আজঃ বৃহস্পতিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২১
শিরোনাম

বরগুনায় দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে মা-ছেলে নিহত, আহত ৩০

প্রকাশিত:শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১ | ৭৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বরগুনা প্রতিনিধি:

দুই পরিবহন গাড়ীর মুখোমুখি সংঘর্ষে মা আয়শা বেগম এবং ছেলে আয়ান নিহত এবং ৩০ জন আহত হয়েছে। ঘটনা ঘটেছে শনিবার বিকেলে পটুয়াখালী-কুয়াকাটা মহাসড়কের আমড়াগাছিয়া নামক স্থানে।

জানাগেছে, চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা কুয়াকাটাগামী সেবা পরিবহন (ঢাকা মেট্রো-ব-১৪-৭২২৯) ও কুয়াকাটা থেকে ছেড়ে আসা দিনাজপুরগামী গোল্ডেন লাইন পরিবহন (ঢাকা মেট্রো-ব-১৪-৭৮৩৫) পটুয়াখালী-কুয়াকাটা মহাসড়কের আমতলীর আমড়াগাছিয়া নামক স্থানে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে গাড়ী দুটি দুমড়ে মুরচে সড়কের পাশে খাদে পড়ে যায়। এতে সেবা পরিবহনের যাত্রী মোসাঃ আয়শা বেগম (৩২) ও তার ছেলে আয়ান (১) মারা যায় এবং ৩০ জন আহত হয়েছে। গুরুতর আহত ইমরান, খাদিজা, মরিয়ম, চন্দন মল্লিক, রেরেকা সুলতানা, লতিফা, শাহীন ও রাজিবকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে হাসপাতালের চিকিৎসক কেএম তানজিরুল ইসলাম তাদের উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল সেবাচিম হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অপর আহতদের পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। নিহত আয়শা বেগম ও ছেলে আয়ানের বাড়ি চট্টগ্রাম জেলার কাঠগড় ধুমপাড়া এলাকায়।

নিহত আয়শার মেয়ে আহত মরিয়ম বলেন, বাবা-মা ও তিন ভাই বোনে মিলে গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রাম থেকে মহিপুর এক আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে যাচ্ছিলাম। পথিমধ্যে দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে মা ও আমার ভাই মারা গেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী রুবেল হাওলাদারসহ কয়েকজন বলেন, দ্রুত গতির দুই গাড়ীর মুখোমুখি সংঘর্ষে গাড়ী দুটি সড়কের পাশে খাদে পড়ে যায়। এতে অনেক হতাহত হয়েছে।

আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার কেএম তানজিরুল ইসলাম বলেন, গুরুতর আহত ২০ জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল, পটুয়াখালী ও খুলনা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আমতলী থানার ওসি মোঃ শাহ আলম হাওলাদার বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। সেবা পরিবহনের যাত্রী মা ও ছেলের মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালে আনা হয়েছে।


আরও খবর
বরগুনায় জিনের বাদশা গ্রেফতার

বুধবার ১৩ অক্টোবর ২০২১




অবস্থার অবনতি, সিসিইউতে খালেদা জিয়া

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ নভেম্বর ২০২১ | ৫৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার বিষয়ে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান এ জে এম জাহিদ হোসেন বলেন, ম্যাডামকে গত রাতে সিসিইউতে নেওয়া হয়েছে

শারীরিক অবস্থার কিছুটা অবনতি হওয়ায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) নেওয়া হয়েছে। শনিবার রাত তিনটার দিকে তাকে সিসিইউতে নেওয়া হয় বলে জানা গেছে। তবে এ বিষয়ে বিএনপির পক্ষ থেকে কোনোকিছু জানানো হয়নি।

বিএনপির প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান বলেন, এ বিষয়ে চিকিৎসকরা ভালো বলতে পারবেন।

খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার বিষয়ে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান এ জে এম জাহিদ হোসেন বলেন, ম্যাডামকে গত রাতে সিসিইউতে নেওয়া হয়েছে।

