আজঃ বুধবার ০৪ আগস্ট ২০২১
শিরোনাম

ঈদের নামাজ চলাকালীন মালির প্রেসিডেন্টকে হত্যা চেষ্টা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ জুলাই ২০21 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ জুলাই ২০21 | ৭৩জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আজ ঈদুল আজহা পালিত হচ্ছে। তবে সব জায়গা নির্বিঘ্নে ঈদ পালিত হচ্ছে না। আফগানিস্তানে প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের বাইরে রকেট হামলার পর এবার মালির অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট আসসিমি গোয়টাও হামলার শিকার হয়েছেন বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে।

বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, গোয়টার ওপর হামলা চালিয়েছেন দুজন সশস্ত্র ব্যক্তি। তাদের মধ্যে একজন ছুরি দিয়ে তার ওপর হামলা চালিয়েছে। তারা বলছে, মঙ্গলবার ঈদের নামাজের সময় রাজধানী বামাকোয় গ্রেট মসজিদে এই হামলার ঘটনা ঘটে। হামলার পর পর গোয়টাকে ঘটনাস্থল থেকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

ওই হামলায় তিনি আহত হয়েছেন কিনা তা স্পষ্ট নয়। মালির ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রী মামাদৌ কোনে বলেছেন, একজন ব্যক্তি একটি ছুরি দিয়ে প্রেসিডেন্টকে হত্যার চেষ্টা করেছেন। কিন্তু তাকে প্রতিহত করা হয়েছে। গ্রেট মসজিদের পরিচালক লাটুস তৌরে বলেছেন, হামলাকারী প্রেসিডেন্টকে ক্ষতি করতে চাইলেও অন্য একজন আহত হয়েছে।

গত মাসেই প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেন ৩৭ বছর বয়সী গোয়টা। গত নয় মাসে এটা তার দ্বিতীয়বার ক্ষমতা দখল। এর আগে গত বছরের আগস্টে প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম বৌবাকারকে হটিয়ে ক্ষমতা দখল করেছিলেন তিনি।


আরও খবর
ভারতে আবারও বেড়েছে মৃত্যু

বুধবার ০৪ আগস্ট ২০২১




সর্বাত্মক লকডাউন বাড়বে কিনা সিদ্ধান্ত আজ

প্রকাশিত:সোমবার ১২ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ জুলাই ২০২১ | ১২৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় ১ জুলাই থেকে সাত দিনের জন্য কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে সরকার। সংক্রমণ পরিস্থিতি আরও বেড়ে গেলে আরেক সপ্তাহের জন্য লকডাউন বাড়ানো হয়। তবে রবিবার (১১ জুলাই) দেশের আকাশে চাঁদ উঠায় আগামী ২১ জুলাই পালিত হবে পবিত্র ঈদুল আজহা। ঈদকে সামনে রেখে লকডাউন আবারও বাড়ানো হবে কিনা বিষয়টি সামনে এসেছে।

তবে এ বিষয়ে আজ সোমবার (১২ জুলাই) করোনা সংক্রান্ত কারিগরি পরামর্শক কমিটির বৈঠকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে বলে জানা গেছে। সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ১৩ জুলাই বিধিনিষেধ জারি করা হবে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

রবিবার (১১ জুলাই) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে আলাপকালে তিনি এ তথ্য জানান।

চলমান লকডাউন আগামী ১৪ জুলাই শেষ হলে এরপর কি হবে এমন প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, আমরা সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি। প্রতিদিনই করোনো সংক্রমণ ভয়াবহ রূপ ধারণ করছে। এমন পরিস্থিতিতে করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ এবং যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে পশুর হাট চালুর বিষয়টি সরকারের কাছে চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে আমার সুপরিকল্পিতভাবে সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

এর আগে দুপুরে সচিবালয়ে নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, করোনা সংক্রান্ত কারিগরি পরামর্শক কমিটির পরামর্শ পেলে চলমান বিধিনিষেধ আরও বাড়নো হবে।


আরও খবর



২৩ দফা নির্দেশনা দিয়ে কঠোর লকডাউন শুরু

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৩ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ জুলাই ২০২১ | ২০৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঈদুল আজহার সময় মানুষের চলাচল ও পশুরহাটে কেনাবেচার বিষয় বিবেচনায় নিয়ে ১৪ জুলাই মধ্যরাত থেকে ২৩ জুলাই সকাল ৬টা পর্যন্ত লকডাউন শিথিল করেছিল সরকার। এ সময়সীমা শেষ হওয়ার পর আজ সকাল ৬টা থেকে শুরু হলো কঠোর লকডাউন। এ লকডাউন বহাল থাকবে ৫ আগস্ট মধ্যরাত পর্যন্ত।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছিল ঈদের আগেই। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানিয়েছেন, যত দিন ভ্যাকসিন দেওয়া না হয় তত দিন মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। ঈদের পরের লকডাউন কঠোর থেকে কঠোরতর হবে।

