আজঃ বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১
শিরোনাম

চিকিৎসককে হত্যা: সাতক্ষীরার সাবেক ওসি এমদাদসহ ৩ পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৮ আগস্ট ২০২১ | ৪৩১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
সে অনুযায়ী আইন ও শালিস কেন্দ্রের সহযোগিতায় জেসমিন নাহার রেশমা আদালতে মামলা করার প্রস্তুতি নিলে শেষ পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট আইনজীবী অপারগতা প্রকাশ করায় আর মামলা করা হয়নি

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি:

সাতক্ষীরার পারকুকরালি এলাকার হোমিও চিকিৎসক মোখলেছুর রহমান জনি সদর থানার লকআপ থেকে নিখোঁজের পাঁচ বছরেও সন্ধান মেলেনি। এ ঘটনায় হাইকোর্টের নির্দেশে গত মঙ্গলবার তার বাবা শেখ আব্দুর রাশেদ বাদী হয়ে ছেলেকে অপহরণের পর খুন করে লাশ গুমের অভিযোগ এনে সাতক্ষীরার মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতে মামলা দায়ের করেছেন।

মামলায় সাতক্ষীরা সদর থানার তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমদাদুল হক শেখ, এরপর বদলি হয়ে আসা ওসি ফিরোজ হোসেন মোল্লা ও উপপরিদর্শক (এসআই) হিমেল হোসেনকে আসামি করা হয়েছে।

এমদাদুল হক শেখের গ্রামের বাড়ি পিরোজপুর পৌর শহরের নামাজপুর এলাকার। মৃত আব্দুল আজিজ শেখের ছেলে এবং পিরোজপুর জেলা পরিষদ এর সদস্য সুমন শেখের চাচা। এমদাদুল হক শেখ এর আগে বগুড়া, যশোর, মৌলভীবাজার সদর থানা ও সিলেটের গোলাপগঞ্জ থানায় কর্মরত থাকাকালীন বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে তার বিরুদ্ধে একাধিক বিভাগীয় মামলা হয়েছে। বর্তমানে রাঙামাটি ডিবি পুলিশের ওসি হিসেবে কর্মরত আছে।

মামলা ও ঘটনার বিবরণে জানা গেছে, ২০১৬ সালের ৪ আগস্ট রাত সাড়ে ৯টার দিকে অসুস্থ বাবার জন্য বাইসাইকেলে ওষুধ কিনতে গিয়ে সাতক্ষীরা শহরের লাবনী সিনেমা হলের সামনের একটি দোকান থেকে সদর থানার এসআই হিমেল শহরের পারকুকরালির মোখলেছুর রহমান জনিকে ধরে থানায় নিয়ে যায়।

এরপর টানা তিন দিন ৫, ৬ ও ৭ আগস্ট স্ত্রী জেসমিন নাহার রেশমা তার শ্বশুর ও স্বজনদের নিয়ে লকআপে তাকে খাবার দিয়ে এসেছিলেন। স্ত্রীর সঙ্গে কথাও বলেছিলেন এ চিকিৎসক। ওসি এমদাদুল হক শেখ ও এসআই হিমেলের সঙ্গে কথা বললে জনির জঙ্গি সম্পৃক্ততা রয়েছে বলে জানানো হয়। স্বামীর মুক্তির বিনিময়ে তৎকালীন ওসি ও এসআই জনির স্ত্রী রেশমার কাছে দাবি করেন মোটা অঙ্কের টাকা।

তবে ৮ আগস্ট থানায় গেলে জনিকে পাওয়া যায়নি। পুলিশ জনির অবস্থান সম্পর্কে জানাতে পারেনি। বিষয়টি সাংবাদিক, জনপ্রতিনিধি, ক্ষমতাসীন দলের নেতা, মানবাধিকার কর্মী, জেলা প্রশাসক ও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অবহিত করা হয়। ওই বছরের ২৪ আগস্ট বিষয়টি জানানো হয় সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারকে (এসপি)। ২৬ ডিসেম্বর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করতে গেলে থানার ওসি ফিরোজ হোসেন মোল্লা তা গ্রহণ করেননি।

