আজঃ শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১
শিরোনাম

দুই শিশু সন্তানকে হাসপাতাল চত্বরে রেখে লাপাত্তা মা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৬৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দুই শিশু সন্তানকে নিয়ে স্বামীর বাড়ি থেকে নিখোঁজ হন সাগরী খাতুন (২৩)। চারদিন পর বুধবার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে শিশুটির সন্ধান পাওয়া যায়। কিন্তু পাঁচ দিন ধরে নিখোঁজ রয়েছে সাগরী খাতুন। তার ভাগ্যে কি ঘটেছে সেটি এখন নিশ্চিত নয় কেউ।

সাগরী খাতুন যশোরের চৌগাছা উপজেলার পাতিবিলা গ্রামের আক্তারুল ইসলামের স্ত্রী। উদ্ধার দুই শিশুর নাম সাগর হোসেন সাফিন (৫) ও মোহনা আক্তার জুলেখা (২০ মাস)। তাদেরকে পরিবারে হস্তান্তর করেছে পুলিশ।

হাসপাতালের সাইকেল গ্যারেজের দায়িত্বে থাকা মফিজুর রহমান জানান, সকালে এসে বাচ্চা দুটিকে বসে থাকতে দেখি। ভেবেছিলাম তাঁদের মা হয়ত বসিয়ে রেখে ডাক্তার দেখাতে গেছেন। প্রায় একঘণ্টা পরে সাড়ে ৯টার দিকে বাচ্চা দুটি খুব কান্নাকাটি করতে দেখে ম্যাডামকে (উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা) জানাই। এ সময় ওদেরকে স্থানীয় কয়েকজন জিজ্ঞেস করলে ছেলেটি তার বাবার নাম আক্তারুল আর বাড়ি হায়াতপুর বলতে পারে। তখন তারা পরিচিতজনদের মাধ্যমে পরিবারকে খবর দেয়।

সাগরীর স্বামী আক্তারুল ইসলাম জানান, রবিবার দুই সন্তান নিয়ে বাড়ি থেকে সাগরী সবার অগোচরে কোথাও চলে যায়। তিনদিন ধরে সাগরীর বাবার বাড়িসহ (উপজেলার চুটারহুদা গ্রাম) বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করেও না পেয়ে মঙ্গলবার চৌগাছা থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করি। এরপর স্থানীয়দের মাধ্যমে সংবাদ পেয়ে হাসপাতালে এসে তার দুই সন্তানকে পুলিশ হেফাজতে পান। তাদের ধারণা সাগরীর অন্য কোনো ছেলের সঙ্গে সম্পর্ক আছে। সেই সূত্রেই হয়ত সে চলে গেছে।

আক্তারুল ইসলাম আরও জানান, একটা নাম্বারে মাঝে মধ্যে কথা বলতো। আমি এ নিয়ে তাকে বকাঝকাও করেছি। একদিন মেরেছিও। তবে গত কোরবানির ঈদে ওর বাপের বাড়ি থেকে ঘুরে আসার পর হুমকিও দেয় আমার কাছ থেকে চলে যাবে। যাওয়ার সময় বাড়ি  থেকে নগদ ২০ হাজার টাকাসহ ভালো কাপড় চোপড় সব নিয়ে গেলেও বাচ্চাদের যে পোশাকে নিয়ে গিয়েছিলো সেই পোশাকেই আছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. লুৎফুন্নাহার বলেন, বুধবার সকাল নয়টার দিকে সাইকেল গ্যারেজের দায়িত্বে থাকা মফিজুর জানায় সেখানে দুটি বাচ্চাকে তার মা রেখে চলে গেছে। তারা খুব কান্নাকাটি করছে। তখন বিষয়টি সাংবাদিক ও থানা পুলিশকে জানাই। শিশু দুটি পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

চৌগাছা থানার এসআই রাজেশ কুমার বলেন, স্বাস্থ্য কর্মকর্তার কাছ  থেকে মোবাইল ফোনে সংবাদ পেয়ে হাসপাতালে এসে শিশু দুজনকে উদ্ধার করি। প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে থানার সাধারণ ডায়েরির (জিডি) ভিত্তিতে স্থানীয় ইউপি সদস্যের উপস্থিতিতে শিশুদেরকে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে


