আজঃ সোমবার ০৮ মার্চ ২০২১
শিরোনাম

দেশে প্রথম করোনা টিকা নিলেন যারা

প্রকাশিত:বুধবার ২৭ জানুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৫১৭জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাদেশে প্রথম টিকা নেন রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স রুনু ভেরোনিকা কস্তা। এর মধ্য দিয়ে সারা দেশে করোনাভাইরাসের টিকাদান কার্যক্রম শুরু হলো।

গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি বুধবার বিকালে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ভিডিও কনফারেন্সে প্রথম ৫ জনের ওপর টিকার প্রয়োগ সরাসরি প্রত্যক্ষ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রুনু ভেরোনিকা কস্তা ছাড়াও প্রথম দিন আরও যারা টিকা নিয়েছেন- ডা. আহমেদ লুৎফুল মোবেন, অধ্যাপক (ডা.) নাসিমা সুলতানা, মো. দিদারুল ইসলাম, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এম ইমরান হামিদ, মো. মাজেদুল ইসলাম, সানজিদা সুলতানা, মো. আব্দুল হালিম, মো. এনামুল হাসান, মো. হামজা, শাম্মী আকতার, ডা. আল মামুন শাহরিয়ার সরকার, ডা. ফরিদা ইয়াসমিন, ডা. আফরোজা জাহিন, ডা. অরূপ রতন চৌধুরী, অধ্যাপক (ডা.) আবদুল কাদের খান, মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান, মো. আব্দুর রহিম, কাজী জসিম উদ্দিন, মোশারফ হোসাইন, মাসুদ রায়হান পলাশ, মো. আল-মাসুম মোল্লা, আমিরুল মোমেনিন, মিস মুন্নি খাতুন, মো. আশিফুল ইসলাম।

এদিকে বৃহস্পতিবার ঢাকার পাঁচটি হাসপাতালে ৪০০ থেকে ৫০০ জনকে টিকা দেওয়া হবে। সারাদেশে টিকাদান কার্যক্রম শুরু হবে আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি।

বুধবার প্রধানমন্ত্রী টিকা উদ্বোধনের পর থেকেই টিকার নিবন্ধন শুরু হয়ে যায়। এ ছাড়া স্বাস্থ্যকেন্দ্রে গিয়েও টিকার নিবন্ধন করা যাবে।

Share

আরও খবর



মিয়ানমারে বিক্ষোভে গুলির ঘটনায় জাতিসংঘের ক্ষোভ

প্রকাশিত:রবিবার ২১ ফেব্রুয়ারী 20২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২১ ফেব্রুয়ারী 20২১ | ৫৭জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মিয়ানমারের সামরিক অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভে গুলি চালিয়ে দুইজনকে হত্যা করেছে নিরাপত্তাবাহিনী। এই ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ। সংস্থার মহাসচিব বলেছেন, শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভে প্রাণঘাতী অস্ত্রের ব্যবহার মেনে নেয়া যায় না।

শনিবার মিয়ানমারের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর মান্দালয়ে বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলি ছোড়ে পুলিশ। এতে দুই জন নিহতের পাশাপাশি ২০ জনের বেশি মানুষ আহত হন।

এই ঘটনায় নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করে জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তনিও গুতেরেস টুইটবার্তায় বলেন, আমি মিয়ানমারে প্রাণঘাতী সহিংসতার পথ অবলম্বন করার নিন্দা জানাই। শান্তিপূর্ণ আন্দোলনরতদের বিরুদ্ধে প্রাণঘাতী অস্ত্র ব্যবহার, ভয়-ভীতি দেখানো এবং নিপীড়ন করা মেনে নেয়া যায় না।

তিনি বলেন, সবারই শান্তিপূর্ণভাবে সভা-সমাবেশ করার অধিকার রয়েছে। আমি সব পক্ষকে নির্বাচনের ফলাফলের প্রতি সম্মান দেখানোর এবং বেসামরিক শাসন ব্যবস্থায় ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন বলছে যে তারা এই সহিংসতার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছেন। মিয়ানমারে থাকা মার্কিন দূতাবাস বলেছে, তারা এ ঘটনায় 'গভীরভাবে বিক্ষুব্ধ'।

যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডমিনিক রাব এক টুইটে বলেছেন, 'মিয়ানমারের শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভাকারীদের উপর গুলির ঘটনা অগ্রহণযোগ্য। যারা গণতন্ত্রকে ধ্বংস করছে এবং ভিন্নমতের কণ্ঠরোধ করছে তাদের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক অংশীদারদের সাথে মিলে এ বিষয়ে আরও পদক্ষেপ নেয়ার বিষয়টি বিবেচনা করবো।'

