আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

দ.আফ্রিকায় প্লাটিনাম খনিতে দুর্ঘটনায় ১১ জন নিহত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৮ নভেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

দক্ষিণ আফ্রিকার ইম্পালা প্লাটিনাম খনির একটি লিফট দুর্ঘটনায় ১১ জন খনি শ্রমিক নিহত ও আরও ৭৫ জন আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার খনির অপারেটর এ কথা জানিয়েছে। খবর এএফপির।

লিফটটি বিকল হয়ে পড়ায় ৮৬ শ্রমিক সেখানে আটকা পড়ে এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে।

ইম্পালা প্লাটিনাম খনির মুখপাত্র বলেন, লিফটি উপরের দিকে কিছুটা উঠার পর অপ্রত্যাশিতভাবে নিচের দিকে নামতে থাকে। এতে লিফটে আটকা পড়ে ১১ জন মারা যায় ও ৭৫ জন আহত হয়। আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।


আরও খবর



ঝুলে থাকা তিস্তার পানি বণ্টন চুক্তি নিয়ে কৌতূহল

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

জনমানুষের বহুল প্রত্যাশিত তিস্তার পানি বণ্টন চুক্তি আজও আলোর মুখ দেখেনি। একটি সমঝোতার ব্যাপারে দিল্লি সম্মত হলেও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তিস্তা চুক্তির ব্যাপারে নারাজ। মূলত তার আপত্তির কারণেই তিস্তা চুক্তি হচ্ছে না। এমন এক বাস্তবতায় টানা চতুর্থ মেয়াদে আওয়ামী লীগ ক্ষমতাসীন হওয়ার পর গতকাল প্রথম দ্বিপক্ষীয় সফরে নয়াদিল্লি যান নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। বাংলাদেশের জন্মের ইতিহাসের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে যুক্ত প্রতিবেশী ভারতে নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সফরটি নানা কারণে তাৎপর্যপূর্ণ। সেখানে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন তিনি; বৈঠক করবেন ভারতের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গেও।

সফরকালে তিস্তার পানি বণ্টন চুক্তি নিয়েও আলোচনা হবে বলে জানা গেছে। তবে ঝুলে থাকা তিস্তার পানি বণ্টন চুক্তি ও সীমান্ত হত্যার মতো গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুগুলো নিয়ে কতটুকু আলোচনার সুযোগ হবে বা অগ্রগতিই বা কতটুকু হবে তা নিয়ে কৌতূহল রয়েছে। যদিও তিস্তার পানি বণ্টন চুক্তি যে বাংলাদেশের মানুষের দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা, সেই বার্তা জয়শঙ্করকে দেবেন হাছান মাহমুদ।

অন্যদিকে ঢাকা ও নয়াদিল্লির কূটনৈতিক সূত্র দাবি করেছে ০৭ ফেব্রুয়ারি দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নেতৃত্বাধীন প্রতিনিধি দলের দ্বিপক্ষীয় আলোচনা ছাড়া মন্ত্রীর সফরের অনেক কিছুই এখনো চূড়ান্ত হয়নি। দ্বিপক্ষীয় প্রথম সফরে সাধারণত সরকারপ্রধানের সঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ হয়। গত ১০ বছরে বাংলাদেশে গুড উইল সফরে আসা দিল্লির পররাষ্ট্র সচিবরাও সরকারপ্রধানের সাক্ষাৎ পেয়েছেন। কিন্তু হাছান মাহমুদের সফরে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাক্ষাৎ এখনো চূড়ান্ত হয়নি। এ ছাড়া তিস্তায় চীন যে প্রকল্পের প্রস্তাব দিয়েছে, সে বিষয়ে ভারত জানতে চাইলে মতামত দেবে বাংলাদেশ।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সেহেলী সাবরীন এ বিষয়ে বলেন, বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার বিভিন্ন বিষয় আলোচনায় থাকবে। এর মধ্যে তিস্তার পানি বণ্টন চুক্তি নিয়ে আলোচনা হবে বলে আমরা আশা করছি। তিস্তায় চীনের প্রকল্প প্রসঙ্গে মুখপাত্র বলেন, চীনের প্রকল্পের বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হবে কিনা, তা এখন বলা যাচ্ছে না। কারণ এজেন্ডাগুলো নিয়ে এখনো কাজ হচ্ছে। যদি ভারত এ বিষয়ে আমাদের কাছে কিছু জানতে চায়, তখন আমরা বিষয়টি ভেবে দেখব।

