আজঃ শনিবার ০৬ মার্চ ২০২১
শিরোনাম

এবার স্বস্তিকা-শ্রীলেখার পথে হাঁটলেন রাইমা সেন

প্রকাশিত:শনিবার ২৩ জানুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১৩৬জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ওপার বাংলার আলোচিত অভিনেত্রীদের মধ্যে অন্যতম স্বস্তিকা মুখার্জী ও শ্রীলেখা মিত্র। বিভিন্ন ইস্যুতে ঠোঁটকাটা মন্তব্য আর বোল্ড অবতারে ছবি শেয়ার করে দুজনেই বেশ আলোচিত। রিল লাইফ এবং রিয়েল লাইফেও সাহসী এ দুই অভিনেত্রী।

কিছুদিন আগে দিনের বোল্ড ছবি শেয়ার করে শ্রীলেখা বলেছিলেন, যা দেখার দেখুন, নোংরামি করবেন না। তারপর স্বস্তিকাও হেঁটেছেন শ্রীলেখার দেখানো পথে। বোল্ড অবতারের ছবি শেয়র করে এ অভিনেত্রী লিখেছিলেন, তোমার থাকলে তুমিও দেখাও।  স্বস্তিকা এবং শ্রীলেখা নিজেদের শরীরের একটি অংশ বেশ উন্মুক্ত করে ছবি শেয়ার করেছিলেন।

এবার স্বস্তিকা-শ্রীলেখার পথে হাঁটলেন আরেক সুন্দরী অভিনেত্রী রাইমা সেন। নিজের ইনস্টাগ্রামে রীতিমত উত্তাপ ছড়িয়েছেন তিনি। কালো ডিপ নেক স্যুটের সঙ্গে ঠোঁট গাঢ় লিপস্টিক- সব মিলিয়ে বেশ বোল্ড লাগছিল রাইমাকে। তবে রাইমা কোনো লিখিত বার্তা দেননি।

নেটিজেনরা মনে করছেন, শরীরের একাংশ দেখানোর ক্ষেত্রে আপত্তি নেই রাইমার। তাই স্বস্তিকা এবং শ্রীলেখার মতো করেই উন্মুক্ত করেছেন যতটুকু করা সম্ভব। তবে রাইমা এর আগেও স্বল্প পোশাকে একাধিক ছবি শেয়ার করেছিলেন। যা নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা হয়েছিল বহুবার।

Share

আরও খবর



থিফ গার্ড শনাক্ত করবে চুরি হওয়া মোবাইলের অবস্থান

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৩৫২জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মোবাইল চুরি করে আর পার পাবে না চোর। দেশের যে কোন জায়গায় চুরি যাওয়া মোবাইলের অবস্থান শনাক্ত করা যাবে নিমিষেই। আর এই অসম্ভবকে সম্ভব করেছেন সাইদুর রহমান নামে এক প্রযুক্তি উদ্যোক্তা। নিজের মোবাইল চুরি হওয়ার আক্ষেপ থেকে মোবাইল অ্যাপ 'থিফ গার্ড' বানিয়ে ফেলেছেন তিনি। অ্যাপটি ব্যবহারে বছরে গ্রাহককে দিতে হবে ৩৫০ টাকা। প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরাও বলছেন, অ্যাপটির ফিচারগুলো আন্তর্জাতিক মানের। শিগগিরই বাজারে আসছে অ্যাপটি।

রাস্তায় চলতে চলতে হুট করে আপনার অ্যান্ড্রয়েট মোবাইল ফোনটি চুরি হয়ে গেল। সাথে খোয়া গেল নিত্যসঙ্গী মোবাইলের সব ব্যক্তিগত তথ্য। এমন পরিস্থিতিতে আপনি কি করবেন? আইনি ব্যবস্থা নিয়ে হন্যে হয়ে খুঁজতে খুঁজতে হয়তো এক সময় মোবাইল ফিরে পাবার আশাই ছেড়ে দিলেন।

