আজঃ শনিবার ০২ মার্চ 2০২4
শিরোনাম

ড. ইউনূসসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে দুদকের চার্জশিট

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

গ্রামীণ টেলিকমের শ্রমিক কর্মচারীদের কল্যাণ তহবিলের টাকা আত্মসাৎ ও পাচারের অভিযোগে ড. মুহাম্মদ ইউনূসসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

আজ বৃহস্পতিবার আদালতের দুদক কার্যালয়ে চার্জশিট দাখিল করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা দুদকের উপপরিচালক গুলশান আনোয়ার। আগামী শনিবার মামলার তারিখ ধার্য করা হয়েছে।

মামলার অপর আসামিদের মধ্যে রয়েছেন গ্রামীণ টেলিকমের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. নাজমুল ইসলাম, পরিচালক ও সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আশরাফুল হাসান, পরিচালক পারভীন মাহমুদ, নাজনীন সুলতানা, মো. শাহজাহান, নূরজাহান বেগম, এস এম হুজ্জাতুল ইসলাম লতিফী, আইনজীবী মো. ইউসুফ আলী ও জাফরুল হাসান শরীফ, গ্রামীণ টেলিকম শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি মো. কামরুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক ফিরোজ মাহমুদ হাসান, ইউনিয়নের প্রতিনিধি মো. মাইনুল ইসলাম ও দপ্তর সম্পাদক মো. কামরুল হাসান।

গত বছরের ৩০ মে দুদকের ঢাকা সমন্বিত জেলা কার্যালয়-১-এর সংস্থার উপ-পরিচালক গুলশান আনোয়ার প্রধান বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন। চার্জশিটে আসামিদের বিরুদ্ধে কল্যাণ তহবিলের ২৫ কোটি ২২ লাখ ৬ হাজার ৭৮০ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়েছে। গ্রামীণ টেলিকম শ্রমিক কর্মচারী কল্যাণ তহবিলের ব্যাংক হিসাব থেকে স্থানান্তর, রূপান্তর করে ওই টাকা আত্মসাৎ করা হয়। আসামিদের বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনের লঙ্ঘনের অভিযোগ আনা হয়েছে।

অভিযোগে বলা হয়, গ্রামীণ টেলিকমের চেয়ারম্যান ড. মুহাম্মদ ইউনূস, ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. নাজমুল ইসলামসহ গ্রামীণ টেলিকমের বোর্ড সদস্যদের উপস্থিতিতে ২০২২ সালের ৯ মে গ্রামীণ টেলিকমের ১০৮তম বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ঢাকা ব্যাংকের গুলশান শাখায় একটি অ্যাকাউন্ট খোলা হয়। এর আগে ২৭ এপ্রিল কর্মচারীদের পাওনা লভ্যাংশ বিতরণের জন্য গ্রামীণ টেলিকম শ্রমিক ইউনিয়ন ও গ্রামীণ টেলিকমের সঙ্গে সেটেলমেন্ট অ্যাগ্রিমেন্ট চুক্তি সই হয়। এরকম ভুয়া সেটেলমেন্ট অ্যাগ্রিমেন্টের শর্ত অনুযায়ী ও বোর্ডের সিদ্ধান্ত মোতাবেক গ্রামীণ টেলিকম বিভিন্ন সময়ে ব্যাংকটিতে ২৬ কোটি ২২ লাখ ৬ হাজার ৭৮০ টাকা স্থানান্তর করে। কিন্তু কর্মচারীদের লভ্যাংশ বিতরণের আগেই তাদের প্রাপ্য অর্থ না জানিয়ে আসামিরা আত্মসাৎ করেন।

মামলায় আরও বলা হয়, অ্যাডভোকেট ফি হিসেবে প্রকৃতপক্ষে হস্তান্তরিত হয়েছে মাত্র এক কোটি টাকা। বাকি ২৫ কোটি ২২ লাখ ছয় হাজার ৭৮০ টাকা গ্রামীণ টেলিকমের চেয়ারম্যান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক, বোর্ড সদস্যদের সহায়তায় গ্রামীণ টেলিকমের সিবিএ নেতা এবং অ্যাডভোকেটসহ সংশ্লিষ্টরা জালিয়াতির মাধ্যমে আত্মসাৎ করেন।


আরও খবর



শরীয়তপুর ও ঝিনাইদহে নতুন এডিসি

প্রকাশিত:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

শরীয়তপুর ও ঝিনাইদহে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (এডিসি) হিসেবে দুই কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ঢাকা বিআইডব্লিউটিএ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোছা. তাছলিমা আকতারকে শরীয়তপুর এবং বান্দরবানের রোয়াংছড়ির উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ আতিকুল মামুনকে ঝিনাইদহের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হিসেবে পদায়ন করা হলো।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হিসেবে বদলি কর্মকর্তাদের নিজ নিজ অধিক্ষেত্রে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের ক্ষমতা অর্পণ করা হলো। জনস্বার্থে জারিকৃত এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে।

