আজঃ মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারী ২০২২
শিরোনাম

বিশ্বজুড়ে ফের বাড়তে শুরু করেছে করোনা সংক্রমণ

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ জানুয়ারী ২০২২ | ১০৪৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা কমলেও সংক্রমণ ফের বাড়তে শুরু করেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় মারা গেছেন সাড়ে ৬ হাজার। অপরদিকে একই সময়ে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ২৪ লাখ।

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে শুক্রবার (৭ জানুয়ারি) সকালে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় সারাবিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৬ হাজার ৬৬৯ জন। এতে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৫৪ লাখ ৮৯ হাজার ৩১০ জনে। একই সময়ের মধ্যে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৪ লাখ ২৪ হাজার ৬২ জন। এতে শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩০ কোটি ৬ লাখ ১১ হাজার ১৭ জনে।

বিশ্বজুড়ে গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। অন্যদিকে দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রাশিয়া। প্রাণহানির তালিকায় এরপরই রয়েছে পোল্যান্ড, জার্মানি, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স ও ইতালি। এতে বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৩০ কোটি ৬ লাখ আর মৃতের সংখ্যা ৫৪ লাখ ৮৯ হাজার।

এছাড়া করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় তুরস্কে ১৫৬ জন, পোল্যান্ডে ৬৪৬ জন, দক্ষিণ আফ্রিকায় ৪৫ জন, হাঙ্গেরিতে ৮০ জন এবং ভিয়েতনামে ১৬৯ জন মারা গেছেন। অন্যদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় মেক্সিকোতে মারা গেছেন ৯৪ জন। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত উত্তর আমেরিকার এই দেশটিতে মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ৯৯ হাজার ৮০৫ জনের।


আরও খবর
সৌদি আরবে প্রতি ঘণ্টায় ৭ ডিভোর্স

সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২




নোয়াখালীতে দলবেঁধে গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০১ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নোয়াখালী সদর উপজেলায় এক গৃহবধূকে দলবেঁধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শনিবার (১ জানুয়ারি) দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তি উপজেলার চরমটুয়া ইউনিয়নের পশ্চিম মহতাপুর গ্রামের মো. রহমত উল্লাহর ছেলে মো. দাউদ (৩৫)।

জানা গেছে, ভুক্তভোগী গৃহবধূর বর্তমান স্বামী ঢাকায় চাকরি করায় তিনি গ্রামের বাড়িতে একা থাকেন। এ সুযোগে গত বৃহস্পতিবার রাতে দাউদসহ আরও তিনজন কৌশলে ভুক্তভোগী নারীর ঘরে ঢুকে তাকে দলবেঁধে ধর্ষণ করে। এ ঘটনার পর ভুক্তভোগী প্রথমে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যানকে বিষয়টি জানান। পরে চেয়ারম্যানের পরামর্শে তিনি শুক্রবার (৩১ ডিসেম্বর) রাতে চারজনের নামে থানায় ধর্ষণের মামলা করেন।

মামলা তদন্তে দায়িত্বপ্রাপ্ত থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. জাকির হোসেন বলেন, ভুক্তভোগী গৃহবধূ মামলার পরপরই এজাহারভুক্ত আসামি দাউদকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শনিবার (১ জানুয়ারি) তাকে আদালতে পাঠানো হয়। পরে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, মামলার বাকি তিন আসামিকে গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে। অন্যদিকে ভুক্তভোগী গৃহবধূকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য শনিবার (১ জানুয়ারি) দুপুরে নোয়াখালীর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: গৃহবধূকে ধর্ষণ

আরও খবর
ভোটকেন্দ্রে গাঁজাসহ এজেন্ট আটক

রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২




চাহিদা বেড়েছে কেরুর মদের

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৯ ডিসেম্বর ২০২১ | ৫০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
একটি কেসে ৭৫০ মিলিলিটারের ১২টি বোতল, ৪৬৫ মিলিলিটারের ২৪টি বোতল এবং ১৮০ মিলিলিটারের ৪৮টি মদের বোতল থাকে

দর্শনা কেরু অ্যান্ড কোম্পানির উৎপাদিত মদের চাহিদা বেড়েছে। গত বছরের তুলনায় চলতি বছরের অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত এই তিন মাসে কেরু অ্যান্ড কোম্পানির উৎপাদিত মদের বিক্রি প্রায় ৫০ শতাংশ বেড়েছে।

