আজঃ মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারী ২০২২
শিরোনাম

বড়দিন উপলক্ষে প্রতিটি গির্জায় নিরাপত্তা জোরদার

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৪ ডিসেম্বর ২০২১ | ৬৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব বড়দিন উদযাপিত হবে শনিবার (২৫ ডিসেম্বর)। দিনটিকে ঘিরে রাজধানীর গির্জাগুলোয় ইতোমধ্যে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

এ বছর করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী শুধুমাত্র খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের গির্জায় প্রবেশ নিশ্চিতে অনুরোধ জানানো হয়েছে ডিএমপির পক্ষ থেকে।

ডিএমপি সূত্রে জানা গেছে, এবার নিরাপত্তা পরিকল্পনা অনুযায়ী গির্জাগুলোয় থাকবে ডিবি (গোয়েন্দা) পুলিশ। গির্জাসহ অনুষ্ঠানস্থলের আশপাশে ইভটিজিং প্রতিরোধে বিশেষ নজরদারিতে নিয়োজিত থাকবে পুলিশের বিশেষ টিম।

ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, বড়দিনের অনুষ্ঠান নির্বিঘ্ন করতে এবং নিরাপদে ধর্মানুরাগীরা যাতে সুষ্ঠুভাবে গির্জায় যাতায়াত করতে পারেন সে লক্ষ্যে কিছু নিরাপত্তা নির্দেশনা দিয়েছে পুলিশ।

প্রতিটি গির্জায় নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে। ডিএমপির প্রতিটি বিভাগকে এ বিষয়ে সুস্পষ্ট নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এবারের ক্রাইম কনফারেন্সেও এর ওপর গুরুত্ব দিয়ে কর্মকর্তাদের সুনির্দিষ্ট নিরাপত্তা নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। ডিএমপির নিরাপত্তা নির্দেশনার পাশাপাশি করোনায় সরকারি স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে পরিপালনে খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের অনুরোধ জানিয়েছে ডিএমপি।

এক প্রশ্নের জবাবে নগর পুলিশ প্রধান বলেন, সাইবার পেট্রোলিং আমাদের নিয়মিত কাজ। সাধারণত সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের কোনো ধর্মীয় অনুষ্ঠান থাকলে বিভিন্ন গ্রুপ নানা অপপ্রচার চালায়। হামলা করতে উৎসাহিত করে। এগুলো যাতে এবার না হয়, সেজন্য বড়দিনে সাইবার পেট্রোলিং বাড়ানো হয়েছে। আর ইভটিজিংয়ের মতো ঘটনা যাতে না ঘটে, সেজন্য আমাদের বিশেষ টিম কাজ করবে সাদা পোশাকে। এছাড়া সংশ্লিষ্ট এলাকার মোবাইল পার্টি স্ট্যান্ডবাই থাকবে গির্জা এলাকায়।

অন্যদিকে ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (গোয়েন্দা শাখা) এ কে এম হাফিজ আক্তার বলেন, গির্জা এলাকায় নিরাপত্তা জোরদারে ইতোমধ্যে আমাদের গোয়েন্দা শাখার সদস্যদের মোতায়েন করা হয়েছে। কেউ যাতে নাশকতার চেষ্টা করতে না পারে, সেজন্য ডিবি, সিটিটিসির সদস্যরা সতর্ক অবস্থায় নিয়োজিত রয়েছেন। পাশাপাশি সোশ্যাল মিডিয়া পেট্রোলিং বাড়ানো হয়েছে।

প্রয়োজনে জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯-এর মাধ্যমে এসব বিষয়ে জানাতে বলা হয়েছে। গির্জা এলাকায় থাকবে ফায়ার টেন্ডার ও অ্যাম্বুলেন্স ব্যবস্থা। বড়দিনের অনুষ্ঠানে আগত দর্শনার্থীদের পকেটমার, ছিনতাইকারী, অজ্ঞান পার্টি ও মলমপার্টি সম্পর্কে সতর্ক হয়ে চলাচলের জন্য অনুরোধ জানিয়েছে ডিএমপি।