এদিকে, হাসপাতাল সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানায়, শনিবার হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর খালেদা জিয়ার এন্ডোস্কপি করা হয়। পরে রাতেই তাকে কেবিন থেকে সিসিইউতে নেওয়া হয়।

এর আগে, টানা ২৬ দিন হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে ৭ নভেম্বর সন্ধ্যায় বাসায় ফেরেন খালেদা জিয়া। ১২ অক্টোবর খালেদা জিয়াকে এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ২৫ অক্টোবর খালেদা জিয়ার শরীর থেকে নেওয়া টিস্যুর বায়োপসি করা হয়।

নিউজ ট্যাগ: খালেদা জিয়া

আরও খবর



বিবাহ বিচ্ছেদ হচ্ছে অনুপম রায়ের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১১ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১১ নভেম্বর ২০২১ | ৮৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

টুইট করে বিবাহ বিচ্ছেদের কথা ঘোষণা করলেন সঙ্গীতশিল্পী অনুপম রায়। জানালেন, স্বামী-স্ত্রী নয়, পিয়া চক্রবর্তীর সঙ্গে বন্ধু হিসেবেই থাকবেন। তিনি জানান, পিয়ার সঙ্গে তাঁর দীর্ঘ দিনের সম্পর্ক মনে রাখার মতোই ছিল। কিন্তু ব্যক্তিগত মতানৈক্য এবং ভাবনার ফারাকের জন্য স্বামী-স্ত্রী হিসাবে তাঁরা আর থাকতে পারছেন না।

ঘটনাচক্রে এটি অনুপমের দ্বিতীয় বিবাহবিচ্ছেদ। টুইটে অনুপম কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন, বন্ধু, পরিবার এবং শুভানুধ্যায়ীদের যাঁরা বরাবর পিয়া এবং তাঁর পাশে থেকেছেন এবং তাঁদের প্রত্যেকটি পদক্ষেপকে সমর্থন জানিয়েছেন। সেই সমানুভূতি এবং সমর্থন যাতে ভবিষ্যতেও থাকে, তার জন্য তিনি অনুরোধ জানিয়েছেন। এই বিবাহবিচ্ছেদকে সম্মানের সঙ্গে দেখার কথাও বলেছেন।

টুইটে বিবাববিচ্ছেদের খবর জানানো অবশ্য নতুন কোনও বিষয় নয়। সাম্প্রতিক অতীতে এমনই বিবৃতি দিয়ে নিজেদের আলাদা করে পথে চলার কথা ঘোষণা করেছিলেন, আমির খান এবং কিরণ রাও। আমিরও লিখেছিলেন, বন্ধু এবং সহকর্মী হিসাবে কিরণের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক থাকবে। এই পথে হাঁটলেন অনুপমও।

বৃহস্পতিবার দুপুরে অনুপমের এই ঘোষণার প্রায় আধঘণ্টা বাদে পিয়াও ইনস্টাগ্রামে বিবাহবিচ্ছেদ নিয়ে হুবহু একই বক্তব্য প্রকাশ করেন। যদিও কিছু দিন আগে তাঁদের বিবাহবিচ্ছেদ নিয়ে কোনও আভাস পাওয়া যায়নি। নেটমাধ্যমে ১৪ অক্টোবর প্রিয় লিখে অনুপমকে নিয়ে পিয়া পরিবার এবং বন্ধুদের সঙ্গে ছবি দিয়েছিলেন। সেখানে পুজোর মেজাজেই তাঁদের দুজনকে দেখা গিয়েছিল। হয়তো পিয়া-অনুপমের গভীর বন্ধুত্বই এই বিচ্ছেদকে সহজ করেছে।

৬ ডিসেম্বর ২০১৫ সালে পিয়াকে বিয়ে করেন অনুপম। প্রায় ৬ বছরের মাথায় বিয়ে ভাঙল। অনুপমের স্ত্রী পিয়া নৃবিজ্ঞানে পিএইচডি করেছেন গ্রেটার নয়ডার শিব নাডার বিশ্ববিদ্যালয়ে। কলেজে পড়ার সময় অনুপমের সঙ্গে বন্ধুত্ব হয়েছিল তাঁর। এই বন্ধুত্ব পরবর্তীতে এসে গড়ায় ভালবাসার সম্পর্কে। তার পরই বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন। তত দিনে অনুপমের প্রথম বিচ্ছেদ হয়ে গিয়েছে।

