আজঃ বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২
শিরোনাম
রংপুরে পেট্রল সংকট

চাহিদা পূরণে হিমশিম খাচ্ছে ফিলিং স্টেশনগুলো

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | ৪০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রেলপথনির্ভর জ্বালানি তেল পরিবহন দীর্ঘদিন ছুটির ফাঁদে পড়ায় রংপুর বিভাগে এখনো পেট্রলের চাহিদা পূরণে হিমশিম খাচ্ছে ফিলিং স্টেশনগুলো। আবার তেল পরিবহনে রেলের সীমাবদ্ধতা থাকায় ঈদ ঘিরে পেট্রলের বর্ধিত চাহিদার অনুপাতে পাম্পগুলো প্রয়োজনীয় তেল সংগ্রহ করতে ব্যর্থ হচ্ছে। ফলে ভোগান্তিতে পড়েছেন যানবহন মালিক ও যাত্রীরা।  রংপুর বিভাগীয় পেট্রল পাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন সূত্রে জানা গেছে, বিভাগে ফিলিং স্টেশনের সংখ্যা হচ্ছে ৩৫৪টি। প্রতিদিন পেট্রলের চাহিদা প্রায় ৩ লাখ লিটার। ঈদ ঘিরে এ চাহিদা অনেক বেড়ে যায়। কিন্তু পদ্মা, মেঘনা ও যমুনা অয়েল কোম্পানিগুলো সোমবার পর্যন্ত প্রয়োজনীয় পেট্রল সরবরাহ করতে পারেনি।

রংপুরের শাপলা ফিলিং স্টেশনের মালিক মো. আজিজুল ইসলাম মিন্টু বলেন, রংপুরে অবস্থিত অয়েল কোম্পানিগুলোয় চাহিদামতো তেল পাওয়া যাচ্ছে না। আবার দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুরে অবস্থিত ডিপো থেকে তেল পাওয়া কঠিন। রোববার কিছু পেট্রল বিক্রি করলেও সোমবার তার পাম্পে পেট্রল নেই। আবার কবে পেট্রল পাবেন তিনি তা জানেন না। একই অবস্থা অধিকাংশ পাম্পে।

পদ্মা, মেঘনা এবং যমুনা তেল কোম্পানিগুলোয় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রেলের দুটি র্যাকারের মাধ্যমে তাদের প্রয়োজনীয় জ্বালানি তেল পেট্রল, ডিজেল, অকটেন এবং কেরোসিন নিয়ে আসা হয়। চট্টগাম থেকে একটি র্যাকারে তেল নিয়ে আসতে ছয় থেকে সাতদিন সময় লাগে। মেঘনা তেল কোম্পানির সিনিয়র সেলস অফিসার মো. গোলাম ইয়াসিন বলেন, ঈদ উপলক্ষে দীর্ঘ ছুটি থাকায় তেল এনে বিতরণে বিলম্ব হয়েছে। এদিকে ঈদে পেট্রলের চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ায় সময়মতো পেট্রল পেতে সময় লাগছে।

এদিকে দিনাজপুরের পার্বতীপুরে অবস্থিত যমুনা তেল কোম্পানির এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা নাম না প্রকাশ করার শর্তে বলেন, ১-৫ মে পর্যন্ত সরকারি ছুটি থাকায় জ্বালানি তেল বিতরণে ব্যাঘাত ঘটে। আস্তে আস্তে স্বাভাবিক হচ্ছে। সিন্ডিকেটের কারণে রংপুরে পাম্পমালিকরা প্রয়োজনে পার্বতীপুর থেকে তেল সংগ্রহ করতে ব্যর্থ হওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি এ বিষয়ে কোনো কিছু বলতে অপারগতা জানান।

রংপুর বিভাগীয় পেট্রল পাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং সাঈদ ফিলিং স্টেশনের প্রোপাইটার মো. রিয়াজ শহিদ শোভন বলেন, যদি এখানে অন্তত রেলের পাঁচটি র‌্যাকার নিরবচ্ছিন্নভাবে চলাচল করত তাহলে ঈদের এ চাহিদায়ও পাম্পমালিকদের বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়তে হতো না বলে তিনি মনে করেন।