কিন্তু নিজের জীবনে এমন ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়ে সমাধান খুঁজতে গিয়ে সাইদুর রহমান নামে এক উদ্যোক্তা কয়েকজনকে সাথে নিয়ে তৈরি করে ফেললেন থিফ গার্ড নামে মোবাইল অ্যাপ।

সফটালোজির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. সাইদুর রহমান বলেন, আমরা ওই ফোনে অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় ছিল। সেটা আমাকে খুবই কষ্ট দিয়েছে।

১৩ টি ফিচারের এই অ্যাপ বাজারে আনছে আইটি কোম্পানি সফটালোজি। থিফগার্ড ডট কম থেকে ডাউনলোড করে শুরুতে ইউজার নাম, মোবাইল নম্বর, ইমেইল, পাসওয়ার্ড দিয়ে অ্যাপ চালু করতে হবে। যে কেউ আপনার মোবাইলে ভুল পাসওয়ার্ড দিতে চাইলেই বেজে উঠবে অ্যালার্ম। চাইলেই কেউ সিম খুলতে বা মোবাইল বন্ধ করতে পারবে না। উল্টো মোবাইল ফোনটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে ছবি ও লোকেশন পাঠিয়ে দিবে আপনার ইমেইলে।

সফটালজির পরিচালক জাকির হোসেন বলেন, এটি এখন পরীক্ষামূলক পর্যায়ে। আশা করি, সব ধরনের সমস্যা অতিক্রম করে আমরা এগিয়ে যেতে পারবো।

প্রথমিকভাবে অ্যান্ড্রয়েট ৭ থেকে ১২ ভার্সনে কাজ করবে অ্যাপটি। ধীরে ধীরে আইফোনে ব্যবহার উপযোগী করতে চান উদ্যোক্তারা। এ জন্য কাজ করছে একটি টিম। ব্যবহারকারীদের সমস্যা সমাধানে রয়েছে কল সেন্টার।

Share

আরও খবর



তাড়াইলে একই রশিতে ঝুল‌ছিল মা-মে‌য়ের লাশ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১০৩জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কি‌শোরগ‌ঞ্জের তাড়াই‌লে নি‌জের বসতঘ‌রে একই রশিতে ঝুলন্ত অবস্থায় মা ও মেয়ে মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ধারণা করা হচ্ছে, পারিবারিক কলহের জেরে তারা আত্মহত্যা করেছেন।

নিহতরা হলেন- উপজেলার দামিহা ইউনিয়নের রাহেলা গ্রামের উমায়ের মিয়ার স্ত্রী শাহনাজ (২৬) ও তার মেয়ে প্রিয়তী (১২)।

সোমবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দিনগত রাতে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার দিনগত রাতে নিজের বসতঘরে ধর্নায় একই রশিতে ঝুলন্ত অবস্থায় মা ও মেয়ের মরদেহ দেখতে পান স্থানীয় লোকজন। পরে খবর পেয়ে রাত ১০টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাদের মরদেহ উদ্ধার করে। ধারণা করা হচ্ছে, গৃহবধূ শাহনাজের স্বামী উমায়ের মিয়া দ্বিতীয় বিয়ে করায় এ আত্মহত্যার ঘটনা ঘটছে।

স্থানীয় লোকজনের বরাত দিয়ে দামিহা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. হুমায়ূন কবীর ভূঞা বাংলানিউজকে জানান, মা ও মেয়ের আত্মহত্যার বিষয়টি শুনেছি। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করতে সেখানে গেছে।

তাড়াইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মুজিবুর রহমান জানান, মা ও মেয়ের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Share

আরও খবর



মেক্সিকোতে বন্দুকধারীদের গুলিতে পার্টিতে আসা ১১ জন নিহত

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৮৪জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মেক্সিকোর পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য জালিস্কোতে পিকআপ ট্রাকে করে আসা অজ্ঞাত বন্দুকধারীদের গুলিতে পার্টিতে আসা অন্তত ১১ জন নিহত হয়েছে। শনিবারের এ হামলার ঘটনায় এক নারী ও এক তরুণ আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। খবর ডয়েচে ভেলের।

