আজঃ সোমবার ০৮ মার্চ ২০২১
শিরোনাম

চট্টগ্রামে বাস-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ২

প্রকাশিত:সোমবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১০৩জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলায় বাস ও ট্রাকের সংঘর্ষে দুই যাত্রী নিহত হয়েছেন। সোমবার সকাল ৯টার দিকে উপজেলার চুনতি এলাকায় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন কক্সবাজারের রামুর সেনোয়ারা বেগম (১৯) ও চকরিয়া উপজেলার বাসিন্দা রিনা আক্তার (২২)।

হাইওয়ে পুলিশের দোহাজারী থানার এএসআই আদম আলী জানান, ট্রাকটি চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রেললাইনের জন্য পাথর নিয়ে কক্সবাজারের দিকে যাচ্ছিল। সকাল ৯টার দিকে কক্সবাজার থেকে চট্টগ্রামগামী মার্সা পরিবহনের একটি বাস ওভারটেক করে যাওয়ার সময় বিপরীতমুখী ট্রাকের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়।

এতে বাসের পেছনের আসনে থাকা দুই নারী ঘটনাস্থলেই মারা যান। নিহতদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

Share

আরও খবর
ভাসানচরের পথে আরও ১৭৫৯ জন রোহিঙ্গা

বৃহস্পতিবার ০৪ মার্চ ২০২১




একই পরিবারের চারজনকে হত্যা : ৬ জনের মৃত্যুদণ্ড

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১১৯জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারীতে একই পরিবারের ৪ জনকে কুপিয়ে হত্যা মামলায় ওই পরিবারের এক সদস্যসহ ৬ জনের মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। একজনকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে এ রায় দেন জেলা দায়রা জজ মো. আব্দুল মান্নান।

এ সময় এ মামলার ৭ আসামির মধ্যে ৬ জন আদালতে উপস্থিত ছিল। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত এক আসামি শুরু থেকেই পলাতক। তিনজন জেলে ও তিনজন জামিনে ছিলেন।

২০১৪ সালের ১৫ জানুয়ারি ভোরে ভুরুঙ্গামারী উপজেলার দিয়াডাঙ্গা গ্রামের সুলতান মন্ডল, তার নাতনী রোমানা ও আনিকার ক্ষতবিক্ষত মরদেহ শোবার ঘরে পাওয়া যায়। হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যান সুলতানের স্ত্রী হাজেরা বেগম।

এ ঘটনায় নিহতের ছেলে হাফিজুুর রহমান অজ্ঞাতদের আসামি করে ভুরুঙ্গামারী থানায় মামলা করেন। পরে একই এলাকার চান্দ মিয়া নামে এক ব্যবসায়ী হত্যা মামলায় দুজনকে গ্রেপ্তার করলে তারা সুলতান হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে।

নিহত সুলতানের ভাই মমতাজ ভাড়াটে খুনি দিয়ে এদের রাতে হত্যা করায় বলে স্বীকার করলে এ রায় দেন আদালত।

আসামিরা হলেন- মমতাজ উদ্দিন, নজরুল ইসলাম মজনু ওরফে মনজু, আমীর হামজা ওরফে আমির হোসেন, জাকির হোসেন ওরফে রাসেল খান, জালাল গাজী ওরফে পলাশ গাজী, হাসমত আলী শেখ।

মামলাটি রাষ্ট্রপক্ষে পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট এসএম আব্রাহাম লিংকন। আসামি পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট আজিজুর রহমান দুলু, মনোয়ারুল হক আলো, আমীর আলী, এটিএম এরশাদুল হক চৌধুরী শাহিন, আসাদুল হক।

Share

আরও খবর



সরকার মত প্রকাশের স্বাধীনতায় বিশ্বাসী : ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১০২জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সরকার মত প্রকাশের স্বাধীনতায় বিশ্বাসী। স্বাধীনতা মানে এই নয়, যে যার মতো যা খুশি বলার নিরঙ্কুশ বা একচেটিয়া অধিকার থাকবে।