সম্প্রতি যশোর সীমান্তে ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশের বিজিবির এক সদস্য নিহত হন। বিজিবি সদস্য নিহত হওয়ার ঘটনায় বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যকার সম্পর্কে এক ধরনের অস্বস্তি তৈরি হয়েছে। সেই অস্বস্তি দূর করতে সীমান্তে হত্যা শূন্যে নামিয়ে আনার যে অঙ্গীকার দুই দেশের রয়েছে, সে বিষয়েও আলোচনা করবেন হাছান মাহমুদ। আলোচনা হবে বাণিজ্য বৃদ্ধি ও কানেক্টিভিটি নিয়েও।

নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পরই হাছান মাহমুদকে অভিনন্দন বার্তা পাঠান জয়শঙ্কর। ঢাকায় ভারতের হাইকমিশনার প্রণয় ভার্মা পরের দিন তার মন্ত্রণালয়ে গিয়ে শুভেচ্ছা জানান। পাশাপাশি তিনি সাংবাদিকদের জানান, তাকে ভারত সফরের জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছেন জয়শঙ্কর। পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ভারত সফরটি তিন দিনের হতে পারে। তবে সফরসূচি এখনো চূড়ান্ত হয়নি। আলোচ্য বিষয়বস্তুও ঠিক হয়নি। এসব নিয়ে এখনো কাজ চলছে।

ভারত সফর সম্পর্কে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও বাণিজ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের কথা রয়েছে। মিয়ানমার ও ভারত প্রতিবেশী রাষ্ট্র। তাই মিয়ানমারের ইস্যুতে ভারতের সহযোগিতা সব সময় চেয়ে এসেছি। মিয়ানমার যাদের জোরপূর্বক উচ্ছেদ করেছে, যারা বাংলাদেশে পালিয়ে আশ্রয় নিয়েছে, তাদের বিষয়ে সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে। সার্বিকভাবে মিয়ানমার ইস্যুতে ভারতের সঙ্গে আলোচনার সুযোগ রয়েছে।


আরও খবর



সাত দশক পর পাকিস্তানে প্রথম নারী মুখ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী হতে চলেছেন পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজের (পিএমএল-এন) জ্যেষ্ঠ ভাইস প্রেসিডেন্ট মরিয়ম নওয়াজ। তিনি সাত দশকের বেশি সময়ের ইতিহাসে প্রথম নারী মুখ্যমন্ত্রী হতে চলেছেন। পিএমএল-এনের নেতা ও পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের মেয়ে মরিয়ম নওয়াজ। খবর জিও নিউজের।

পাকিস্তানের মোট জনসংখ্যার অর্ধেকের বেশি মানুষই পাঞ্জাব প্রদেশের বাসিন্দা। এখানে বাস করে প্রায় ১২ কোটি ৭০ লাখ মানুষ। মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচিত হলে মরিয়মের কাঁধে পড়বে পাঞ্জাবের এই বিশাল জনগোষ্ঠির দায়িত্ব।

বুধবার (২১ ফেব্রুয়ারি) লাহোরে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে তার দলের পক্ষে ভোট দেওয়ার জনগণকে ধন্যবাদ জানান মরিয়ম নওয়াজ।