উপায় না দেখে ২০১৭ সালের ৩ জানুয়ারি সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন রেশমা। ২১ জানুয়ারি আইন ও শালিস কেন্দ্রের তদন্তকারী টিমের সদস্য অনির্বান সাহা, মানবাধিকার কর্মী রঘুনাথ খাসহ কয়েকজন জনির বাড়িতে আসেন ও পরে থানায় যান। যা পরদিন পত্র পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।

২০১৭ সালের ২ মার্চ হাইকোর্টে রিট পিটিশন (২৮৩৩/১৭) দাখিল করেন রেশমা। মামলায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ আটজনকে বিবাদী করা হয়। আদালতের নির্দেশে ২০১৭ সালের ১৯ মার্চ আদালতে উপস্থাপন করা এসপির ব্যাখ্যায় বলা হয়, নিখোঁজ মোখলেছুর রহমান নিষিদ্ধ সংগঠন আল্লাহর দলর সঙ্গে যুক্ত এবং তাকে গ্রেফতার করা হয়নি।

১৯ মার্চ শুনানি শেষে আদালত জনিকে ১২ এপ্রিলের মধ্যে বিচারিক আদালতে হাজির করানোর নির্দেশ দেন। একইসঙ্গে ৯ মে এ সংক্রান্ত তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ঢাকা লিগ্যাল সেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এএসএম জাভিদ হাসানকে নির্দেশ দেওয়া হয়। সে অনুযায়ী ১০ জন পুলিশ কর্মকর্তা-সদস্য ও পাঁচজন সাধারণ মানুষের জবানবন্দি নিয়ে মোখলেছুর রহমান জনিকে ২০১৬ সালের ৪ আগস্ট আটক করেনি বা তাকে কেউ থানার মধ্যে দেখেনি মর্মে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন।

পরে আদালতের নির্দেশে ২০১৭ সালের ৩ জুলাই সাতক্ষীরার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম হাবিবুল্লাহ মাহমুদ হাইকোর্টে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। প্রতিবেদনে থানা লকআপ থেকে ডা. জনির নিখোঁজ হওয়ার সত্যতা উঠে আসে। পরবর্তী সময়ে এক আদেশে ওই বছরের ৩ অক্টোবরের মধ্যে এ সম্পর্কিত তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পুলিশ ব্যুরো ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) নির্দেশ দেওয়া হয়।

পিবিআই তদন্ত প্রতিবেদনে ডা. জনিকে থানায় এনে আটক রাখার সত্যতা মেলেনি বলে উল্লেখ করা হয়। ২০১৮ সালের ২৪ জানুয়ারি তদন্ত প্রতিবেদন পর্যালোচনা শেষে হাইকোর্ট জনি নিখোঁজ হওয়ার ঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়েরি নিয়ে তার তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা না নেওয়ার জন্য থানা ওসি এমদাদুল হক শেখ, ফিরোজ হোসেন মোল্লা ও এসআই হিমেল হোসেনের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা গ্রহণ একইসঙ্গে তাদের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করা যেতে পারে বলে এক আদেশে উল্লেখ করেন।

সে অনুযায়ী আইন ও শালিস কেন্দ্রের সহযোগিতায় জেসমিন নাহার রেশমা আদালতে মামলা করার প্রস্তুতি নিলে শেষ পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট আইনজীবী অপারগতা প্রকাশ করায় আর মামলা করা হয়নি। এর কয়েক মাস পর জেসমিনের অন্যত্র বিয়ে হওয়ায় হাইকোর্টে বিচারপতি মঈনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি খন্দকার দিলিরুজ্জামানের আদালতে হাজির হয়ে ২৮৩৩/১৭ নং রিট পিটিশনে জনির বাবা শেখ আব্দুর রাশেদ নিজেকে বাদী শ্রেণিভুক্ত হওয়ার আবেদন করেন।

আদালত তা মঞ্জুর করলে শেখ আব্দুর রাশেদ মামলা করার জন্য সাতক্ষীরা জেলা আইনজীবী সমিতির তৎকালীন সভাপতি অ্যাড. এম শাহ আলম ও সাতক্ষীরা আদালতের লিগ্যাল এইডের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিচারক সালমা আক্তারের শরণাপন্ন হন। এরপরও কোনও আইনজীবী না পাওয়ায় তিনি মানবাধিকার সংস্কৃতি ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান অ্যাড. সুলতানা কামালের দ্বারস্থ হন।