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) আয়োজিত সেবা সপ্তাহের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আজ রবিবার সকালে এ কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। সেতুমন্ত্রী তাঁর সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন।

ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদানের কাজ আজ রবিবার থেকে পুরোদমে শুরু হয়েছে। এতে অবসান হতে যাচ্ছে দীর্ঘ অপেক্ষার। আগামী কয়েকদিনের মধ্যে বিভাগীয় পর্যায়েও লাইসেন্স প্রদানের কাজ শুরু করা হবে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, লাইসেন্স সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানকে এ বিষয়ে সর্বোচ্চ পেশাদারত্বের পরিচয় দিতে হবে।

সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী যানবাহনে ফিটনেস গ্রহণের ওপর গুরুত্ব দিয়ে বলেন, এ ক্ষেত্রে সেবা সহজীকরণে এবং গ্রাহকদের সুবিধায় দেশের যেকোনো সার্কেল অফিস থেকে যানবাহনের ফিটনেস সনদ গ্রহণের সুযোগ করে দিয়েছে সরকার। এই প্রতিষ্ঠানের সেবা পেতে গ্রাহক এখনও ভোগান্তি আছে, তবে এ ভোগান্তি প্রযুক্তির ব্যবহারের কারণে কমে আসছে। ডিজিটাল সেবার আওতা বাড়ানো গেলে দুর্নীতি ও অনিয়ম অনেকটা কমে যাবে।

বিআরটিএতে দালালের দৌরাত্ম্য এখনও আছে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, অফিসের কিছু কর্মকর্তা-কর্মচারীর সঙ্গে তাদের যোগাযোগ রয়েছে। তাদের সখ্যে গড়ে উঠেছে এ চক্র। পরিবহণবিষয়ক যেকোনো অনিয়মের বিরুদ্ধে মোবাইল কোর্ট পরিচালনার জন্য জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা নিয়ে কাজ করতে হবে এবং অনিয়মের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে।

ওবায়দুল কাদের সড়ক-মহাসড়কে বেপরোয়া গাড়ি চালানো বন্ধ করতে সংশ্লিষ্টদের কঠোর নির্দেশ দিয়ে বলেন, এরই মধ্যে সড়ক নিরাপত্তা কাউন্সিলের সভায় এ বিষয়ে কৌশল নির্ধারণে একটি সাব কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এ ছাড়া আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে আওয়ামী লীগ কেন্দ্র থেকে তৃণমূলে যথাযোগ্য মর্যাদায় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ, আলোচনা সভা ও ভাষণ প্রচারের মধ্য দিয়ে দিবসটি পালনের আহ্বান জানান। সেতুমন্ত্রী আওয়ামী লীগের সব সহযোগী ও ভাতৃপ্রতিম সংগঠনগুলোকেও দিবসটি পালনের আহ্বান জানান।

Share

আরও খবর



সিলেটে দুই বাসের সংঘর্ষে ৭ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১১৫জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সিলেটে দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে সাতজন নিহত হয়েছেন। শুক্রবার সকাল ৭টার দিকে সিলেট শহরতলির রশিদপুরে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতদের মধ্যে চারজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন- এনা পরিবহনের চালক মঞ্জু আহমদ মঞ্জু (৩৫), তার সহযোগী জাহাঙ্গীর, লন্ডন এক্সপ্রেসের সুপারভাইজার রুহুল আমিন, উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের লেকচারার ডা. আল মাহমুদ সাদ ইমরান খান। বাকিদের পরিচয় এখনও পাওয়া যায়নি।

সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (মিডিয়া) বিএম আশরাফউল্লাহ তাহের এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে।

দুর্ঘটনায় আহত অন্তত ১৮ জনকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

পুলিশ জানায়, এনা পরিবহনের একটি বাস সিলেট থেকে ঢাকা যাচ্ছিল। অন্যদিকে লন্ডন এক্সপ্রেস নামে একটি বাস ঢাকা থেকে সিলেট আসছিল। সিলেট শহরতলির রশিদপুরে একটি পেট্রোলপাম্পের কাছে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে বাস দুটির মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে হতাহতের ঘটনা ঘটে।