তিনি বলেন, আপনাদের আস্থা ও সমর্থনই আমার প্রকৃত সম্পদ।

এ সময় সর্বোত্তম উপায়ে জনগণের সেবা করার জন্য দোয়া চান তিনি। তার নেতৃত্বে পাঞ্জাব প্রদেশে নতুন যুগের সূচনা হবে বলেও আশাবাদ প্রকাশ করেন মরিয়ম নওয়াজ।

প্রথম নারী মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার এ সম্মান দেশের প্রতিটি মা, মেয়ে ও বোনকে উৎসর্গ করতে চান মরিয়ম।

পাঞ্জাব শাসনের নতুন পরিকল্পনার কথা জানিয়ে মরিয়ম নওয়াজ বলেন, সরকার ও দলীয় পর্যায়ে কোন কোন বিষয়কে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে, সে জন্য পৃথক একটি রূপরেখা তৈরি করেছে তার দল। স্বাস্থ্য, শিক্ষা, অবকাঠামো, আইনশৃঙ্খলা, কৃষি, তথ্যপ্রযুক্তি ও অন্যান্য খাতগুলোর ওপর সমান জোর দেওয়ার কথা বলে বলেন পিএমএল-এন নেত্রী।

প্রসঙ্গত, ৮ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানের জাতীয় ও প্রাদেশিক পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে পাঞ্জাবের একটি আসন থেকে জয়লাভ করেন মরিয়ম নওয়াজ। কেন্দ্র ও প্রদেশগুলোয় জোট সরকার গঠন নিয়ে পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) ও পিএমএলএনের টানা কয়েক দিনের আলোচনার পর মঙ্গলবার সমঝোতা হয়। এরপর পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী পদে পিএমএল-এন থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয় মরিয়মকে।


আরও খবর



ধর্ষণ মামলায় ট্রাম্পের ৮ কোটি ৩৩ লাখ ডলার জরিমানা

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ধর্ষণের একটি মামলায় পরাজিত হয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট এবং আগামী নির্বাচনে রিপাবলিকান পার্টির সম্ভাব্য প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প। নিউইয়র্কের একটি আদালত তাকে ৮ কোটি ৩৩ লাখ ডলার জরিমানা করেছেন।

স্থানীয় সময় শুক্রবার নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের ম্যানহাটান ফেডারেল আদালত এই মামলার রায় ঘোষণা করেন। সাত জন পুরুষ বিচারক ও দুজন নারী বিচারকের সমন্বয়ে গঠিত আদালত বেঞ্চ রায় ঘোষণার সময় বলেন, জরিমানার এই অর্থ মামলার বাদি মার্কিন লেখক ও সাংবাদিক ই. জেন ক্যারলকে ক্ষতিপূরণ হিসেবে দিতে হবে।

রায় ঘোষণার সময় আদালত ভবনে ছিলেন ট্রাম্প। তবে এজলাসে উপস্থিত ছিলেন না। তবে নিজের দুই আইনজীবীর সঙ্গে এজলাসে হাজির ছিলেন ক্যারল।

রায় ঘোষণার পর উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে ৭৯ বছর ছুঁইছুঁই ক্যারল বলেন, পৃথিবীতে যেসব নারী আঘাত পেয়ে পড়ে যাওয়ার পর ফের উঠে দাঁড়ায়, এই রায় তাদের সবার জন্য; আর যেসব উৎপীড়ক প্রতিনিয়ত নারীকে অত্যাচার করে, মিশিয়ে ফেলতে চায়, এই রায় তাদের জন্যও।

প্রায় কাছাকাছি সময়ে নিজের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ট্রুথ সোশ্যালে তিক্ততা প্রকাশ করে এক পোস্টে ৭৭ বছর বয়সী ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, আমাদের বিচার ব্যবস্থা নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেছে এবং এখন একে রাজনৈতিক অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। এটা আমেরিকার সংস্কৃতি নয়।