চলতি বছরের ২ জুলাই থেকে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) ও বেসরকারি কূটনৈতিক বন্ডেড ওয়্যারহাউজগুলোর মধ্যে শুল্কমুক্ত আমদানি সুবিধার অপব্যবহার রোধে তৈরি একটি সফটওয়্যার ব্যবহার নিয়ে রেষারেষির কারণে কমে গেছে বিদেশি মদের সরবরাহ। ফলে দর্শনা কেরু অ্যান্ড কোম্পানির উৎপাদিত মদের চাহিদা বেড়েছে।

কারখানা সূত্র জানায়, অন্যান্য বছর প্রতি মাসে কেরু কোম্পানির উৎপাদিত মদ সাড়ে ১২ হাজার থেকে ১৩ হাজার কেস বিক্রি হতো। কিন্তু চলতি বছরের অক্টোবর মাসে এ সংখ্যা বেড়ে ১৮ হাজার ৫৭৯ কেস এবং নভেম্বর মাসে ১৯ হাজার ৪৪৬ কেস বিক্রি হয়েছে। ডিসেম্বরে ২০ হাজার কেস বিক্রি হবে বলে আশা করছে কারখানা কর্তৃপক্ষ। একটি কেসে ৭৫০ মিলিলিটারের ১২টি বোতল, ৪৬৫ মিলিলিটারের ২৪টি বোতল এবং ১৮০ মিলিলিটারের ৪৮টি মদের বোতল থাকে।

জানতে চাইলে কেরু অ্যান্ড কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ মোশারফ হোসেন বলেন, কেরু অ্যান্ড কোম্পানির মদের চাহিদা বেড়েছে। সারাদেশে ১৩টি ওয়্যারহাউজ ও তিনটি বিক্রয়কেন্দ্র থেকে এরই মধ্যে বাড়তি অর্ডার পেয়েছি। বিশেষ করে ঢাকা এবং শ্রীমঙ্গল ওয়্যারহাউজে চাহিদা সবচেয়ে বেশি। এছাড়া দেশের দুই পর্যটনকেন্দ্র কক্সবাজার ও কুয়াকাটায় দুটি নতুন বিক্রয়কেন্দ্র স্থাপন করা হচ্ছে। ক্রমবর্ধমান চাহিদা মেটাতে কেরু অ্যান্ড কোম্পানির মাড়াই করা আখ থেকে উপজাত হিসেবে অ্যালকোহল উৎপাদনের জন্য ডিস্টিলারি প্ল্যান্টে উৎপাদন বাড়ানো হয়েছে।

ডিস্টিলারি ইউনিট দীর্ঘদিন ধরে কেরুর কোম্পানির আয়ের অন্যতম উৎস। দীর্ঘদিন ধরে চিনি উৎপাদনের ক্ষেত্রে কোম্পানিকে মোটা অংকের লোকসান গুনতে হয়। তবে মোটা অংকের লাভ হয় কেরুর উৎপাদিত মদ বিক্রি করে। ফলে চিনি উৎপাদনের ক্ষেত্রে যে টাকা লোকসান হয় মদ বিক্রির লাভের টাকায় ওই লোকসান পুষিয়ে যায়।

কারখানা সূত্র জানায়, ২০২০-২১ অর্থবছরে শুধু মদ বিক্রি করেই ১৯৫ কোটি টাকা আয় করেছে কেরু কোম্পানি। কোম্পানিটির প্রধান পণ্য হচ্ছে চিনি। তবে আখ থেকে চিনি আহরণের পর উপজাত হিসেবে বিভিন্ন পণ্য তৈরি করা হয়। এসব উপজাতের মধ্যে রয়েছে-দেশি মদ, বিদেশি মদ, ভিনেগার, স্পিরিট ও জৈব সার। এছাড়া কোম্পানি কান্ট্রি স্পিরিট, রেক্টিফায়েড স্পিরিট, ডিনেচারড স্পিরিট, মল্টেড ভিনেগার ও হোয়াইট ভিনেগার নামে দুধরনের ভিনেগার উৎপাদন করে থাকে।

কেরুর নয়টি ব্র্যান্ডের বিদেশি মদ রয়েছে। এগুলো হলো-ইয়েলো লেভেল মল্টেড হুইস্কি, গোল্ড রিবন জিন, ফাইন ব্র্যান্ডি, শেরি ব্র্যান্ডি, ইম্পেরিয়াল হুইস্কি, সারিনা ভদকা, রোসা রাম ও ওল্ড রাম।

ম্যানুয়াল সিস্টেম ব্যবহার না করে অটোমেশনের মাধ্যমে মদের উৎপাদন বাড়ানোর পরিকল্পনা করছে প্রতিষ্ঠানটি। তবে প্রকল্পটি প্রক্রিয়াধীন। এটি বাস্তবায়ন হলে উৎপাদন ক্ষমতা দ্বিগুণ হবে বলে দাবি কর্তৃপক্ষের।


