আজঃ বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১
শিরোনাম

বরিশালে ইউএনওর বিরুদ্ধে মামলার আবেদন

প্রকাশিত:রবিবার ২২ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২২ আগস্ট ২০২১ | ১৩১৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনায় এবার বরিশাল সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মুনিবুর রহমানের বিরুদ্ধে ২ মামলার আবেদন করা হয়েছে।

রবিবার অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আমলি আদালতে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের (বিসিসি) প্যানেল মেয়র রফিকুল ইসলাম খোকন এবং একই প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী মো. বাবুল বাদী হয়ে ওই মামলা দুটির আবেদন করেন।

রফিকুল ইসলাম খোকন এবং মো. বাবুলর করা মামলার আবেদনে ইউএনও মুনিবুর রহমানের বিরুদ্ধে বিসিসির কাজে বাধাদান, বিনা উস্কানীতে বিসিসির কর্মচারীদের ওপর গুলিবর্ষণের নির্দেশ প্রদান, হামলা, গুলিতে  একাধিক ব্যাক্তির অঙ্গহানী এবং ৩০/৪০ জনকে আহত করার অভিযোগ আনা হয়েছে।

মামলার আবেদনে ইউএনও ছাড়াও ১৮ আগস্ট রাতে তার বাসভবনে দায়িত্বরত আনসার সদস্যসহ আরও ৪০/৫০ জন অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামি করা হয়েছে।

বাদীর পক্ষে আইনজীবী হিসেবে আদালতে উপস্থিত থাকা বরিশাল আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. কাইয়ুম খান কায়সার জানান, আবেদনের শুনানি শেষে বিজ্ঞ বিচারক মাসুম বিল্লাহ সিদ্ধান্ত ঘোষণার জন্য রেখেছেন। তিনি সিদ্ধান্ত দেয়ার পর জানা যাবে যে মামলাটি গ্রহণ নাকি খারিজ করা হল।

উল্লেখ্য, বরিশালে পুলিশ ও আনসার সদস্যদের সঙ্গে আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীদের সংঘর্ষে পাঁচজন গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন। বুধবার রাতে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মুনিবুর রহমানের সরকারি বাসভবনে হামলাকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটে।

এ সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহও আঘাতপ্রাপ্ত হন বলে তিনি দাবি করেছেন। আহতদের মধ্যে ৩ পুলিশ ও ২ আনসার সদস্য রয়েছেন।

ঘটনার প্রতিবাদে রাতেই নেতাকর্মীরা নগরীর রূপাতলী ও নথুল্লাবাদ টার্মিনাল এলাকায় ঢাকা-বরিশাল মহাসড়ক অবরোধ করে। একইসঙ্গে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বন্ধ করে দেয় অভ্যন্তরীণ ও দূরপাল্লা রুটের লঞ্চ চলাচল। পরে প্রশাসনের সঙ্গে সমঝোতা বৈঠক শেষে দুপুর ১২টার পর বাস-লঞ্চ চলাচল স্বাভাবিক হয়।

এদিকে ইউএনওর বাসভবনে হামলার ঘটনায় আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ ও যুবলীগের কয়েকশ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে দুটি মামলা হয়েছে। উভয় মামলায় বরিশাল সিটি করপোরেশনের মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদিক আব্দুল্লাহকে প্রধান আসামি করা হয়েছে।


আরও খবর
স্বামী হত্যায় স্ত্রীর যাবজ্জীবন

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

আদালতে হাজির করা হচ্ছে ইভ্যালির রাসেলকে

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




বাইডেনের সাথে ইসরাইলী প্রধানমন্ত্রীর বৈঠক

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৬ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ আগস্ট ২০২১ | ৬০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ইসরাইলী প্রধানমন্ত্রী নাফতালি ব্যানেট বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সাথে বৈঠকে মিলিত হচ্ছেন। এ সময় তিনি ইরানের পরমাণু কর্মসূচী নিয়ে চাপ এবং ইসরাইলের জন্য দ্বিপাক্ষিক সমর্থন জোরদারের আহ্বান জানাবেন। যুক্তরাষ্ট্রে এ প্রথম রাষ্ট্রীয় সফরে আসার আগে ব্যানেট সাংবাদিকদের বলেন, বাইডেন ইসরাইলের সত্যিকারের পুরোনো বন্ধু।

তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে নতুন প্রশাসন এবং ইসরাইলেও নতুন সরকার। জেরুজালেম থেকে আমি এসেছি সহযোগিতার নতুন চেতনা নিয়ে। ব্যানেট বলেন, বৈঠকে তিনি ইরানের ওপর আলোকপাত করবেন।