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ধর্ষণের এই মামলাটি হয়েছিল ২০১৯ সালে। ই. জেন ক্যারল নিজেই বাদি হয়ে মামলাটি করেছিলেন। অভিযোগপত্রের তথ্য অনুযায়ী, ১৯৯৬ সালের এক বিকেলে ম্যানহাটানের ফ্যাশন হাউস বার্গডর্ফ গুডম্যান নিজের বন্ধুর জন্য পোশাক কিনতে গিয়েছিলেন জেন ক্যারল। পূর্ব পরিচয়ের সুবাদে ডোনাল্ড ট্রাম্পও তার সঙ্গে ছিলেন। সে সময় ওই ফ্যাশন হাউসের ড্রেসিং রুমে ক্যারলকে ধর্ষণ করেন ট্রাম্প।

২০১৯ সালের জুনে প্রথম এ অভিযোগ প্রকাশ্যে আনেন জেন ক্যারল। যথারীতি সেই অভিযোগ অস্বীকার করেছিলেন ট্রাম্প। পরে ওই বছরই নভেম্বরে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে মামলাটি করেন তিনি, যার রায় ঘোষিত হলো শুক্রবার।

গত মঙ্গলবার মামলার সর্বশেষ শুনানি ছিল। সেদিন সাক্ষ্য দিতে এসে জেন ক্যারল বলেছিলেন, তিনি নিজের জীবন ফিরে পেতে চান। বছরের পর বছর ধরে সেই চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

আমি এখানে এসেছি, কারণ, ডোনাল্ড ট্রাম্প আমাকে ধর্ষণ করেছেন। আমি যখন এটা নিয়ে লেখালেখি করেছিলাম, তখন তিনি (ট্রাম্প) তা অস্বীকার করেছেন, মিথ্যা বলেছেন, নিজ সাক্ষ্যে বলেছিলেন ক্যারল।

নিউজ ট্যাগ: ডোনাল্ড ট্রাম্প

আরও খবর



ধামরাইয়ে ধনিয়া ফুল থেকে মৌমাছির মধু সংগ্রহ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
ধামরাই প্রতিনিধি

Image

মৌমাছি মৌমাছি ,কোথা যাও নাচি নাচি, দাঁড়াও না একবার ভাই,ওই ফুল ফোটে বনে,যাই মধু আহরণে, দাঁড়াবার সময় তো নাই। নবকৃষ্ণ ভট্টাচার্যের এই কবিতার মত ঢাকার ধামরাই উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের দেউলি গ্রামে মৌমাছিরা এখন ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন ধনিয়া ক্ষেতের ধনিয়া ফুল থেকে মধু আহরণে।

ধনিয়া ক্ষেতের সুগন্ধি ও ফুলের অপরূপ দৃশ্য যেন মনমুগ্ধকর । এই সুযোগে ফসলের জমির পাশে পোষা মৌমাছির বাক্স নিয়ে হাজির হয়েছেন মৌয়ালরা। ওই সব বাক্স থেকে হাজার হাজার মৌমাছি উড়ে গিয়ে মধু সংগ্রহে ঘুরে বেড়াচ্ছে সরিষা ফুলের মাঠে।

ধনিয়া ফুলের মধুর বৈশিষ্ট এটা সংগ্রহের পর দেখতে সাদা পানির কালার মত দেখায়, এটা সংগ্রহ করা হয় সাধারণত জানুয়ারী মাসের শেষে থেকে ফেব্রুয়ারী মাস জুড়ে তবে সময়ের কম বেশি হতে পারে। এই মধুটি অন্যান্য মধুর মত কালার ও স্বাদের পরিবর্তন হয় দীর্ঘ সময় পার হওয়া পর। ধনিয়া ফুলের মধুর প্রধান বৈশিষ্ট এটা সরিষা ফুলের মত জমে বা বসে যায়। এই মধুটি আমাদের দেশে উৎপাদন পরিমান খুবই সীমিত।