রংপুর বিভাগীয় পেট্রল পাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক এবং রংপুর চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি মোস্তফা সোহরাব চৌধুরী টিটু বলেন, যেকোনো সংকটে একটি অসাধু মহল সরকারকে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে ফেলতে চায়। তাই প্রশাসনের তদারকি বৃদ্ধি করতে হবে। এছাড়াও তিনি বলেন, পাশের দেশে জ্বালানি তেলের দাম বেশি হওয়ায় সীমান্তসংলগ্ন জেলাগুলো দিয়ে যাতে তেল পাচার না হয় সেজন্য প্রশাসনিক নজরদারি বৃদ্ধি করা দরকার। রংপুর রেলের সুপারিনটেনডেন্ট শংকর গাঙ্গুলী বলেন, র‌্যাকার বৃদ্ধির বিষয়টি রেলের নীতিনির্ধারকদের সিদ্ধান্তের বিষয়। রেলের ইঞ্জিন সংকটের কারণে র‌্যাকার বহনে বিলম্ব হয় এ কথা সত্য বলে তিনি জানান।

নিউজ ট্যাগ: পেট্রল-ডিজেল

আরও খবর



ঈদের শেষ মুহূর্তের কেনাকাটায় ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড দিচ্ছে ২৫% ছাড়

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | ৩৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঈদের আনন্দকে বাড়িয়ে দিতে  শেষ মুহূর্তের কেনাকাটায় ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড দিচ্ছে ২৫% ডিসকাউন্ট। এছাড়াও প্রতিটি কেনাকাটায় স্ক্রাচ কার্ড এর মাধ্যমে সকল জুয়েলারীতে নিশ্চিত  ইন্সট্যান্ট  ক্যাশ ব্যাক দিচ্ছেন প্রতিষ্ঠানটি। ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড এর সকল শোরুম থেকে শুধুমাত্র চাঁদরাত পর্যন্ত ক্রেতারা এই অফার লুফে নিতে পারবেন।

শোরুমের পাশাপাশি অনলাইন অর্ডারে রয়েছে সকল ডায়মন্ড জুয়েলারীতে ২৭% ছাড়, ফ্রি হোম ডেলিভারি সহ ইএমআই (কিস্তি) সুবিধা এবং স্পেশাল স্ক্রিমের জুয়েলারী। অফারটি চলবে চাঁদরাত পর্যন্ত শুধুমাত্র অনলাইনে। আর শোরুম এবং অনলাইন এর প্রতিটি কেনাকাটায় থাকছে নিশ্চিত আকর্ষনীয় উপহার এবং র‍্যাফেল ড্র এর মাধ্যমে ১০ লক্ষ টাকা জেতার সুযোগ।

বিস্তারিত জানতে (২৪/৭) কল করা যাবে ০১৭১৩-১৯৯২৭০ নম্বরে এবং ভিজিট করা যাবে https://www.diamondworldltd.com/eid-2022  লিংকে।


আরও খবর
ফের বাড়লো স্বর্ণের দাম

মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২




নাটোরে ট্রাক উল্টে শ্রমিক নিখোঁজ

প্রকাশিত:রবিবার ০৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৮ মে ২০২২ | ৫৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নাটোর সদরের নাটোর রাজশাহী মহাসড়কের তোকিয়া নামক স্থানে ধান বোঝাই ট্রাক উল্টে আল আমিন নামে এক ধান কাটার শ্রমিক নিখোঁজ রয়েছে। শনিবার (৭ মে) সন্ধ্যা ছয়টার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিখোঁজ আল আমিন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার কৃষ্ণচন্দ্রপুর গ্রামের আহসান আলীর ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার সন্ধ্যা ৭ টার দিকে নাটোরের সিংড়া উপজেলার জৌগ্রাম এলাকায় ধান কেটে বাড়ি ফিরছিলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের শ্রমিকরা। পথে নাটোর সদরের নাটোর রাজশাহী মহাসড়কের তোকিয়া নামক স্থানে পৌঁছালে ট্রাকটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে খাদে পড়ে উল্টে যায়।

এতে ট্রাকের ওপরে থাকা ২৫ জন শ্রমিকের মধ্যে সবাই বের হয়ে আসতে পারলেও আলামিন বের হতে পারেনি। ধারণা করা হচ্ছে আলামিন ট্রাকের নিচে চাপা পড়ে আছে। ফায়ার সার্ভিস এর উদ্ধারকারী দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধারকাজ শুরু করেছে। নিখোঁজ আল আমিন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার কৃষ্ণচন্দ্রপুর গ্রামের আহসান আলীর ছেলে।

 