আরও খবর
অর্ধেক জনবলে চলবে ব্যাংক

সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২

শেয়ারবাজারে বড় দরপতন

সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২




সরকার থেকে সরলে মহা-হুমকি হয়ে দাঁড়াবেন ইমরান খান

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২ | ১৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিরোধীদলগুলোর প্রতি হুশিঁয়ারি উচ্চারণ করেছেন পাকিস্তানের প্রধামন্ত্রী ইমরান খান। তিনি বলেছেন, সরকার থেকে সরলে তিনি বিরোধীদের জন্য মহা-হুমকি হিসেবে আবির্ভূত হবেন। রোববার পাকিস্তানের জাতীয় টেলিভিশনে লাইভ প্রশ্নোত্তরপর্বে ইমরান খান এমন হুমকি প্রদান করেন।

পাকিস্তানের ক্ষমতাসীন দল তেহরিক-ই ইনসাফ পার্টির প্রতিষ্ঠাতা ইমরান খান নিজের আত্মবিশ্বাস থেকে বলেন, পাকিস্তানের মানুষ তার বিরুদ্ধে রাজপথে নামবে না, বিশেষ করে কলঙ্কিত বিরোধী দলগুলোর ডাকে।

এক প্রশ্নের জবাবে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেন, আমি সরকার থেকে সরলে তোমাদের (বিরোধী দল) ওপর মহা-হুমকি হিসেবে আবির্ভূত হব। দপ্তরে বসে আমি তোমাদের প্রকাশ হওয়া নাটক দেখছি। কিন্তু যদি রাস্তায় নামি, তোমরা কোথাও পালাতে পারবে না।

শেহবাজ শরীফকে আক্রমণ করে ইমরান খান বলেন, পিএমএল-এন এর নওয়াজ শরীফ তেহরিক-ই লাব্বাইক পার্টির সঙ্গে বসতে রাজি ছিলেন, এমনকি বেলোচদের সঙ্গেও; কিন্তু তিনি কখনো জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ বিষয়েও শেহবাজ শরীফের সঙ্গে বসেননি। কারণ শেহবাজ শরীফের সঙ্গে বসার অর্থ, শরীফ পরিবারের দুর্নীতির সঙ্গে আপস করা।

ইমরান খান বলেন, বিরোধী দলের সম্মানের একটা জায়গা আছে। কিন্তু আমি তাকে (শেহবাজ শরীফ) বিরোধী নেতা মনে করি না।  কারণ তিনি দেশের বিরুদ্ধে বিরাট অন্যায় করেছেন। এ সময় তিনি নওয়াজ শরীফকেও দেশে এসে তার বিরুদ্ধে উঠা দুর্নীতির অভিযোগ মোকাবেলার আহ্বান জানান।

বিরোধীদের সঙ্গে আপসের সম্ভাবনা নাকচ করে দিয়ে ইমরান খান বলেন, বিরোধী দলগুলোকে তিনি কখনো আপসের সুযোগ দিবেন না। কারণ এটা হলে দেশের সঙ্গে বড় ধরনের বিশ্বাসঘাতকতা করা হবে।

ইমরান খান আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বলেন, তার দল সরকারের মেয়াদ শুধু পূর্ণ করবে এমন না, বরং আগামীবারও সরকার গঠন করবে। এ সময় তিনি পাকিস্তানের জনগণকে তাকে সমর্থনের আহ্বান জানান। কারণ, বিরোধী দলগুলোর থেকে পাকিস্তানের মানুষকে তিনি বেশি চেনেন।

ইমরান খান বলেন, জনগণের উচিত তার জন্য বের হয়ে আসা। কারণ তিনি তাদের লুট হওয়া সম্পদ ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছেন।


আরও খবর
সৌদি আরবে প্রতি ঘণ্টায় ৭ ডিভোর্স

সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২




ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধেও লজ্জার হার ইংল্যান্ডের

প্রকাশিত:রবিবার ২৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৩ জানুয়ারী ২০২২ | ২২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

অ্যাশেজে একটি টেস্টও জিততে পারেনি জো রুটের দল। এ বার টি-টোয়েন্টিতেও পরাজিত ইংল্যান্ড। ক্যারিবিয়ান সফরে গিয়ে প্রথম ম্যাচেই হারতে হল অইন মর্গ্যানের দলকে। ৯ উইকেটে হারতে হল তাদের।