নিউজ ট্যাগ: শরীয়তপুর

আরও খবর
শপথ নিলেন নতুন ৭ প্রতিমন্ত্রী

শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪




আবারো প্রকাশ্যে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করল তালেবান

প্রকাশিত:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

আফগানিস্তানে খুনের দায়ে দোষী সাব্যস্ত এক ব্যক্তিকে সোমবার প্রকাশ্যে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছে তালেবান সরকার। একটি ফুটবল মাঠে হাজারো মানুষের সামনে এ মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়। দেশটিতে পাঁচ দিন আগে আরো দুইজনের মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছিল। খবর আরব নিউজের

দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় জাওজান প্রদেশের রাজধানী শিবিরঘান শহরে এ মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়। এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, নিহত ব্যক্তির ভাই রাইফেল দিয়ে আসামিকে পাঁচবার গুলি করেছেন। গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার অনুমতি না থাকায় নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, এ সময় স্টেডিয়ামের চারপাশে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা ছিল।

২০২১ সালের আগস্টে তালেবান আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের পর এ পর্যন্ত পাঁচ আসামীকে প্রকাশ্যে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

আরব নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তালেবানরা ক্ষমতায় এসে আরো শিথিল হওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল তবে তারা তা করছে না। মসনদে বসার পর থেকেই জনসমক্ষে মৃত্যুদণ্ড, বেত্রাঘাত এবং পাথর ছুঁড়ে মারার মতো কঠোর শাস্তির আওতায় আনছে আসামীদের।

এক বিবৃতি থেকে জানা গেছে, সোমবার দেশটির তিনটি সর্বোচ্চ আদালত এবং তালেবানের সর্বোচ্চ নেতা মোল্লা হাইবাতুল্লাহ আখুন্দজাদার অনুমোদনের পর তার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়।

ফারিয়াব প্রদেশের বিলচেরাগ জেলার বাসিন্দা নজর মোহাম্মদ নামের ওই ব্যক্তি ফারিয়াবের খাল মোহাম্মদকে হত্যা করেছিলেন। জাওজানে এই হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়।

নিউজ ট্যাগ: আফগানিস্তান

আরও খবর



সৌদি আরবে এক দিনে সাতজনের শিরশ্ছেদ

প্রকাশিত:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

এক দিনে সাতজনের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে সৌদি আরব। গতকাল মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) তাদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে। এএফপির বরাতে ডয়েচে ভেলের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে তাদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে। ২০২২ সালে এক দিনে সর্বোচ্চ ৮১ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছিল। এরপর এক দিনে সাতজন সর্বোচ্চ সংখ্যক মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের ঘটনা এটি।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাতে সৌদি প্রেস এজেন্সি জানিয়েছে, মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা ওই সাতজনের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী সংগঠন তৈরি ও এগুলোকে অর্থায়নের অভিযোগ করা হয়েছে।

এএফপির তথ্যমতে, মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের দিক দিয়ে বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ দেশ সৌদি আরব। দেশটিতে চলতি বছরে এখন পর্যন্ত ২৯ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে। এছাড়া ২০২৩ সালে ১৭০ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছিল দেশটি। প্রায় দুই বছর আগে এক দিনে ৮১ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের পর ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়ে দেশটি। সৌদিতে শিরশ্ছেদের মাধ্যমে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়ে থাকে।

মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা এসব ব্যক্তির জাতীয়তা প্রকাশ করা হয়নি। দবে তাদের নাম ও পদবি থেকে ধারণা করা হচ্ছে যে, তারা সৌদি আরবের নাগরিক।

সৌদি প্রেস এজেন্সির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রক্তপাতে উদ্ধুদ্ধকারী সন্ত্রাসী ধারণা লালন, সন্ত্রাসী প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা ও অর্থায়ন, সমাজের স্থিতিশীলতা ও নিরাপত্তা ব্যাহতের লক্ষ্যে এসবের সঙ্গে যুক্ত থাকা ও সহায়তা এবং জাতীয় নিরাপত্তা হুমকির মুখে ফেলানোর দায়ে তাদের দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। তবে অভিযোগের বিস্তারিত কিছু প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়নি।

দেশটিতে গত বছরের ডিসেম্বরে এক মাসেই কেবল ৩৮ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছিল। তাদের মধ্যে ৩৩ জনের বিরুদ্ধেই সন্ত্রাসবাদ সংশ্লিষ্ট অপরাধে জড়িত থাকার অভিযোগ করা হয়েছিল। এছাড়া রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে দুই সেনারও মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছিল।


