনের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (১ জুন) দিবাগত রাত প্রায় ১টার দিকে শহরের পুরাতন জেলখানার সামনে ট্রাফিক পুলিশের ব্যারাকের নির্মানাধীন ভবনে এই ঘটনা ঘটে।

বুধবার (২ জুন) সকালে গাইবান্ধা ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন ম্যানেজার বখতিয়ার উদ্দিন ঘটনার সত‌্যতা নিশ্চিত করেছেন। ফয়সাল মামুনের গ্রামের বাড়ি দিনাজপুর জেলায়।

বখতিয়ার উদ্দিন জানান,শহরের পুরাতন জেলখানার সামনে রাস্তার পাশে ট্রাফিক পুলিশের ব্যারাকের নির্মান কাজ চলছিলো। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে মোবাইল ফোন হাতে নিয়ে সার্জেন্ট ফয়সাল মামুন কথা বলতে বলতে তিন তলায় ছাদে উঠে যান। এসময় হঠাৎ করে তিনি পাশ দিয়ে যাওয়া একটি বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়ে পড়েন।

হাই ভোল্টের তারে জড়ানোর সঙ্গে সঙ্গেই তার শরীরে আগুন ধরে যায়। এসময় তিনি চিৎকার দিয়ে পরে যান এবং তার একটি হাতের অংশ ছিড়ে মাটিতে পড়ে য়ায়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের একটি দল তিন তলা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করেন এবং হাসপাতালে পাঠান।

গাইবান্ধার পুলিশ সুপার তৌহিদুল ইসলাম সহ পুলিশের অন্যান্য কর্মকর্তা  ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। বুধবার সকালে তার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য গাইবান্ধা জেলা হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।



আরও খবর



গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশহীতে আরও ১০ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:শনিবার ১৯ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৯ জুন ২০২১ | ৬৬জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (রামেক) গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ও করোনার উপসর্গ নিয়ে ১০ জন মারা গেছেন। শুক্রবার (১৮ জুন) সকাল ৮টা থেকে শনিবার (১৯ জুন) সকাল ৮টার মধ্যে হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে তাদের মৃত্যু হয়। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, যে ১০ জন মারা গিয়েছেন তাদের মধ্যে তিনজন করোনায়, ছয়জন করোনার উপসর্গ নিয়ে এবং একজন করোনামুক্ত হয়ে মারা গেছেন। এরমধ্যে রাজশাহীর ৫ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৫ জন। করোনা সংক্রমণ ও উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে এসেছিলেন তারা।

শামীম ইয়াজদানী জানান, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের দুই ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা পরীক্ষা হয়েছে ৩৭৬ জনের আর করোনা শনাক্ত হয়েছে ১১৩ জনের। পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ৩০.০৫ শতাংশ।

এদিকে জেলা প্রশাসনের ঘোষণা অনুযায়ী আজ ৯ম দিনের মতো চলছে রাজশাহী মহানগরীতে সর্বাত্মক লকডাউন। এ সর্বাত্মক লকডাউন দ্বিতীয় দফায় ২৪ তারিখ মধ্যরাত পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। এর আগে প্রথম দফায় ১৭ জুন মধ্যরাত পর্যন্ত লকডাউন ছিলো।

সর্বাত্মক লকডাউন পরিস্থিতি সবসময় অবলোকন করছেন প্রশাসন। কিন্তু রাজশাহী নগরীর মানুষ লকডাউন মানলেও আর্থিক প্রতিষ্ঠান অর্থাৎ ব্যাংক-বীমা, কাঁচাবাজার খোলা রাখা ও আম পরিবহন ও বিপণনের জন্য বেশ কিছু মানুষকে বিভিন্ন সময়ে বাইরে চলাচল করতে দেখা যাচ্ছে।


আরও খবর



ইউপি নির্বাচন শান্তিপূর্ণ হয়েছে : ইসি সচিব

প্রকাশিত:সোমবার ২১ জুন 20২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২১ জুন 20২১ | ৫১জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দু-একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া সোমবার (২১ জুন) ২০৪টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন শান্তিপূর্ণ হয়েছে বলে দাবি করেছেন নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সচিব হুমায়ুন কবীর। একই দিনে লক্ষ্মীপুর-২ আসনের উপ-নির্বাচন এবং ঝালকাঠি ও সেতাবগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনও শান্তিপূর্ণ হয়েছে বলে দাবি করেছেন তিনি।