আগের লকডাউনে গার্মেন্টস খোলা থাকলেও এবার সবকিছু বন্ধ। কঠোর লকডাউনের আওতায় আসবে সারাদেশ। বন্ধ থাকবে গার্মেন্টস, শিল্প-কলকারখানাসহ সরকারি-বেসরকারি সব প্রতিষ্ঠান।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের জারি করা প্রজ্ঞাপনে ২৩ দফা নির্দেশনা দিয়ে আজ ভোর ৬টা থেকে ৫ আগস্ট রাত ১২টা পর্যন্ত বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়।

২৩ দফা নির্দেশনা

১. ঈদের পর ২৩ জুলাই থেকে সব সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি অফিসসমূহ বন্ধ থাকবে।

২. সড়ক, রেল ও নৌ-পথে গণপরিবহণ (অভ্যন্তরীণ বিমানসহ) ও সব যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে।

৩. শপিংমল/মার্কেটসহ সব দোকানপাট বন্ধ থাকবে।

৪. সব পর্যটনকেন্দ্র, রিসোর্ট, কমিউনিটি সেন্টার ও বিনোদনকেন্দ্র বন্ধ থাকবে।

৫. সব শিল্প-কলকারখানা বন্ধ থাকবে।

৬. জনসমাবেশ হয় এ ধরনের সামাজিক অনুষ্ঠান (বিবাহোত্তর অনুষ্ঠান, ওয়ালিমা), জন্মদিন, পিকনিক, পার্টি ইত্যাদি বন্ধ থাকবে।

৭. বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট আদালতসমূহের বিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা জারি করবে।

৮ ব্যাংকিং/বীমা/আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ ব্যাংক/আর্থিকপ্রতিষ্ঠান বিভাগ প্রয়োজনীয় নির্দেশনা জারি করবে।

৯. সরকারি কর্মচারীরা নিজ নিজ কর্মস্থলে অবস্থান করবেন এবং দাপ্তরিক কাজসমূহ ভার্চুয়ালি (ই-নথি, ই-টেন্ডারিং, ই-মেইল, এসএমএস, হোয়াটসঅ্যাপসহ অন্যান্য মাধ্যম) সম্পন্ন করবেন।

১০. আইনশৃঙ্খলা এবং জরুরি পরিসেবা, যেমন-কৃষি পণ্য ও উপকরণ (সার, বীজ, কীটনাশক, কৃষি যন্ত্রপাতি ইত্যাদি), খাদ্যশস্য ও খাদ্যদ্রব্য পরিবহণ/বিক্রয়, ত্রাণ বিতরণ, স্বাস্থ্য সেবা, কোডিড-১৯ টিকা প্রদান, জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) প্রদান কার্যক্রম, রাজস্ব আদায় সম্পর্কিত কার্যাবলি, বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস/জ্বালানি, ফায়ার সার্ভিস, টেলিফোন ও ইন্টারনেট (সরকারি-বেসরকারি), গণমাধ্যম (প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া), বেসরকারি নিরাপত্তা ব্যবস্থা, ভাক সেবা, ব্যাংক, ভিসা সংক্রান্ত কার্যক্রম, সিটি কর্পোরেশন/পৌরসভা (পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা, সড়কের বাতি ব্যবস্থাপনা ইত্যাদি কার্যক্রম), সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি, ফার্মেসি ও ফার্মাসিউটিক্যালসসহ অন্যান্য জরুরি/অত্যাবশাকীয় পণ্য ও সেবার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অফিসসমূহের কর্মচারী ও যানবাহন প্রাতিষ্ঠানিক পরিচয়পত্র প্রদর্শন সাপেক্ষে যাতায়াত করতে পারবে।

১১. বিভাগীয়, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার কার্যালয় খোলা রাখার বিষয়ে অর্থ বিভাগ প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করবে।

১২. জরুরি পণ্য পরিবহনে নিয়োজিত ট্রাক/লরি/কাভার্ডভ্যান/নৌযান/পণ্যবাহী রেল/ফেরি এ নিষেধাজ্ঞার আওতাবহির্ভূত থাকবে।

১৩. বন্দরসমুহ (বিমান, সমুদ্র, নৌ ও স্থল) এবং তৎসংশ্লিষ্ট অফিসসমূহ এ নিষেধাজ্ঞার আওতাবহির্ভূত থাকবে।

১৪. কাঁচাবাজার এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্রয়-বিক্রয় করা যাবে। সংশ্লিষ্ট বাণিজ্য সংগঠন/বাজার কর্তৃপক্ষ স্থানীয় প্রশাসন বিষয়টি নিশ্চিত করবে।

