আজঃ বুধবার ০৪ আগস্ট ২০২১
শিরোনাম

বিএনপির মেরুদণ্ড ভেঙে গেছে : কাদের

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৯ জুলাই ২০২১ | ১১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নেতিবাচক রাজনীতির কারণে  বিএনপির মেরুদণ্ড ভেঙে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শুক্রবার সকালে তার সরকারি বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এ মন্তব্য করেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, নেতিবাচক রাজনীতির কারণে  নির্বাচন ও আন্দোলনে বিএনপি ব্যর্থ। তাদের মেরুদণ্ড ভেঙে গেছে এবং সংগঠন হয়ে গেছে দুর্বল।তাই অনেকেই মনে করেন বিএনপি শেষ হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, বিএনপির অপপ্রচার ও মিথ্যাচারের জবাব অনিচ্ছা সত্ত্বেও দিতে হয়, তা না হলে জনগণ তাদের মিথ্যাচারকেই সত্য বলে ধরে নিবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, শেখ হাসিনা সরকার দিনরাত জনকল্যাণে কাজ করছে আর বিএনপি দেশ ও জাতির দুর্যোগকালে তাদের দায়িত্বশীলতা ভুলে গিয়ে প্রতিনিয়ত মিথ্যাচার করছে।আওয়ামী লীগ দোষারোপের রাজনীতিতে বিশ্বাসী নয়। পাল্টাপাল্টি বক্তব্য দেওয়ার মানসিকতাও আওয়ামী লীগ পোষণ করে না

তিনি বলেন, বিএনপি, আওয়ামী লীগ বিরোধী সকল শক্তির অভিন্ন প্ল্যাটফর্ম এবং তারা স্বাধীনতা-স্বার্বভৌমত্ব ও উন্নয়ন বিরোধী সকল অপশক্তির মোহনা।

বিএনপি সাংগঠনিকভাবে দুর্বল হতে পারে কিন্তু আওয়ামী লীগ বিরোধী বলয় হিসেবে তারা মোটেই দুর্বল নয় উল্লেখ করে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, এদেশের রাজনীতিকে কলুষিত করতে জনগণ ও দেশের সম্পদ ধ্বংস এবং লুন্ঠনে বিএনপি নেতৃত্বাধীন শক্তি এখনও সক্রিয়।

তিনি বলেন, যে কোনো দুর্যোগ ও সংকটে নিরাপদ দূরত্বে অবস্থান করে মিডিয়ায় ঝড় তোলাই বিএনপির স্বভাব। করোনাকালেও এর ব্যতিক্রম ঘটেনি।

শেখ হাসিনার সরকার যখন বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে জনগণের জীবন-জীবিকার সুরক্ষায় অবিরাম কাজ করে যাচ্ছে তখন বিএনপি জনগণের পাশে না দাঁড়িয়ে ঘরে বসে পাঁচ দফা প্রস্তাব দিয়েই তাদের দায়িত্ব শেষ করেছে বলে মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।


আরও খবর



গত ২৪ ঘন্টায় ময়মনসিংহ মেডিকেলে করোনা ইউনিটে আরও ৯ মৃত্যু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ জুলাই ২০২১ | ১১১জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গত ২৪ ঘন্টায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে আরও ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে করোনায় ৩ জন এবং উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন ৬ জন। বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) এ তথ্য নিশ্চিত করে করোনা ইউনিটের ফোকাল পারসন ডা. মহিউদ্দিন খান মুন।

তিনি বলেন, করোনা ডেডিকেটেড ইউনিটে নতুন ৩২ জন ভর্তিসহ এখন পর্যন্ত ৩৭৯ জন এবং আইসিইউতে ২২ জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এদিকে সিভিল সার্জন ডা. নজরুল ইসলাম আরটিভি নিউজকে বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় ২২৬ টি নমুনা পরীক্ষায় আরো ৫৭ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ২৫ দশমিক ২২ শতাংশ। জেলায় মোট আক্রান্ত ১২ হাজার ১৩৭ জন।

এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৮ হাজার ৫৯৫ জন।


আরও খবর



করোনা ফিল্ড হাসপাতাল হচ্ছে ঢাকার পাঁচ স্থানে

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৯ জুলাই ২০২১ | ২০৩জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) বঙ্গমাতা কনভেনশন সেন্টার ও পুলিশ কনভেনশন সেন্টার হলসহ ঢাকার পাঁচটি স্থানকে করোনা ফিল্ড হাসপাতাল করার পরিকল্পনা নিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

শুক্রবার বিকালে বিএসএমএমইউ কনভেশন সেন্টার পরিদর্শন শেষে মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব লোকমান হোসেন মিয়া সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

স্বাস্থ্য সচিব বলেন, করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে রাজধানীর ৫টি স্থানে ফিল্ড হাসপাতাল স্থাপন করা হবে। ফিল্ড হাসপাতাল আমরা বড় আকারে শুরু করব। শুরু হলেই আপনার দেখতে পারবেন। আশা করি, স্বল্প সময়ে মধ্যে এই হাসপাতালগুলো চালু হবে।

একই সঙ্গে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের শয্যা বাড়ানো ও জনবল পুনর্বণ্টন করা হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, করোনায় আক্রান্ত রোগীর সেবা নিশ্চিতে আমরা সরকারির পাশাপাশি বেসরকারি হাসপাতালে অনেক শয্যা বাড়িয়েছি। ঢাকার বেসরকারি ১০টি হাসপাতালে ১ হাজার ৫০১ শয্যা বাড়ানো হয়েছে। ডিএসসিসি মার্কেটে সবচেয়ে বড় করোনা হাসপাতাল তৈরি করা হয়েছে। এখানে আইসিইউ ১,২০০ শয্যা রাখা হয়েছে। 

এর আগে গত বুধবার স্বাস্থ্য অধিদফতর আয়োজিত ভার্চুয়াল বুলেটিনে অধিদফতরের মুখপাত্র অধ্যাপক ডা. নাজমুল ইসলাম বলেছিলেন, আমাদের যেসব হাসপাতালে করোনার চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে, সেই হাসপাতালগুলোতে কীভাবে শয্যার সংখ্যা বাড়ানো যায়, জনবল কীভাবে পুনঃবণ্টন করা যায়, আমরা সেদিকে মনোযোগ দিয়েছি। এর বাইরে ফিল্ড হাসপাতাল করা যায় কি না, সে বিষয়টি আমরা যাচাই-বাছাই করছি। প্রয়োজন হলে ফিল্ড হাসপাতাল করব।

দেশে সর্বশেষ জানানো ২৪ ঘণ্টায় ২১২ জনের মৃত্যু হয়েছে, যা এখন পর্যন্ত একদিনের হিসাবে সর্বোচ্চ মৃত্যু। এ নিয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়ে দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১৬ হাজার চারজনে। একইসঙ্গে ওই ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা শনাক্ত হয়েছেন আরও ১১ হাজার ৩২৪ জন। ফলে দেশে করোনায় শনাক্তের সংখ্যা হলো ১০ লাখ ৫৪৩ জন।


আরও খবর



এবার ওমরাহ করতে গেলে মানতে হবে যেসব শর্ত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ জুলাই ২০২১ | ৬৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চলমান করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে বিদেশিদের জন্য হজ ও ওমরাহ পালন দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল। তবে এবার বাংলাদেশসহ কয়েকটি দেশের জন্য ওমরাহ পালনের নিষেধাজ্ঞা শিথিল করা হয়েছে। আগামী ১০ আগস্ট থেকে বিদেশি মুসল্লিদের সৌদি আরবে গিয়ে ওমরাহ করার অনুমতি দেবে দেশটির সরকার।

আরবি ক্যালেন্ডার অনুযায়ী তারিখটি পহেলা মহররম ১৪৪৩। সৌদির হজ ও ওমরাহ বিষয়ক হারামাইন শারিফাইন নামক অফিসিয়াল পেইজে এমন তথ্য দেয়া হয়েছে। তবে এবারে বিদেশ থেকে ওমরাহ পালনে আসতে ইচ্ছুক মুসল্লিদের ওপর কিছু শর্ত আরোপ করা হয়েছে।