দুর্ঘটনার পর ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের উভয় পাশে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

Share

আরও খবর



আবরার হত্যা : ২৫ আসামির আত্মপক্ষ সমর্থন ১৪ মার্চ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৪ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৪ মার্চ ২০২১ | ৯৬জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ রাব্বী (২২) হত্যা মামলায় ২৫ আসামির বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ সমাপ্ত করেছেন আদালত। একই সঙ্গে আগামী ১৪ মার্চ এ মামলার আত্মপক্ষ সমর্থনের দিন ধার্য করা হয়েছে।

ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১-এর বিচারক আবু জাফর মোহাম্মদ কামরুজ্জামানের আদালতে আজ বৃহস্পতিবার এ সাক্ষ্যগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) আবু আব্দুল্লাহ মিঞা এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আবু আব্দুল্লাহ মিঞা বলেন, আজ এ মামলায় তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক ওয়াহিদুজ্জামানের জেরা শেষ করেন আইনজীবীরা। এরপরই বিচারক আত্মপক্ষ সমর্থনের জন্য দিন নির্ধারণ করেন।

পিপি আরও বলেন, আত্মপক্ষ সমর্থনের পরই এ মামলায় যুক্তিতর্ক ও শুনানি অনুষ্ঠিত হবে। এরপর আসামিরা সাফাই সাক্ষ্য না দিলে মামলার রায় যেকোনো দিন ঘোষণা করবেন বিচারক।

২০১৮ সালের ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরেবাংলা হলের একটি কক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা আবরারকে পিটিয়ে হত্যা করেন। এ ঘটনায় ১৯ জনকে আসামি করে পরের দিন ৭ অক্টোবর চকবাজার থানায় একটি হত্যা মামলা করেন আবরারের বাবা।

মামলার ২৫ আসামি

মামলায় আসামিরা হলেন- বুয়েট ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মুহতামিম ফুয়াদ, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মো. অনিক সরকার ওরফে অপু, সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান রবিন ওরফে শান্ত, আইনবিষয়ক উপসম্পাদক অমিত সাহা, উপসমাজসেবাবিষয়ক সম্পাদক ইফতি মোশাররফ সকাল, ক্রীড়া সম্পাদক মো. মেফতাহুল ইসলাম জিয়ন, গ্রন্থ ও প্রকাশনাবিষয়ক সম্পাদক ইশতিয়াক আহম্মেদ মুন্না, কর্মী মুনতাসির আল জেমি, খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভীর, মো. মুজাহিদুর রহমান, মো. মনিরুজ্জামান মনির, আকাশ হোসেন, হোসেন মোহাম্মদ তোহা, মো. মাজেদুর রহমান মাজেদ, শামীম বিল্লাহ, মুয়াজ ওরফে আবু হুরায়রা, এ এস এম নাজমুস সাদাত, আবরারের রুমমেট মিজানুর রহমান, শামসুল আরেফিন রাফাত, মোর্শেদ অমত্য ইসলাম, এস এম মাহমুদ সেতু, মুহাম্মদ মোর্শেদ-উজ-জামান মণ্ডল ওরফে জিসান, এহতেশামুল রাব্বি ওরফে তানিম ও মুজতবা রাফিদ।

আসামিদের মধ্যে মুহাম্মদ মোর্শেদ-উজ-জামান মণ্ডল ওরফে জিসান, এহতেশামুল রাব্বি ওরফে তানিম ও মুজতবা রাফিদ পলাতক। বাকি ২২ জন গ্রেপ্তার আছেন। এ মামলায় আটজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

মামলার বিবরণ

২০১৯ সালের ১৩ নভেম্বর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের পরিদর্শক (নিরস্ত্র) মো. ওয়াহিদুজ্জামান ২৫ জনকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এরপর ওই বছরের ১৭ ফেব্রুয়ারি এ মামলার বিচারকাজ দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে পাঠানোর জন্য ঢাকার মহানগর পাবলিক প্রসিকিউটরের (পিপি) কার্যালয়ে আবেদন করেন নিহত আবরার ফাহাদের বাবা মো. বরকত উল্লাহ। গত বছরের ১২ মার্চ আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক আবরার হত্যা মামলাটি দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে পাঠানোর ফাইল অনুমোদন করেন।