রাজ্যটির সরকারি কৌঁসুলির দপ্তর জানিয়েছে, রাজ্যের প্রধান শহর গুয়াদালাহারার তোনালা উপশহরে একটি বাড়ির বাইরে গুলির জখমসহ ১০ জনকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায় আর ভিতরে আরেকজন পুরুষের মৃতদেহ পাওয়া যায়।

আহত নারী ও তরুণকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয়েছে। তাদের আঘাত তেমন গুরুতর নয় বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে দপ্তরটি। 

প্রশান্ত মহাসাগর তীরবর্তী এই জালিস্কো রাজ্য মেক্সিকোর মাদক সংক্রান্ত যুদ্ধের কেন্দ্রস্থল। দেশটির শক্তিশালী মাদক অপরাধী চক্র জালিস্কো নিউ জেনারেশন কার্টেলের (সিজেএনজি) উৎপত্তি এই রাজ্যটিতেই।

গত ডিসেম্বরে রাজ্যটির সাবেক গভর্নর আরিস্তোতেলেস সানদোভালকে এখানকার সৈকত শহর পুয়ের্তো ভাইয়ার্তার একটি রেস্তোরাঁয় গুলি করে হত্যা করা হয়েছিল।

প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ ওব্রাদর ২০১৮ সালের শেষ দিকে মেক্সিকোর দায়িত্বভার গ্রহণ করে সহিংসতা নিয়ন্ত্রণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, কিন্তু তারপর থেকে নির্বিচার হত্যাকাণ্ড ও বছরে প্রায় লাখো মানুষ হত্যার মতো ঘটনা নিয়ন্ত্রণে আনতে হিমশিম খাচ্ছেন তিনি।

নিউজ ট্যাগ: মেক্সিকো
Share

আরও খবর



সোফা কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে মদিনায় ৬ বাংলাদেশির মৃত্যু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৯৪জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সৌদি আরবের মদিনায় একটি সোফা কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে ছয় বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। স্থানীয় সময় বুধবার দিবাগত রাতে এ অগ্নিকাণ্ড ঘটে। সৌদিতে বাংলাদেশ দূতাবাসের লিগ্যাল অ্যাসিস্ট্যান্ট মোহাম্মদ মহসীন হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিহত ছয়জনের মধ্যে মিজান ও আরাফাত নামের দুই ভাই রয়েছেন। তাঁরা চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার দক্ষিণ সুখছড়ী চাম্বিরপাড়া এলাকার সুলতান আহমদের ছেলে বলে জানা গেছে। বাকিরা অতিমাত্রায় দগ্ধ হওয়ায় এখন পর্যন্ত তাঁদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

এদিকে, কীভাবে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে, তা এখনো জানাতে পারেনি স্থানীয় পুলিশ। নিহত ব্যক্তিদের মরদেহ শনাক্তে সার্বক্ষণিক কাজ চলছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ দূতাবাস।

নিউজ ট্যাগ: মদিনা নগরী
Share

আরও খবর



রাঙ্গামাটিতে ৩ হাজার গাঁজা গাছের চারাসহ আটক-১

প্রকাশিত:বুধবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১০৮জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাঙ্গামাটি থেকে শহিদুল ইসলাম হৃদয়

রাঙ্গামাটির দূর্গম পাহাড়ি অঞ্চলে নেশাজাতীয় দ্রব্যাদি উৎপাদনের দিকে ধাবিত হচ্ছে স্থানীয় পাহাড়িদের একটি অংশ। আঞ্চলিকদলগুলোর সশস্ত্র তৎপরতার রসদ জোগানোর লক্ষ্যে স্থানীয় পাহাড়ি বাসিন্দাদের দিয়ে পতিত পাহাড়ি জমিতে গাঁজা থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরনের মাদক দ্রব্যাদির চাষাবাদ করানো হচ্ছে।