চাষীরা সাধারণত পছন্দের একটি ধনিয়া ক্ষেতের পাশে খোলা জায়গায় চাক ভরা বাক্স ফেলে রাখেন। একেকটি বাক্সে মোম দিয়ে তৈরি ছয় থেকে সাতটি মৌচাকের ফ্রেম রাখা হয়। আর তার ভেতর রাখা হয় একটি রাণী মৌমাছি। রাণী মৌমাছির কারণে ওই বাক্সে মৌমাছিরা আসতে থাকে। মৌমাছিরা ফুল থেকে মধু এনে বাক্সের ভেতরের চাকে জমা করে। আর এই চাক থেকেই মধু সংগ্রহ করেন মৌচাষীরা। প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত মৌ-চাষিরা এসব মৌচাক থেকে মধু সংগ্রহ করেন। মৌ চাষের মাধ্যমে চাষীরা একদিকে যেমন আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছেন, অন্যদিকে দূর হচ্ছে বেকারত্ব।

ময়মনসিংহ থেকে আসা মৌ-চাষী জিহাদ বলেন, ধনিয়া ক্ষেতের পাশে মধু সংগ্রহের জন্য ২৬টি বাক্স বসানো হয়েছে।ওইসব বাক্স থেকে হাজার হাজার মৌমাছি উড়ে গিয়ে মধু সংগ্রহে ঘুরে বেড়াচ্ছে ধনিয়া ফুলের ক্ষেতে । তবে আবহাওয়া কিছুটা খারাপ হওয়ার কারণে মধু কম সংগ্রহ হয়েছে।

ধামরাই উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ আরিফুর রহমান জানান, ধনিয়া ক্ষেতের পাশে মৌমাছির চাষ হলে ফলন বেড়ে যায় ফলনও ভালো হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। বাক্স পদ্ধতি ব্যবহার করে বাণিজ্যিকভাবে এসব মধু সংগ্রহ করা হচ্ছে। এতে মৌমাছি ব্যবসায়ীরা যেমন একদিকে মধু বিক্রি করে অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হচ্ছেন, অন্যদিকে ক্ষেতে মধু চাষ করায় ফলনও বাড়ছে।

নিউজ ট্যাগ: মৌমাছি

আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




উখিয়ায় ভেসে আসা মরদেহ থেকে ৯৯টি বুলেট ও ২টি ম্যাগজিন উদ্ধার

প্রকাশিত:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
মোহাম্মদ ফারুক, কক্সবাজার

Image

মিয়ানমারে চলমান সংঘাতের মধ্যে কক্সবাজারের উখিয়ায় খালের ঝিরি দিয়ে মিয়ানমার থেকে অজ্ঞাত মরদেহের সঙ্গে থাকা ৯৯টি বুলেট ও ২টি ম্যাগজিন উদ্ধার করা হয়েছে।

রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) ১২টার দিকে উখিয়ার বালুখালি খালে এ মরদেহটি জোয়ারের পানিতে ভেসে আসে। বিষয়টি জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় বালুখালি এলাকার মুদির দোকানদার মিসবাহ উদ্দিন। ওই মরদেহটি শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) বালুখালি খালে নাফ নদী হয়ে জোয়ারের পানিতে ভেসে এসেছিল। পরে ভাটার সময় দেখলাম সেটি সরে দূরে চলে গিয়েছিল।

তিনি আরও বলেন, রবিবার মরদেহটি আবারও ভেসে আসলো। এখনো সেটি দেখা যাচ্ছে। এটা দেখার জন্য অনেক লোক জড়ো হয়েছে।

উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শামীম হোসাইন বলেন, ভেসে আসা মরদেহটি খাঁকি রঙের হেলমেড পরিহিত ছিল। কোমরে ব্যাল্ট ছিল, শরীরের সঙ্গে বাঁধা একটি ব্যাগ থেকে ৯৯টি বুলেট, ২টি ম্যাগজিন পাওয়া যায়।

মরদেহটি মিয়ানমার থেকে ভেসে আসতে পারে বলে ধারণা পুলিশের। কারণ সম্প্রতি উখিয়ার সীমান্তবর্তী এলাকায় কোন লোক নিখোঁজ হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