পিয়ার সঙ্গে বিয়ের পর অনুপমের পেশাদার জীবন কিংবা ব্যক্তিগত জীবনে কোনও বদল আসেনি। একাধিক জনপ্রিয় ছবিতে গান গেয়েছেন, সুরারোপ করেছেন অনুপম। প্রকাশিত হয়েছে কবিতার বই। অন্য দিকে, পিয়া পড়াশোনার সঙ্গে নানা সামাজিক কাজকর্মে নিজেকে জড়িয়ে রেখেছিলেন। এমনকী অনুপমের পরিচালনায় রবীন্দ্রনাথের গানের একক একটি অ্যালবামও প্রকাশিত হয়েছিল পিয়ার।

নিউজ ট্যাগ: অনুপম রায়

আরও খবর
অদ্ভুত অনুভূতি রেখেই শেষ হলো ‘মানি হাইস্ট’

বৃহস্পতিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২১

সায়ন্তিকার গাড়িতে ট্রাকের ধাক্কা

বৃহস্পতিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২১




সারা দেশে চলছে বিএনপির গণঅনশন কর্মসূচি

প্রকাশিত:শনিবার ২০ নভেম্বর ২০21 | হালনাগাদ:শনিবার ২০ নভেম্বর ২০21 | ১৪৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাওয়ার অনুমতি দেওয়ার দাবিতে গণঅনশন কর্মসূচি পালন করছেন নেতা-কর্মীরা। পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী আজ শনিবার সকাল ৯টার দিকে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচতলায় দিনব্যাপী এই কর্মসূচি শুরু হয়।

এদিন সকাল ৮টা থেকে বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা দলীয় কার্যালয়ের সামনে উপস্থিত হতে শুরু করেন। সকাল ৯টায় দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্যের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে গণঅনশন কর্মসূচি শুরু হয়।

ফখরুল বলেন, 'অত্যন্ত গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় এভারকেয়ার হাসপাতালে জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে খালেদা জিয়া লড়াই করছেন। কিন্তু এই ফ্যাসিবাদী সরকার এখন পর্যন্ত তাকে চিকিৎসার সুযোগ প্রদান করছে না।'

বিএনপির ডাকা গণঅনশন কর্মসূচি আজ বিকেল ৪টা পর্যন্ত চলবে।

বক্তব্যে ফখরুল নেতা-কর্মীদের শান্তিপূর্ণভাবে কর্মসূচি পালনের আহ্বান জানান। তিনি বলেন, 'আমরা আজ এই গণঅনশন কর্মসূচি অত্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবে পালন করবো।'

এ সময় তিনি খালেদা জিয়াকে বিদেশে চিকিৎসার সুযোগ দেওয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। একই দাবি জানান দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা।

আরও উপস্থিত আছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের আহ্বায়ক আমানউল্লাহ আমান ও আবদুস সালামসহ অনেকে।

কেন্দ্রীয় কর্মসূচির পাশাপাশি সারা দেশে বিএনপি নেতা-কর্মীরা আজ দিনব্যাপী গণঅনশন কর্মসূচি পালন করছেন।

গত ১৩ নভেম্বর ফলোআপের জন্য এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি হন খালেদা জিয়া। এর আগে, গত ৭ নভেম্বর সন্ধ্যায় ২৬ দিন পর বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া হাসপাতাল থেকে গুলশানের বাসা ফিরোজায় ফেরেন।

জাতীয় সংসদে একটি আইন প্রণয়নের আলোচনায় গত ১৬ নভেম্বর বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য রুমিন ফারহানা একই দাবি জানান। জবাবে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আবার জেলে গিয়ে চিকিৎসার জন্য বিদেশ যাওয়ার আবেদন করলে তা বিবেচনা করা হবে।