আরও খবর



কিউবায় পাঁচ তারকা হোটেলে বিস্ফোরণে নিহত ১৮

প্রকাশিত:শনিবার ০৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০৭ মে ২০২২ | ৩৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কিউবার ঐতিহাসিক পাঁচ তারকা হোটেল সারাতোগায় ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ১৮ জন নিহত ও ৭৪ জনের বেশি আহত হয়েছেন। স্থানীয় সময় শুক্রবার পুরোনো হাভানা শহরে এ বিস্ফোরণ হয়। হোটেলটি কিউবা সরকারের পুরোনো কংগ্রেস ভবনের বিপরীতে অবস্থিত। প্রাথমিকভাবে বিস্ফোরণের কারণ হিসেবে কর্মকর্তা গ্যাস লিকজকে দায়ী করছেন।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, পাঁচ তলা বিশিষ্ট বিলাসবহুল সারাতোগা হোটেলটি করোনার কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল। এ সংকট কাটিয়ে আগামী চার দিনের মাথায় এটি পুনরায় চালু করার কথা ছিল। এ বিস্ফোরণের ফলে আপাত হোটেলটি চালু করা যাচ্ছে না বলেই ধরা হচ্ছে। কারণ বিস্ফোরণের ফলে এর বাইরের দেয়ালের বেশির ভাগ অংশ বিধ্বস্ত হয়েছে।

ধ্বংসাবশেষের নিচে আটকে পড়া মানুষদের উদ্ধারে কাজ চলছে। আর আহতদের নিকটবর্তী হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। ইতিমধ্যে ৭৪ জনের বেশি লোককে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদিকে বিস্ফোরণের পরপরই নিরাপত্তার খাতিরে হাভানার ঐতিহাসিক ভবনগুলো ঘিরে ফেলেছিলেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

সেখানকার একজন বাসিন্দা ইয়াজিরা দে লা কারিদাদ সিবিএস সিবিএস নিউজকে বলেন, বিস্ফোরণের ঘটনায় প্রথমে তিনি ভেবেছিলেন এটি কোনো ভূমিকম্পের ঘটনা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিস্ফোরণের পর কালো ধোয়া আর ধুলোয় তারা আকাশ ছেয়ে যেতে দেখেছেন।

ওই হোটেলের ঠিক পেছনে একটি স্কুল রয়েছে। তবে স্কুলটির কোনো ক্ষতি হয়নি। স্থানীয় কর্মকর্তারা নিশ্চিত করেছেন, বিস্ফোরণের পরপরই শিক্ষার্থীদের নিরাপদে সরানো গেছে।

কিউবার প্রেসিডেন্ট মিগুয়েল দিয়াজ-ক্যানেল ক্ষতিগ্রস্ত হোটেল পরিদর্শন করেছেন। তিনি বলেছেন, এটি কোনো বোমা হামলার ঘটনা নয়। এটি একটি দুর্ভাগ্যজনক দুর্ঘটনা।

এমন সময় এ দুর্ঘটনাটি ঘটল যখন করোনার দুই বছরের ধকল কাটিয়ে কিউবার পর্যটন শিল্প আবার ঘুরে দাঁড়াবার চেষ্টা করছিল। সারাতোগা হোটেল করোনাকালের বেশির ভাগ সময় সংস্কারের জন্য বন্ধ ছিল।

১৯ শতকে গড়া সারাতোগা হোটেল বিদেশি পর্যটকদের কাছে বেশ পরিচিত। যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সময় হাভানা ও ওয়াশিংটনের মধ্যকার দ্বান্দ্বিক সময় লাগবে প্রচেষ্টা চলে। সে সময় বিশেষ করে ম্যাডোনা, বিয়ন্সে ও মিক জ্যাগারের মতো খ্যাতিমান তারকারা এই হোটেলে থেকেছেন।


আরও খবর



সাবেক অর্থমন্ত্রী মুহিতের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:শনিবার ৩০ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ৩০ এপ্রিল ২০২২ | ৩৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (৩০ এপ্রিল) বেলা ১১টার দিকে গুলশান আজাদ মসজিদে এ জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় আবুল মাল আবদুল মুহিতের ছোট ভাই ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন, অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামালসহ সরকারের বিভিন্ন এমপি, আমলা ও তার শুভাকাঙ্ক্ষীরা অংশ নেন।

জানাজার আগে গুলশান কেন্দ্রীয় মসজিদে সাংবাদিকদের কাছে স্মৃতিচারণ করেন এ কে আবদুল মোমেন। তিনি বলেন, সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের মৃত্যুতে একজন মেধাবী অভিভাবককে হারিয়েছি। মুহিত ভাইয়ের মতো মেধাবী লোক আমাদের পরিবারে আর নেই। তিনি খুব মহৎ ছিলেন। আমরা একজন অভিভাবককে হারালাম। আমার ভাই হিসেবে, বন্ধু হিসেবে আমাদের মধ্যে গভীর সম্পর্ক ছিল। তার মৃত্যু খুবই দুঃখজনক। মুহিতকে সিলেটের রায় নগরে সাহেব বাড়িতে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে। সেখানে আমার বাবা-মা, দাদা-দাদিসহ সবার কবর রয়েছে।