আরও খবর



পটুয়াখালী পৌরসভা : বিদ্যুৎ বিল বকেয়া পড়েছে ১০ কোটি টাকা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
পটুয়াখালী প্রতিনিধি

Image

পটুয়াখালী পৌরসভায় চলতি বছরের জানুয়ারি মাস পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিল বকেয়া পড়েছে ৯ কোটি ৯৩ লক্ষ পয়তাল্লিশ হাজার বিরানব্বই টাকা। এনিয়ে প্রতি মাসে বকেয়া বিল আদায়ে বিদ্যুৎ অফিস লিখিত চিঠি দিলেও কোন সাড়া দিচ্ছে না পৌরসভা কর্তৃপক্ষ।

জানাগেছে, পৌরভবন, কমিউনিটি হল, পানির পাম্প ও পৌর এলাকার রাস্তাসহ প্রায় ৩২টি হিসাবের বিপরীতে পৌরসভা এ বিদ্যুৎ ব্যবহার করছে। বিগত কয়েক বছর ধরে পটুয়াখালী পৌরসভায় বিদ্যুৎ বিল বকেয়া পড়েছে প্রায় ১০ কোটি টাকা। বিভিন্ন মাসে পৌর কর্তৃপক্ষ বিদ্যুৎ বিল দিলেও বেশির ভাগ মাসেই বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করছে না। এনিয়ে প্রতি মাসে ওয়েষ্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ওজোপডিকো) পটুয়াখালী বারবার বকেয়া বিল পরিশোধে পৌরসভা কর্তৃপক্ষকে চিঠি দিলেও বিল পরিশোধ করেনি তারা।

পটুয়াখালী পৌরসভার বিদ্যুৎ বিভাগের দায়িত্বে থাকা রিয়াজ উদ্দিন মজুমদার জানান, এটা যেহেতু পৌরসভার ব্যাপার তাই মেয়রকে জানালে ভাল হয় কারণ সে বিস্তারিত বলতে পারবে। এর আগে পৌর মেয়র মহিউদ্দিন আহমেদকে দুপুর আড়াইটা থেকে বিকাল পৌনে চারটা পর্যন্ত তার ফোনে একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি কল রিসিভ করেনি।

পটুয়াখালী বিদ্যুৎ বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী দীন মোহাম্মদ মহিম জানান, বেশ কয়েক বছর ধরেই পৌরসভার কাছে বিদ্যুৎ বিল বকেয়া রয়েছে। যা এখন প্রায় ১০ কোটি টাকার মত দাঁড়ায়। এনিয়ে বর্তমান মেয়র মহিউদ্দিন আহমেদকে বারবার জানানো হয়। তবে ২০২৩ সালের জুন থেকে প্রতিমাসের বিল প্রতি মাসে দিলেও এখনো বিপুল পরিমাণ টাকা বকেয়া রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, গত ১৮ ফেব্রুয়ারি রবিবার জেলা প্রশাসকের দরবার হলে জেলা উন্নয়ন সভায় পৌরসভার বকেয়া বিদ্যুৎ বিলটি নিয়ে জেলা প্রশাসকের সাথে আলোচনা হয়। তবে বর্তমানে পৌরসভা নির্বাচন চলায় বিষয়টি নির্বাচনের পর দেখার সিদ্ধান্ত হয়। তখন যদি পৌর কর্তৃপক্ষ বকেয়া বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ না করে তবে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হবে বলে জানান।


আরও খবর



জয়পুরহাটে মোটরসাইকেল থেকে পড়ে নারীর মৃত্যু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
সুজন কুমার মন্ডল, জয়পুরহাট

Image

জয়পুরহাটের ক্ষেতলালে মোটরসাইকেল থেকে পড়ে রেশমা খাতুন নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকালে জেলার ক্ষেতলাল উপজেলার পাকারমাথা-বগুড়া সড়কে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত রেশমা খাতুন জয়পুরহাট শহরের দেওয়ানপাড়া মহল্লার মৃত মিরাজ হোসেনের স্ত্রী। তিনি ক্ষেতলাল ভূমি অফিসের অফিস সহায়ক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

ক্ষেতলাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আনোয়ার হোসেন জানান, জয়পুরহাট শহর থেকে রেশমা খাতুন কালাই উপজেলা ভূমি অফিসের প্রধান সহকারী কোরবান আলীর মোটর সাইকেলে করে ক্ষেতলাল অফিসে যাবার পথে বটতলী হাটখোলায় অটোরিকশার সাথে ধাক্কা লাগে। এতে রেশমা খাতুন পড়ে গিয়ে গুরুতর আহত হন। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে জয়পুরহাট আধুনিক জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

নিউজ ট্যাগ: জয়পুরহাট

আরও খবর