আরও খবর



ব্যর্থ কংগ্রেস, দেশ চায় তৃণমূলকেই

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৭ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৭ অক্টোবর ২০২১ | ৪১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

এত দিন তাঁর দলের বিভিন্ন নেতা যা বলেছেন, তৃণমূল কংগ্রেসের দৈনিক মুখপত্রে ইদানীং যা লেখা হচ্ছে, তাকে আরও এক ধাপ এগিয়ে নিয়ে গেলেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর কথায়, সময়ের যাত্রাপথে এখন বিজেপির বিরুদ্ধে আসল লড়াইয়ের মুখ হয়ে উঠেছে এই তৃণমূল কংগ্রেসই। দেশের মানুষ এখন তৃণমূল কংগ্রেসকে ঘিরে নতুন ভারতের স্বপ্ন দেখছেন।

কয়েক দিন আগেই তৃণমূলের লোকসভার দলনেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, বিজেপির বিকল্প মুখ হতে রাহুল গাঁধী ব্যর্থ। মমতাই পারবেন। এ বার দলীয় মুখপত্রের উৎসব সংখ্যায় প্রবন্ধে মমতা লিখেছেন, বাংলার সীমা অতিক্রম করে একের পর এক রাজ্য থেকে ডাক আসছে, আপনারা আসুন। নতুন ভারত গড়তে নেতৃত্ব দিক বাংলা।

তৃণমূলের এই অবস্থানের প্রতিক্রিয়ায় প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীর অভিযোগ, বিজেপির নেপথ্য মদতেই মমতার দল কংগ্রেসকে লাগাতার আক্রমণ করে চলেছে এবং বিরোধী ঐক্যকে নড়বড়ে করে দিতে চাইছে।

পর্যবেক্ষকদের মতে, বাংলা নেতৃত্ব দিক কথাটির মর্মার্থ আসলে বিরোধী মঞ্চে মমতার নেতৃত্বকেই প্রতিষ্ঠা করা। যদিও তিনি নিজে বার বারই বলেন, কে নেতা হবেন, সেটা বড় কথা নয়। আসল হল বিজেপিকে হটানো। সেই ভাবেই আলোচ্য প্রবন্ধেও তিনি লিখেছেন, দেশের মানুষের দাবি, দিল্লির মসনদ থেকে সরাতে হবে ফ্যাসিবাদী, স্বৈরাচারী বিজেপিকে। মানুষের আশা ভরসা তৃণমূল কংগ্রেসকে ঘিরে। এই সূত্রেই তাঁর ব্যাখ্যা, বিকল্প জোটের নেতৃত্ব নিয়ে আমরা চিন্তিত নই। কিন্তু বাস্তবটা কংগ্রেসকে অনুভব করতে হবে। অন্যথায় বিকল্প শক্তির গঠনে ফাঁক থেকে যাবে।

কী সেই বাস্তব? মমতা লিখেছেন, সাম্প্রতিক অতীতে কংগ্রেস দিল্লির দরবারে বিজেপিকে মোকাবিলায় ব্যর্থ হয়েছে। গত দুটি লোকসভা নির্বাচন তার বড় প্রমাণ। তাঁর অভিমত, দিল্লিতে যদি লড়াই না থাকে, তা হলে মানুষের মনোবল কমে যায় এবং লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যগুলিতেও বিজেপি কিছু বাড়তি ভোট পেয়ে যায়। সেটা এ বার কিছুতেই হতে দেওয়া যাবে না।পাশাপাশি, বিজেপির মোকাবিলায় তৃণমূলের ভূমিকা তুলে ধরে মমতার বক্তব্য, বাংলার এ বারের নির্বাচনে গোটা দেশ দেখেছে, বিজেপির সর্বশক্তিকে কী ভাবে তৃণমূল হারিয়ে দিয়েছে। যাঁরা দেশ চালাচ্ছেন (আসলে ডোবাচ্ছেন), তাঁরা সকলেই তো ডেইলি প্যাসেঞ্জারি করলেন। কুৎসা করলেন। এজেন্সি নামালেন। তবু তৃণমূলকে হারাতে পারলেন না। এটা একটা ইতিহাস। এটা একটা মডেল। দেশের মানুষ এই মডেলের উপর ভরসা রাখছেন।