১৫. অতি জরুরি প্রয়োজন ব্যতীত (ওষুধ ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি ক্রয়, চিকিৎসা সেবা, মৃতদেহ দাফন/সৎকার ইত্যাদি) কোনোভাবেই বাড়ির বাইরে বের হওয়া যাবে না। নির্দেশনা অমান্যকারীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

১৬. টিকা কার্ড প্রদর্শন সাপেক্ষে টিকা গ্রহণের জন্য যাতায়াত করা যাবে।

১৭. খাবারের দোকান, হোটেল-রেস্তোরাঁ সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খাবার বিক্রয় (অনলাইন টেকঅ্যাওয়ে) করতে পারবে।

১৮. আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালু থাকবে এবং বিদেশগামী যাত্রীরা তাদের আন্তর্জাতিক ভ্রমণের টিকেট/প্রমাণ প্রদর্শন করে গাড়ি ব্যবহার করে যাতায়াত করতে পারবেন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে মসজিদে নামাজের বিষয়ে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় নির্দেশনা দেবে।

২০ আর্মি ইন এইড টু সিভিল পাওয়ার বিধানের আওতায় মাঠ পর্যায়ে কার্যকর টহল নিশ্চিত করার জন্য সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ প্রয়োজনীয় সংখ্যক সেনা মোতায়েন করবে। জেলা ম্যাজিস্ট্রেট স্থানীয় সেনা কমান্ডারের সঙ্গে যোগাযোগ করে বিষয়টি নিশ্চিত করবেন।

২১. জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জেলা পর্যায়ে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নিয়ে সমন্বয় সভা করে সেনাবাহিনী, বিজিবি/কোস্টগার্ড, পুলিশ, র্যাব ও আনসার নিয়োগ ও টহলের অধিক্ষেত্র, পদ্ধতি ও সময় নির্ধারণ করবেন। সে সঙ্গে স্থানীয়ভাবে বিশেষ কোনো কার্যক্রমের প্রয়োজন হলে সে বিষয়ে পদক্ষেপ নিবেন। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়/বিভাগসমূহ এ বিষয়ে মাঠ পর্যায়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করবে।

২২. জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় মাঠ পর্যায়ে প্রয়োজনীয় সংখ্যক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের বিষয়টি নিশ্চিত করবে।

২৩. সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল) আইন, ২০১৮-এর আওতায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ব্যবস্থা নিতে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ বাহিনীকে আইনানুগ কার্যক্রম গ্রহণের প্রয়োজনীয় ক্ষমতা প্রদান করবেন।




আরও খবর



একদিনে শতাধিক ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ জুলাই ২০২১ | ৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজধানীতে গত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ১০৪ জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে। এটি চলতি বছরে একদিনে সর্বোচ্চ সংখ্যক রোগী হাসপাতালে ভর্তির রেকর্ড। আক্রান্তদের সবাই ঢাকার বাসিন্দা। এর আগে, একদিনে সর্বোচ্চ ৮৫ জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছিল ২৩ জুলাই।

শনিবার (২৪ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের স্বাস্থ্য তথ্য ইউনিটের (এমআইএস) সহকারী পরিচালক ও হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন অ্যান্ড কন্ট্রোল রুমের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ডা. কামরুল কিবরিয়া স্বাক্ষরিত ডেঙ্গু সংক্রান্ত প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, সারাদেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে এখন পর্যন্ত ৪২২ জন রোগী ভর্তি আছে। এর মধ্যে ঢাকাতেই আছে ৪১৯ জন, আর বাকি ৩ জন ঢাকার বাইরে অন্য বিভাগে। এই বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ২৪ জুলাই পর্যন্ত ১ হাজার ৫৭৪ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন এবং সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১ হাজার ১৪৯ জন। জানুয়ারিতে ৩২ জন, ফেব্রুয়ারিতে ৯ জন, মার্চে ১৩ জন, এপ্রিলে তিনজন, মে মাসে ৪৩ জন, জুনে ২৭২ জন এবং ২৪ জুলাই পর্যন্ত ১ হাজার ২০২ জন রোগী ভর্তি হন।

চলতি বছর এখন পর্যন্ত ডেঙ্গুতে ৩ জনের মৃত্যুর তথ্য পর্যালোচনার জন্য রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানে (আইইডিসিআর) পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।


আরও খবর



দেশে পৌঁছালো ‘অক্সিজেন এক্সপ্রেস’র তৃতীয় চালান

প্রকাশিত:শনিবার ৩১ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ৩১ জুলাই ২০২১ | ৬২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভারত থেকে দেশে এলো ২০০ টন তরল অক্সিজেনবাহী ট্রেনের তৃতীয় চালান। করোনা মহামারিতে দেশে অক্সিজেন সংকট মোকাবেলায় শুক্রবার (৩০) দিনগত রাত ১টা ২০ মিনিটে ইন্দ্রো বাংলা অক্সিজেন এক্সপ্রেস নামক ট্রেন ১০টি অক্সিজেনবাহী কন্টেইনার নিয়ে সিরাজগঞ্জের বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম রেল স্টেশনে এসে পৌঁছায়।