বুধবার মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী এন্টনি ব্লিংকেনের সাথে বৈঠককালে ব্যানেট বলেন, প্রাথমিকভাবে আঞ্চলিক পর্যায়ে ইরানের প্রভাব এবং তেহরানের পরমাণু অস্ত্র অর্জনের চেষ্টা হ্রাসে তিনি আমেরিকার কাছ থেকে সহযোগিতা ও শুভ কামনা আশা করেন।

এদিকে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ইরানের পরমাণু চুক্তি থেকে বেরিয়ে আসার সিদ্ধান্তের বিপরীতে বাইডেন যে উদ্যোগ নিয়েছেন তার তীব্র বিরোধিতা করছে ইসরাইল। বাইডেনের সাথে বৈঠককালে ব্যানেট এ বিষয়ে একটি সুশৃঙ্খল পরিকল্পনা উপস্থাপন করবেন বলেও জানান।

ব্লিংকেন ব্যানেটকে বলেছেন, ইসরাইলের নিরাপত্তা বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র তার অঙ্গীকারে অটল এবং ইরানের পরমাণু  কর্মসূচি নিয়ে উভয়ের উদ্বেগ অভিন্ন। উল্লেখ্য, ব্যানেট (৪৯) জুন মাসে ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেন।



আরও খবর
বিশ্বজুড়ে বেড়েছে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যু

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




নুসরাতের পেছনে যুদ্ধাপরাধী-সুশীল সিন্ডিকেট

প্রকাশিত:শনিবার ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মুনিয়ার মৃত্যুর মামলাকে জিইয়ে রাখতে উৎসাহী যুদ্ধাপরাধী এবং সুশীল সিন্ডিকেট এই মামলাটি যেন চলমান থাকে, জনমনে যেন এই মামলা নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়, সেজন্য তৎপর এই যুদ্ধাপরাধী সিন্ডিকেট। এরা নুসরাতকে যেকোনো মূল্যে এই মামলা চালিয়ে নিয়ে যাওয়ার উৎসাহ দিচ্ছে এবং প্ররোচিত করছে।

নুসরাত যেন এই মামলা থেকে সরে না আসে সেজন্য যুদ্ধাপরাধী গোষ্ঠী সার্বক্ষণিক নজরদারিতে রেখেছে নুসরাতকে।

মুনিয়া ইস্যুকে জিইয়ে রাখতে যুদ্ধাপরাধী গোষ্ঠী এবং সুশীল সমাজ দুটি কৌশল গ্রহণ করেছে।

প্রথমত, আইনি সহায়তা, মুনিয়ার মৃত্যুর বিষয়টিকে আইনি সহায়তা দিতে যুদ্ধাপরাধীদের অর্থায়নে একটি আইনজীবী প্যানেল করা হয়েছে। প্রকাশ্যে যে কজন আইনজীবী আছেন এরা সবাই জামায়াত ও যুদ্ধাপরাধী ঘরনার। নেপথ্যে থেকে এদের সহায়তা দিচ্ছে সুশীল সমাজ নিয়ন্ত্রিত কয়েকজন আইনজীবী।

দ্বিতীয়ত, মুনিয়ার মৃত্যু নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লাগামহীন প্রচারণা এবং মিথ্যাচার করছে। যুদ্ধাপরাধীদের অর্থায়নে পরিচালিত কিছু তথাকথিত ইউটিউব চ্যানেল এবং ফেসবুকে এই ইস্যুতে অবিরাম মিথ্যাচার করা হচ্ছে। আপাত দৃষ্টিতে মনে হতে পারে বসুন্ধরা গ্রুপের এমডি অথবা বসুন্ধরা শিল্প পরিবারকে ঘায়েল করার জন্য বা তাদের ইমেজ নষ্ট করার জন্যই হয়তো এতো আয়োজন। কিন্তু একটু অনুসন্ধান করলে দেখা যাবে, বসুন্ধরা গ্রুপ না মূল টার্গেট হলো সরকার।

বসুন্ধরা ইস্যুকে সামনে রেখে সরকারকে অস্থির করে তোলাই যুদ্ধাপরাধী এবং সুশীলদের মূল লক্ষ্য। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যেসব নোংরা কথাবার্তা বলা হচ্ছে সেগুলোতে আক্রমণ করা হচ্ছে, পুলিশ বাহিনীকে, আইন ও বিচার মন্ত্রীকে এবং সরকারকে। পাশাপাশি এই ঘটনাকে রং মিশিয়ে প্রচারের মাধ্যমে ব্যবসায়ী ও শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলোতে আতঙ্ক ছড়ানো হচ্ছে। অন্যান্য ব্যবসায়ীরা এই ঘটনায় আতঙ্ক অনুভব করছেন। কোনো কিছু না করেই, একজনকে না চিনে, না জেনেও যদি বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যানের মতো একজন সম্মানিত ব্যক্তিকে আসামি করা যায়।