এক পর্যায়ে তারই সহায়তায় সাতক্ষীরার জ্যেষ্ঠ আইনজীবী অ্যাড. মোসলেম উদ্দিন ও অ্যাড. মো. ফরহাদ হোসেনের মাধ্যমে গত মঙ্গলবার সাতক্ষীরার মুখ্য বিচারিক হাকিমের আদালতে এ মামলা দায়ের করেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের ১ অক্টোবর এসআই হিমেলের বিরুদ্ধে সাতক্ষীরায় বিভাগীয় মামলা (৬/১৮) দায়ের করা হয়। এ ঘটনায় ২০১৮ সালের ১৮ নভেম্বর সাতক্ষীরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইলতুৎ মিশের কাছে ও ২২ নভেম্বর খুলনার সহকারী পুলিশ সুপার আব্দুল কাদের বেগের কাছে জেসমিন নাহার রেশমা, তার শ্বশুর শেখ আব্দুর রাশেদ, শাশুড়ি আনোয়ারা খাতুন সাক্ষী দেন।

একইভাবে ২৮ নভেম্বর মানবাধিকার কর্মী রঘুনাথ খাঁ ও তিন পুলিশ সদস্যের সাক্ষী গ্রহণ করা হয়। একই ঘটনায় ১৬/২০ ও ১৭/২০ বিভাগীয় মামলা হয় তৎকালীন ওসি এমদাদ শেখ ও ফিরোজ হোসেন মোল্লার বিরুদ্ধে। খুলনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ওয়াসিম ফিরোজ ২০২০ সালের ২১ সেপ্টেম্বর থেকে কয়েক দফায় সাতক্ষীরা আদালতের পুলিশ পরিদর্শকের কার্যালয়ে ও খুলনা নিজ কার্যালয়ে নিখোঁজ জনির বাবা, মা, বোন, চাচা, মানবাধিকার কর্মী রঘুনাথ খাঁ, সিপাহী ফসিয়ার রহমান, সিপাহী ইলিয়াস হোসেন, সিপাহী মহিদুল ইসলাম ও এসআই রইচউদ্দিনসহ ১৬ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন।

মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী মোসলেম উদ্দিন ও অ্যাড. ফরহাদ হোসেন বলেন, আজ বুধবার আদালত এ মামলার আদেশ দেবেন।


আরও খবর



চাকরিচ্যুত ব্যাংক কর্মীদের চাকরিতে পুনর্বহালের নির্দেশ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৩৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনা মহামারিকালীন চাকরিচ্যুত বা পদত্যাগে বাধ্য হওয়া ব্যাংক কর্মীদের চাকরিতে পুনর্বহালের নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

এছাড়া ব্যাংক কর্মীদের ছাঁটাই বন্ধেও নতুন নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এখন থেকে সুনির্দিষ্ট ও প্রমাণিত অভিযোগ ছাড়া কর্মীদের চাকরিচ্যুত করা যাবে না। বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংক ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ এ সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করেছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক বলছে, সম্প্রতি কিছু সংখ্যক ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীর কাছ থেকে অভিযোগ পাওয়া গেছে, সুনির্দিষ্ট ও প্রমাণিত কোনো অভিযোগ না থাকা সত্ত্বেও কোভিডকালীন শুধুমাত্র লক্ষ্যমাত্রা অর্জন না করা বা অদক্ষতার অজুহাতে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের চাকরিচ্যুত করা হচ্ছে ও চাকরি থেকে পদত্যাগে বাধ্য করা হচ্ছে। আবার কোনো কোনো ক্ষেত্রে পদত্যাগ করার পর কর্মকর্তা-কর্মচারীদেরকে প্রাপ্য আর্থিক সুবিধা দেওয়া হচ্ছে না। যা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনার পরিপন্থি।

সার্কুলারে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯ এর কারণে সৃষ্ট আর্থিক ক্ষতি থেকে দেশের অর্থনীতি পুনরুজ্জীবিতকরার লক্ষ্যে সরকার এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের নিজস্ব অর্থায়নে বিপুল অংকের আর্থিক প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছে, যা তফসিলি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