সোমবার (২১ জুন) বিকেলে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ দাবি করে ইসি সচিব।

তিনি জানান, ভোলার চরফ্যাশন উপজেলায় একটি ভোট কেন্দ্রের বাইরে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছেন। বরিশালের গৌরনদীতে জাল ভোট দেওয়ার অভিযোগে একজনকে গ্রেপ্তার করাকে কেন্দ্র করে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে আরেক ব‌্যক্তি নিহত হয়েছেন।

ইসি সচিব বলেন, নির্বাচন কমিশন সারা দেশে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করেছে। বিভিন্ন মিডিয়ায় যেসব খবর প্রচারিত হয়েছে, তার ওপর ভিত্তি করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সচিব বলেন, কয়েকটি জায়গায় বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে হয়েছে। দুই জায়গায় দুজন নিহত হয়েছেন। তবে, কোনো মৃত্যুই কাম্য নয়।

দুজন নিহতের ঘটনায় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে সচিব বলেন, বিভিন্ন প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় দুজন নিহত হয়েছে। তারা এ বিষয়ে আইনি ব্যবস্থা নেবে। তদন্ত হলে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে।

আগে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানানোর পরও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি, এমন অভিযোগের জবাবে ইসি সচিব বলেন, যেসব অভিযোগ আমাদের কাছে এসেছে, আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি। আমরা গণমাধ্যমের সংবাদ দেখেও অনেক জায়গায় ব্যবস্থা নিয়েছি।

স্থগিত হওয়া নির্বাচন কবে হতে পারে, এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এ মুহূর্তে এটা বলা যাবে না। কমিশন সভা হলে তখন জানা যাবে। নির্বাচন কমিশন পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত নেবে।

ভবিষ্যতে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এড়াতে কী ব্যবস্থা নেবেন, জানতে চাইলে হুমায়ুন কবীর বলেন, আমরা প্রতিটি কেন্দ্রে যথেষ্ট সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করেছি। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভালো ছিল। ভবিষ্যতে যাতে এ ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা না ঘটে, কমিশন সে বিষয় পর্যালোচনা করবে।


আরও খবর



শেষকৃত্যে গিয়ে মদপান, ৮ নারীসহ ১০ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৪ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৪ জুন ২০২১ | ১১২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কম্বোডিয়ায় এক শেষকৃত্যানুষ্ঠানে স্থানীয়ভাবে তৈরি করা চোলাই মদপান করে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতদের মধ্যে অন্তত ৮ জনই নারী। বৃহস্পতিবার দেশটির উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ পুরসাতের ক্রাকর জেলায় এ ঘটনা ঘটেছে বলে বার্তা সংস্থা সিনহুয়া নেট জানিয়েছে।

পুলিশ বলছে, ওই মদে উচ্চ মাত্রায় মিথানলের উপস্থিত ছিল বলে তারা সন্দেহ করছে।

ক্রাকর জেলার পুলিশ প্রধান কর্নেল এম রান বলেছেন, তাদের একজন প্রতিবেশীর শেষকৃত্যানুষ্ঠানে গিয়ে চোলাই মদপান করেন।

সিনহুয়াকে টেলিফোনে তিনি বলেন, এ ঘটনায় আট নারী ও দুই পুরুষসহ ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। আরও বেশ কয়েকজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ভুক্তভোগীদের চোখ জ্বালাপোড়া, বুক ব্যথা, শ্বাসকষ্ট, মাথা ঘোরানো, মাথা ব্যথা ও ক্লান্তির মতো লক্ষণ ছিল।

এম রান বলেন, ওই বিষাক্ত মদের নমুনা পরীক্ষার জন্য রাজধানী নমপেমের একটি ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। রেজাল্ট এখনও আসেনি। এদিকে এই মদ তৈরির ঘটনায় এক দম্পতিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আপাতত জেলায় চোলাই মদ বিক্রি বন্ধের পরামর্শ দেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

পুরসাত প্রদেশের স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচালক খোয় দি মদপানে মৃত্যুর ঘটনা নিশ্চিত করেছেন। তবে তিনি বিস্তারিত কিছু জানাননি। দামে কম হওয়ায় কম্বোডিয়ার গ্রামাঞ্চলে চোলাই মদ খুব জনপ্রিয়।