তৃণমূল নেত্রীর এ বারের বক্তব্যের জবাব দিতে গিয়ে উত্তরপ্রদেশের লখিমপুরের ঘটনার প্রসঙ্গও উল্লেখ করেছেন অধীর। তিনি বলেছেন, লক্ষ্য করলে দেখা যাবে, ভারতের দুটো দলকে বিজেপি পিছন থেকে মদত করছে শুধু কংগ্রেসকে খতম করার জন্য! একটা দলের নাম আপ, আর একটা দলের নাম তৃণমূল। লখিমপুরেও বাকি সবাইকে রুখে দিয়ে ওদের যেতে দেওয়া হয়েছে।প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির মন্তব্য, এটা একটা ছক হয়ে দাঁড়িয়েছে। দেশে যেখানে কংগ্রেস লড়াই করছে, সেখানে তৃণমূল গিয়ে কংগ্রেসের ক্ষতি করবে এবং বিজেপিকে ঘুরিয়ে সাহায্য করবে। আর বাংলায় ভাযণবাজি হবে মোদীর বিরুদ্ধে কংগ্রেস লড়তে পারে না, তৃণমূল লড়ে!


আরও খবর



সমুদ্র বন্দরে ৩ ও নদীতে ১ নম্বর সতর্কতা সংকেত

প্রকাশিত:সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১ | ২৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কমে গেছে ভ্যাপসা গরম, শুরু হয়েছে থেমে থেমে বৃষ্টি। আগামী দুই-তিনদিন এমন আবহাওয়া থাকতে পারে বলে পূর্বাভাস পাওয়া যাচ্ছে। সাগর ও নদীর তীরবর্তী এলাকায় ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এজন্য দেশের চার সমুদ্র বন্দরে ৩ (তিন) নম্বর এবং নদী বন্দরগুলোতে ১ (এক) নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়াবিদ মনোয়ার হোসেন বলেন, উত্তর বঙ্গোপসাগরে বায়ু চাপের আধিক্যের পার্থক্য থাকায় আমরা চার সমুদ্র বন্দরে ৩ নম্বর এবং নদী বন্দরগুলোতে ১ নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলেছি। আগামী দুই থেকে তিনদিন দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে থেমে বৃষ্টি হতে পারে। এতে ভ্যাপসা গরমের অনুভূতিও কমে আসবে।

সমুদ্রবন্দরগুলোর সতর্ক বার্তায় বলা হয়, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হওয়া লঘুচাপটি ভারতের তেলেঙ্গা ও আশেপাশের এলাকায় অবস্থান করছে। এ দিকে উত্তর বঙ্গোপসাগরে বায়ু চাপের আধিক্যের পার্থক্য থাকায় সাগর উত্তাল এবং ঝড়ো হাওয়াসহ অনেক এলাকায় বৃষ্টি হচ্ছে।

এজন্য চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরগুলোকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। এছাড়া উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারগুলোকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

এদিকে আবহাওয়া অধিদফতরের পূবাভাসে বলা হয়, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের অনেক জায়গায়, ঢাকা, রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের কিছু কিছু  জায়গায় এবং  ময়মনসিংহ ও সিলেটের দুই এক  জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের দক্ষিণাঞ্চলের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী বৃষ্টি হতে পারে। 

নদীবন্দরগুলোর সতর্ক বার্তায় বলা হয়, রংপুর, রাজশাহী, পাবনা, বগুড়া, ঢাকা, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, কুষ্টিয়া, যশোর, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার অঞ্চলগুলোর ওপর দক্ষিণ-দক্ষিণ পূর্বদিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ী দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এ জন্য এসব এলাকার বন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।