তিনি বলেন, 'খালেদা জিয়া এখন যে অবস্থায় আছেন তাতে আবেদন নতুন করে বিবেচনার কোনো সুযোগ নেই। এই আবেদনটি ইতোমধ্যে নিষ্পত্তি হয়ে গেছে। নিষ্পত্তিকৃত দরখাস্তের ওপর আর কোনো ব্যবস্থা নেওয়া যাবে না। আইন সবার জন্য সমান। কিন্তু তারপরও খালেদা জিয়া সাজাপ্রাপ্ত কয়েদিদের চেয়ে বেশি সুবিধা ভোগ করছেন। এটি পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মানবিকতার কারণে। বিএনপি বঙ্গবন্ধুর খুনিদের পুনর্বাসন ও পুরস্কৃত করেছিল। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা করে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা করতে চেয়েছিল। ওই মামলার প্রধান আসামি তারেক জিয়া। তারপরও খালেদা জিয়ার প্রতি দয়া করা হচ্ছে, সুচিকিৎসা করা হচ্ছে।'

দণ্ডবিধির ৪০১ ধারা মতে এই সুযোগ দেওয়ার এখতিয়ার সরকারের রয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।


আরও খবর



স্বর্ণের দাম বাড়লো

প্রকাশিত:শনিবার ১৩ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ নভেম্বর ২০২১ | ৫৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সোনার দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত জানিয়েছে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি। শুক্রবার (১২ নভেম্বর) রাতে সমিতির সভাপতি এনামুল হক খান ও সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার আগরওয়ালা স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ সিদ্ধান্ত জানায় সমিতি। বিজ্ঞপ্তিতে প্রতি ভরিতে ২ হাজার ৩৩৩ টাকা বাড়ানোর কথা জানানো হয়।

বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি জানিয়েছে, নতুন দাম শনিবার (১৩ নভেম্বর) থেকে সারা দেশে কার্যকর হবে। বাজুসের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরির দাম ছিল ৭১ হাজার ৯৬৬ টাকা। শনিবার থেকে এ মানের সোনার ভরির দাম হবে ৭৪ হাজার ৩০০ টাকা।

২১ ক্যারেটের প্রতি ভরির দাম ধরা হয়েছে ৭১ হাজার ১৫০ টাকা। শুক্রবার পর্যন্ত এ মানের স্বর্ণের দাম রয়েছে ৬৮ হাজার ৮১৭ টাকা। দাম বেড়েছে ২ হাজার ৩৩৩ টাকা।

একইভাবে ১৮ ক্যারেটের প্রতি ভরির দাম পড়বে ৬২ হাজার ৪০২ টাকা। বর্তমান দাম রয়েছে ৬০ হাজার ৬৯ টাকা। ভরিতে বেড়েছে ২ হাজার ৩৩৩ টাকা। সনাতন পদ্ধতিতে সোনা প্রতি ভরির দাম ধরা হয়েছে ৫২ হাজার ৭৯ টাকা ভরি। শুক্রবার পর্যন্ত দাম রয়েছে ৪৯ হাজার ৭৪৬ টাকা। দাম বেড়েছে ২৩৩৩ টাকা।

সমিতি আরও জানায়, আন্তর্জাতিক বাজারে সোনার দাম বৃদ্ধি, দেশে চাহিদার বিপরীতে যোগান কম ও বুলিয়ন মার্কেটে মূল্যবৃদ্ধির কারণে সোনার দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ফলে, শনিবার থেকে ২২ ক্যারেটের ১ ভরি স্বর্ণের মূল্য হবে ৭৪ হাজার ৩০০ টাকা।


আরও খবর
শেয়ারবাজারে মূল্যসূচকের বড় উত্থান

মঙ্গলবার ০৭ ডিসেম্বর ২০২১

সূচকের উত্থানে লেনদেন শেষ হয়েছে

সোমবার ০৬ ডিসেম্বর ২০২১




বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক স্থগিত

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১ | ৪২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
অনেক প্রতিনিধি দীর্ঘদিন ধরে বলে আসছেন, রাজনৈতিকভাবে সংবেদনশীল অনেক বিষয় ভার্চুয়াল বৈঠকে আলোচনা করা যায় না। আর করা গেলেও তা অতটা ফলপ্রসূ হয় না

বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার (ডব্লিউটিও) দ্বাদশ মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করা হয়েছে। সম্প্রতি ইউরোপের দেশগুলোতে নতুন করে করোনাভাইরাসের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় সঙ্গনিরোধ ও ভ্রমণ বিধিনিষেধ আরোপের কারণে ডব্লিউটিএর সাধারণ পরিষদ এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আগামী ৩০ নভেম্বর থেকে ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। আর এই বৈঠক পরে কবে অনুষ্ঠিত হবে, তা এখনো ঠিক করা হয়নি।

বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার সাধারণ পরিষদের সভাপতি ডাইসো কাসতিলো এক বিবৃতিতে বলেছেন, 'দুর্ভাগ্যজনকভাবে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ আবার বেড়ে যাওয়ায় যে অনিশ্চয়তা সৃষ্টি হয়েছে, তাতে আমাদের পক্ষে এই অনুষ্ঠান স্থগিত করা ছাড়া গত্যন্তর ছিল না। পরিস্থিতি অনুকূল হলে নতুন করে বৈঠকের তারিখ ঘোষণা করা হবে।'

ডব্লিউটিওর মহাপরিচালক এনগোজি ওকোনজো-ইওয়েলা বলেছেন, ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপিত হওয়ায় অনেক মন্ত্রী ও জ্যেষ্ঠ প্রতিনিধি মুখোমুখি বসে বৈঠক করতে পারবেন না। এ ছাড়া অংশগ্রহণকারীরা সবাই একভাবে অংশ নিতে পারবেন না। এই পরিস্থিতিতে বিপুলসংখ্যক মানুষের উপস্থিতিতে বৈঠক করা সম্ভব হবে না বলে শেষ মুহূর্তে বৈঠক স্থগিত করা হয়েছে।

এনগোজি ওকোনজো-ইওয়েলা আরও বলেন, অনেক প্রতিনিধি দীর্ঘদিন ধরে বলে আসছেন, রাজনৈতিকভাবে সংবেদনশীল অনেক বিষয় ভার্চুয়াল বৈঠকে আলোচনা করা যায় না। আর করা গেলেও তা অতটা ফলপ্রসূ হয় না।

এই পরিস্থিতিতে সশরীরের বৈঠক স্থগিতের সুপারিশ করা তাঁর পক্ষে সহজ নয় বলে মনে করেন এনগোজি ওকোনজো-ইওয়েলা। তবে এক্ষেত্রে অংশগ্রহণকারী প্রতিনিধিদের জীবন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। সে জন্য তাঁর মত, সতর্ক থাকাই মঙ্গল, তাতে কিছু বাড়াবাড়ি হলে ক্ষতিবৃদ্ধি হয় না।

তবে এরই মধ্যে দেশে দেশে অনেক বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা শিথিল করা হয়েছে। এতে ব্যবসা-বাণিজ্যে গতি ফিরতে শুরু করেছে। এই বাস্তবতায় আলোচনার যে পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে, তা ধরে রাখার আহ্বান জানিয়েছেন এনগোজি ওকোনজো-ইওয়েলা। তিনি বলেছেন, বৈঠক স্থগিত হওয়া মানে এই নয় যে আলোচনা থেমে যাবে। বরং বৈঠকে যে প্রতিনিধিদের আসার কথা ছিল, তাঁদের আরও ক্ষমতায়ন করা উচিত। এরপর যখন বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে, তখন যেন তাঁরা ব্যবধান ঘোচাতে পারেন।

উল্লেখ্য, এ নিয়ে দ্বিতীয়বার দ্বাদশ মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক স্থগিত হলো। ২০২০ সালের জুন মাসে কাজাখস্তানে এই বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। এরপর জেনেভায় ৩০ নভেম্বর থেকে ৩ ডিসেম্বর বৈঠকের সময় নির্ধারণ করা হয়। তবে এবার বৈঠক জেনেভায় অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও কাজাখস্তানেরই এতে সভাপতিত্ব করার কথা ছিল।


আরও খবর