আরও খবর
করোনার ডেল্টা প্লাসে প্রথম মৃত্যু

বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১




বান্দরবানে ডায়রিয়ায় ৭ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:সোমবার ১৪ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৪ জুন ২০২১ | ৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বান্দরবানের আলীকদম উপজেলার করুকপাতা ইউনিয়নে তিনটি পাড়ায় ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে সাতজনের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল রবিবার ও আজ সোমবার এ দুদিনে এ মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। আজ ঘটনাস্থলে দুটি মেডিকেল টিম পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে।

মৃতরা হলেন মেনলিও ইয়ংচা পাড়ার বাসিন্দা রামধন ম্রো, খাইচাং ম্রো, থুংলাক ম্রো, সোনাদি পাড়ার জনরুন ত্রিপুরা এবং মাংলুম পাড়ার মাংধন ম্রো, রেংচং ম্রো, চিংরে ম্রো।

স্বাস্থ্য বিভাগ ও স্থানীয়রা জানায়, জেলার আলীকদম উপজেলার করুকপাতা ইউনিয়নের দুর্গম যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ম্রো জনগোষ্ঠী অধ্যুষিত ইয়ংচা পাড়া, মেনলিও পাড়া, সোনাদি পাড়া, মেনরুং পাড়া, কচ্ছপিয়া পাড়া, আলিশ্যাপা পড়া, রুইথং পাড়া, তংরিং পাড়া এবং মাংলুম পাড়াসহ পার্শ্ববর্তী ১০টি পাহাড়ি গ্রামে ডায়রিয়ার প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। বিশুদ্ধ খাবার পানির সংকট এবং প্রচণ্ড গরমে প্রায় এক সপ্তাহেরও অধিক সময় ধরে ছড়িয়েপড়া ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছে শিশু, কিশোর ও বয়স্ক দুশতাধিকের বেশি।

অসুস্থদের মধ্যে আলীকদম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে সাতজনকে। গতকাল রোববার এবং আজ সোমবার দুদিনে পাড়াগুলোতে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে সাতজনের মৃত্যু হয়েছে।

করুকপাতা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ক্রাতপু ম্রো বলেন, তিনটি পাড়ায় ডায়রিয়ায় এরই মধ্যে সাতজনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া ডায়রিয়া প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়া ইউনিয়নের ১০টি পাড়ায় আক্রান্ত হয়েছে দুশতাধিকেরও বেশি মানুষ।

ক্রাতপু ম্রো বলেন, ডায়রিয়া ছড়িয়ে পড়ার খবরে গতকাল রোববার এবং আজ ঘটনাস্থলে ছুটে গেছেন স্বাস্থ্য বিভাগের দুটি মেডিকেল টিম। এছাড়াও সেনাবাহিনীর দুটি মেডিকেল টিমও ঘটনাস্থলে গেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। সেনাবাহিনীর সদস্যরা হেলিকপ্টারে মেডিকেল টিমের কাছে প্রয়োজনীয় জরুরি ওষুধ, পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট এবং খাবার স্যালাইন পাঠিয়েছি আক্রান্ত এলাকাগুলোতে।

পার্বত্য জেলা পরিষদ বান্দরবানের সদস্য ম্রো গবেষক সিইয়ং ম্রো জানান, ম্রো জনগোষ্ঠী অধ্যুষিত করুকপাতা ইউনিয়নে প্রচণ্ড গরম এবং বৃষ্টিতে ছড়া-খালের দূষিত হওয়া পানি ব্যবহারের ফলে ব্যাপকভাবে ডায়রিয়া ছড়িয়ে পড়েছে। ডায়রিয়ায় এরই মধ্যে সাতজনের মৃত্যুর খবর পেয়েছি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ঘটনাস্থলে স্বাস্থ্য বিভাগ এবং সেনাবাহিনীর একাধিক মেডিকেল টিম পৌঁছেছে।


আরও খবর



আমরা মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতের দিগন্ত সম্প্রসারিত করছি : রেজাউল করিম

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৭ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৭ জুন ২০২১ | ৩০২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
আমরা মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতের দিগন্ত সম্প্রসারিত করছি। এসব কার্যক্রম বাস্তবায়নে মাঠ প্রশাসনের সহযোগিতা একান্তভাবে প্রয়োজন

দেশের মানুষের পুষ্টি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে মাঠ প্রশাসনের ভূমিকা আরো জোরদার করার আহ্বান জানিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) দুপুরে রাজধানীর সচিবালয়ে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে বিভাগীয় কমিশনারদের অংশগ্রহণে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সমন্বয় সভায় মন্ত্রী এ আহ্বান জানান।