আরও খবর
সারা দেশে বৃষ্টির পূর্বাভাস

বুধবার ২০ অক্টোবর ২০21




করোনা: আরও সাড়ে চার হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৫ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৫ অক্টোবর ২০২১ | ৪৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
অন্যদিকে দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় শীর্ষে রয়েছে রাশিয়া। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মারা গেছেন ৮৮৩ জন এবং নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ২৫ হাজার ৭৮১ জন

চলমান করোনা মহামারিতে বিশ্বজুড়ে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা ফের বেড়েছে। একইসঙ্গে আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যাও। গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন সাড়ে ৪ হাজারের বেশি মানুষ। একই সময়ে নতুন করে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৩ লাখ ২৩ হাজার।

সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। অন্যদিকে দৈনিক মৃত্যুতে শীর্ষে রয়েছে রাশিয়া। এরপরই রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র-ভারত। এতে বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ২৩ কোটি ৬১ লাখের ঘর। অন্যদিকে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৪৮ লাখ ২১ হাজার।

মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) সকালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৪ হাজার ৬৩৮ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে অর্ধশতাধিক। এতে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৪৮ লাখ ২১ হাজার ৯৬২ জনে।

একই সময়ের মধ্যে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ২৩ হাজার ৮৬৯ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে ২৩ হাজারের বেশি। এতে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৩ কোটি ৬১ লাখ ১৪ হাজার ১১০ জনে।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। এই সময়ের মধ্যে দেশটিতে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৬১ হাজার ৬১ জন এবং মারা গেছেন ৫৫৪ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় যুক্তরাষ্ট্রে সংক্রমণ-প্রাণহানি বেড়েছে দ্বিগুণের অধিক। করোনাভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৪ কোটি ৪৬ লাখ ৫৪ হাজার ২৭০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ৭ লাখ ২২ হাজার ৩১ জন মারা গেছেন।

অন্যদিকে দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় শীর্ষে রয়েছে রাশিয়া। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মারা গেছেন ৮৮৩ জন এবং নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ২৫ হাজার ৭৮১ জন। এছাড়া মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৭৬ লাখ ১২ হাজার ৩১৭ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ১০ হাজার ৮০১ জনের।

লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল করোনায় আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃত্যুর সংখ্যায় তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১৯৯ জন এবং নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ১০ হাজার ৪২৫ জন। অপরদিকে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ২ কোটি ১৪ লাখ ৭৮ হাজার ৫৪৬ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ৯৮ হাজার ১৮৫ জনের।

এদিকে করোনায় আক্রান্তের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে প্রতিবেশী দেশ ভারত। তবে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যার তালিকায় দেশটির অবস্থান তৃতীয়। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২৫৪ জন এবং নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৬ হাজার ৭৬২ জন। দেশটিতে মোট আক্রান্ত ৩ কোটি ৩৮ লাখ ৫১ হাজার ৫ জন এবং মারা গেছেন ৪ লাখ ৪৯ হাজার ২৮৩ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় ইরানে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২৩৮ জন এবং নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৪ হাজার ৬০৭ জন। অন্যদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় মেক্সিকোতে মারা গেছেন ২১১ জন। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত উত্তর আমেরিকার এই দেশটিতে মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ৭৮ হাজার ৮০১ জনের।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর গত বছরের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে। এর আগে একই বছরের ২০ জানুয়ারি বিশ্বজুড়ে জরুরি পরিস্থিতি ঘোষণা করে সংস্থাটি।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর
২৪ ঘণ্টায় করোনায় ৪ জনের মৃত‌্যু

শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১

ডেঙ্গু: আরও ১২৩ জন হাসপাতালে

শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১




আজকের দর্পণ সিলেট ব্যুরো অফিস উদ্বোধন

প্রকাশিত:শুক্রবার ০১ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ অক্টোবর ২০২১ | ২০৩৫জন দেখেছেন
Image