মিয়ানমারে বড় বিনিয়োগকারী দেশ সিঙ্গাপুর হুশিয়ার করেছে যে, পরিস্থিতি জটিলতর হতে থাকলে তার পরিণাম মিয়ানমার এবং আশপাশের অঞ্চলের জন্য ভাল হবে না।

Share

আরও খবর



সাংবাদিক শাহীন রেজা নূর আর নেই, প্রধানমন্ত্রীর শোক

প্রকাশিত:শনিবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১০১জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
মাগুরা জেলার শালিখা থানার শরশুনা গ্রামে ১৯৫৪ সালের সেপ্টেম্বরে জন্মগ্রহণ করেন শাহীন রেজা নূর। তার বাবা শহিদ সাংবাদিক সিরাজুদ্দীন হোসেন। একাত্তরে মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে

শহিদ সাংবাদিক সিরাজুদ্দীন হোসেনের ছেলে ও দৈনিক ইত্তেফাকের সাবেক নির্বাহী সম্পাদক শাহীন রেজা নূর আর নেই। শনিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টা ৪০ মিনিটে কানাডার ভ্যাংকুভারের একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

শাহীন রেজা নূরের ছোট ভাই তৌহিদ রেজা নূর এ খবর নিশ্চিত করে জানান, গত তিন বছর ধরে ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই করছিলেন এই কলম সৈনিক।

বিশিষ্ট সাংবাদিক, প্রজন্ম ৭১-এর সাবেক সভাপতি শাহীন রেজা নূরের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এক শোক বার্তায় শেখ হাসিনা মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন এবং যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিতে গণআন্দোলনে শাহীন রেজা নূরের ভূমিকা শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন। প্রধানমন্ত্রী মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

মাগুরা জেলার শালিখা থানার শরশুনা গ্রামে ১৯৫৪ সালের সেপ্টেম্বরে জন্মগ্রহণ করেন শাহীন রেজা নূর। তার বাবা শহিদ সাংবাদিক সিরাজুদ্দীন হোসেন। একাত্তরে মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে দেশব্যাপী বুদ্ধিজীবী নিধনের নীলনকশা বাস্তবায়ন করতে শুরু করে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী ও তাদের সহযোগী এ দেশীয় রাজাকার-আল বদর বাহিনী। ওই সময় ১০ ডিসেম্বর হত্যা করা হয় সাংবাদিক সিরাজুদ্দীন হোসেনকে।

বাবার পদাঙ্ক অনুসরণ করে নিজেও সাংবাদিকতাকেই পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন শাহীন রেজা নূর। দীর্ঘ সময় ধরে দৈনিক ইত্তেফাকে কাজ করেছেন। দেশের অন্যতম প্রাচীন এই সংবাদপত্রের বার্তা সম্পাদক হিসেবেও কাজ করেছেন। সবশেষ এই পত্রিকাটির কার্যনির্বাহী সম্পাদক ছিলেন তিনি।

Share

আরও খবর
করোনার টিকা নিলেন আাজকের দর্পণের প্রকাশক

মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১




বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১১ কোটি ৬৬ লাখ

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৬ মার্চ ২০২১ | ৭০জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির সংখ্যা কোনোভাবেই কমছে না। সবশেষ করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১১ কোটি ৬৬ লাখ ৫৯ হাজার ৭৯০ জন। আর এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৫ লাখ ৯১ হাজার ২৯৫ জনে। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছে ৯ কোটি ২২ লাখ ৭৩ হাজার ৬০৮ জন। করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটার থেকে এই তথ্য জানা যায়।

ওয়ার্ল্ডওমিটারের সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে ৫ লাখ ৩৫ হাজার ৫৬৩ জন এখন পর্যন্ত মারা গেছেন। বিশ্বে সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যাও এই দেশটিতে। এই পর্যন্ত ২ কোটি ৯৫ লাখ ৯৩ হাজার ৭০৪ জন এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের পর মৃত্যু বিবেচনায় করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ হচ্ছে ব্রাজিল। লাতিন আমেরিকার দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ১ কোটি ৮ লাখ ৭১ হাজার ৮৪৩ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ৬২ হাজার ৯৪৮ জনের। তবে মৃত্যু বিবেচনায় মেক্সিকোর অবস্থান তৃতীয়।