এসব শর্তের মধ্যে রয়েছে, ওমরাহ করতে ইচ্ছুক মুসল্লিরা কেবল ৯টি দেশ ছাড়া বিশ্বের সব দেশ থেকে সরাসরি ফ্লাইটে সৌদি আরবে প্রবেশ করতে পারবে। সেই ৯টি দেশ হচ্ছে ভারত, পাকিস্তান, ইন্দোনেশিয়া, মিশর, তুরস্ক, আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, দক্ষিণ আফ্রিকা ও লেবানন।

তবে এই দেশগুলো থেকে কোনো মুসল্লি সৌদি আরবে প্রবেশ করতে চাইলে তাদেরকে ওই ৯টি দেশ বাদে তৃতীয় আরেকটি দেশে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন শেষে তবেই সৌদি আরবে যেতে হবে।

এ ছাড়া ওমরাহ পালনে ইচ্ছুক সবাইকে বাধ্যতামূলকভাবে করোনাভাইরাসের সম্পূর্ণ ডোজ টিকা নিতে হবে। সেই টিকা হবে ফাইজার, মডার্না, অ্যাস্ট্রাজেনেকা অথবা জনসন অ্যান্ড জনসনের। এসব টিকার দুটি ডোজ গ্রহণ করা ছাড়া সৌদি আরবে প্রবেশ করা যাবে না।

কেউ যদি চীনের তৈরি সিনোফার্মের টিকার দুটি ডোজ টিকা নিয়ে থাকেন, তাহলে তাদেরকে ফাইজার, মডার্না, অ্যাস্ট্রাজেনেকা অথবা জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকার বাড়তি বুস্টার ডোজ গ্রহণ করতে হবে। ওমরাহ পালনের জন্য ১৮ বছর বা বেশি বয়সীদেরই অনুমোদন দেয়া হবে।

এ ছাড়া সৌদি আরবের হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয় থেকে স্বীকৃত ওমরাহ এজেন্সির মাধ্যমেই কেবল সৌদি আরবে আসতে পারবেন মুসল্লিরা। ওমরাহ পালনে বিদেশ থেকে আসা প্রত্যেক মুসল্লিকে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা- যেমন মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং সেইসঙ্গে স্বাস্থ্য নির্দেশিকা মেনে চলতে হবে।

করোনাভাইরাস সংক্রান্ত সব ধরনের সাবধানতা এবং নিয়ম-কানুন কঠোরভাবে মেনেই নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে বলে দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়েছে।

এর আগে করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে সম্প্রতি বিশেষ শর্ত মেনে সীমিত পরিসরে হজ আয়োজন করে সৌদি সরকার। বাইরের দেশ থেকে কাউকে অনুমোদন দেয়া না হলেও কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে সেখানে ৬০ হাজার মুসল্লি অংশ নিয়েছিলেন। এরমধ্যে সৌদি নাগরিকদের পাশাপাশি দেশটিতে থাকা ১৫০টি দেশের নাগরিকও ছিলেন।


আরও খবর
আজ পবিত্র ঈদুল আজহা

বুধবার ২১ জুলাই 20২১




চলতি সপ্তাহেই বন্যার শঙ্কা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৬ জুলাই ২০২১ | ১২৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে উজানে ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে নদ-নদীর পানি বাড়ায় দেশের উত্তর ও মধ্যাঞ্চলের ১৩টি জেলা বন্যা কবলিত হতে পারে। স্বল্পমেয়াদী এই বন্যা দুই সপ্তাহ স্থায়ী হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র।

বন্যার ঝুঁকিতে থাকা জেলাগুলো হলো- কুড়িগ্রাম, নীলফামারী, গাইবান্ধা, জামালপুর, রংপুর, লালমনিরহাট, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ ও টাঙ্গাইল। জেলাগুলোর নদী অববাহিকার বহু এলাকা আস্তে আস্তে প্লাবিত হচ্ছে। আগামী সপ্তাহের মধ্যে দেশের মধ্যাঞ্চলের রাজবাড়ী, ফরিদপুর, শরীয়তপুর ও চাঁদপুর বন্যার আশঙ্কা রয়েছে। আগামী ৭২ ঘণ্টায় দেশের উত্তরাঞ্চলের তিস্তা, ধরলা, দুধকুমার নদীর পানি দ্রুত বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে।