এসময় মন্ত্রী বলেন, দেশের মানুষের পুষ্টি নিরাপত্তায় আবশ্যিকভাবে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতের উন্নয়ন করতে হবে। এ খাতের উন্নয়নে সরকার বহুমুখী প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। মাছ, মাংস ও দুগ্ধজাতীয় পণ্যের বহুমুখীকরণে আমরা কাজ করছি। এভাবে আমরা মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতের দিগন্ত সম্প্রসারিত করছি। এসব কার্যক্রম বাস্তবায়নে মাঠ প্রশাসনের সহযোগিতা একান্তভাবে প্রয়োজন।  

করোনার প্রতিকূল পরিস্থিতিতে দেশের মানুষকে বাঁচিয়ে রাখা, তাদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা, কর্মযজ্ঞ যাতে থেমে না যায় সেটা দেখা, অর্থনীতি যাতে স্থবির হয়ে না যায় সেটাকে গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করা, বেকারত্ব যাতে দীর্ঘস্থায়ী না হয় সেজন্য তাদের উদ্যোক্তায় পরিণত করা, সাময়িক বেকারদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা-এসব কিছু নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার কাজ করছে।-যোগ করেন মন্ত্রী।

প্রজাতন্ত্রের কাজের গতি মাঠ পর্যায়ে স্তিমিত রাখার সুযোগ নেই উল্লেখ করে মন্ত্রী আরো যোগ করেন, গতানুগতিক কর্মকান্ডের বাইরে প্রজাতন্ত্রের কর্মকর্তারা এখন অনেক দায়িত্ব পালন করছেন। সৃজনশীল কাজ করছেন। তাদের ফলপ্রসূ চিন্তা-চেতনা আরো সম্প্রসারিত হচ্ছে। এটি আজ সরকারকে সহায়তা করছে। কীভাবে উৎপাদন বাড়ানো যায়, একই সাথে রাষ্ট্রের অর্থ সাশ্রয় করা যায়, কীভাবে প্রজাতন্ত্রের কর্মকান্ড গতিশীল করা যায় সে লক্ষ্যে সবাই মিলে কাজ করতে হবে।

মন্ত্রী আরো বলেন, আমরা মৎস্য ও প্রাণিসম্পদকে সমৃদ্ধ করতে চাই। মাছ, মাংস, দুধ, ডিমের উৎপাদন বাড়াতে চাই। এটি দেশের মানুষের খাদ্য ও পুষ্টির চাহিদা মেটাবে। আবার এর উৎপাদনকারী নিজের বেকারত্ব দূর করে স্বাবলম্বী হবে। মাছ, মাংস, দুধ, ডিমের উৎপাদন, পরিহন ও বিপণন প্রক্রিয়ায় প্রায় এক কোটি মানুষ সম্পৃক্ত রয়েছে।

সভায় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সার্বিক কার্যক্রম বিভাগীয় কমিশনারদের অবহিত করেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ সচিব রওনক মাহমুদ। এছাড়া মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন দপ্তর-সংস্থা প্রধানগণ মাঠ পর্যায়ে চলমান নিজ নিজ দপ্তরের কার্যক্রম ও বাস্তবায়নজনিত সমস্যাবলী সভায় তুলে ধরেন।

মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব শাহ্ মোঃ ইমদাদুল হক, শ্যামল চন্দ্র কর্মকার, সুবোল বোস মনি ও মোঃ তৌফিকুল আরিফ, বাংলাদেশ মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান কাজী হাসান আহমেদ, মৎস্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কাজী শামস্ আফরোজ, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডাঃ শেখ আজিজুর রহমান, বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. ইয়াহিয়া মাহমুদ, বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. মোঃ আবদুল জলিল, ঢাকার বিভাগীয় কমিশনার মোঃ খলিলুর রহমান, চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার মোঃ কামরুল হাসান, খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মোঃ ইসমাইল হোসেল, রংপুরের বিভাগীয় কমিশনার মোঃ আব্দুল ওয়াহাব ভূঞা, বরিশালের বিভাগীয় কমিশনার মোঃ সাইফুল হাসান বাদল, সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার মোঃ খলিলুর রহমান, ময়মনসিংহের বিভাগীয় কমিশনার মোঃ শফিকুর রেজা বিশ্বাস এবং রাজশাহীর অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মোঃ জিয়াউল হক সভায় অংশগ্রহণ করেন।


আরও খবর