সংসদ ভবনের সামনে জানাজার আয়োজন না করার বিষয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, দুই বছর ধরে করোনার কারণে সংসদ ভবনের সামনে কারও জানাজার আয়োজন করা যায়নি। গতকাল (শুক্রবার) আমরা সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলেছি। কিন্তু এ ধরনের কোনো আয়োজন দেখিনি। এখন গুলশান কেন্দ্রীয় মসজিদে জানাজা শেষে মুহিত ভাইয়ের মরদেহ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নিয়ে যাওয়া হবে। সেখানে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা শেষে সিলেটে নিয়ে দাফন করা হবে।

মুহিতের দ্বিতীয় জানাজা বেলা সাড়ে ১১টায় জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সেটি স্থগিত করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। গুলশান আজাদ মসজিদে প্রথম জানাজার পর তার মর‌দেহ সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য দুপুর ২টায় শহীদ মিনারে নেওয়া হবে।এরপর দাফনের জন্য মরদেহ নেওয়া হবে সিলেটে। রোববার রায় নগরের পারিবারিক কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হবে।

সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত শুক্রবার (২৯ এপ্রিল) দিবাগত রাত ১২টা ৫৬ মিনিটে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৮ বছর। সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন জানান, নগরীর ধোপাদিঘীর পাড়স্থ সাবেক অর্থমন্ত্রীর বাসভবনে জানাজা ও দাফনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে শনিবার দুপুর ১২টায় জরুরি বৈঠক ডেকেছে সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগ। ১৯৩৪ সালের ২৫ জানুয়ারি সিলেটে জন্ম নেওয়া মুহিত তার মা সৈয়দা শাহার বানু চৌধুরী ও বাবা আবু আহমদ আবদুল হাফিজের ১৪ সন্তানের মধ্যে ছিলেন তৃতীয়। পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন তার ছোট ভাই।


আরও খবর



ঈদের খুৎবা পড়া না পড়ার ইস্যু নিয়ে সংঘর্ষ, আহত অর্ধশতাধিক

প্রকাশিত:বুধবার ০৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০৪ মে ২০২২ | ৬৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঢাকার ধামরাইয়ে ঈদগাহ ময়দানে ঈদুল ফিতরের ওয়াজিব নামাজের খুৎবা পড়া না পড়ার ইস্যু নিয়ে দুগ্রুপের লোকজনের মধ্যে মধ্যে ভয়াবহ রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

এতে বিবদমান দুগ্রুপের কমপক্ষে অর্ধশতাধিক মুসল্লি আহত হয়েছেন।আহতদের মধ্যে ১৫জনের অবস্থা গুরুতর বলে জানা গেছে। আহতদের উদ্ধার করে বিভিন্ন হাসপাতাল ও  ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। পরিস্থতি নিয়ন্ত্রণে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার উপজেলার যাদবপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ বিলকুশনাই গ্রামের ঈদগাহ ময়দানে এ ঘটনা ঘটে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সকাল ১১টায় উপজেলার যাদবপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ বিলকুশনাই গ্রামের ঈদগাহ ময়দানে ঈদুল ফিতরের জামায়াত অনুষ্ঠিত হয়। নামাজ শেষ না হতেই হঠাৎ মুষলধারে বৃষ্টি শুরু হলে খুৎবা পড়া আর না পড়া নিয়ে মুসল্লিরা দুদলে বিভক্ত হয়ে পড়েন।একপক্ষ খুৎবা না পড়ার প্রস্তাব দিলে অপরপক্ষ তার প্রতিবাদ করেন।

একপর্যায়ে এ নিয়ে দুদলের মুসল্লিদের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। প্যান্ডেলের বাশের খুঁটি খুলে মুসল্লিরা ভয়াবহ সংঘর্ষে লিপ্ত হন। বৃষ্টির মাঝেই চলে ব্যাপক সংঘর্ষ, ধাওয়া ও পাল্টা ধাওয়া।

আহতদের উদ্ধার করে ধামরাই উপজেলা সরকারী আবাসিক হাসপাতাল, রাজধানীর অর্থোপেডিক(পঙ্গু)হাসপাতাল ও হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী ও ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল বিভিন্ন হাসপাতাল  ও প্রাইভেট ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষায় ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

ধামরাই থানার অফিসার ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মো. আতিকুর রহমান আতিক বলেন, খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষায় ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।দুইপক্ষের লোকজনের সঙ্গে আলোচনা করে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।


আরও খবর