সিলেট থেকে আমজাদ হোসাইন

দৈনিক আজকের দর্পণ সিলেট ব্যুরো অফিস নগরীর শাহজালাল (রঃ) মাজার সংলগ্ন ঝরনারপার এলাকায় হোটেল হলিল্যান্ড কমপ্লেক্সে শুক্রবার জুমআর নামাজের পর জমকালো অনুষ্ঠানের মাধ্যমে উদ্ভোধন করা হয়েছে। 

পত্রিকার মহাব্যবস্থাপক মোঃ রফিকুল ইসলামের সভাপতিতে এবং ব্যুরো প্রধান মুহাম্মদ আমজাদ হোসাইনের পরিচালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকবাল সিদ্দিকী।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, সংবাদপত্র মানুষের কল্যাণে কাজ করে। সেই  সাথে সমাজ পরিবর্তনে শক্তিশালী ভূমিকা রাখে। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ মানুষের হৃদয়কে নাড়া দেয়। বর্তমান কঠিন পরিস্থিতিতে আজকের দর্পণ চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে বাজারে এসেছে। সুতরাং যেতে হবে বহুদূর। তবে এ ক্ষেত্রে সংবাদপত্রের মালিকপক্ষকে আরো দায়িত্ববান হতে হবে। সাংবাদিকদের ন্যায্য দাবি ধাওয়া পূরণ ও সব রকম সুযোগ সুবিধা প্রদান করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, সমাজে যারা দুর্বৃত্ত আছে তাদের ক্ষমতা বেশি। দুর্বৃত্তদের মানুষ ভয় পেয়ে কথা বলতে পারে না। সংবাদপত্রে এসকল দুর্বৃত্তের পরিচয় তুলে ধরতে হবে। তাদেরকে শাস্তির আওতায় নিয়ে আসতে হবে। তখনই সমাজে সত্য প্রতিষ্ঠিত হবে। আগামীতে সংবাদপত্রের ভবিষ্যত ঝুঁকিপূর্ণ উল্লেখ করে তিনি বলেন, আজকের দর্পণ একটি গুরুত্বপূর্ণ পত্রিকা হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করবে বলে আমি বিশ্বাস করি। বিশেষ করে সিলেটে এ পত্রিকা দ্রুত জনপ্রিয়তা পাবে বলে আশাবাদ ব্যাক্ত করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর এডভোকেট সালমা সুলতানা, সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, পায়রা সমাজকল্যাণ সংঘের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান দুদু, হলিল্যান্ড নিউজ বিডি ডটকমের সম্পাদক আলহাজ্ব সালেহ আহমদ ও পায়রা সমাজকল্যাণ সংঘের সিনিয়র সহসভাপতি জাহাঙ্গীর আহমদ।

সভাপতির বক্তব্যে দৈনিক আজকের দর্পন এর মহাব্যবস্থাপক মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেন, সিলেটবাসীর দাবি দাওয়া পূরণে আজকের দর্পণ কাজ করে যাবে। সিলেটে আমরা প্রথম ব্যুরো অফিস দিয়ে যাত্রা শুরু করেছি। বিশ্বাস করি দেশের প্রতিটি এলাকার মানুষের হাতে পৌঁছাবে আজকের দর্পণ। এখানে হলুদ সাংবাদিকতা থাকবেনা। এটি হবে জনমানুষের দর্পণ। এজন্য তিনি সিলেটবাসীর সহযোগিতা কামনা করেন।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন দি ডেইলি ট্রাইবুনাল এর সিলেট ব্যুরো প্রধান রাজ্জাক হোসেন, আমার কাগজ সিলেটের ব্যুরো চীফ খালেদ আহমদ, সাংবাদিক আফতাব উদ্দিন, সিলেট প্রেসক্লাবের পাঠাগার ও প্রকাশনা সম্পাদক কবির আহমদ, দৈনিক জালালাবাদ এর চীফ রিপোর্টার আহবাব মোস্তফা খান, সাংবাদিক আমিরুল ইসলাম চৌধুরী এহিয়া, সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক পাঠাগার ও প্রকাশনা সম্পাদক খালেদ আহমদ, দৈনিক জালালাবাদের সিনিয়র রিপোর্টার মুহিবুর রহমান, সাংবাদিক গোলাম মর্তুজা বাচ্চু, আজকের দর্পণের হবিগঞ্জ প্রতিনিধি শরিফ চৌধুরী, সিলেট জেলা প্রতিনিধি আইয়ুব আলী, পায়রা সমাজকল্যাণ সংঘের যুগ্ন সম্পাদক মুছাদ্দিকুন নবী, সংস্কৃতিকর্মী মোঃ আনোয়ার হোসাইন, হলিল্যান্ড নিউজ বিডি ডটকমের নির্বাহী সম্পাদক নাহিদ আহমেদ সিদ্দিকী, দৈনিক সবুজ সিলেট এর স্টাফ ফটো সাংবাদিক করিম মিয়া, সিলেট বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের কন্ট্রাকটর মোঃ আইনুল হক, ভাই ভাই সেচ প্রকল্পের পরিচালক মহরম আলী সুমন, আজকের দর্পণের দক্ষিণ সুরমা প্রতিনিধি ইমন দাস, শিক্ষানুরাগী হারুনুর রশীদ, সাংবাদিক মোঃ নাছির হোসেন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আলতু মিয়া, রুহেল আহমদ মনি, ব্যবসায়ী রাকিব আহমদ, রায়হান আহমদ।