আরও খবর
রোজা শুরু হতে পারে যে তারিখ থেকে

বৃহস্পতিবার ২৩ ডিসেম্বর ২০২১




সেপ্টেম্বরের মধ্যে বিয়ে করতে চলেছেন রুদ্রনীল

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৬ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আইবুড়ো নাম মুছতে চলেছেন খুব শিগগিরিই? ৬ জানুয়ারি, রুদ্রনীল ঘোষের জন্মদিনের সকালে বড় খবর ফাঁস করেছেন প্রযোজক রানা সরকার। বিজেপির সদস্য নাকি বিয়ে করতে চলেছেন! তাঁর বক্তব্যের স্বপক্ষে রানা একটি ছোট্ট ভিডিয়ো ক্লিপিং পোস্ট করেছেন ফেসবুকে। সেখানে রুদ্রনীলকে নিজের মুখে বলতে শোনা গিয়েছে, বিয়ে করছি সেপ্টেম্বরের মধ্যেই! রানার এই পোস্ট দেখে প্রশ্ন তুলেছেন স্বয়ং রফিয়াদ রশিদ মিথিলা। তার রসিকতা, কোন বছরের সেপ্টেম্বরে সেটা বললে আয়োজনটা সে ভাবে নিতাম!

পুরোটাই রটনা না ঘটনা? কাকে বিয়ে করছেন টলিউডের এলিজেবল ব্যাচেলর? জানতে আনন্দবাজার অনলাইন যোগাযোগ করার চেষ্টা করেছিল অভিনেতা-রাজনীতিবিদের সঙ্গে। ফোনে সাড়া মেলেনি বার্থডে বয়-এর। তবে গত অক্টোবরে আনন্দবাজার অনলাইনের লাইভ আড্ডা অ-জানাকথায় তিনি নিজ মুখে বলেছেন, ‘‘বিয়েতে আমার আপত্তি নেই। হতেই পারে, আজ থেকে দু'তিন মাস পরে আমি বিয়ে করে নিলাম।’’ অর্থাৎ, বিয়েতে আপত্তি নেই তাঁর। আইবুড়ো থাকার পণও করেননি মোটেই।

সাল ২০১৭। বিয়ে করবেন বলে নিজেই ঘোষণা করেছিলেন রুদ্রনীল। পাত্রী, টলিউড অভিনেত্রী তনুশ্রী চক্রবর্তী। পরে যদিও সেই প্রেম ভেঙে গিয়েছে। রুদ্রনীল-তনুশ্রীর চার হাত এক হয়নি। কারণ হিসেবে তনুশ্রীর দাবি, তাঁর সহ-অভিনেতা বন্ধুটি নাকি বেড়ে পাকা! রুদ্রনীলের কী বক্তব্য? "আমরা খুব ভাল বন্ধু ছিলাম। কিন্তু সেই বন্ধুত্বকেই অন্য আকার-আকৃতিতে নিয়ে যেতে গিয়ে দেখলাম, স্বামী-স্ত্রী হয়ে গেলে অনেক কিছুতে বাধো বাধো ঠেকে। বন্ধু হিসেবে যে কথাগুলো অবলীলায় বলে ফেলা যায়, প্রেমের ক্ষেত্রে তা সম্ভব নয়। তাই আলাদা হয়ে গেলাম আমরা। ও এখন নতুন জীবনে পা রেখেছে। নতুন প্রেমিক আছে ওর। অনেক শুভেচ্ছা", এ কথাই শোনা গিয়েছে তাঁর মুখ থেকে।

নিউজ ট্যাগ: রুদ্রনীল ঘোষ

আরও খবর



আগুনে পুড়ল রোহিঙ্গা ক্যাম্পের সহস্রাধিক ঘর

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৯ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৮০জন দেখেছেন
মোহাম্মদ ফারুক, কক্সবাজার

Image

কক্সবাজারের উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় রোহিঙ্গাদের সহস্রাধিক বসতঘর পুড়ে গেছে। আজ রোববার বিকেল ৫টার দিকে উখিয়ার পালংখালী ইউনিয়নের শফিউল্লাহ কাটা এলাকার ১৬ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের একটি বসতঘর থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়।

ফায়ার সার্ভিসের আটটি ইউনিট, স্থানীয় প্রশাসন ও সেখানে বসবাসরত স্থানীয় ও রোহিঙ্গাদের প্রায় দুই ঘণ্টার সম্মিলিত চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