এ ধরনের খ্যাতিমান ব্যক্তির বিরুদ্ধে যদি যাচাই-বাছাই ছাড়াই মামলা আমলে নেওয়া হয়, তাহলে কোনো ব্যবসায়ীই নিরাপদ নয়। দেশের পুলিশ বাহিনীকে বিতর্কিত ও বিব্রত করা, আইন ও বিচারমন্ত্রী, যনি যুদ্ধাপরাধীদের বিচার এবং বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচারে যুগান্তকারী অবদান রেখেছেন তাকে প্রশ্নবিদ্ধ করা এবং ব্যবসায়ীদের আতঙ্ক ছড়ানোর উদ্দেশ্যে মুনিয়া ইস্যুতে একের পর এক নাটক সাজানো হচ্ছে।

সোশাল মিডিয়াতে যুদ্ধাপরাধীদের টাকায় খোলা হয়েছে অনেকগুলো গুজবের ফ্যাক্টরি। এসবের মূল লক্ষ্য একটাই, সরকারকে বিব্রত করা। মুনিয়া ইস্যু আসলে সরকারের বিরুদ্ধে সাইবার যুদ্ধে যুদ্ধাপরাধী ও সুশীলদের সৃষ্ট নতুন নাটক।


আরও খবর
স্বামী হত্যায় স্ত্রীর যাবজ্জীবন

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

আদালতে হাজির করা হচ্ছে ইভ্যালির রাসেলকে

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




নতুন পরিচালকরা আমাদের এড়িয়ে চলে: নাসরিন

প্রকাশিত:রবিবার ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

১৯৯২ সালে সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিতলাভ ছবির মধ্য দিয়ে  চলচ্চিত্রে যাত্রা করেন অভিনেত্রী নাসরিন আক্তার। নৃত্য সহশিল্পী হিসেবে যাত্রাটা শুরু হলেও দেশের প্রথম সারির অনেক নায়কের বিপরীতেও অভিনয় করেছেন তিনি। কৌতুক অভিনেতা দিলদারের নায়িকা হিসেবে আকাশছোঁয়ায় জনপ্রিয়তা পেয়েছেন।

তার দাবি, দীর্ঘ ক্যারিয়ারে পাঁচ শতাধিক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। এখন তাকে সিনেমা অঙ্গনে খুব একটা দেখা যায় না। কেমন আছেন কি কাজ করছেন বিষয় জানতে তার সঙ্গে কথা হয়।

কেমন আছেন জানতে চাইলে নাসরিন বলেন, ‘আল্লাহর রহমতে ভালোই আছি।

কাজের খবর জানিয়ে অভিনেত্রী বলেন, “একদম কাজ নেই। মোস্তাফিজুর রহমান মানিক ভাইয়ের পরিচালনায়আনন্দ অশ্রু সিনেমায় কাজ করছি, যা আর দু-একদিন করলেই পুরোপুরি শেষ হয়ে যাবে। তারপর আর কোনো কাজ নেই। বেকার।

একটা সময় ছিল সিডিউল দেয়া নিয়ে আতঙ্কে থাকতাম। চারদিকে কাজ আর কাজ। সিডিউল দিতে পারতাম না সবাইকে। কত কথা শুনতে হয়েছে। কতজনের রাগ ভাঙাতে হয়েছে। এখন এমন দিন এলো না খেয়ে থাকার উপক্রম। তার ওপর করোনার যন্ত্রণা যোগ হয়েছে- বললেন নাসরিন।

তিনি মনে করেন এফডিসির সিনিয়র পরিচালকরা সিনেমায় অনিয়মিত হওয়ার কারণেই তার মতো সিনিয়র শিল্পীরাও কাজ পাচ্ছেন না। এখন নতুন পরিচালকদের সময় যাচ্ছে। প্রচুর কাজ হচ্ছে। কিন্তু পরিচালকদের সঙ্গে তার মতো আগেকার শিল্পীদের পরিচয়-জানাশোনা নেই। অভিনেত্রীর ভাষ্য, ‘আমরা নতুনদের সঙ্গে কাজ করতে চাই বেশি বেশি। তাদের সঙ্গে মিলেমিশে নতুন করে ইন্ডাস্ট্রিতে সোনালি দিন ফিরিয়ে আনতে চাই। সমস্যা হলো নতুন পরিচালকরা আমাদের এড়িয়ে চলে। গুণের চেয়ে গ্ল্যামার আর বন্ধু সম্পর্ককে বেশি গুরুত্ব দেয়।