প্রথমে ব্যাট করতে নেমে জেসন হোল্ডারের দাপটে ইংল্যান্ডের ব্যাটারদের কেউই বড় রান তুলতে পারেননি। সর্বোচ্চ ক্রিস জর্ডনের ২৮ রান। অধিনায়ক মর্গ্যান করেন ১৭ রান। ব্যর্থ দুই ওপেনার জেসন রয় (৬ রান) এবং টম ব্যান্টনও (৪ রান)। চার নম্বরে ব্যাট করতে নেমে মইন আলি প্রথম বলেই আউট হয়ে যান। শেষ দিকে জর্ডন এবং আদিল রশিদ (২২) রান না করলে ১০০ রানের গণ্ডিও পার করতে পারত না ইংল্যান্ড। ১৯.৪ ওভারে ১০৩ রানে শেষ হয়ে যায় তাদের ইনিংস।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে চার উইকেট নেন হোল্ডার। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এটাই হোল্ডারের সেরা বোলিং। দুটি উইকেট নেন শেল্ডন কটরেল। একটি করে উইকেট নিয়েছেন আকিল হোসেইন, রোমারিয়ো শেফার্ড এবং ফ্যাবিয়ান অ্যালেন।

১০৪ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে কোনও অসুবিধাতেই পড়তে হয়নি ক্যারিবিয়ানবাহিনীকে। ওপেনার ব্রেন্ডন কিং অপরাজিত থাকেন ৫২ রানে। শাই হোপ করেন ২০ রান। নিকোলাস পুরান অপরাজিত থাকেন ২৭ রানে। মাত্র এক উইকেট হারিয়েই জয়ের রান তুলে নেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

অধিনায়ক কায়রন পোলার্ড বলেন, এই জয় সহজ ছিল না। ছেলেরা মাঠে নেমে জয় ছিনিয়ে নিয়েছে। মর্গ্যান আশা করছেন পরের ম্যাচেই সব কিছু বদলে যাবে। পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ১-০ এগিয়ে গেল ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

 


আরও খবর
মাঠে ফিরছেন মাশরাফি, বোলিংয়ে ঢাকা

সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২




‘গবেষণা জাহাজ ইলিশ উৎপাদনে ব্যাপক সক্ষমতা বৃদ্ধি করবে’

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৪ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৩৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
ইলিশ উৎপাদনে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের মধ্যে শীর্ষে রয়েছে। অতীতের চেয়ে এখন বেশি ইলিশ উৎপাদন হচ্ছে। তবে ইলিশের সাময়িক উৎপাদন বৃদ্ধি নয় বরং গবেষণার মাধ্যমে আমরা ইলিশ উৎপাদনে সক্ষমতা বৃদ্ধি করতে চাই। ইলিশ উৎপাদন বৃদ্ধির পাশাপাশি ইলিশের গুণগত মান আমরা নিশ্চিত করতে চাই

বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের নতুন গবেষণা জাহাজ ইলিশ উৎপাদনে ব্যাপক সক্ষমতা বৃদ্ধি করবে বলে জানিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম

মঙ্গলবার (০৪ জানুয়ারি) খুলনা শিপইয়ার্ডে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের জন্য শিপইয়ার্ড কর্তৃক নবনির্মিত ইলিশ গবেষণা জাহাজ হস্তান্তর উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ কথা জানান।

অনুষ্ঠানে মন্ত্রী আরো বলেন, "ইলিশ উৎপাদনে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের মধ্যে শীর্ষে রয়েছে। অতীতের চেয়ে এখন বেশি ইলিশ উৎপাদন হচ্ছে। তবে ইলিশের সাময়িক উৎপাদন বৃদ্ধি নয় বরং গবেষণার মাধ্যমে আমরা ইলিশ উৎপাদনে সক্ষমতা বৃদ্ধি করতে চাই। ইলিশ উৎপাদন বৃদ্ধির পাশাপাশি ইলিশের গুণগত মান আমরা নিশ্চিত করতে চাই। অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতিতে ইলিশ কখনো বিপন্ন যাতে না হয় সেজন্য আমাদের গবেষণা ইনস্টিটিউট রয়েছে, বিভিন্ন ল্যাবরেটরি রয়েছে। ইলিশ গবেষণার ক্ষেত্রে গবেষণা জাহাজ বড় ধরনের সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। আমরা চাই নদীমাতৃক বাংলাদেশে যেন পৃথিবীর সবচেয়ে সুস্বাদু ইলিশ পাওয়া যায়"।