আক্রান্তের দিক থেকে দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসা ভারত মৃত্যু বিবেচনায় আছে চতুর্থ অবস্থানে। এ পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ১১ লাখ ৯১ হাজার ৮৬৪ জন। আর মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৫৭ হাজার ৬৯৩ জনের।

দেশে করোনাভাইরাসের আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। এখন পর্যন্ত মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮ হাজার ৪৪১ জনে। এছাড়াও এখন পর্যন্ত দেশে মোট শনাক্তের সংখ্যা ৫ লাখ ৪৯ হাজার ১৮৪ জন।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীন থেকে সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর বিশ্বব্যাপী ছড়িয়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। গত বছরের ১১ মার্চ করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

Share

আরও খবর



আর একদফা বাড়লো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৯২জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
গেল বছরের ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। কয়েক ধাপে বাড়ানোর পর আজ ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছুটি ছিল। এবার ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ছুটি বাড়নো হলো

বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। করোনা মহামারির কারণে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের (কওমি ছাড়া) চলমান ছুটি আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা এম এ খায়ের রবিবার সকালে এ তথ্য জানিয়েছেন।

গেল বছরের ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। কয়েক ধাপে বাড়ানোর পর আজ ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছুটি ছিল। এবার ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ছুটি বাড়নো হলো।

গত ২২ জানুয়ারি করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে গাইডলাইন প্রকাশ করে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর। এ গাইডলাইন অনুসরণ করে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার প্রস্তুতি নিতে বলা হয়। স্কুল-কলেজগুলোতে ৩৯ পাতার গাইডলাইন পাঠিয়ে বলা হয়, ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে স্কুলগুলো প্রস্তুত করে রাখতে।

Share

আরও খবর
ঢাবিতে ভর্তির আবেদন শুরু

সোমবার ০৮ মার্চ ২০২১




‘হয় পরীক্ষা নাও, না হয় জীবন নাও’

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৬৯জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

তিন বছর ধরে থার্ড ইয়ারে আছি। ২০১৯ সালের পরীক্ষা আমরা ২০২১ সালে এসে দিচ্ছি। আমাদের বন্ধুরা প্রাইভেটে পড়ে গ্র্যাজুয়েশন শেষ করে জবে ঢুকে গেছে। আর আমরা অর্ধেক পরীক্ষা দিয়ে আবারও আটকে গেলাম। আমরা চাই চলমান পরীক্ষা নির্ধারিত শিডিউলে নেওয়া হোক।

বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) নীলক্ষেত অবরোধ চলাকালে ঢাকা কলেজের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের ২০১৬-১৭ সেশনের তৌকির আহমেদ নিজেদের শিক্ষাজীবন দীর্ঘ হওয়ার কথা বলছিলেন।

শিক্ষার্থীরা জানান, ২০১৫-১৬ সেশনের ২৪ ফেব্রুয়ারির পরীক্ষাটা বাকি ছিল। কিন্তু গতকাল আকস্মিক নোটিশে পরীক্ষা স্থগিত হওয়ার ফলে অর্নাস কমপ্লিট হলো না। অপরদিকে ২০১৬-১৭ সেশনের ২৫, ২৮ ফেব্রুয়ারি ও ৩, ৬ মার্চ পরীক্ষা ছিল।

তিতুমীর কলেজের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের কুতুব উদ্দীন বলেন, আমরা একমাস ধরে পরীক্ষা দিচ্ছি। তখন করোনা হলো না। কোন যুক্তিতে আজকের পরীক্ষা স্থগিত হলো। আমরা অনতিবিলম্বে পরীক্ষা দিয়ে গ্র্যাজুয়েশান শেষ করতে চাই।

কর্মসূচি পালনকালে শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করেন। দাবি মোদের একটাই, পরীক্ষা চাই। পরীক্ষা কেন স্থগিত প্রশাসন জবাব চাই, রক্ত চাইলে রক্ত নিন তবুও পরীক্ষা নিন। শিক্ষার্থীদের কয়েকজন কাফনের কাপড় পরে রাস্তায় শুয়ে পড়ে। বুকে লাল কালিতে লেখা পরীক্ষা নাও, না হয় জীবন নাও

নিউজ ট্যাগ: ঢাকা কলেজ
Share

আরও খবর
ঢাবিতে ভর্তির আবেদন শুরু

সোমবার ০৮ মার্চ ২০২১