আরও খবর



দাদাগিরি সঞ্চালনা করবেন অঙ্কুশ

প্রকাশিত:বুধবার ১৩ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৩ অক্টোবর ২০২১ | ৫৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্রথম সঞ্চালনাতেই মাতিয়ে দিয়েছেন জি বাংলার ডান্স বাংলা ডান্স নাচের অনুষ্ঠান। সে সব ছাপিয়ে এ বার তিনি দাদাগিরির সঞ্চালক? সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের জায়গায়! জি ফাইভ থেকে পোস্ট হওয়া ছোট্ট ভিডিয়ো তেমনই দেখিয়েছে। সেখানে অঙ্কুশকে দাদার সংলাপ বলতে শোনা গিয়েছে। এবং অনায়াসে তিনি বলেওছেন। অঙ্কুশকে সঞ্চালনা করতে দেখে চোখ ছানাবড়া অংশগ্রহনকারী পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, অনির্বাণ চক্রবর্তীর।

আচমকাই অভিনেতার পিঠে আলতো ছোঁয়া। হাসিমুখে এসে দাঁড়িয়েছেন সঞ্চালক সৌরভ। তাঁর বক্তব্য, অঙ্কুশ আমার ছোট ভাইয়ের মতোই। দাদাগিরিকে নতুন মাত্রায় পৌঁছে দেবে আজকে। তার পরেই মহারাজের বিনীত প্রশ্ন এফআইআর ছবির অভ্রজিৎকে, আমি সঞ্চালকের জায়গায় দাঁড়াব? না, প্রতিযোগীদের পোডিয়ামে যাব?

তখনই ফাঁস সমস্ত রহস্য। অঙ্কুশ জোড়হাতে দাদাকে বলেছেন, দাদা তুমি অলরাউন্ডার। এবং সেরা সঞ্চালক। যদি কোনও দিন ভাইগিরি বলে কোনও অনুষ্ঠান হয়, আমি চেষ্টা করব। দাদাগিরি তোমার। সৌরভ-অঙ্কুশের কথোপকথন, তাঁদের রসিকতায় জমে গিয়েছে প্রশ্নোত্তরের অনুষ্ঠান। দুই তারকার কথা শুনে চওড়া হাসি প্রতিযোগী এবং উপস্থিত সবার মুখে। অনুরাগী-দর্শকেরাও ঝলক দেখে বুঝেছেন, এটি আসলে আগামী অনুষ্ঠানের প্রচার ভিডিয়ো। একই সঙ্গে স্বস্তির শ্বাসও ফেলেছেন। মন্তব্য বিভাগে তার ছাপ স্পষ্ট। সবাই এক বাক্যে অঙ্কুশের বলা কথার পুনরাবৃত্তি ঘটিয়েছেন, খাঁটি কথা। 


আরও খবর