এসব প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়নসহ দেশের অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে ফ্রন্টলাইনার হিসেবে ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নিরবচ্ছিন্নভাবে সর্বোচ্চ ঝুঁকি নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যাংকিং সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।

ব্যাংকিং সেবা দিতে গিয়ে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক ব্যাংক কর্মকর্তা-কর্মচারী কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়েছেন এবং অনেকে মৃত্যুবরণ করেছেন।

কোভিড-১৯ এর কারণে সৃষ্ট সংকটময় পরিস্থিতিতে ব্যাংক কর্মকর্তা-কর্মচারীদেরকে চাকরিচ্যুত করা হলে ব্যাংকে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে আতংকের সৃষ্টি হবে এবং তাদের মনোবল ও কর্মস্পৃহা হ্রাস পাবে।

ফলে, ভবিষ্যতে মেধাবী ও অভিজ্ঞ ব্যক্তিরা ব্যাংকে যোগদানে অনীহা প্রকাশ করবে, যা দীর্ঘমেয়াদে ব্যাংকিং খাতের জন্য ক্ষতিকর হবে মর্মে আশংকা করা হচ্ছে। কোভিড-১৯ এর সংকটময় পরিস্থিতিতে ব্যাংকের কর্মীদের কর্মস্পৃহা অটুট রাখার স্বার্থে বেশ কয়েকটি নির্দেশনা দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

* সুনির্দিষ্ট ও প্রমাণিত কোনো অভিযোগ না থাকলে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের চাকরিচ্যুত না করা।

* কোভিডকালীন শুধুমাত্র লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে ব্যর্থতা বা অদক্ষতার কারণ প্রদর্শন করে কর্মকর্তা-কর্মচারীদেরকে চাকরিচ্যুত অথবা পদত্যাগ করতে বাধ্য না করা।

* ২০২০ সালের ১ এপ্রিল থেকে চলতি বছরের ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ব্যাংকের যেসব কর্মকর্তা-কর্মচারী সুনির্দিষ্ট ও প্রমাণিত কোনো অভিযোগ না থাকা সত্ত্বেও চাকরিচ্যুত হয়েছে কিংবা চাকরি থেকে পদত্যাগ করতে বাধ্য হয়েছে, তাদেরকে (আবেদন প্রাপ্তি সাপেক্ষে) বিধি অনুযায়ী চাকরিতে বহাল করার বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

এছাড়া ২০২০ সালের ১ এপ্রিল থেকে চলতি বছরের ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত যেসব কর্মকর্তা-কর্মচারীদের চাকরিচ্যুত করা হয়েছে কিংবা যারা চাকরি থেকে পদত্যাগ করেছেন, তাদের তথ্য আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে পাঠাতে বলা হয়েছে।


আরও খবর
পুঁজিবাজারে সূচকের মিশ্র প্রবণতা

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

পুঁজিবাজারে সূচকের মিশ্র প্রবণতা

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




আফগান ‘হুমকি’ যৌথভাবে মোকাবিলা করবে রাশিয়া-চীন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৬ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ আগস্ট ২০২১ | ৭১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আফগানিস্তানের হুমকি মোকাবিলায় নিজ নিজ দেশের প্রচেষ্টা বাড়ানোর ব্যাপারে সম্মত হয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এবং তার চীনা সমকক্ষ শি জিনপিং। বুধবার ক্রেমলিন এ কথা জানিয়েছে। তালেবানরা প্রায় দুই সপ্তাহ আগে কাবুল দখল করে নেয়ার পর উভয় নেতা এক ফোনালাপে এমন মনোভাব পোষণ করেন। খবর ডেইরি সাবাহর।

ক্রেমলিন এক বিবৃতিতে বলেছে, ফোনালাপে উভয় নেতা আফগানিস্তানের ভূখণ্ড থেকে আসা সন্ত্রাসবাদ এবং মাদক পাচারের হুমকি মোকাবিলায় প্রচেষ্টা বাড়ানোর জন্য তাদের প্রস্তুত থাকার কথা প্রকাশ করেছেন। তারা আফগানিস্তানে শান্তি প্রতিষ্ঠার গুরুত্ব এবং সংলগ্ন অঞ্চলে অস্থিতিশীলতা বিস্তার রোধের বিষয়েও কথা বলেন।