Share

আরও খবর



দৌলতদিয়ায় যৌনকর্মীদের টিকাদান শুরু

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৮৮জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
যৌনকর্মীদের টিকাদান জরুরি হয়ে পড়েছে, কেননা প্রতিদিন হাজারো মানুষ যৌনপল্লীতে আসেন৷ এখানকার যৌনকর্মীরা ভাইরাসের অন্যতম ঝুঁকিতে রয়েছেন

দৌলতদিয়ার যৌনকর্মীরা টিকা পেতে শুরু করেছেন। বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় এ যৌনপল্লিতে একটি আলাদা টিকাদান কেন্দ্র খোলারও পরিকল্পনা করেছে কর্তৃপক্ষ। সম্প্রতি করোনার টিকা নিয়েছেন দৌলতদিয়ার যৌনপল্লীর এক বাসিন্দা৷ যদিও শুরুতে তেমন একটা আগ্রহ ছিল না তার৷ টিকা নিলে মানুষ মারা যায় এমন কথাও শুনেছিলেন তিনি৷ পরে জেনেছেন সেটি গুজব৷

ওই নারী বলেন, স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা আমাদের আশ্বস্ত করেছেন৷ যেহেতু প্রতিদিন অনেক মানুষের কাছাকাছি আসি আমরা সে কারণে টিকা নেয়ার গুরুত্বটা বুঝতে পেরেছি। দৌলতদিয়ার যৌনপল্লীতে টিকা নেয়া শতাধিক বাসিন্দার একজন তিনি৷ সাধারণত চল্লিশোর্ধ্বরা অনুমতি পেলেও দৌলতদিয়ার যৌনকর্মীদের ক্ষেতে বয়সসীমাও শিথিল করেছে কর্তৃপক্ষ৷

সেখানকার প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা আসিফ মাহমুদ বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, যৌনকর্মীদের টিকাদান জরুরি হয়ে পড়েছে, কেননা প্রতিদিন হাজারো মানুষ যৌনপল্লীতে আসেন৷ এখানকার যৌনকর্মীরা ভাইরাসের অন্যতম ঝুঁকিতে রয়েছেন৷ বর্তমানে দৌলতদিয়া থেকে প্রায় পাঁচ কিলোমিটার দূরের একটি ক্লিনিকে গিয়ে টিকা নিতে হচ্ছে তাদের৷ তবে যৌনপল্লীতেই একটি টিকাদান কেন্দ্র খোলার পরিকল্পনা রয়েছে।

দৌলতদিয়ার প্রধান চিকিৎসক মোহাম্মদ ইব্রাহিম জানান, সবাই যেন টিকা নিতে আগ্রহী হয় সেজন্য পল্লীতে বিভিন্নভাবে প্রচারও চালাচ্ছে কর্তৃপক্ষ। গত মার্চে লকডাউন আরোপের সময় দৌলতদিয়ায় বাইরের কারো প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়৷ এর ফলে আর্থিক সংকটে পড়েন যৌনকর্মীরা৷ তবে টিকা কার্যক্রমের কারণে পরিস্থিতি বদলাবে বলে আশা তাদের৷

সেখানকার একটি নেতৃস্থানীয় সংগঠনের প্রধান ঝুমুর বেগম বলেন, দৌলতদিয়ায় কেউ আসলে করোনা আক্রান্ত হতে পারেন এমন ভয় এখন দূর হবে৷ সেখানে এখন প্রায় এক হাজার ৯০০ যৌনকর্মী বসবাস করেন৷ দৌলতদিয়াসহ বাংলাদেশে অন্তত এগারোটি যৌনপল্লী চালু রয়েছে৷ সূত্র: ডয়চে ভেলে

Share

আরও খবর
ঢাবিতে ভর্তির আবেদন শুরু

সোমবার ০৮ মার্চ ২০২১