বন্যা মোকাবিলায় প্রস্তুতি নিতে সোমবার (৫ জুলাই) ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকেরা অংশ নেন। মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় জেলা প্রশাসকেরা জানান, প্রতিটি জেলার উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে বন্যার প্রস্তুতিমূলক সভা হয়েছে। প্রতিটি ইউনিয়নের সরকারি প্রতিষ্ঠানের কার্যালয়গুলো বন্যা আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে প্রস্তুত করতে সেখানকার প্রধান ফটক ও কক্ষগুলোর চাবি নেওয়া হয়েছে। আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে খাবারের ব্যবস্থা নিশ্চিতে প্রয়োজনীয় খাদ্য বরাদ্দ করতে বলা হয়েছে।

সভায় ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান, মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মহসীনসহ কর্মকর্তারা সরাসরি অংশ নেন। আর নয় জেলার প্রশাসকেরা ভার্চ্যুয়ালি যোগ দেন বলে মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে।

বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র জানায়, আগামী দু-তিন দিনের মধ্যে তিস্তা, ধরলা, দুধকুমার নদীর পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করতে পারে। উজানে ভারতীয় অংশে এবং দেশের ভেতরেও বৃষ্টি বাড়ায় দেশের ১০১টি নদনদীর মধ্যে ৬০টিতে পানি বাড়ছে, বাকিগুলোতে কমছে। উত্তরাঞ্চলের বন্যা ২০ থেকে ২৫ দিন স্থায়ী হওয়ার আশঙ্কা আছে।

বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুজ্জামান ভুইয়া জানান, মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে এবং উজানে ভারী বৃষ্টির কারণে বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলে বন্যার শঙ্কা দেখা দিয়েছে। আমরা আশঙ্কা করছি, আগামী দুই-চারদিনের মধ্যে দেশের উত্তরাঞ্চলের কুড়িগ্রাম, জামালপুর, গাইবান্ধা, নীলফামারী, লালমনিরহাট জেলায় বন্যার ঝুঁকি আছে। পরে এই বন্যা দেশের উত্তর-মধ্যাঞ্চল সিরাজগঞ্জ ও বগুড়া হয়ে মধ্যাঞ্চলের দিকে অগ্রসর হতে পারে। সেক্ষেত্রে আগামী সপ্তাহের মধ্যে দেশের মধ্যাঞ্চলের রাজবাড়ী, ফরিদপুর, শরীয়তপুর ও চাঁদপুর বন্যার আশঙ্কা রয়েছে।



আরও খবর



ঈদযাত্রায় সড়কে ঝরল ২৯৫ প্রাণ

প্রকাশিত:শুক্রবার ৩০ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ৩০ জুলাই ২০২১ | ৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঈদুল আজহার আগে ও পরে ১৫ দিনে (১৪-২৮ জুলাই) দেশে সড়ক, রেল ও নৌপথে ২৬২টি দুর্ঘটনায় ২৯৫ জন নিহত হয়েছেন। এ সময়ে এসব দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ৪৮৮ জন।

আজ শুক্রবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ঈদযাত্রায় সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিবেদন-২০২১ উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানায় বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি। অনলাইন, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক গণমাধ্যমের তথ্যের ভিত্তিতে এ প্রতিবেদনটি করেছে সংগঠনটি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, শুধু সড়ক-মহাসড়কে ২৪০টি দুর্ঘটনায় ২৭৩ জন নিহত হয়েছেন এবং আহত হয়েছেন ৪৪৭ জন। এদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি প্রাণ গেছে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায়। তবে স্বল্প সময়ে পরিবহন চালু করা এবার গত ছয় বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি হতাহতের ঘটনা ঘটেছে।


আরও খবর