কক্সবাজার ফায়ার সার্ভিসের উপ সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ আবদুল্লাহ বলেন, কক্সবাজার শহর ও উখিয়া ফায়ার সার্ভিসসহ ৮টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করে, ঘটনাস্থলে থাকা রোহিঙ্গাদের নিরাপদ আশ্রয়ে নিয়ে যায় ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকর্মীরা।

অগ্নিকাণ্ডে হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। তবে ১৬ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বি ও সি ব্লকের প্রায় ১২শ ঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের আইনশৃঙ্খলায় নিয়োজিত আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন-৮) অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. কামরান হোসেন বলেন, ১৬ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বি-ব্লকের মোহাম্মদ আলীর (৩৫) ঘর থেকে আগুনের সূত্রপাত। আগুন দ্রুত ক্যাম্পের ব্লক-বি ও ব্লক-সি এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে।

সন্ধ্যা ৭টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয় উল্লেখ করে এই কর্মকর্তা বলেন, নিয়ন্ত্রণে তাৎক্ষণিক পদক্ষেপ নেওয়ায় আগুনের বিস্তৃতি কম ছিল। তবে দুই ব্লকের অধিকাংশ ঘরই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

আগুন লাগার পরপরই নিরাপদ আশ্রয়ে যেতে ছোটাছুটি শুরু করেন ক্যাম্পে বসবাসরত রোহিঙ্গারা। অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ১৬ নং ক্যাম্পের বাসিন্দা নামে আব্দুর রহিম বলেন, অগ্নিকাণ্ডে আমার ও আমার পার্শ্ববর্তী অনেকগুলো ঘর পুড়ে গেছে। আমরা অসহায় হয়ে পড়েছি, আমাদের এখন খোলা আকাশের নিচে রাত কাটাতে হবে।

চলতি মাসে উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এটি দ্বিতীয় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা। এর আগে গত ২ জানুয়ারি উখিয়ার ২০ এক্সটেনশন রোহিঙ্গা ক্যাম্পে একটি করোনা আইসোলেশন সেন্টারে আগুন লাগে। সে ঘটনায় হতাহতের ঘটনা না ঘটলেও পুড়ে যায় হাসপাতালটির ৭০ শয্যা। ৮ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়।

উল্লেখ্য, গত বছরের ২২ মার্চ উখিয়ার তিনটি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে স্মরণকালের ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। যে ঘটনায় ১০ হাজারের বেশি ঘর পুড়ে যায়। প্রাণ যায় ১১ জনের, ক্ষতিগ্রস্ত হয় দুই লক্ষাধিক রোহিঙ্গা।

নিউজ ট্যাগ: কক্সবাজার

আরও খবর



নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে জিতবই: আইভী

প্রকাশিত:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | ১৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়রপ্রার্থী সেলিনা হায়াত আইভী। তিনি বলেছেন, নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে আমি জিতবই।

রোববার (১৬ জানুয়ারি) বেলা ১১টার দিকে নগরীর শিশুবাগ বিদ্যালয়ের নারী কেন্দ্রে ভোট দেওয়া শেষে তিনি এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

ভোটের গতি স্লো অভিযোগ করে আইভী বলেন, নগরীরর ৩, ৫, ১৮, ১৭, ২০ নম্বর ওয়ার্ডে খুবই স্লো ভোট কাস্টিং হচ্ছে। দীর্ঘ সময় ধরে মানুষ দাঁড়িয়ে আছে। আমি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহযোগিতা চাচ্ছি, যাতে উৎসবমুখর পরিবেশে আমার লোকগুলো ভোট দিতে পারে।

এ ধীরগতির কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, ইভিএম নতুন, বিষয়টি ভোটারদের কাছেও নতুন। তাদের ট্রেইনআপ করে গতি বাড়াতে হবে। দিন ছোট। শীতকাল। সবকেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি আছে।

ভোটের পরিবেশ এখন পর্যন্ত ঠিক আছে মন্তব্য করে আইভী বলেন, আমি জানি না একটু পরে কী হবে। আমি চাই ভোটাররা যাতে দ্রুত ভোট দিতে পারে। নারায়ণগঞ্জের মানুষ নির্ধারণ করে ফেলেছেন আমাকেই ভোট দেবে। ইনশাআল্লাহ নৌকার জয় হবেই হবে, আইভীর জয় হবেই হবে।