পার্বত্য চট্টগ্রামের বান্দরবান ও খাগড়াছড়ির কিছু অংশে এতোদিন এসব কর্মকাণ্ড চলে আসলেও সম্প্রতি পার্বত্য রাঙ্গামাটির বিভিন্ন দূর্গমাঞ্চলেও এই ধরনের কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে আসছে আঞ্চলিকদলগুলোর মদদপুষ্ট একটি চক্র।

পাহাড়ে তৈরিকৃত এসব মাদক ঢাকা-চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন এলাকার মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে বিক্রয় করা হয়। সম্প্রতি স্থানীয় সচেতন বাসিন্দাদের কাছ থেকে বিষয়টি নজরে আসে বিশেষায়িত এলিট ফোর্স র‌্যাব-৭ এর উদ্বর্তন কর্তৃপক্ষের।

সংস্থাটির মিডিয়া উইং কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, গোপন সংবাদের মাধ্যমে র‌্যাব-৭ চট্টগ্রাম কর্তৃপক্ষ জানতে পারে যে, পার্বত্য রাঙ্গামাটি জেলার কাউখালী থানাধীন বর্মাছড়ি মুখপাড়া এলাকায় কতিপয় ব্যক্তি আবাদী জমিতে নেশাজাতীয় মাদকদ্রব্য গাঁজা গাছ চাষাবাদ করছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার (০৯ ফেব্রুয়ারি) র‌্যাব-৭ এর একটি চৌকষ আভিযানিক দল পার্বত্য রাঙামাটি জেলার কাউখালী থানাধীন ফটিকছড়ি ইউপির বর্মাছড়ি মুখপাড়া এলাকার ফটিকছড়ি খালের পাশে পৌঁছা মাত্রই  র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে র‌্যাব সদস্যরা ধাওয়া করে আসামি ডালিম চাকমা (৪০), পিতা- মনমোহন চাকমা, সাং-বর্মাছড়ি মুখপাড়া, থানা- কাউখালী, জেলা- রাঙামাটিকে আটক করে।

পরবর্তীতে উপস্থিত সাক্ষীদের সম্মুখে আটককৃত আসামিকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে তার দেখানো ও শনাক্তমতে তারই চাষকৃত ০৩ টি আবাদি জমিতে (আনুমানিক ০১ বিঘা) নেশাজাতীয় মাদকদ্রব্য গাঁজা গাছ চাষাবাদ অবস্থায় পাওয়া যায়। পরবর্তীতে উক্ত আবাদী জমিতে অভিযান পরিচালনা করে আনুমানিক ০৩ হাজার এর অধিক গাঁজার গাছ জব্দ করা হয়। জব্দকৃত গাঁজা গাছ হতে কিছু আলামত রেখে অবশিষ্ট গাঁজার গাছ ধ্বংস করা হয়। আটককৃত আসামীকে কাউখালী থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে এবং তার বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানাগেছে।

র‌্যাব-৭ এর সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ মাশকুর রহমান জানিয়েছেন, সমতল ভূমির পাশাপাশি পার্বত্য অঞ্চলেও সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতারের লক্ষে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম। এই সংস্থাটি প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সমাজের বিভিন্ন অপরাধ এর উৎস উদ্ঘাটন, অপরাধীদের গ্রেফতারসহ আইন শৃঙ্খলার সামগ্রিক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। অস্ত্রধারী সস্ত্রাসী, ডাকাত, ধর্ষক, চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী, খুনি, বিপুল পরিমাণ অবৈধ অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার, মাদক উদ্ধার, ছিনতাইকারী, অপহরণকারী ও প্রতারকদের গ্রেফতারের ক্ষেত্রে জিরো টলারেন্স নীতি অবলম্বন করায় সাধারণ জনগনের মনে আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ান র‌্যাব।

Share

আরও খবর