পুতিন এবং শি দ্বিপাক্ষিক যোগাযোগ জোরদার করতে সম্মত হয়েছেন এবং আগামী মাসে তাজিকিস্তানে অনুষ্ঠিতব্য সাংহাই সহযোগিতা সংস্থার (এসসিও) সর্বোচ্চ সম্ভাবনাকে কাজে লাগানোর কথা বলেছেন। সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি মধ্য এশিয়ার দেশে মস্কোর সামরিক ঘাঁটি রয়েছে, সেগুলোর সঙ্গে আফগানিস্তান এবং চীনের সীমান্ত রয়েছে।

কাবুলের নতুন নেতৃত্বের ব্যাপারে মস্কো সতর্কভাবে আশাবাদী হলেও পুতিন আফগানিস্তান থেকে জঙ্গিরা প্রতিবেশী দেশগুলোতে শরণার্থী হিসেবে প্রবেশ করতে পারেন বলে সতর্ক করে দিয়েছেন। আফগানিস্তানের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে বাইরের শক্তির জড়িত থাকারও সমালোচনা করেছেন পুতিন। তিনি বলেন, দেশটিতে সোভিয়েত ইউনিয়নের দশকব্যাপী আগ্রাসন থেকে শিক্ষা পেয়েছে মস্কো।

তালেবানরা গত ১৫ আগস্ট তালেবানের ক্ষমতা দখল করে নেয়। এরপর চীন জানায়, তারা আফগানিস্তানের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ এবং সহযোগিতামূলক সম্পর্ক আরও জোরদার করতে প্রস্তত রয়েছে।


আরও খবর
বিশ্বজুড়ে বেড়েছে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যু

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




আফগানিস্তানে বিস্ফোরণে নিহত ৭

প্রকাশিত:রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ২৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল ও পূর্বাঞ্চলীয় শহর জালালাবাদে পরপর কয়েকটি বিস্ফোরণে অন্তত সাত জন নিহত এবং নারী শিশুসহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন।

নানগারহার প্রদেশের রাজধানী জালালাবাদে শনিবার তালেবানের গাড়ি লক্ষ্য করে পরপর চারটি বোমা বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। এতে নারী-শিশুসহ বহু হতাহতের ঘটনা ঘটে।

এদিকে, কাবুলে বোমা বিস্ফোরণে অন্তত দুই জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

কোনো গোষ্ঠী এখনো হামলার দায় স্বীকার করেনি। তবে নানগারহারে জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) শক্ত অবস্থা রয়েছে বলে জানা গেছে। সন্দেহের তীর তাদের দিকেই।

তালেবানের এক সূত্র বলছে, জালালাবাদ ও কাবুলে হামলার পেছনে জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) খোরাসান শাখার হাত থাকতে পারে। হামলার পরপরই জালালাবাদ থেকে সন্দেহভাজন বেশ কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে। তালেবানের ওই শীর্ষ নেতা বলেন, হামলার ঘটনার তদন্ত করা হচ্ছে এবং হামলাকারীদের অবশ্যই বিচারের আওতায় আনা হবে।

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল গত ১৫ আগস্ট তালেবানের নিয়ন্ত্রণে যাওয়ার পর অস্থিতিশীল অবস্থা তৈরি হয় পুরো দেশে। লোকজন ভয় আর আতঙ্কে দেশ ছাড়তে কাবুল বিমানবন্দরে ভিড় করতে শুরু করেন। বিমানবন্দর এলাকায় বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির মধ্যে পড়ে ও গোলাগুলিতে অন্তত ৩০ জন প্রাণ হারান। 


আরও খবর
বিশ্বজুড়ে বেড়েছে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যু

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




গাজীপুরে ঝুটের গুদামে আগুন

প্রকাশিত:রবিবার ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গাজীপুরের পুবাইলে মাজুখান এলাকায় একটি ঝুটের গুদামে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসের ছয়টি ইউনিট।

রবিবার (৫ সেপ্টেম্বর) সকাল সোয়া ১০টার দিকে আগেুনের সূত্রপাত হয়। পরে তা গুদামের সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে।