এর আগে সকালে বাসা থেকে বের হয়ে সরাসরি বাবা আলী আহাম্মদ চুনকার কবর জিয়ারত করেন সেলিনা হায়াৎ আইভী। সেখান থেকে বেলা ১১টার দিকে নগরীর শিশুবাগ বিদ্যালয়ে নিজের ভোট দিতে আসেন তিনি। ভোট দিয়ে আইভী সাংবাদিকদের বলেন, সুষ্ঠু ভোট হলে বিজয় নিশ্চিত। নৌকা জিতবেই শতভাগ নিশ্চিত।

এদিকে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে নারায়ণগঞ্জ ইসলামিয়া কামিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে ভোট দেন হাতি প্রতীকের প্রার্থী তৈমূর আলম খন্দকার। তিনি ভোট দিয়ে বলেন, আল্লাহপাকের মেহেরবানিতে সব মিডিয়ার রিপোর্ট, জনগণের যে ভোট, আল্লাহর রহমতে লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধান হবে ইনশাআল্লাহ।

নাসিকের ২৭টি ওয়ার্ডের ১৯২টি কেন্দ্রে সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। যা একটানা চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। সবগুলো কেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোটগ্রহণ চলছে।

নিউজ ট্যাগ: নারায়ণগঞ্জ

আরও খবর



রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার ৭৪

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | ৩১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে বিক্রি ও সেবনের অপরাধে ৭৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

বুধবার (১২ জানুয়ারি) সকাল ৬টা থেকে বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) সকাল ৬টা পর্যন্ত রাজধানীর বিভিন্ন থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) হাফিজ আল আসাদ জানান, গ্রেপ্তারকৃতদের কাছ থেকে ৬৫০২ পিস ইয়াবা, ১৮২ গ্রাম ১৭৫ পুরিয়া ১০০ পাতা হেরোইন, ৮৫ কেজি ৯১০ গ্রাম গাঁজা ও ১০৩ বোতল ফেনসিডিল জব্দ করা হয়।

আসামিদের নামে ডিএমপির থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ৫৫টি মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।


আরও খবর



১৫ জানুয়ারির পর টিকা ছাড়া স্কুলে যাওয়া যাবে না

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৯ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

১২ বছরের বেশি বয়সি শিক্ষার্থীদের টিকা গ্রহণ না করলে শ্রেণি কার্যক্রম তথা স্কুল-কলেজে না যাওয়ার লিখিত নির্দেশনা দিয়েছে সরকার। শনিবার মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা পাঠিয়েছে। এতে নিবন্ধিত ও অনিবন্ধিত ১২-১৮ বছর বয়সী সব শিক্ষার্থীর টিকা গ্রহণ নিশ্চিত করতে বলা হয়।

মাউশির নির্দেশনায় বলা হয়, ১২-১৮ বছর বয়সী সব শিক্ষার্থীকে ১৫ জানুয়ারির মধ্যে কোভিড-১৯ প্রতিরোধে ভ্যাকসিন দেওয়ার লক্ষ্যে ইতোমধ্যে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে গত ৩০ ডিসেম্বর বিভিন্ন নির্দেশনা দেওয়া হয়। রাষ্ট্রের এ গুরুত্বপূর্ণ ও অগ্রাধিকার কর্মসূচির সফল বাস্তবায়নে নতুন করে নির্দেশনা দেওয়া হলো।  

আগামী ১৫ জানুয়ারির মধ্যে প্রায় সব শিক্ষার্থীর টিকাদান কার্যক্রম শেষ হবে এবং এরপর থেকেই টিকা না নেওয়া শিক্ষার্থীরা শ্রেণি কার্যক্রমে অংশ নিতে পারবেন না বলে জানা গেছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম জানিয়েছিলেন, ১২ বছরের বেশি বয়সি শিক্ষার্থীদের টিকা নিয়েই স্কুলে যেতে হবে। করোনাভাইরাসের টিকার অন্তত এক ডোজ নেওয়া না থাকলে তাদের স্কুলে যেতে নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি নিয়ে সরকার জোরালোভাবে ভাবছে।


আরও খবর
করোনায় ১৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৪৮২৮

সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২