তারা মনে করেন আমাদের নিয়ে কাজ করলে ইচ্ছেমতোতুই তুমি বলা যায় না। কাজ ছাড়া কোনো আড্ডায় পাওয়া যায় না।

নাসরিন নতুন পরিচালকদের সঙ্গে কাজের আরও একটি সমস্যার কথা তুলে ধরে বলেন, ‘বর্তমান সময়ের পরিচালকদের আরেকটা সমস্যা হলো তারা মনে করে তাদের মতো আর কেউ কাজ করতে জানে না। তারাই সব জানে বোঝে। ভীষণ অহংকারী। তারা সম্মানও দিতে চায় না সিনিয়র শিল্পীদের। কেমন যেন সবাই। এসবের জন্য আরও কাজ করতে মন চায় না।

 

নিউজ ট্যাগ: নাসরিন

আরও খবর
হাইকোর্টে জামিন পেলেন মডেল মৌ

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

আমার পছন্দের পুরুষকে একটু রাফ হতে হবে

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত ২২ কোটি ৯৮ লাখ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ সেপ্টেম্বর 20২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২১ সেপ্টেম্বর 20২১ | ২৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে বিশ্বে মৃতের সংখ্যা বেড়ে পৌঁছেছে ৪৭ লাখ ১৩ হাজার ৩৯০ জনে। ভাইরাসটিতে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২২ কোটি ৯৮ লাখ ১৭ হাজার ৭৮২ জনে। করোনা থেকে সেরে ওঠা মানুষের সংখ্যা ২০ কোটি ৬৪ লাখ ৮১ হাজার ৫৮৮ জন।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটার থেকে মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) সকালে এই তথ্য জানা গেছে।

ওয়ার্ল্ডওমিটারের সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু হয়েছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রে। তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৪ কোটি ৩১ লাখ ৭ হাজার ৬২৮ জন আর মারা গেছেন ৬ লাখ ৯৪ হাজার ৬১৯ জন।


আরও খবর
করোনায় শনাক্ত ও মৃত্যু আরও কমল

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




অক্টোবরের মাঝামাঝি সময়ে খুলছে বিশ্ববিদ্যালয় : শিক্ষামন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৭ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ আগস্ট ২০২১ | ৭৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আগামী এক মাসের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের টিকার বিষয়টি নিশ্চিত করা হবে। এরপর অক্টোবর মাসের মাঝামাঝি সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খুলে দেয়া হবে। এ ছাড়া আগামী সপ্তাহে জাতীয় পরামর্শ কমিটির সভা আহ্বান করা হয়েছে, তাদের মতামত পেলে স্কুল খুলে দেয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

শুক্রবার (২৭ আগস্ট) গাজীপুরের উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বিজ্ঞানসম্মতভাবে বলা হয়- শতকরা আক্রান্ত ৫ শতাংশের নিচে নামলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া যায়। কিন্তু এমন পরিস্থিতি এখনও বাংলাদেশে হয়নি। শিক্ষা মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন ও শিক্ষক সমিতিসহ জাতীয় কমিটির সভা শেষে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানানো হবে।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২৬ আগস্ট) দুপুরে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যৌথ বৈঠক হয়। ওই বৈঠকে ১৫ অক্টোবরের পর বিশ্ববিদ্যালয় খোলা যাবে বলে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

বৈঠকে মন্ত্রী বলেছিলেন, আগামী ১৫ অক্টোবরের পর থেকে ধাপে ধাপে বিশ্ববিদ্যালয় খোলা যাবে। তবে অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয় খোলার আগে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের টিকা নেয়ার বিষয়টি ছক আকারে ইউজিসিতে পাঠাতে হবে। যাদের টিকা কার্যক্রম শেষ হবে না তাদের বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ রাখতে নির্দেশ দেন তিনি।

একই বৈঠকে দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ থাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি আরও বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ১১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বলবৎ থাকবে।

এদিকে দীর্ঘ সময় বন্ধ থাকার পর অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে খুলছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) আবাসিক হল।

তবে, আবাসিক হল খুললেও করোনা টিকা নেয়া সাপেক্ষে শুরুতে হলে উঠবে স্নাতক (সম্মান) চতুর্থ বর্ষ ও স্নাতকোত্তরের শিক্ষার্থীরা। পরে বাকি শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের হলে থাকার অনুমতি দেয়া হবে।


আরও খবর