আজ শনিবার (৩১ জুলাই) সকাল ৭টা থেকে ট্রেনের কন্টেইনার থেকে অক্সিজেন লরির কন্টেইনারে অক্সিজেন খালাস কার্যক্রম শুরু হয়। লিনডে বাংলাদেশ নামক অক্সিজেন আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান ৩ ধাপে এ নিয়ে রেলপথে ভারত থেকে ৬শ মেট্রিক টন তরল অক্সিজেন আমদানি করল।

লিনডে বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষ জানায়, ট্রেনের কন্টেইনার থেকে অক্সিজেনবাহী লরিতে অক্সিজেন খালাস শুরু হয়েছে। ট্রেন থেকে লরিতে করে তরল অক্সিজেন খালাস করে সড়ক পথে লিনডের নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ কারখানায় নিয়ে যাওয়া হবে। এরপর প্রক্রিয়াজাত করে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে সরবরাহ করা হবে।

বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার ইসমাইল হোসেন জানান, তৃতীয়বারের মতো অক্সিজেনবাহী ট্রেন ইন্দ্রো বাংলা অক্সিজেন এক্সপ্রেস ট্রেন রাত ১টা ২০ মিনিটে এসে পৌঁছায়। বিকেলে খালাস শেষে ট্রেনটি আবার ভারতে ফেরত যাবে।

এর আগে ২৫ জুলাই ও ২৮ জুলাই একই ট্রেনে ২০০ মেট্রিক টন করে অক্সিজেন নিয়ে দেশে আসে অক্সিজেন এক্সপ্রেস। এনিয়ে ভারত থেকে তিনটি চালানে মোট ৬০০ মেট্রিক টন অক্সিজেন আসলো বাংলাদেশে।



আরও খবর



কাউন্টার বন্ধ, অনলাইনেও মিলছে না ট্রেনের টিকিট

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৪ জুলাই ২০২১ | ৯৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

লকডাউন শিথিলের ঘোষণার পর সারাদেশে বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) থেকে ৩৮টি আন্তঃনগর, ১৯টি মেইল ও কমিউটার ট্রেন চলাচল করবে বলে জানায় বাংলাদেশ রেলওয়ে। রেলওয়ের এর পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এবার টিকিট শুধু অনলাইনে পাওয়া যাবে কাউন্টারে বিক্রি করা হবে না।

মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) বিকেল থেকে অনলাইনে টিকিট পাওয়া যাবে এমন তথ্য জানানো হয়েছিল। কিন্তু বার বার চেষ্টা করেও যাত্রীরা অনলাইনে টিকিট সংগ্রহ করতে পারেননি। মঙ্গলবার রাতে রেলওয়ের পক্ষ থেকে আবার বলা হয়, বুধবার (১৪ জুলাই) সকাল ৮টা থেকে অনলাইনে টিকিট পাওয়া যাবে। অনেক টিকেট প্রত্যাশী আজ সকাল ৮টা থেকে বার বার চেষ্টা করেও টিকিট সংগ্রহ করতে পারছেন না বলে অভিযোগ করেছেন।

ভুক্তভোগী ফহিম জানান, মঙ্গলবার বিকাল ৫টার পর থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত টিকিটের জন্য নির্ধারিত ওয়েবসাইট ও মোবাইল অ্যাপসে প্রবেশের পর নো ট্রেন ফাউন্ড দেখতে পান। সন্ধ্যা ৭টার পর ওয়েবসাইট ও মোবাইল অ্যাপসে গ্রাহকরা প্রবেশ করতে পারছিলেন না। এদিকে রাত পৌনে ৮টার দিকে ওয়েবসাইট ও মোবাইল অ্যাপসে প্রবেশ করা সম্ভব হলেও নো ট্রেন ফাউন্ড লেখা দেখতে পান টিকিট প্রত্যাশী গ্রাহকরা। আরেক ভুক্তভোগী জানান, বুধবার (১৪ জুলাই) সকাল ৮টা থেকে চেষ্টা করেও ওয়েবসাইট ও মোবাইল অ্যাপসে প্রবেশ করতে পারেননি।

এর আগে, রেলপথ মন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, ঈদকে সামনে আগামী ১৫ জুলাই থেকে সকল স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখে ২২ জুলাই পর্যন্ত ট্রেন চলাচল করবে। এক্ষেত্রে টিকেট শুধুমাত্র অনলাইনে পাওয়া যাবে। কাউন্টারে কোন টিকেট বিক্রি হবে না।

আরও খবর