এ সময় মন্ত্রী আরো বলেন, "বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অপ্রতিরোধ্য গতি নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। খুলনা শিপইয়ার্ডে গবেষণা জাহাজ তৈরি আমাদের সক্ষমতার পরিচয়। জাহাজ নির্মাণে ভবিষ্যতে আমরা বিদেশের উপর নির্ভর করবো না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রায়ই বলেন আমাদের নিজেদের সক্ষমতা বৃদ্ধি করতে হবে। আজ দেশের মানুষের সাংবিধানিক মৌলিক চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হয়েছে। ইতোমধ্যে বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। উন্নয়নের অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় বিশ্বের বিস্ময় হবে বাংলাদেশ"।

মন্ত্রী আরো বলেন, "করোনার সময় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের দরজা একদিনের জন্যও বন্ধ ছিল না। কারণ এ মন্ত্রণালয়ের কাজ স্থবির হয়ে গেলে মানুষের পুষ্টি ও আমিষের চাহিদা মেটানো মাছ, মাংস, দুধ, ডিমের উৎপাদন বন্ধ হয়ে যাবে। এ খাতে কাজ করা মানুষ বেকার হয়ে যাবে। এ খাতের রপ্তানি বন্ধ হয়ে যাবে। এভাবে আমরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতকে একটা বৈপ্লবিক পরিবর্তনের দিকে নিয়ে এসেছি"।

এ সময় চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি সম্পর্কে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, "এ দেশটা আইনসঙ্গতভাবে চলবে। দেশের সর্বোচ্চ আইন সংবিধান। সংবিধানে যেটা নেই সে জাতীয় আবদার করলে সেটা দেয়ার কোন সুযোগ থাকবে না। অসাংবিধানিক কোন কিছু দাবী করা আইনের শাসনের পরিপন্থী। বিএনপির তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি সংবিধানসম্মত নয়। তাই এ দাবি কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। দেশে বিএনপি-জামাত অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি সৃষ্টি করে ইমেজ সংকটে পড়েছে। এখন যদি আবার সে চেষ্টা কেউ করে এ দেশের মানুষই তাদের কঠোরভাবে মোকাবিলা করবে। বর্তমান সরকার প্রধান বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য উত্তরসূরি শেখ হাসিনা। তিনি বারবার মৃত্যুর মুখোমুখি হয়েও সমঝোতা করেন নি। কাজেই অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি করে আওয়ামী লীগ বা সরকারকে ভয়-ভীতি দেখিয়ে কোন লাভ নেই। জনগণের ম্যান্ডেট না নিয়ে যেনতেন উপায়ে বিএনপির ক্ষমতায় আসার দুঃস্বপ্ন কখনো সফল হবে না। কারণ নেতৃত্বহীন, আদর্শহীন বিএনপিতে মানুষের আস্থা নেই"।

খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কমডোর খন্দকার আক্তার হোসেনের সভাপতিত্বে খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। সম্মানীয় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএফআরআই)-এর মহাপরিচালক ড. ইয়াহিয়া মাহমুদ। খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মো. ইসমাইল হোসেন, খুলনা নেভাল এরিয়া কমান্ডার রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, খুলনার জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার, বিএফআরআই-এর ইলিশ গবেষণা জোরদারকরণ প্রকল্পের পরিচালক মো. আবুল বাশার এবং বিএফআরআই ও খুলনা শিপইয়ার্ডের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ এসময় উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের ইলিশ গবেষণা জোরদারকরণ প্রকল্পের আওতায় খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেড এ গবেষণা জাহাজ নির্মাণ করেছে। ৮৬ ফুট দৈর্ঘ্যের ও ১৯ দশমিক ৬৮ ফুট প্রস্থের এ জাহাজে ফিশ ফাইন্ডার, ইকো-সাউন্ডার, নেভিগেশন এবং অত্যাধুনিক টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থা, অগ্নি নির্বাপক সরঞ্জামাদি, আধুনিক ইলিশ গবেষণা ল্যাবরেটরি, নেটিং সিস্টেম, পোর্টেবল মিনি হ্যাচারিসহ অন্যান্য অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সংযোজন করা হয়েছে। জাহাজটি দিয়ে নদী এবং সাগরের মোহনায় ইলিশের প্রজনন এবং বিচরণক্ষেত্রের পরিবর্তন পর্যবেক্ষণ এবং নতুন নতুন ক্ষেত্র চিহ্নিত করা সম্ভব হবে। এছাড়া ইলিশের সর্বোচ্চ সহনশীল উৎপাদন, ইলিশের গতিবিদ্যা, জীবনচক্র ও উৎপাদনশীলতার ওপর পরিবেশ ও জলবায়ুগত প্রভাব নির্ণয় সংক্রান্ত গবেষণা পরিচালনা করা হবে।



আরও খবর
অর্ধেক জনবলে চলবে ব্যাংক

সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২

শেয়ারবাজারে বড় দরপতন

সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২