খবর পেয়ে টঙ্গী ফায়ার স্টেশনের চারটি, উত্তরা ফায়ার সার্ভিসের একটি এবং গাজীপুর সদর থেকে একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নেভানোর কাজ শুরু করে।

গাজীপুর ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক আবদুল হামিদ জানান আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে আগুন লাগার কারণ এখনো জানা যায়নি।

ঝুট ব্যবসায়ী খলিলুর রহমান জানান, তারা টঙ্গীর বাজার এলাকায় প্রথমে ঝুটের ব্যবসা শুরু করেন। সেখানে জায়গা কম থাকায় পুবাইলের মাজুখান এলাকায় ঝুটের গুদাম বানিয়ে ব্যবসা শুরু করেন তারা। সেখানে শতাধিক গুদামে কোটি কোটি টাকার মালামাল মজুত ছিল বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, চোখের সামনে কোটি কোটি টাকার মালামাল পুড়ে যাচ্ছে, দাঁড়িয়ে দেখা ছাড়া কিছুই করার নেই। বেশ কিছুদিন আগেও এই জায়গায় আগুনের ঘটনা ঘটে। কিন্তু সেটি তুলনামূলক ছোট ঘটনা ছিল। কিন্তু এবারের আগুন আমাদের একেবারে পথে বসিয়ে দিয়েছে।


আরও খবর
গাজীপুরে দূরপাল্লার ৪৭ বাস আটক

শুক্রবার ০৬ আগস্ট ২০২১




বিয়ে করতে যাচ্ছেন সুশান্তের সাবেক প্রেমিকা অঙ্কিতা লোখান্ডে

প্রকাশিত:রবিবার ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৪৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্রয়াত বলিউড তারকা সুশান্ত সিং রাজপুতের সাবেক প্রেমিকা অঙ্কিতা লোখান্ডে। দুজনে পবিত্র রিশতা ধারাবাহিকে অভিনয় করে পরিচিতি পেয়েছিলেন। এ নাটকে কাজ করতে করতেই তারা প্রেমে পড়ে যান।

তারপর ভেঙেও যায় সে সম্পর্ক। সুশান্ত নতুন করে প্রেমে পড়েন বাঙালি অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তীর। তবে সুশান্তেরর মৃত্যুর পর বিপুল আলোচনায় উঠে আসে অঙ্কিতা লোখান্ডের নাম। অঙ্কিতাও সুশান্তকে নিয়ে অনেক স্মৃতিচারণ করেন।

সুশান্তের সেই প্রেমিকা বিয়ে করতে যাচ্ছেন। পাত্র ভিকি জৈনকে। দুজনে প্রেম করছেন। সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে মুখ ফসকেই এ বিয়ের কথা ফাঁস করে দিয়েছেন অঙ্কিতার সহ-অভিনেতা শাহির শেখ।

ওটিটিতে শুরু হতে যাচ্ছে পবিত্র রিশতা টু। সাত বছর পর আবার পর্দায় ফিরছে সেই জনপ্রিয় ধারাবাহিক। যেখানে অভিনয়ের পরেই খ্যাতির মুখ দেখেছিলেন সুশান্ত এবং অঙ্কিতা। এ নাটকে সুশান্তর পরিবর্তে এবার মানব চরিত্রে অভিনয় করছেন অভিনেতা শাহির।

এ নিয়েই এক সাক্ষাৎকারে এই অভিনেতা বলেন, নাটকটি শেষ হয়ে অঙ্কিতা তার প্রেমিক ভিকিকে বিয়ে করবেন।

তবে অঙ্কিতা বিয়ের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন। শাহিরকে থামিয়ে দিয়ে তিনি বলেন, সেরকম কোনো পরিকল্পনা নেই। এ মুহূর্তে নতুন কিছু করার ইচ্ছা নেই। আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে একটি পরিকল্পনা আছে।

তিন বছর হলো প্রেম করছেন অঙ্কিতা। গত মে মাসে আরেক সাক্ষাৎকারে ভিকি প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে তিনি জানিয়েছিলেন, বিয়ের চিন্তাভাবনা করছেন তিনি।

 


আরও খবর
হাইকোর্টে জামিন পেলেন মডেল মৌ

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

আমার পছন্দের পুরুষকে একটু রাফ হতে হবে

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১